চতুর্থ শ্রেণির বাংলা পাখির জগৎ অনুশীলনী, অতিরিক্ত ও মডেল টেস্ট প্রশ্ন উত্তর

You are currently viewing চতুর্থ শ্রেণির বাংলা পাখির জগৎ অনুশীলনী, অতিরিক্ত ও মডেল টেস্ট প্রশ্ন উত্তর

পাখির জগৎ

অনুশীলনীর প্রশ্ন ও উত্তর

১. শব্দগুলো পাঠ থেকে খুঁজে বের করি। অর্থ বলি।
বিচরণ চমৎকার পরিবেশ ঝুঁটি নাশ জগৎ
উত্তর :
শব্দ অর্থ
বিচরণ – বেড়ানো বা ঘোরাফেরা করা।
চমৎকার – সুন্দর, মনোহর।
পরিবেশ – চারপাশের অবস্থা।
ঝুঁটি – শীর্ষস্থান, খোপা।
নাশ – ধ্বংস, নষ্ট, ক্ষয়।
জগৎ – বিশ্ব, ভুবন।

২. ঘরের ভিতরের শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি করি।
উপকারী লোকালয় পরিবেশ কীটপতঙ্গ
ক. নানা ফুলের মধু ও ………… পাখিদের প্রিয় খাবার।
খ. চড়–ই পাখি ………… থাকতেই বেশি পছন্দ করে।
গ. আমাদের ………… রক্ষার প্রতি সচেতন হওয়া উচিত।
ঘ. পাখিরা মানুষের বন্ধু, এরা অনেক …………।
উত্তর :
ক. নানা ফুলের মধু ও কীটপতঙ্গ পাখিদের প্রিয় খাবার।
খ. চড়–ই পাখি লোকালয়ে থাকতেই বেশি পছন্দ করে।
গ. আমাদের পরিবেশ রক্ষার প্রতি সচেতন হওয়া উচিত।
ঘ. পাখিরা মানুষের বন্ধু, এরা অনেক উপকারী।

৩. যুক্তবর্ণগুলো দেখি ও যুক্তবর্ণ দিয়ে গঠিত শব্দগুলো পড়ি ও লিখি।
আনন্দ ন্দ ন দ মন্দ, ছন্দ

জিজ্ঞেস জ্ঞ জ ঞ আজ্ঞা, বিজ্ঞ

জঙ্গল ঙ্গ ঙ গ মঙ্গল, রঙ্গ

লম্বা ম্ব ম ব সম্বল, কম্বল

৪. ঠিক উত্তরটিতে টিক (√) চিহ্ন দিই।
ক. চড়–ই পাখির প্রিয় জায়গা-
১. বন ২. লোকালয় √
৩. স্কুলঘর ৪. আস্তাবল
খ. পানকৌড়ি খেতে ভালোবাসে-
১. মাছ √ ২. মাংস
৩. কীটপতঙ্গ ৪. গাছের পাতা
গ. পাখিরা পরিবেশকে-
১. নষ্ট করে ২. দূষণ করে
৩. সবুজ রাখে ৪. সুন্দর রাখে √

