অষ্টম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় বাংলাদেশের সামাজিক সমস্যা

দশম অধ্যায়
বাংলাদেশের সামাজিক সমস্যা

বিষয়-সংক্ষেপ

শিশু-কিশোররা নানা কারণে অপরাধী হয়ে ওঠে। দারিদ্র্য, হতাশা, সুষ্ঠু সামাজিক পরিবেশের অভাব, চিত্তবিনোদনের অভাব, সঙ্গদোষ ইত্যাদি কারণে শিশু-কিশোররা অপরাধী হয়ে ওঠে। বর্তমানে মোবাইল ও ইন্টারনেটের অপব্যবহারের ফলেও সমাজে এক ধরনের কিশোর অপরাধ সংঘটিত হতে দেখা যাচ্ছে।
কিশোর অপরাধের কারণে অনেক পরিবারের শান্তি বিনষ্ট হয়। কিশোর অপরাধীরা অনেক সময় মাদকাসক্তি ও বিভিন্ন খারাপ অভ্যাসে জড়িয়ে পড়ে। যদি পরিবারের অভিভাবকরা সচেতন থাকেন, শিক্ষার সুযোগ সকলের জন্য করা যায়, মানসিক বিকাশে চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা এবং আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থা হাতে নেওয়া যায় তবে এ সমস্যা প্রতিরোধ করা অনেকাংশে সম্ভব।
বেকারত্ব, নিঃসঙ্গতা, প্রিয়জনের মৃত্যু, প্রেমে ব্যর্থতা, পারিবারিক অশান্তি ইত্যাদি কারণে সাধারণভাবে শিশু-কিশোররা মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। পারিবারিক অশান্তি ও ঝগড়াবিবাদ থেকেও অনেক সময় শিশু-কিশোরদের মনে হতাশা জন্ম নেয়। একপর্যায়ে তারা মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ে।
মাদকাসক্তির প্রভাবে অনেক জটিল সমস্যা সৃষ্টি হয়। পারিবারিক সুখ-শান্তি বিনষ্ট হয়। মাদকের টাকা জোগান দিতে গিয়ে অনেক পরিবার নিঃস্ব হয়ে যায়। তাই মাদকের হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করার জন্য মাদকাসক্তি প্রতিরোধ ও মাদক নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।
পাঠ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াদি

কিশোর অপরাধ : অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেমেয়ে বা কিশোরদের দ্বারা সংঘটিত বিভিন্ন ধরনের অপরাধকেই বলা হয় কিশোর অপরাধ। আমাদের দেশে ৭ থেকে ১৬ বছর বয়সী কিশোরদের অপরাধমূলক কাজকে কিশোর অপরাধ বলে। যে কিশোর সমাজ বহিভর্‚ত অপকর্মের সাথে জড়িত সে-ই কিশোর অপরাধী। কিশোর অপরাধীরা যে অপরাধ করে তা হলো : চুরি, খুন, জুয়া খেলা, মেয়েদের উত্যক্ত করা, গাড়ি ভাংচুর ইত্যাদি। কিশোর অপরাধ দেশ ও জাতির জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর।
কিশোর অপরাধের প্রভাব : কিশোর অপরাধী পরিবারের অংশ হওয়ায় পরিবারের শান্তি রক্ষায় তার অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড ব্যাঘাত ঘটায়। যে পরিবারে এ অপরাধী বসবাসরত তাদের সামাজিক মর্যাদা নিয়ে স্বাভাবিকভাবে হীনম্মন্যতায় ভোগে, অপরাধী ব্যক্তির অপকর্মের জন্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে পরিবার বাধাগ্রস্ত হয়। অনেক সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অপরাধীর কর্মের প্রাপ্তি হিসেবে পরিবারের ওপর নির্যাতন চালায়। এক্ষেত্রে বলা যায়, কিশোর অপরাধ পরিবারের শান্তি বিনষ্ট করে।
কিশোর অপরাধ প্রতিরোধ : কিশোর অপরাধ পতিরোধ করার জন্য কতগুলো উপায় রয়েছে। উপায়গুলো হলো : অভিভাবক সচেতনতা ও দায়িত্ব, আর্থ-সামাজিক কর্মসূচি, শিক্ষার সুযোগ এবং চিত্তবিনোদন।
মাদকাসক্তি : মদ কথাটি হতে মাদক শব্দটির উৎপত্তি। যে দ্রব্য গ্রহণের ফলে মানুষের শারীরিক ও মানসিক অবস্থার উল্লেখযোগ্য নেতিবাচক পরিবর্তন ঘটে এবং ঐ দ্রব্যের প্রতি নির্ভরশীলতা সৃষ্টি হয়, পাশাপাশি দ্রব্যটি গ্রহণের পরিমাণ ক্রমশই বাড়তে থাকে, এমন দ্রব্যকে মাদকদ্রব্য বলে এবং ব্যক্তির এ অবস্থাকে মাদকাসক্তি বলে।
মাদকাসক্তির প্রভাব : আমাদের সমাজজীবনে মাদকাসক্তি বর্তমানে একটি ভয়াবহ সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে। এটি আমাদের সামাজিক ও নৈতিক জীবনেও মারাত্মক প্রভাব ফেলছে। শারীরিক ক্ষতির মধ্যে একজন মাদক গ্রহণকারীর হৃদরোগ, য²া, ক্যান্সার ও শ্বাসকষ্ট হতে পারে। তার মানসিক স্বাস্থ্যও এর ফলে দুর্বল হয়ে পড়ে। মাদক গ্রহণকারীরা হতাশা ও হীনম্মন্যতায় ভোগে। নিজেদের ক্ষতি তো এরা করেই, উপরন্তু ভয়, উৎকণ্ঠ ও উত্তেজনার শিকার হয়ে সমাজেও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে।
মাদকাসক্তির প্রতিরোধ : মাদকাসক্তি রোধে সবচেয়ে ভালো ব্যবস্থা হলো প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা। মাদকাসক্তি প্রতিরোধে সামাজিক শিক্ষা ও নৈতিক শিক্ষাকে প্রাধান্য দিতে হবে। তাছাড়া ধর্মীয় শিক্ষা ও পারিবারিক মূল্যবোধ শিক্ষায় পিতামাতা ও পরিবারের সদস্যদের গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করতে হবে। এক্ষেত্রে ধর্মে মাদক বিষয়ে যেসব উপদেশ রয়েছে তা আমাদের জানতে হবে। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, স্থানীয়ভাবে গড়ে ওঠা বিভিন্ন সাহিত্য, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া ক্লাব, ধর্মীয় ও নৈতিকতা বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করতে পারে। তাছাড়া সংবাদপত্র, রেডিও, টেলিভিশন, চলচ্চিত্র, পোস্টার, বিলবোর্ড ও লিফলেট ইত্যাদির মাধ্যমে মাদকাসক্তির বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টি করা যায়।
বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর

১. আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের প্রধান কারণ কী?
 দারিদ্র্য
খ বিবাহবিচ্ছেদ
গ আদর-যতেœর অভাব
ঘ চিত্তবিনোদনের অভাব
২. মাদকাসক্তি প্রতিরোধে যেসব ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায় তা হচ্ছেÑ
র. ধর্মীয় শিক্ষায় গুরুত্ব দেওয়া
রর. নৈতিক মূল্যবোধ শেখানো
ররর. মাদকজাতীয় দ্রব্যের উৎপাদন নিষিদ্ধ করা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৩ ও ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দাও :
তারিক পিতা-মাতার আদরের সন্তান। ইদানীং তার আচরণে পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। স্কুলে না গিয়ে সে লুকিয়ে লুকিয়ে ধূমপান করে এবং টাকার জন্য মাকে প্রায়ই উত্যক্ত করে।
৩. তারিকের আচরণটিতে কী প্রকাশ পায়?
ক শিশু অপরাধ  মাদকাসক্তি গ মূল্যবোধের অবক্ষয় ঘ নিঃসঙ্গতা
৪. উদ্দীপকে বর্ণিত তারিকের আচরণের ফলে Ñ
র. বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দেখা দিবে
রর. মানসিক স্বাস্থ্যের তেমন পরিবর্তন হবে না
ররর. সামাজিক জীবনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর

৫. কোন দেশে কিশোর অপরাধ দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে?
ক ভুটানে খ ইন্দোনেশিয়াতে  বাংলাদেশে ঘ নেপালে
৬. কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রধান কারণ কোনটি?
ক সুস্থ পারিবারিক জীবনের অভাব খ কর্মস্থলে পিতামাতার ব্যস্ততা
গ বিবাহবিচ্ছেদ  দারিদ্র্য
৭. মাদকাসক্তির বড় কারণ কোনটি?
 অপসংস্কৃতি খ নিঃসঙ্গতা গ পারিবারিক অশান্তি ঘ বেকারত্ব
৮. মাদকাসক্তি রোধে সমাজে গুরুত্ব দিতে হবেÑ
ক গণমাধ্যমে প্রচারের ওপর  নৈতিক শিক্ষার ওপর
গ আলোচনা সভার ওপর ঘ সুস্থ চিত্তবিনোদনের ওপর
৯. বাংলাদেশ, ইন্ডিয়া, শ্রীলংকা প্রভৃতি দেশে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা কত?
ক ৭ থেকে ১৫  ৭ থেকে ১৬ গ ৮ থেকে ১৭ ঘ ৮ থেকে ১৮
১০. শিশু কিশোরদের মধ্যে ধূমপানের অভ্যাস গড়ে ওঠে কীভাবে?
 কৌত‚হল মেটাতে গিয়ে খ বন্ধুদের প্ররোচনায়
গ বিজ্ঞাপনের প্রভাবে ঘ বিড়ি সিগারেট সহজলভ্য হওয়ায়
১১. জাপানের বাসিন্দা ইয়ামা স্কুল পালিয়ে নানা ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। ইয়ামার বয়সÑ
ক ১৫ থেকে ২০ বছর  ১৪ থেকে ২০ বছর
গ ৭ থেকে ১৬ বছর ঘ ৬ থেকে ১৪ বছর
১২. ভিন্ন দেশের সংস্কৃতির প্রভাবে বাংলাদেশের যুবসমাজ কীভাবে মাদকে আকৃষ্ট হয়?
ক কৌত‚হলী হয়ে খ পথভ্রষ্ট হয়ে
 বিভ্রান্ত ও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে ঘ বিভ্রান্ত হয়ে
১৩. বাংলাদেশে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা কত?
ক ৭Ñ১৮ বছর খ ৭Ñ২০ বছর  ৭Ñ১৬ বছর ঘ ৭Ñ১৫ বছর
১৪. ডেভিডের বয়স ১৯ বছর। সে একজন কিশোর অপরাধী। সে কোন দেশের নাগরিক?
ক থাইল্যান্ড খ ভুটান গ শ্রীলংকা  জাপান
১৫. বখাটেরা প্রায়ই কাদেরকে উত্ত্যক্ত করে?
 মেয়েদের খ শিশুদের গ পথচারীদের ঘ ছাত্রীদের
১৬. কারা স্বাভাবিকভাবেই কৌত‚হলপ্রবণ?
ক মহিলারা খ যুবকরা  কিশোররা ঘ বৃদ্ধরা
১৭. যে পরিবারে কিশোর অপরাধী থাকে, সে পরিবারেরÑ
 শান্তি বিনষ্ট হয় খ দাপট বৃদ্ধি পায়
গ রাজনৈতিক মর্যাদা বৃদ্ধি পায় ঘ মর্যাদা ক্ষুণœ হয়
১৮. বস্তির শিশু-কিশোররা কেন কিশোর অপরাধের দিকে ঝুঁকে পড়ে?
ক শিক্ষার অভাবে খ অল্প বয়সে অর্থ উপার্জনে জড়িত হওয়ায়
 সুস্থ পরিবেশের অভাবে ঘ পারিবারিক প্রয়োজনে
১৯. দরিদ্র কিশোরদের অপরাধ প্রবণতা প্রতিরোধের উপায় কোনটি?
ক অভিভাবকের সচেতনতা ˜ আর্থসামাজিক কর্মসূচি
গ শিক্ষার সুযোগ ঘ চিত্তবিনোদন
২০. মাদকাসক্তির সূত্রপাত কীভাবে ঘটে?
ক পারিবারিক অশান্তির মাধ্যমে খ ইন্টারনেটের মাধ্যমে
˜ মাদকাসক্ত বন্ধুদের সংস্পর্শে এসে ঘ অপসংস্কৃতির কারণে
২১. মাদকাসক্তি প্রতিরোধের জন্য করণীয় হলোÑ
র. ধর্মীয় ও নৈতিক শিক্ষা প্রদান করা
রর. সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা
ররর. সচেতনতা সৃষ্টি করা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
২২. কিশোর অপরাধ কীভাবে প্রতিরোধ করা যায়?
র. অভিভাবকের সচেতনতার মাধ্যমে
রর. উপযুক্ত শাস্তি প্রদানের মাধ্যমে
ররর. আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২৩ ও ২৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
রাকিব সব সময় তার মায়ের কাছ থেকে টাকা খুঁজে। তার মা টাকা দিতে না পারলে সে বাড়িতে চিৎকার ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে।
২৩. অনুচ্ছেদে বর্ণিত সমস্যাটি হলোÑ
ক দারিদ্র্য খ কিশোর অপরাধ গ বেকারত্ব  মাদকাসক্তি
২৪. উক্ত সমস্যার ফলে দেখা দেয়Ñ
র. রাজনৈতিক সহিংসতা রর. সামাজিক অস্থিরতা
ররর. মূল্যবোধের অবক্ষয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২৫ ও ২৬ নং প্রশ্নের উত্তর দাও:
রনি খুব হতাশ হয়ে পড়েছিল। যেহেতু তার কোনো কাজ ছিল না। এখন পর্যন্ত সে তার বাবা-মার কাছ থেকে কোনো নৈতিক সহযোগিতা পায়নি। ফলে এ হতাশা থেকে মুক্ত থাকার জন্য সে ধূমপান শুরু করেছিল।
২৫. রনির হাতাশার কারণ কী?
 বেকার খ শিক্ষা
গ চিত্তবিনোদনের অভাব ঘ সুস্বাস্থ্য
২৬. রনি মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছিল যে কারণে-
র. হতাশা রর. পরিবারের ভালোবাসার ঘাটতি
ররর. শিক্ষার অভাব
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর

পাঠ-১ : কিশোর অপরাধের ধারণা ও কারণ
 সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২৭. পরিবারের দারিদ্র্যতার জন্য সংঘটিত হয় কোনটি? (জ্ঞান)
˜ কিশোর অপরাধ খ শিক্ষার প্রতিবন্ধকতা
গ পারিবারিক অশান্তি ঘ পারিবারিক পুষ্টিহীনতা
২৮. কোন দেশে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা ৭ থেকে ১৬ বছর? (অনুধাবন)
˜ বাংলাদেশ খ জাপান গ কানাডা ঘ ইউরেশিয়া
২৯. জাপানে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা কত? (জ্ঞান)
ক ১৩ – ১৮ ˜ ১৪ – ২০ গ ১৬ – ২০ ঘ ১৮ – ২০
৩০. শিশুর শারীরিক ত্র“টি কিসের জন্ম দেয়? (জ্ঞান)
ক মূল্যবোধের  হীনম্মন্যতার গ আবেগের ঘ অভাবের
৩১. পাকিস্তান ও থাইল্যান্ডে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা কত? (জ্ঞান)
ক ৬ – ১৮ বছর  ৭ – ১৮ বছর গ ৮ – ১৮ বছর ঘ ১০ – ১৮ বছর
৩২. দারিদ্র্য কিশোর অপরাধে কী ধরনের কারণ থাকে? (জ্ঞান)
ক সামাজিক খ রাজনৈতিক  অর্থনৈতিক ঘ পারিবারিক
৩৩. আয়নালের বাবা মারা যাওয়ার পর সংসারের দায়ভার পড়ে তার ওপর। সে একটি ওষুধ ফ্যাক্টরিতে কাজ করে। একদিন সে অন্যের টাকা চুরি করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে। তার চুরির কারণ কী? (প্রয়োগ)
ক মাদকাসক্তি খ নিরক্ষরতা  দারিদ্র্য ঘ বেকারত্ব
৩৪. কিশোর অপরাধ কোন ধরনের সমস্যা? [সেন্ট যোসেফ হাই স্কুল, ঢাকা]
ক রাজনৈতিক  সামাজিক গ অর্থনৈতিক ঘ মানসিক
৩৫. বর্তমানে বাংলাদেশের কয়টি সামাজিক সমস্যা সবার উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে? (জ্ঞান)
ক একটি  দুটি গ তিনটি ঘ চারটি
৩৬. কোন পরিবারের কিশোরদের অনেক সাধ বা ইচ্ছাই অপূর্ণ থেকে যায়? (জ্ঞান)
ক উচ্চবিত্ত পরিবারের খ মধ্যবিত্ত পরিবারের
 দরিদ্র পরিবারের ঘ উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারের
৩৭. দরিদ্র শিশু-কিশোররা তাদের উপার্জিত টাকা দিয়ে কী করে? (জ্ঞান)
ক বই কেনে খ পরিবারকে সাহায্য করে
গ সিনেমা দেখে  মদ-গাঁজা খায়
৩৮. শারীরিক ও মানসিক ত্রæটি বা বৈকল্য শিশু মনে কিসের জš§ দেয়? (জ্ঞান)
ক উৎসাহের খ উদ্দীপনার গ আশার  হীনম্মন্যতার
৩৯. অপ্রাপ্ত বয়স্কদের দ্বারা সংঘটিত বিভিন্ন ধরনের অপরাধকে কী বলে?