৫. প্রশ্নগুলোর উত্তর বলি ও লিখি।
ক) পাখিদের ভোরের দূত বলা হয়েছে কেন?
উত্তর : পাখিরা ভোর হলেই ডাকাডাকি করতে থাকে। পাখির ডাকে আমাদের ঘুম ভাঙে। তাই পাখিদের ভোরের দূত বলা হয়েছে।
খ) জাতীয় পাখি দোয়েলের বৈশিষ্ট্য কেমন?
উত্তর : জাতীয় পাখি দোয়েলের পালকগুলো সাদা আর কালোয় মেশানো। এরা লোকালয় আর গভীর জঙ্গলে থাকে। গাছের উঁচু ডালে বসে মাঝে মাঝে মধুর সুরে গান গায়। দোয়েল ছোট ডাল, খড়কুটো ও গাছের শিকড়-বাকড় দিয়ে বাসা বানায়। এদের প্রিয় খাবার হলো বিভিন্ন ফুলের মধু ও কীটপতঙ্গ।
গ) কোন পাখি আমাদের ঘরেরই কেউ? কেন?
উত্তর : চড়ুই পাখিকে আমাদের ঘরেরই কেউ বলা যায়।
বসবাসের জন্য লোকালয়ই পছন্দ চড়ুই পাখির। মানুষের বাসাবাড়ির ঘুলঘুলিতে খড়, টুকরো কাপড়, ঘাস ইত্যাদি দিয়ে বাসা তৈরি করে। আমাদের খুব কাছাকাছি থাকায় মনে হয় চড়ুই পাখি যেন আমাদের ঘরেরই একজন।
ঘ) কোন পাখি পরিবেশ সুন্দর রাখতে সাহায্য করে? কীভাবে?
উত্তর : টুনটুনি, বুলবুলি, চড়ুই ইত্যাদি পাখি ক্ষতিকর কীটপতঙ্গ খেয়ে ফসলের শত্রæ নাশ করে পরিবেশ সুন্দর রাখে।
ঙ) বুলবুলি পাখি দেখতে কেমন?
উত্তর : বুলবুলি পাখির মাথা আর গলা কালো রঙের। মাথার উপর থাকে রাজকীয় কালো ঝুঁটি। এর তলপেট সাদা। তলপেটের শেষে লাল ছোপ আছে।

৬. বাক্য রচনা করি।
জগৎ, আটকে গেল, ক্লাস, শস্যদানা, স্বভাব।
উত্তর :
জগৎ – এই জগৎ বড়ই সুন্দর।
আটকে গেল – ঘুড়িটি গাছের ডালে আটকে গেল।
ক্লাস – সকাল আটটায় ক্লাস শুরু হলো।
শস্যদানা – কবুতরটি শস্যদানা খাচ্ছে।
স্বভাব – বাঘের স্বভাব খুবই হিংস্র।

৭. বাম পাশের শব্দাংশের সাথে ডান পাশের ঠিক ছবিটি মিলাই।
উত্তর :

৮.ব্যবহার শিখি।
টি, টা, খানা, খানি, এটি, ওটি, এগুলো, ওগুলো
টি – পাখিটি দেখতে কী সুন্দর!
টা – শেলফের বইটা কার?
খানা – বইখানা দাও।
খানি – মুখখানি তার ভারি মিষ্টি।
এটি – এটি আমার বই।
ওটি – ওটি কার বই?
এগুলো – এগুলো পাখির ছবি।
ওগুলো – ওগুলো ধরো না।

৯. কর্ম-অনুশীলন।
আমার দেখা যেকোনো একটি পাখির কথা বর্ণনা করি।
উত্তর : আমার দেখা খুব সুন্দর একটি পাখি হলো মাছরাঙা। এদের মাথা, ঘাড়, পেট ও পিঠের রং গাঢ় বাদামি অথবা খয়েরি। চিবুক, গলা আর বুকে থাকে নানা রঙের ছড়াছড়ি। ডানার পালক উজ্জ্বল নীল। তার উপরে চওড়া কালো দাগ। মাছরাঙার ঠোঁট বেশ লম্বা, ডগার দিকটা সুঁচালো ও শক্ত। এরা পানিতে ঝাঁপ দিয়ে দুই ঠোঁটে মাছ তুলে আনে।

পাখির জগৎ অতিরিক্ত প্রশ্ন ও উত্তর

🟥 সঠিক উত্তরটি লেখ।
১) ভোরবেলা কী শুনে আমাদের ঘুম ভেঙে যায়? ছ
ক মায়ের ডাক খ পাখির ডাক
গ বাবার ডাক ঘ কুকুরের ডাক
২) পাখিদের সম্পর্কে কোন কথাটি সঠিক? ঝ
ক বাংলাদেশে বেশি পাখি নেই
খ সব পাখিই উড়তে পারে
গ পাখিরা নিশাচর প্রাণী
ঘ পাখিরা উপকারী প্রাণী
৩) কোনটি আমাদের জাতীয় পাখি? ছ
ক কোয়েল খ দোয়েল
গ চড়ুই ঘ টুনটুনি
৪) টুনটুনির পালকের রং কেমন? ঝ
ক কুচকুচে কালো খ ঈষৎ হলুদাভ
গ গাঢ় বাদামি ঘ জলপাই সবুজ
🟥 নিচের শব্দগুলোর অর্থ লেখ।
কুসুম, কানন, দূত।
উত্তর : শব্দ অর্থ
কুসুম – ফুল।
কানন – বাগান।
দূত – সংবাদ বাহক।
🟥 নিচের শব্দগুলো দিয়ে বাক্য রচনা কর।
পালক, তীক্ষè।
উত্তর :
শব্দ বাক্য
পালক – ময়ূরের পালকে অনেক রং থাকে।
তীক্ষè – ঈগলের দৃষ্টিশক্তি খুব তীক্ষè।
🟥 শূন্যস্থান পূরণ কর।
ক) পাখিরা —- শোভা।
খ) —- আমাদের ঘরের কেউ।
গ) ফুলের মধুই —- সবচেয়ে প্রিয়।
ঘ) পানির সঙ্গে যার —-, সেই পাখির নাম পানকৌড়ি।
ঙ) পাখিরা দারুণ —- প্রাণী।
উত্তর : ক) প্রকৃতির; খ) চড়–ই; গ) টুনটুনির;
ঘ) সখ্য; ঙ) উপকারী।
🟥 ডান পাশের বাক্যাংশের সাথে বাম পাশের বাক্যাংশের মিল কর।
দোয়েলের পালকের রং সাদা ও কালো
টুনটুনির মাথায় টুনটুনি পাখির
ফুলের মধু প্রিয় লালচে ছোপ
বুলবুলির আছে রাজকীয় ঝুঁটি
পানি ভালোবাসে বাঁশপাতি পাখি
পানকৌড়ি
উত্তর :
দোয়েলের পালকের রং – সাদা ও কালো
টুনটুনির মাথায় – লালচে ছোপ
ফুলের মধু প্রিয় – টুনটুনি পাখির
বুলবুলির আছে – রাজকীয় ঝুঁটি
পানি ভালোবাসে – পানকৌড়ি
🟥 নিচের শব্দগুলোর কোনটি কোন পদ লেখ।
উপকারী, ঘুরে, দাগ, পরিবেশ, ঘুমায়।
উত্তর :
মূল শব্দ পদ মূল শব্দ পদ
উপকারী – বিশেষণ পরিবেশ – বিশেষ্য
ঘুরে – ক্রিয়া ঘুমায় – ক্রিয়া
দাগ – বিশেষ্য
🟥 নিচের শব্দগুলোর বিপরীত শব্দ লেখ।
বন্ধু, উপকারী, চঞ্চল, দ্রæত, তীক্ষè।
উত্তর :
মূল শব্দ বিপরীত শব্দ মূল শব্দ বিপরীত শব্দ
বন্ধু – শত্রæ দ্রæত – ধীর
উপকারী – অপকারী তীক্ষè – ভোঁতা
চঞ্চল – শান্ত
🟥 নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
ক) দোয়েলের প্রধান খাদ্য কী?
উত্তর : দোয়েলের প্রধান খাদ্য হলো বিভিন্ন ফুলের মধু আর কীটপতঙ্গ।
খ) চড়ুই পাখির শরীরে কী কী রং দেখা যায়?
উত্তর : চড়ুই পাখির মাথা ছাই রঙের। পিঠের বাদামি পালকের উপর থাকে কালো ছোট দাগ। এর ডানার উপরে সাদা অথবা লালচে রেখা থাকে।
গ) টুনটুনি পাখি দেখতে কেমন?
উত্তর : টুনটুনির পালকের রং জলপাই সবুজ। মাথায় থাকে লাল রঙের ছোপ। লম্বা ঠোঁটখানা কালচে খয়েরি। আর পায়ের রং হলুদাভ।
ঘ) আবাবিল পাখি দেখতে কেমন?
উত্তর : আবাবিল পাখির পিঠের দিকটা নীলাভ কালো। নিচের দিকে থাকে সাদা-হলুদের মিশ্রণ। আর কপালে থাকে বাদামি রং।
ঙ) টুনটুনির উপকারিতার কথা লেখ।
উত্তর : টুনটুনি ক্ষতিকর পোকামাকড় খেয়ে পরিবেশ সুন্দর রাখে।
চ) বুলবুলি ও চড়ুই পাখির মধ্যে কী কী মিল আছে?
উত্তর : বুলবুলি ও চড়ুই পাখির মধ্যে মিল হলো- দুটি পাখিই চঞ্চল স্বভাবের।