[নোয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়]
ক অপরিণত অপরাধ খ পরিণত অপরাধ
 কিশোর অপরাধ ঘ যুব অপরাধ
৪০. কোনটি কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে? (জ্ঞান)
ক বই পড়া খ অভিনয় করা গ আবৃত্তি করা  স্কুল পালানো
৪১. কোন ধরনের শিশু-কিশোরদের মানসিক গঠন সাধারণের চেয়ে জটিল হয়?
[অগ্রগামী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, সিলেট]
ক বস্তি এলাকার খ আবেগ প্রবণ বা প্রতিভাবান
গ দরিদ্র পরিবারের  শারীরিক-মানসিক ত্রæটিসম্পন্ন
৪২. প্রতিভাবান শিশু কিশোররা অপরাধী হয়ে উঠতে পারে কেন? (অনুধাবন)
˜ উপযুক্ত পরিবেশের অভাবে খ অধিক অর্থ থাকায়
গ উপযুক্ত বন্ধুর অভাবে ঘ অধিক জ্ঞান থাকায়
৪৩. কখনো কখনো শিশু-কিশোরদের বন্ধু নির্বাচনে সমস্যা হয় কেন? (অনুধাবন)
ক দরিদ্রতার কারণে
খ হীনম্মন্যতার কারণে
 পিতামাতার বার বার কর্মস্থল পরিবর্তনের ফলে
ঘ ইন্টারনেটের অপব্যবহারের কারণে
 বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৪৪. পিতামাতার কর্মস্থান পরিবর্তনের ফলে সন্তানরা নতুন পরিবেশের সাথে- (অনুধাবন)
র. খাপ খাওয়াতে পারে না রর. বন্ধু নির্বাচনে সমস্যা হয়
ররর. অপরাধী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
৪৫. ৭-১৬ বছর বয়সী কিশোর অপরাধীর বয়সসীমা ধরা হয়
[সাতক্ষীরা সরকারি মাধ্যমিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়]
র. বাংলাদেশে রর. জাপানে
ররর. শ্রীলঙ্কায়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৪৬. কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে যেসব কাজ (অনুধাবন)
র. পরীক্ষায় ভালো করা রর. মেয়েদের উত্যক্ত করা
ররর. নারী নির্যাতন
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৪৭. বস্তির শিশু-কিশোররা অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে- (অনুধাবন)
র. শারীরিক ত্রæটির কারণে রর. সঙ্গদোষের কারণে
ররর. অভাবের কারণে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৪৮. মিথিলা ও তাহসান উভয়ই কর্পোরেট প্রতিষ্ঠানে কাজ করায় তাদের একমাত্র মেয়ে অনীলাকে নিয়ে চিন্তিত। ভবিষ্যতে কিশোরী অপরাধ থেকে তাকে মুক্ত করতে তারা- (প্রয়োগ)
র. যথেষ্ট সময় দেবে
রর. সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে জড়িত রাখবে
ররর. একাকী রাখবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৪৯. রহিম মিয়ার ছেলে দারিদ্র্যের কারণে অল্প বয়সে স্কুলে না গিয়ে বিভিন্ন রকম কাজ করে টাকা উপার্জন করে। এ টাকা দিয়ে তার ছেলেÑ (প্রয়োগ)
র. মদ গাঁজা খেতে পারে রর. বই খাতা কিনতে পারে
ররর. অশোভন ছবি দেখতে পারে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর খ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
 অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৫০ ও ৫১নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ইমন পরিবারের একমাত্র সন্তান। কিন্তু তার মা-বাবা দুজনই সরকারি চাকরিজীবী। নিঃসঙ্গতার জন্য সে ধীরে ধীরে পাড়ার ছেলেদের সাথে মিশে নিজেকে অপরাধকর্মে জড়িয়ে ফেলে। সে মাদকগ্রহণ ছাড়াও নানা ধরনের অপরাধের সাথে জড়িত।
৫০. ইমনকে কী বলে অভিহিত করা যায়? (প্রয়োগ)
 কিশোর অপরাধী খ দাগী আসামি গ অপরাধী ঘ ছিনতাইকারী
৫১. ইমনকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. পারিবারিক সুস্থ পরিবেশ
রর. সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা
ররর. সৎ সঙ্গী নির্বাচনে সহায়তা করা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর ক রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
পাঠ-২ : কিশোর অপরাধের প্রভাব ও প্রতিরোধ
 সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৫২. কিশোর অপরাধীরা অনেক সময় দল বেঁধে কী করে? (জ্ঞান)
ক বই পড়ে খ ভ্রমণে যায়  ডাকাতি করে ঘ খেলাধুলা করে
৫৩. কিশোর অপরাধীরা জোরপূর্বক চাঁদা আদায় করে থাকে কাদের কাছ থেকে? (জ্ঞান)
ক শিক্ষক খ শ্রমিক গ পিতামাতা  ব্যবসায়ী
৫৪. ইদানিং বাংলাদেশের শহর ও গ্রামাঞ্চলে সর্বত্র কোন অপরাধ বেড়ে চলেছে? [অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, ব্রা‏হ্মণবাড়িয়া]
ক মারপিট  মেয়েদের উত্যক্ত করা
গ বোমাবাজি ঘ গাড়ি ভাংচুর
৫৫. বখাটে কিশোররা সাধারণত কাদের প্রতি অশ্লীল ও অশোভন উক্তি করে? [জে ভি গভ. গার্লস হাইস্কুল, কিশোরগঞ্জ]
ক শিশুদের  মেয়েদের গ ছেলেদের ঘ বৃদ্ধদের
৫৬. কিশোরদের অপরাধ থেকে দূরে রাখতে কাদের সচেতন থাকা প্রয়োজন? (জ্ঞান)
ক প্রতিবেশীদের খ শিক্ষকদের
গ ধর্মগুরুদের  পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠদের
৫৭. শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের জন্য কী করা প্রয়োজন? (জ্ঞান)
ক নগরায়ন খ কারখানা স্থাপন
 পাঠাগার স্থাপন ঘ বিপণিবিতান প্রতিষ্ঠা
৫৮. কিশোর অপরাধ প্রতিরোধের জন্য সন্তানদের সাথে কিরূপ সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে? (জ্ঞান)
ক শিক্ষকসুলভ খ কঠোর গ শত্রæতামূলক  সহজ ও স্বাভাবিক
৫৯. শিশু কিশোররা সুস্থ ও সুন্দর জীবনযাপনে আগ্রহী হবে কোনটির প্রভাবে? (জ্ঞান)
ক অর্থ ˜ শিক্ষা গ বিনোদন ঘ ভ্রমণ
৬০. কখনো কখনো ছাত্রীদের পড়ালেখা বন্ধ হয়ে যায় কেন? (অনুধাবন)
ক প্রতিবেশীর উৎপাতে খ অভিভাবকের উৎপাতে
 বখাটেদের উৎপাতে ঘ আত্মীয় স্বজনের উৎপাতে
৬১. টেলিভিশন শিশু-কিশোরদের সব রকম খারাপ কাজ থেকে দূরে রাখতে পারে কীভাবে? (অনুধাবন)
ক অশোভন ছবি প্রদর্শন করে খ তথ্যহীন অনুষ্ঠান প্রচার করে
 জ্ঞান-বিজ্ঞানের অনুষ্ঠান প্রচার করে ঘ একঘেয়েমি অনুষ্ঠান প্রচার করে
৬২. কিশোর রিমনের পিতা রিকশাচালক হওয়ায় ঠিকমতো পরিবারের ভরণপোষণ দিতে পারে না। তাই সে লেখাপড়ার পরিবর্তে চুরি করে অর্থ সংগ্রহ করে। রিমনের অপরাধের কারণ কী? (প্রয়োগ)
 পরিবারের দারিদ্র্য খ পরিবারের শৃংখলা
গ পরিবারের সচ্ছলতা ঘ পরিবারের হীনম্মন্যতা
৬৩. শান্ত তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তার এক সহপাঠীকে আঘাত করে। শান্তর মধ্যে কোনটির প্রকাশ ঘটেছে? (প্রয়োগ)
ক ভালো আচরণ খ সহনীয় আচরণ
গ মানবিক মূল্যবোধ  কিশোর অপরাধ
৬৪. বিদ্যালয়ের সুষ্ঠু পরিবেশ শিশুকে কোনটি থেকে দূরে রাখে? (জ্ঞান)
ক খেলাধুলা খ চরিত্র চর্চা গ শরীর চর্চা ˜ অপরাধ
৬৫. কিশোর অপরাধ প্রতিরোধে সবচেয়ে কার্যকর ভ‚মিকা রাখতে পারে কোনটি? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক রাষ্ট্র খ সমাজ গ বিদ্যালয়  পরিবার
 বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৬৬. কিশোর অপরাধীরা করে- (অনুধাবন)
র. ডাকাতি রর. চুরি
ররর. জোরপূর্বক চাঁদা আদায়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
৬৭. শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের জন্য পাড়া বা মহল্লায় স্থাপন করা প্রয়োজন- (অনুধাবন)
র. বিদ্যালয় রর. পাঠাগার
ররর. ব্যায়ামাগার
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর ˜ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৬৮. কিশোররা যেসব অপরাধের সাথে জড়িত থাকে তা হলো-
[রামদেও বাজলা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, জয়পুরহাট]
র. নিয়মিত স্কুলে যাওয়া রর. পরীক্ষায় নকল করা
ররর. পর্নো ছবি দেখা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর ˜ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৬৯. কিশোরদের অপরাধ থেকে দূরে রাখতে অভিভাবকদের দায়িত্ব – (অনুধাবন)
র. উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি রর. স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তোলা
ররর. অমনোযোগী হওয়া
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৭০. পুটখালী গ্রামে কিশোর অপরাধ প্রবণতা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। এ সমস্যার প্রতিরোধে প্রয়োজন- (প্রয়োগ)
র. অভিভাবক সচেতনতা রর. অশোভন ছবি প্রদর্শন
ররর. চিত্তবিনোদন সৃষ্টি
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৭১. কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটাতে এগিয়ে আসতে হবে – (অনুধাবন)
র. সরকারকে রর. দরিদ্র ব্যক্তিদের
ররর. বেসরকারি সংস্থাকে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
 অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৭২ ও ৭৩নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
শাহেদের বাবা আবার নতুন করে বিয়ে করার কারণে অভাবের সংসারে আরও অভাব দেখা দিতে শুরু করে। শাহেদ পরিবারের বড় সন্তান। সে ছাড়াও তার আরও চার ভাইবোন রয়েছে। দরিদ্রতা থেকে মুক্তি পেতে শাহেদ বিপথে পা বাড়ায়।
৭২. অনুচ্ছেদে উল্লিখিত শাহেদের বিপথে পা বাড়ানোকে কী বলা যায়? (প্রয়োগ)
 কিশোর অপরাধ খ দরিদ্রতা ঘোচানো
গ হীনমানসিকতা ঘ পিতামাতার অবহেলা
৭৩. উক্ত সমস্যা প্রতিরোধের জন্য (উচ্চতর দক্ষতা)
র. আর্থসামাজিক কর্মসূচি গ্রহণ করতে হবে
রর. আর্থিক প্রলোভন দেখাতে হবে
ররর. সন্তানদের সাথে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক রাখতে হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
পাঠ-৩ : মাদকাসক্তির কারণ
 সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৭৪. কারা স্বভাবতই কৌত‚হলপ্রবণ? (জ্ঞান)
 কিশোররা খ বৃদ্ধরা গ যুবকরা ঘ নারীরা
৭৫. কোনটির মধ্য দিয়েই প্রধানত মাদকাসক্তির সূত্রপাত ঘটে?
[ঠাকুরগাঁ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়]
ক মাদকদ্রব্য সহজলভ্য হওয়ার কারণে খ পাশ্চাত্য সংস্কৃতি
গ হতাশা  মাদকাসক্ত সঙ্গীদের সাথে মেলামেশা
৭৬. মাদকাসক্তির পেছনে বড় কারণ হিসেবে কাজ করে কোনটি? (জ্ঞান)
˜ অপসাংস্কৃতিক প্রভাব খ চলচ্চিত্র
গ ইন্টারনেট ক টিভি চ্যানেল
৭৭. দুই ভিন্ন সংস্কৃতির টানাপড়নে বিভ্রান্ত ও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে মাদকে আকৃষ্ট হচ্ছে কারা? (জ্ঞান)
˜ যুব সমাজ খ দরিদ্র শ্রেণি গ নিরক্ষর লোক ঘ শিক্ষিত শ্রেণি
৭৮. এমএ পাশ করার পরও কর্মসংস্থানের সুযোগ না হওয়ায় দিলীপ মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। দিলীপের মাদকাসক্ত হওয়ার কারণ কী? (প্রয়োগ)
˜ বেকারত্ব খ নিঃসঙ্গতা
গ পারিবারিক অশান্তি ঘ প্রিয়জনের মৃত্যু
 বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৭৯. মাদকদ্রব্যের অন্তর্ভুক্ত হলো- (অনুধাবন)
র. গাঁজা, হেরোইন রর. আফিম, ফেনসিডিল
ররর. দুধ, কোল্ড ড্রিংকস
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ রর ও ররর
৮০. যেসব মাধ্যম আজকাল একদেশের সংস্কৃতি সহজেই অন্য দেশের সংস্কৃতিকে প্রভাবিত করছে তাহলো (অনুধাবন)
র. চলচ্চিত্র রর. ইন্টারনেট
ররর. রেডিও
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৮১. আমাদের শিশু-কিশোররা সহজেই মাদকাসক্ত হচ্ছে। এর যৌক্তিক কারণ হলো- (উচ্চতর দক্ষতা)
র. পারিবারিক রর. নেশাদ্রব্যের সহজলভ্যতা
ররর. মাদকাসক্ত বন্ধুদের প্রভাব
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ˜ র, রর ও ররর
৮২. কিশোর-কিশোরীরা প্রাথমিকভাবে মাদকদ্রব্য সেবন করে (অনুধাবন)
র. সাময়িক উত্তেজনা লাভের জন্য রর. বন্ধুদের প্ররোচনায়
ররর. অপসংস্কৃতির প্রভাবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
 অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৮৩ ও ৮৪নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
অষ্টম শ্রেণির ছাত্র সুমনের পিতামাতার মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটায় সুমন মা ছাড়া নিঃসঙ্গ হয়ে পড়ে। বাবার ব্যস্ততা সুমনকে বাবার কাছ থেকে দূরে সরিয়ে দেয়। এভাবে একদিন সুমন বন্ধুদের কুপরামর্শে ধীরে ধীরে হেরোইনে আসক্ত হয়ে পড়ে।
৮৩. সুমনের হেরোইনে আসক্ত হওয়া নিচের কোনটির সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ? (প্রয়োগ)
ক অপরাধ  কিশোর অপরাধ গ ছিনতাই ঘ ডাকাতি
৮৪. উক্ত কাজের ফলে সুমন (উচ্চতর দক্ষতা)
র. শারীরিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে রর. মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে
ররর. অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৮৫ ও ৮৬নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
কয়েক দিন পূর্বে ব্রিটেনের এক বিখ্যাত গায়িকার অকালমৃত্যু ঘটে। পরবর্তীতে জানা যায়, তিনি পারিবারিক জীবনে অসুখী ছিলেন। এজন্য প্রচণ্ড মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন। মাদকাসক্তিই তার অকাল মৃত্যুর জন্য দায়ী বলে ডাক্তাররা রিপোর্ট করেন।
৮৫. অনুচ্ছেদে উল্লিখিত গায়িকার মাদকাসক্ত হওয়ার কারণ কী ছিল? (প্রয়োগ)
ক কৌত‚হল  হতাশা গ সাফল্য লাভ ঘ কণ্ঠ ঠিক রাখা
৮৬. উক্ত কারণের ফলে মানুষ  (উচ্চতর দক্ষতা)
র. শারীরিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় রর. মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়
ররর. অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
পাঠ-৪ : মাদকাসক্তির প্রভাব ও প্রতিরোধ
 সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৮৭. মাদকগ্রহণকারীর জীবন কেমন? (জ্ঞান)
 হতাশাজনক খ আবেগময় গ কৌত‚হলী ঘ আনন্দময়
৮৮. মাদকাসক্তি পরিবারের কী করে? (জ্ঞান)
ক অর্থ বৃদ্ধি ˜ সুখ-শান্তি নষ্ট গ বিনোদন বৃদ্ধি ঘ সম্পদ বৃদ্ধি
৮৯. মাদকের মারাত্মক কুফল সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করা যায় কীভাবে? (অনুধাবন)
ক মাদকের বিজ্ঞাপন প্রচার করে খ মাদকের উৎপাদন বাড়িয়ে
 আলোচনা সভার আয়োজন করে ঘ মাদকের সরবরাহ বাড়িয়ে
৯০. পরিবারের সুখ-শান্তি কেন নষ্ট হয়? (অনুধাবন)
ক মাদকমুক্ত সন্তান থাকায়  মাদকাসক্ত সন্তান থাকায়
গ নৈতিক শিক্ষা চালু থাকায় ঘ ধর্মীয় শিক্ষা চালু থাকায়
৯১. আমাদের সমাজজীবনে বর্তমানে ভয়াবহ সমস্যা কোনটি? [যশোর জিলা স্কুল]
ক মাদকাসক্তি  কিশোর অপরাধ গ ভিক্ষাবৃত্তি ঘ আর্সেনিক
৯২. নিচের কোনটির প্রভাবে মানসিক স্বাস্থ্য দুর্বল হয়ে পড়ে? (জ্ঞান)
ক অপসংস্কৃতি ˜ মাদকাসক্তি
গ কিশোর অপরাধ ঘ পারিবারিক অশান্তি
৯৩. পারিবারিক জীবনে মাদকের প্রভাব কীরূপ? (অনুধাবন)
 নানা জটিল সমস্যা সৃষ্টি করে খ বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে
গ শান্তি বজায় রাখে ঘ পারিবারিক বন্ধন সুদৃঢ় করে
৯৪. আবিদ প্রায়ই তার বাবা-মার কাছে টাকা চেয়ে থাকে। তার বাবা-মা টাকা দিতে রাজি না হলে সে বাড়িতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। প্রায়ই সে বাড়ি থেকে নিরুদ্দেশ হয়ে যায়। আবিদের এরূপ আচরণের কারণ কী? (প্রয়োগ)
 মাদকাসক্তি খ পারিবারিক বিশৃঙ্খলা
গ সুষ্ঠু বিনোদনের অভাব ঘ বেকারত্ব
৯৫. চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, রাহাজানি ও হত্যার ঘটনা বেশি ঘটে কোথায়? (জ্ঞান)
˜ যে দেশে মাদক সহজলভ্য খ যে দেশে শিল্পায়নের হার বেশি
গ যে দেশে পারিবারিক ঐক্য বেশি ঘ যে দেশে আইন শৃক্সক্ষলা ব্যবস্থা সবল
৯৬. মাদকাসক্তি রোধে কোন ব্যবস্থা সবচেয়ে ভালো ও কার্যকর?