পাখির জগৎ মডেল টেস্ট

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১, ২, ৩ ও ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর লেখ।
ছোট্ট পাখি চড়ুই। চড়–ই আমাদের ঘরেরই কেউ। লোকালয়ই এদের প্রিয় জায়গা। বাসাবাড়ির ঘুলঘুলিতে খড়, টুকরো কাপড়, শুকনো ঘাস দিয়ে এরা বাসা তৈরি করে। এরা কীটপতঙ্গ খেয়ে ফসলের শত্রæ নাশ করে। চড়ুইয়ের মতো চঞ্চল স্বভাবের আরেকটি পাখি হলো- বুলবুলি। মাথার উপর রাজকীয় কালো ঝুঁটি। পানির সঙ্গে যার সখ্য, সেই পাখির নাম পানকৌড়ি। পুকুর আর খালবিল এদের বিচরণক্ষেত্র। কুচকুচে কালো এই পাখি ডুব দিয়ে তিন মিটার পর্যন্ত সাঁতরাতে পারে। এদের পায়ের পাতা হাঁসের মতো। এরা জলজ কীটপতঙ্গ খেতে ভালোবাসে।
১. সঠিক উত্তরটি উত্তরপত্রে লেখ।
১) পানকৌড়ির গায়ের রং কেমন?
(ক) সাদা (খ) কালো
(গ) নীল (ঘ) কমলা
২) কোন পাখিটিকে সহজে আমাদের আশপাশেই খুঁজে পাওয়া যাবে?
(ক) বুলবুলি (খ) চড়ুই
(গ) পানকৌড়ি (ঘ) বাঁশপাতি
৩) কোনটি বুলবুলির স্বভাব?
(ক) অন্য পাখির বাসায় ডিম পাড়ে
(খ) শান্ত-শিষ্ট
(গ) মাছ খেতে ভালোবাসে
(ঘ) চঞ্চল
৪) পানকৌড়ি ডুব দিয়ে কত দূর পর্যন্ত সাঁতরাতে পারে?
(ক) তিন ইঞ্চি (খ) তিন ফুট
(গ) তিন মিটার (ঘ) তিন কিলোমিটার
৫) পানকৌড়ির ক্ষেত্রে কোনটি প্রযোজ্য?
(ক) হাঁস (খ) মুরগি
(গ) চড়–ই (ঘ) বুলবুলি
উত্তর : ১) (খ) কালো; ২) (খ) চড়ুই; ৩) (ঘ) চঞ্চল; ৪) (গ) তিন মিটার; ৫) (ক) হাঁস।
২. নিচের শব্দগুলোর অর্থ লেখ।
লোকালয়, জলজ, রাজকীয়, সখ্য, চঞ্চল।
উত্তর : শব্দ অর্থ
লোকালয় – জনপদ।
জলজ – পানিতে জস্মে এমন।
রাজকীয় – অত্যন্ত জাঁকজমকপূর্ণ।
সখ্য – বন্ধুত্ব।
চঞ্চল – অস্থির
৩. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
ক) বাসাবাড়ির ঘুলঘুলিতে চড়ুই কী দিয়ে বাসা বানায়?
উত্তর : বাসাবাড়ির ঘুলঘুলিতে চড়ুই খড়, টুকরো কাপড়, শুকনো ঘাস ইত্যাদি দিয়ে বাসা বানায়।
খ) চড়ুই পাখির দুটি বৈশিষ্ট্য লেখ।
উত্তর : চড়–ই পাখির দুটি বৈশিষ্ট্য হলো-
১. চড়ুই পাখি ক্ষতিকর কীটপতঙ্গ খেয়ে ফসলের শত্রæ নাশ করে।
২. চড়–ই পাখি লোকালয়ে থাকতে ভালোবাসে।
গ) ‘পানির সঙ্গে যার সখ্য’-কথাটি কার সম্পর্কে কেন বলা হয়েছে?
উত্তর : পানকৌড়ি পানিতে থাকতে পছন্দ করে। পুকুর, খাল ও বিলে ঘুরে বেড়ায়। এমনকি পানিতে ডুব দিয়ে তিন মিটার পর্যন্ত সাঁতরাতে পারে। এ কারণেই পানকৌড়ি সম্পর্কে কথাটি বলা হয়েছে।
৪. অনুচ্ছেদটির মূলভাব লেখ।
উত্তর : আমাদের চারপাশে বসবাস করে বিচিত্র রকমের পাখপাখালি। কোনো কোনোটি আমাদের আশপাশেই বসবাস করে। কোনো পাখি আবার জলাভূমিতে বিচরণ করতে পছন্দ করে। এ পাখিগুলোর একেকটির স্বভাব ও বৈশিষ্ট্য একেক রকম। এরা নানাভাবে মানুষ ও পরিবেশের উপকার করে।