[গভ. ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজ, ঢাকা]
ক প্রতিকারমূলক খ নিষিদ্ধকরণ
গ সচেতনতামূলক  প্রতিরোধমূলক
৯৭. ধর্মীয় ও নৈতিক মূল্যবোধ শেখানোর জন্য কাদের সচেষ্ট হতে হবে? [ঠাকুরগাঁ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়]
 অভিভাবকদের খ প্রতিবেশীদের
গ খেলার সাথিদের ঘ শিক্ষকদের
৯৮. মাদক প্রতিরোধে তরুণদের কোন প্রতিজ্ঞায় উদ্বুদ্ধ করতে হবে?
[নোয়াখালী জিলা স্কুল]
ক মাদককে রোধ করুন খ ধূমপানকে রোধ করুন
গ ধূমপানকে না বলুন  মাদককে না বলুন
৯৯. শফিক একটি বিড়ি ফ্যাক্টরিতে কাজ করে সংসার চালায়। মাদক নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে শফিকের জন্য কী ব্যবস্থা করতে হবে? (প্রয়োগ)
ক কৃষিঋণ  বিকল্প কর্মসংস্থান গ প্রশিক্ষণ ঘ উচ্চ শিক্ষা
 বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১০০. মাদকাসক্তি মারাত্মকভাবে প্রভাব ফেলে- (অনুধাবন)
র. সামাজিক জীবনে রর. নৈতিক জীবনে
ররর. সাংস্কৃতিক জীবনে
নিচের কোনটি সঠিক?
˜ র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১০১. মাদক সেবনকারীরা যে রোগে আক্রান্ত হয় তা হলোÑ (অনুধাবন)
র. ক্যান্সার রর. হৃদরোগ
ররর. মাথাব্যথা
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১০২. মাদক গ্রহণকারীরা নিজের ক্ষতি করে এবং সমাজে নৈরাজ্য সৃষ্টি করেÑ (অনুধাবন)
র. ভয়ের শিকার হয়ে রর. উৎকণ্ঠার শিকার হয়ে
ররর. উত্তেজনার শিকার হয়ে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
১০৩. মাদকের প্রভাবে দেখা দেয়Ñ (অনুধাবন)
র. রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রর. সামাজিক অস্থিরতা
ররর. মূল্যবোধের অবক্ষয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১০৪. সন্তানদের ছোটবেলা থেকেই যে বিষয় শেখানোর জন্য অভিভাবক ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্যদের সচেষ্ট হতে হবেÑ (অনুধাবন)
র. ধর্মীয় মূল্যবোধ রর. সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ
ররর. নৈতিক মূল্যবোধ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর ˜ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
 অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১০৫ ও ১০৬নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
আলী তার বন্ধুদের মাধ্যমে একটি বদভ্যাস রপ্ত করে। এটা এক ধরনের আসক্তি। এটি এমন এক ধরনের অভ্যাস যা শুধু আলীকেই ক্ষতিগ্রস্ত করে না, সমাজেও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে। পারিবারিক জীবনেও এটি নানা জটিল সমস্যা সৃষ্টি করে।
১০৫. অনুচ্ছেদে আলীর বদভ্যাস কোনটিকে নির্দেশ করে? (প্রয়োগ)
ক ডাকাতি করা খ মেয়েদের উত্ত্যক্ত করা
গ চুরি করা  মাদক গ্রহণ করা
১০৬. এ সমস্যা থেকে বিরত থাকার উপায়Ñ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. পরিত্যাগের সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও বাস্তবায়ন রর. ভালো বন্ধু ও সুস্থ পরিবেশে মেশা
ররর. সরকারি উদ্যোগ
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর

১০৭. আনন্দময় পরিবেশে সুস্থভাবে বেড়ে উঠার জন্য সহায়ক হলো Ñ (অনুধাবন)
র. সংগীত রর. খেলাধুলা
ররর. শরীর চর্চা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
১০৮. বাংলাদেশের শিশু কিশোররা অপরাধী হয়ে ওঠে (উচ্চতর দক্ষতা)
র. সুষ্ঠু সামাজিকীকরণের অভাবে
রর. চরম দরিদ্রতার কারণে
ররর. শিক্ষা ব্যবস্থার কারণে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১০৯. মেয়েরা বখাটে কিশোরদের অন্যায় প্রস্তাবে সাড়া না দিলে তারা করে থাকে  (অনুধাবন)
র. অপহরণ রর. শারীরিক নির্যাতন
ররর. এসিড নিক্ষেপ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
১১০. শিশু-কিশোরদের মনে হতাশার জন্ম নেয় – (অনুধাবন)
র. পিতামাতার স্নেহ থেকে বঞ্চিত হলে রর. ভালো বন্ধু পেলে
ররর. পারিবারিক কলহের কারণে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর ˜ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১১১. মাদক গ্রহণকারীরা সাধারণত ভোগেÑ (অনুধাবন)
র. হতাশায় রর. ব্যর্থতায়
ররর. হীনম্মন্যতায়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর ˜ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১১২. মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে দরকারÑ (অনুধাবন)
র. গণসচেতনতা
রর. কর্মের আইন
ররর. নেশাজাতীয় দ্রব্যের উৎপাদন বন্ধ করা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর ˜ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১১৩. সথানীয় পর্যায়ে মাদকাসক্তি প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করতে পারেÑ (অনুধাবন)
র. মসজিদ-মন্দির
রর. ক্লাব-সমিতি
ররর. সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংস্থা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর

সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন -১  নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
জনাব সাঈদ লক্ষ করলেন কয়েক মাস যাবত তার মেয়ে বিদ্যালয়ে একা যেতে সংকোচবোধ করছে। কারণ তার এলাকার ১৩-১৪ বৎসর বয়সী কয়েকজন ছেলে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে মেয়েদেরকে নানাভাবে উত্যক্ত করে। বিষয়টি তাকে চিন্তিত করে তুলল। তিনি এ সমস্যা সমাধানের জন্য অভিভাবকদের সাথে আলোচনার উদ্যোগ গ্রহণ করেন।
ক. মাদকাসক্তি রোধে কোন প্রতিজ্ঞায় তরুণদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে?
খ. অপসংস্কৃতির প্রভাব মাদকাসক্তির বড় কারণÑ বুঝিয়ে লিখ।
গ. কোন ধরনের সামাজিক সমস্যার কারণে জনাব সাঈদ চিন্তিত- ব্যাখ্যা কর।
ঘ.জনাব সাঈদের গৃহীত উদ্যোগের কার্যকারিতা মূল্যায়ন কর।
 ১নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. মাদকাসক্তি রোধে ‘মাদককে না বলুন’ এ প্রতিজ্ঞায় তরুণদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে।
খ. আমাদের দেশের প্রেক্ষাপটে মাদকাসক্তির অনেকগুলো কারণের মধ্যে অপসংস্কৃতির প্রভাব একটি অন্যতম কারণ। চলচ্চিত্র, টিভি চ্যানেল, ইন্টারনেট প্রভৃতির মাধ্যমে আজকাল দেশের সংস্কৃতি সহজেই অন্য দেশের সংস্কৃতি ও জনজীবনকে প্রভাবিত করছে। দুই ভিন্ন সংস্কৃতির টানাপড়েনে পড়ে যুব সমাজের একটা অংশ বিভ্রান্ত ও পথভ্রষ্ট হয়ে মাদকে আকৃষ্ট হচ্ছে।
গ. কিশোর অপরাধের মতো সামাজিক সমস্যার কারণে জনাব সাঈদ চিন্তিত। জনাব সাঈদ লক্ষ করলেন, কয়েক মাস যাবত তার মেয়ে বিদ্যালয়ে একা যেতে সংকোচবোধ করছে। কারণ তার এলাকার ১৩-১৪ বছর বয়সী কয়েকজন ছেলে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে মেয়েদেরকে নানাভাবে উত্যক্ত করে যা কিশোর অপরাধের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ।
জনাব সাঈদ চিন্তিত কারণ ইদানীং বাংলাদেশের শহর ও গ্রামাঞ্চল সর্বত্র কিশোর অপরাধীদের দ্বারা মেয়েদের উত্যক্ত করার ঘটনা বেড়ে চলেছে। তারা মেয়েদের প্রতি অশ্লীল ও অশোভন উক্তি করে। এদের কারণে মেয়েরা নিরাপদে স্কুল কলেজে যাতায়াত করতে পারে না। বখাটে কিশোরদের অন্যায় প্রস্তাবে সাড়া না দিলে তারা মেয়েদের অপহরণ, শারীরিক নির্যাতন বা তাদের ওপর এসিড নিক্ষেপ করে। প্রতিবাদ করতে গিয়ে অনেক সময় অবিভাবকরাও তাদের আক্রমণের শিকার হন। এসব বখাটেদের উৎপাতে কখনো কখনো ছাত্রীদের পড়ালেখাও বন্ধ হয়ে যায়।
তাই এসব কিশোর অপরাধীদের কারণে যাতে সাঈদ সাহেবের মেয়ের স্কুলে যাওয়া এবং পড়ালেখা বন্ধ হয়ে না যায় এ চিন্তায় জনাব সাঈদ চিন্তিত।
ঘ. উদ্দীপকের জনাব সাঈদ কিশোর অপরাধ বন্ধের জন্য কিশোরদের অভিভাবকদের সাথে আলোচনার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। জনাব সাঈদের গৃহীত উদ্যোগের কার্যকারিতা নিচে মূল্যায়ন করা হলো-
জনাব সাঈদ উদ্দীপকে উলি­খিত সমস্যা সমাধানের জন্য যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন তা সঠিক। কিশোর অপরাধের বিভিন্ন কারণগুলোর মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো সুস্থ পারিবারিক জীবন ও সুষ্ঠু সামাজিক পরিবেশের অভাব। সে কারণে শিশু-কিশোররা অপরাধী হয়ে ওঠে। পরিবার একটি শিশুর ব্যক্তিত্ব বিকাশ ও আচরণ নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করে। পরিবার হলো সামাজিক নিয়ন্ত্রণের অন্যতম বাহন।
তাই জনাব সাঈদ অপরাধীদের অভিভাবক তথা পরিবারকে তাদের কার্যকলাপ সম্পর্কে অবহিত করার উদ্যোগ গ্রহণ করে যুক্তিযুক্ত কাজই করেছেন। এতে পরিবারগুলো তার কিশোর ছেলেদের আচরণ ও মনমানসিকতা পরিবর্তনের চেষ্টা করবে।
সুতরাং উপরিউক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায় যে, কিশোর অপরাধ রোধে জনাব সাঈদের উদ্যোগটি যথাযথ এবং সঠিক।

প্রশ্ন -২ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
মনির ৮ম শ্রেণিতে পড়ে। তার বয়স ১৪ বছর। সে তার ধনী বাবা মার একমাত্র সন্তান। তার বাবা মা তাদের চাকরি নিয়ে এতই ব্যস্ত থাকেন যে তারা তাদের একমাত্র সন্তানটিকে এতটুকু সময় দিতে পারেন না। সে একাকী থাকার কারণে কিছু খারাপ বন্ধুর সঙ্গে মিশতে শুরু করে। আস্তে আস্তে সে বিদ্যালয়ে এবং রাস্তাঘাটে ধূমপান করা শুরু করে। সে সবার সাথে খারাপ আচরণ করে এবং নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ে।
ক. কীভাবে মাদকাসক্তির সূত্রপাত ঘটে? ১
খ. চিত্তবিনোদনের অভাবে কীভাবে শিশুকিশোরদের মাদকাসক্ত করে তোলে? ২
গ. উদ্দীপকে মনিরের কার্যবলির প্রকৃতি ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.মনিরের এ অবস্থা থেকে উত্তরণের উপায়সমূহ বিশ্লেষণ কর। ৪
 ২নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. মাদকাসক্তির সুত্রপাত ঘটে মাদকাসক্ত সঙ্গীদের দ্বারা।
খ. চিত্তবিনোদনের অভাবের কারণে অনেক শিশুকিশোর, কিশোরী মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। ছোটবেলা থেকেই খেলাধুলা, সংগীত , ছবি আঁকা, শরীরচর্চা ও বিভিন্ন ধরনের সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত শিশু কিশোররা সাধারণত আনন্দময় পরিবেশে ও সুস্থভাবে বেড়ে উঠে। অন্যদিকে যারা এসবের সুযোগ পায় না তারা মানসিক অস্থিরতা থেকে মুক্তির অন্য পথ খোঁজে। তারাই পরে মাদকাসক্তসহ নানা রকম অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে।
গ. উদ্দীপকের মনিরের কার্যাবলির প্রকৃতি হলো কিশোর অপরাধ।
যেসব কাজ কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে সেগুলো হচ্ছে চুরি, খুন, জুয়া খেলা, স্কুল পালানো, বাড়ি থেকে পালানো, পরীক্ষায় নকল করা, বিদ্যালয় ও পথেঘাটে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ, পকেটমারা, মারপিট করা, বোমাবাজি, গাড়ি ভাংচুর, বিনা টিকিটে ভ্রমণ, পথেঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করা, এসিড নিক্ষেপ, নারী নির্যাতন, অশোভন ছবি দেখা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি। আমাদের দেশের কিশোর অপরাধীরা সাধারণত এসব অপরাধের সঙ্গে জড়িত থাকে।
উদ্দীপকে দেখা যায় ১৪ বছরের মনির একাকী থাকার কারণে কিছু খারাপ বন্ধুর সঙ্গে মিশতে শুরু করে। আস্তে আস্তে সে বিদ্যালয়ে এবং রাস্তাঘাটে ধূমপান করা শুরু করে। সে সবার সাথে খারাপ আচরণ করে এবং নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ে। অর্থাৎ তার কার্যাবলি হচ্ছে প্রকৃতির দিক থেকে কিশোর অপরাধ।
ঘ. মনিরের এ অবস্থা থেকে উত্তরণের কতগুলো উপায় রয়েছে। যথা :
১. তার পিতামাতা ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠরা যদি সচেতন থাকেন তবে তাঁরা সহেজই মনিরকে অপরাধ থেকে দূরে রাখতে বা সে পথ থেকে সরিয়ে আনতে পারবেন। এজন্য পরিবারে মনিরের সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তার চলাফেরার উপর নজর রাখতে হবে। তার বন্ধু ও সাথিদের সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখতে হবে। তার সঙ্গে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।
২. মনিরের মানসিক বিকাশের জন্য পাড়া ও মহল্লায় যদি পাঠাগার, ব্যায়ামাগার প্রভৃতি থেকে থাকে সেখানে তাকে সদস্য করে দিতে হবে। এছাড়া এলাকায় খেলার মাঠে তাকে খেলতে দিতে হবে।
উল্লিখিত কার্যক্রম ছাড়াও মনিরকে সব রকম খারাপ কাজ থেকে দূরে রাখতে হবে। এজন্য টেলিভিশনে ও অন্যান্য মাধ্যমে জ্ঞান-বিজ্ঞান ও তথ্যমূলক এবং বিশুদ্ধ আনন্দদায়ক দেশি ও বিদেশি ছায়াছবি দেখানোর ব্যবস্থা করতে হবে।