এ অংশে পাঠ্য বই বহির্ভূত অনুচ্ছেদ/কবিতাংশ দেওয়া থাকবে। প্রদত্ত অনুচ্ছেদ/কবিতাংশটি পড়ে ৩ ধরনের প্রশ্নের উত্তর করতে হবে। এখানে থাকবে- (৫) বহুনির্বাচনি প্রশ্ন, (৬) শূন্যস্থান পূরণ ও (৭) প্রশ্নের উত্তর লিখন। প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে।
পাঠ্য বই বহির্ভূত অনুচ্ছেদ/কবিতাংশ পরীক্ষায় কমন পড়বে না। তাই এটি এখানে দেওয়া হলো না। তবে পরীক্ষার প্রশ্নের পূর্ণাঙ্গ নমুনা (ঋড়ৎসধঃ) বোঝার সুবিধার্থে বইয়ের প্রথম দুটি অধ্যায়ে পাঠ্য বই বহির্ভূত অংশটি সংযোজন করা হয়েছে।
৮. নিচের যুক্তবর্ণগুলো কোন কোন বর্ণ দিয়ে তৈরি ভেঙে দেখাও এবং প্রতিটি যুক্তবর্ণ দিয়ে একটি করে শব্দ গঠন করে বাক্যে প্রয়োগ দেখাও।
স্ক, ক্ল, ঞ্চ, ক্ষ, ন্ত
উত্তর :
স্ক = স+ক – পুরস্কার – রহিম ১০০ মিটার দৌড়ে প্রথম পুরস্কার পেল।
ক্ল = ক+ল – ক্লান্ত – হেঁটে আসতে গিয়ে ক্লান্ত হয়ে গেছি।
ঞ্চ= ঞ+চ – অঞ্চল – আমার বাড়ি উত্তর অঞ্চলে।
ক্ষ = ক+ষ – লক্ষ্য – আমার লক্ষ্য ডাক্তার হওয়া।
ন্ত = ন+ত – শান্ত – রাতুল খুব শান্ত স্বভাবের।
৯. সঠিক স্থানে বিরামচিহ্ন বসিয়ে অনুচ্ছেদটি আবার লেখ।
আচ্ছা মা পাখিরা কি রাতে ঘুমায় না ভোর না হতেই কিচিরমিচির করা শুরু করে দেয় মা বলেন তা হবে কেন
উত্তর : আচ্ছা মা, পাখিরা কি রাতে ঘুমায় না? ভোর না হতেই কিচিরমিচির করা শুরু করে দেয়। মা বলেন, তা হবে কেন।
১০. এককথায় প্রকাশ কর।
ক) রাজার মতো।
খ) জলে জন্মে যা।
গ) উপকার করে যে।
ঘ) পাখির ডাক।
ঙ) জাতির নিজস্ব।
উত্তর : ক) রাজকীয়; খ) জলজ; গ) উপকারী;
ঘ) কিচিরমিচির; ঙ) জাতীয়।
১১. নিচের শব্দগুলোর সমার্থক শব্দ লেখ।
পাখি, কুসুম, আকাশ, রাত, বন্ধু।
উত্তর : মূল শব্দ সমার্থক শব্দ
পাখি – পক্ষী, বিহঙ্গ।
কুসুম – ফুল, পুষ্প।
আকাশ – গগন, নভ।
রাত – রাত্রি, নিশি।
বন্ধু – সখা, বান্ধব।
১২. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।
(গদ্যের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়)

——————x—————–

🔶🔶🔶 চতুর্থ শ্রেণি বাংলা সকল অধ্যায়ের প্রশ্ন উত্তর

Share to help others:

Leave a Reply