প্রশ্ন -৩ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
রাজিব অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে। তার মা মানুষের বাড়িতে ঝি’য়ের কাজ করে এবং বাবা দিনমজুর। সেই সুযোগে সে স্কুলে না গিয়ে অন্য ছেলেদের সাথে মারপিট ও পথেঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করে। ফলে তার বাবা পরিবারের আর্থিক স্বচ্ছলতার উদ্দেশ্যে তাকে দিনমজুরের কাজ করতে বাধ্য করে।
ক. মাদকাসক্তির সুত্রপাতের প্রধান কারণ কী? ১
খ. “মাদকাসক্তির অন্যতম কারণ অপসংস্কৃতি”- ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত সামাজিক সমস্যাটি ব্যাখ্যা কর। ৩ ঘ.“উক্ত সমস্যাটি সমাধানে রাজিবের বাবার নেয়া সিদ্ধান্তটিই একমাত্র পদক্ষেপ নয়” বিশ্লেষণ কর। ৪
 ৩নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. মাদকাসক্তির সূত্রপাতের প্রধান কারণ মাদকাসক্ত সঙ্গী।
খ. অপসংস্কৃতির প্রভাবও মাদকাসক্তির পিছনে একটি বড় কারণ হিসেবে কাজ করে। চলচ্চিত্র, টিভি চ্যানেল, ইন্টারনেট প্রভৃতির মাধ্যমে আজকাল এক দেশের সংস্কৃতি সহজেই অন্য দেশের সংস্কৃতি ও জনজীবনকে প্রভাবিত করছে। দুই ভিন্ন সংস্কৃতির টানাপাড়েনে পড়েও যুব সমাজের একটা অংশ বিভ্রান্ত ও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে মাদকে আকৃষ্ট হচ্ছে।
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত সামাজিক সমস্যাটি হলো কিশোর অপরাধ।
অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেমেয়ে বা কিশোরদের দ্বারা সংঘটিত বিভিন্ন ধরনের অপরাধকেই বলা হয় কিশোর অপরাধ। বাংলাদেশ, ৭ থেকে ১৬ বছর বয়সী কিশোরদের অপরাধমূলক কাজকে কিশোর অপরাধ বলা হয়।
আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রধান কারণ দারিদ্র্য। দরিদ্র পরিবারের কিশোরদের অনেক সাধ বা ইচ্ছাই অপূর্ণ থেকে যায়। এর ফলে তাদের মধ্যে বাড়ে হতাশা এবং এ হতাশাই তাদের অপরাধের দিকে ঠেলে দেয়। সুস্থ পারিবারিক জীবন ও সুষ্ঠু সামাজিক পরিবেশের অভাবে শিশু-কিশোররা অপরাধী হয়ে উঠতে পারে। বাড়ির বাইরে বা কর্মস্থলে অতি ব্যস্ততার কারণে পিতামাতার পক্ষে তাঁদের সন্তানদের যথেষ্ট সময় বা মনোযোগ দিতে না পারাও কিশোর অপরাধের কারণ। যেসব কাজ কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে সেগুলো হচ্ছে চুরি, খুন, জুয়া খেলা, স্কুল পালানো, বাড়ি থেকে পালানো, পরীক্ষায় নকল করা, বিদ্যালয় ও পথেঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি। আমাদের দেশের কিশোর অপরাধীরা সাধারণত এসব অপরাধের সঙ্গে জড়িত থাকে।
উদ্দীপকের রাজিব দিনমজুর বাবা ও বাড়িতে ঝি’য়ের কাজ করা মায়ের সন্তান। উপরন্তু তারা উভয়ে ব্যস্ত থাকে। এ সুযোগে সে স্কুলে না গিয়ে অন্য ছেলেদের সাথে মারপিট ও পথেঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করে। যা কিশোর অপরাধের মধ্যে পড়ে।
ঘ. উদ্দীপকে রাজিবের বাবার নেয়া সিদ্ধান্তটি কিশোর অপরাধ দূরীকরণে একমাত্র পদক্ষেপ নয় বরং তা আরও সমস্যাসংকুল। কিশোর অপরাধ দূরীকরণে কার্যকর কিছু পদক্ষেপ রয়েছে। যথা : কিশোরদের অপরাধ প্রবণতার ধরন, তার কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে পিতামাতা ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠরা যদি সচেতন থাকেন তবে তারা সহজেই কিশোরদের অপরাধ থেকে দূরে রাখতে বা সে পথ থেকে সরিয়ে আনতে পারবেন।
সকল শিশু-কিশোরদের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার আওতায় আনতে হবে। এতে তারা একদিকে শিক্ষার প্রভাবে সুস্থ ও সুন্দর জীবন-যাপনে আগ্রহী হবে। অন্যদিকে বিদ্যালয়ের পরিবেশ তাদেরকে অপরাধ থেকে দূরে রাখবে।
শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের জন্য পাড়া ও মহল্লায় পাঠাগার, ব্যায়ামাগার প্রভৃতি স্থাপন করা প্রয়োজন। এছাড়া বিদ্যালয়ে ও আবাসিক এলাকায় খেলার মাঠ থাকতে হবে।
উদ্দীপকে রাজীবের বাবা এসব পদক্ষেপ না নিয়ে ছেলেকে কাজ করতে বাধ্য করেন। যা শিশুশ্রমের মধ্যে পড়ে এবং সেটিও অপরাধ। আর রাজীবকে এ বয়সে কাজে বাধ্য করা তার অধিকারের লঙ্ঘণ।
উপরোক্ত আলোচনার দ্বারা বুঝা যায় সমস্যা সমাধানের রাজিবের বাবার পদক্ষেপটি মোটেই গ্রহণযোগ্য নয় বরং তিনি তার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসে উল্লিখিত পদক্ষেপগুলো নিতে পারলে কিশোর অপরাধ ঠেকানো সম্ভব।
প্রশ্ন -৪ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
রমিজ টাকার জন্য অশোভন আচরণ ও বাসায় জিনিসপত্র ভাংচুর করে। তার অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে তার মা তাকে আইনের হাতে তুলে দেয়।
ক. বাংলাদেশে প্রতি বর্গকিলোমিটারে কত জন লোক বাস করে? ১
খ. জনসংখ্যানীতি বলতে কী বোঝায়? ২
গ. রমিজের ক্ষেত্রে কোন সামাজিক সমস্যা পরিলক্ষিত হয়? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.“রমিজের মায়ের গৃহীত পদক্ষেপ উক্ত সমস্যা সমাধানে একমাত্র উপায়” – উক্তিটি মূল্যায়ন কর। ৪
 ৪নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. বাংলাদেশে প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ১০১৫ জন বাস করে।
খ. সাধারণভাবে দেশের জনসংখ্যা বিষয়ে জাতীয় পর্যায়ে যে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয় তাকেই বলা হয় দেশটির জনসংখ্যানীতি। দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে এ নীতি প্রণয়ন করা হয়। এ নীতির লক্ষ্য হলো জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ করে দেশের নাগরিকদের জীবনমানের উন্নতি এবং দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন নিশ্চিত করা।
গ. উদ্দীপকের রমিজের ক্ষেত্রে মাদকাসক্তি পরিলক্ষিত হয়, যেটি বাংলাদেশের অন্যতম সামাজিক সমস্যা।
মাদকাসক্তি একটি কিশোর অপরাধ, এটি সমাজজীবনে একটি ভয়াবহ সমস্যা। পারিবারিক জীবনে মাদকের প্রভাব নানা জটিল সমস্যা সৃষ্টি করে। পুরো পরিবারের সুখ-শান্তিকে তা নষ্ট করে। যে পরিবারে একটি মাদকাসক্ত সন্তান থাকে সে পরিবারে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকে। যেমনটি পরিলক্ষিত হয় উদ্দীপকের রমিজের ক্ষেত্রে। সে টাকার জন্য অশোভন আচরণ ও বাসার জিনিসপত্র ভাংচুর করে। সুতরাং আমরা বলতে পারি রমিজ মাদকাসক্তিতে ভুগছে। যেটি আমাদের দেশের জটিল সামাজিক সমস্যা।
ঘ. রমিজের মায়ের গৃহীত পদক্ষেপ তথা মাদকাসক্তকে আইনের হাতে তুরে দেয়া মাদকাসক্তি সমস্যা সমাধানের একমাত্র উপায় নয়।
মাদকাসক্তি রোধে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাই সবচেয়ে ভালো ও কার্যকর। এজন্য সমাজে নৈতিক শিক্ষাকে গুরুত্ব দিতে হবে। সন্তানদের ছোটবেলা থেকেই ধর্মীয় ও নৈতিক মূল্যবোধ শেখানোর জন্য অভিভাবক ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্যদের সচেষ্ট হতে হবে। মাদকের ক্ষতিকর প্রভাব এবং মাদক সম্পর্কে ধর্মে যেসব বিধিনিষেধ রয়েছে সবাইকে তা জানাতে হবে।
স্থানীয় পর্যায়ে মসজিদ মন্দির প্রভৃতি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান এবং ক্লাব সমিতি প্রভৃতি সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংস্থাগুলো নৈতিকতা শিক্ষার পাশাপাশি মাদকাসক্তি প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করতে পারে। নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘মাদককে না বলুন’ এ প্রতিজ্ঞায় জনগণ বিশেষ করে তরুণদের উদ্বুদ্ধ করতে পারে। এছাড়া সংবাদপত্র, রেডিও, টেলিভিশন, চলচ্চিত্র, পোস্টার, বিলবোর্ড ও লিফলেট ইত্যাদির মাধ্যমেও মাদকাসক্তির বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টি করা যেতে পারে।
সুস্থ চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা করে শিশু- কিশোরদের সেদিকে আকর্ষণ করতে হবে যাতে তারা মাদক গ্রহণ ও অন্যান্য খারাপ অভ্যাসের দিকে ঝুঁকে না পড়ে।
এছাড়া ধূমপান ও অন্যন্য নেশাজাতীয় দ্রব্যের উৎপাদান ও বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধ করতে হবে। ছাত্রদের সামনে শিক্ষকের ধূমপানকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করতে হবে।
উপরোক্ত আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বলতে পারি রমিজের মায়ের গৃহীত পদক্ষেপ উক্ত সমস্যা তথা মাদকাসক্তি সমস্যা সমাধানের একমাত্র উপায়- উক্তিটি পুরোপুরি সত্য নয়।
প্রশ্ন -৫ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
ফরহাদ ৮ম শ্রেণির ছাত্র। মা-বাবা দুজনই চাকুরিজীবী। তারা দু’জনই ব্যস্ত থাকে স্ব- স্ব কর্মক্ষেত্রে। ছেলেকে সময় দিতে পারে না। কিন্তু ছেলের চাহিদা পূরণ করতে কার্পণ্য করে না। মা-বাবার অনুপস্থিতির সুযোগে সে স্কুলে না গিয়ে বাসায় এবং বাইরে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেয় এবং নানা রকম অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে। তার মা-বাবা রাতে বাসায় ফিরে তাকে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে।
ক. মাদকাসক্তির সূত্রপাতের প্রধান কারণ কী? ১
খ. মাদকাসক্তি প্রতিরোধে নৈতিক শিক্ষার ভ‚মিকা ব্যাখ্যা কর। ২
গ. ফরহাদ যে অপরাধে জড়িত হয়েছে তার মুল কারণ ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.ফরহাদকে উক্ত সমস্যা থেকে মুক্ত করতে তার মা-বাবার গৃহীত পদক্ষেপের যৌক্তিকতা বিশ্লেষণ কর। ৪
 ৫নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. মাদকাসক্তির সুত্রপাতের প্রধান কারণ মাদকাসক্ত সঙ্গী।
খ. নৈতিক শিক্ষা মাদকাসক্তি রোধে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করতে পারে। সন্তানদের যদি ছোটবেলা থেকেই নৈতিক মূল্যবোধ শেখানো যায় তবে তারা মাদকদ্রব্য গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকবে। ফলে মাদকাসক্তি রোধ সম্ভব হবে।
গ. উদ্দীপকের ফরহাদ যে অপরাধে জড়িত হয়েছে তার মূল কারণ হচ্ছে দারিদ্র্য। ফরহাদ কিশোর অপরাধে জড়িত। সে ৮ম শ্রেণির ছাত্র হয়েই বাসায় এবং বাইরে আড্ডা দেয়, নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে।
শিশু-কিশোররা নানা কারণে অপরাধী হয়ে উঠে। আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রধান কারণ দারিদ্র্য। দরিদ্র পরিবারের কিশোরদের অনেক সাধ বা ইচ্ছাই অপূর্ণ থেকে যায়। এর ফলে তাদের মধ্যে বাড়ে হতাশা এবং এ হতাশাই তাদের অপরাধের দিকে ঠেলে দেয়।
ঘ. উদ্দীপকে ফরহাদের মা-বাবার তাকে অপরাধ থেকে বিরত রাখতে গৃহীত পদক্ষেপ যৌক্তিক নয়। ফরহাদ মা-বাবার অবহেলায় কিশোর অপরাধে জড়িয়ে পড়লে তার মা-বাবা তাকে বাসায় ফিরে কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। তাদের এ কাজটি মোটেই যৌক্তিক ও ফলপ্রসূ নয়। বরং তাদের উচিত ছিল তার সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করা। ছেলেকে যথেষ্ট সময় দেওয়া এবং তার যে কোনো চাহিদা ইচ্ছেমতো পূরণ না করে তার মঙ্গল হয় এমন কাজের উপদেশ দেওয়া ও তাকে নিয়ন্ত্রণ করা। এছাড়া তার চলাফেরার উপর নজর রাখা। তার বন্ধু ও সাথিদের সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখা। তার সাথে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তোলা। তারা ফরহাদের সুস্থ চিত্তবিনোদনের কোনো ব্যবস্থা করেনি। আজ ফরহাদ অপরাধে জড়িয়ে পড়লে তারা কঠোর হন। তাদের একাজটিও উচিত হচ্ছে না বরং এক্ষেত্রে তাদের করণীয় হলো তাকে আবার ভালো পথে ফিরিয়ে আনতে সতর্কতার সহিত কাজ করা।
সার্বিক বিচারে একথা স্পষ্ট যে, ফরহাদের মতো ছেলেদের মা-বাবার গৃহীত পদক্ষেপ হওয়া উচিত তাকে শুধরে নিতে সহযোগিতা করা, কঠোর নিয়ন্ত্রণ যৌক্তিক নয়।
প্রশ্ন -৬ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
শাহীন ৮ম শ্রেণির ছাত্র। বাবা-মা দুজন চাকরিজীবী। স¤প্রতি সে বখাটে ছেলেদের সাথে মেলামেশা, সিগারেট খাওয়া শুরু করে। পরীক্ষায় নকল করার দায়ে সে বহিস্কার হয়। প্রধান শিক্ষক তার বাবা-মাকে ডেকে বলেন- সন্তানকে যথেষ্ট সময় দেওয়ার মাধ্যমে আমরা এ সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে পারি।
ক. শারীরিক ও মানসিক ত্রæটি শিশু মনে কিসের জন্ম দেয়? ১
খ. মাদকাসক্তির একটি কারণ ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকে উল্লিখিত সমস্যা শাহীনের পারিবারিক জীবনে যে প্রভাব সৃষ্টি করেছে তা ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.উদ্দীপকে উল্লিখিত শেষোক্ত উক্তিটির সাথে তুমি কি একমত? উত্তরের সপক্ষে যুক্তি দাও। ৪
 ৬নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. শারীরিক ও মানসিক ত্রæটি শিশু মনে হীনম্মন্যতার জন্ম দেয়।
খ. অপসংস্কৃতির প্রভাব মাদকাসক্তির একটি বড় কারণ। চলচ্চিত্র, টিভি চ্যানেল, ইন্টারনেট প্রভৃতির মাধ্যমে আজকাল এক দেশের সংস্কৃতি সহজেই অন্য দেশের সংস্কৃতি ও জনজীবনকে প্রভাবিত করছে। দুই ভিন্ন সংস্কৃতির টানা পড়েনে পড়েও যুবসমাজের একটা অংশ বিভ্রান্ত ও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে মাদকে আকৃষ্ট হচ্ছে।
গ. উদ্দীপকে উল্লিখিত সমস্যা তথা কিশোর অপরাধ শাহীনের পারিবারিক জীবনে বিরূপ প্রভাব সৃষ্টি করেছে।
আমরা উদ্দীপকে লক্ষ করি শাহীন বখাটে ছেলেদের মেলামেশা করে সিগারেট খাওয়া শুরু করে এবং পরীক্ষায় নকল করার দায়ে সে বহিস্কার হয়। এ ধরনের অপরাধ শাহীনের পরিবারে অশান্তি সৃষ্টি করবে। তার বাবা-মা তাকে নিয়ে চিন্তিত হবেন। পরিবারের সম্মান হানি ঘটবে। শাহীনের পরিবার সামাজিকভাবে হেয় হবেন। পরিবারে স্বাভাবিকভাবে অশান্তি নেমে আসবে।
ঘ. উদ্দীপকে উল্লিখিত শেষোক্ত উক্তিটির সাথে আমি একমত নই। কারণ শুধু সন্তানকে যথেষ্ট সময় দেওয়ার মাধ্যমে আমরা এ সমস্যা তথা কিশোর অপরাধ থেকে বেরিয়ে আসতে পারি না। অভিভাবকদের সচেতনতা ও দায়িত্ব ছাড়া আরও কিছু প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। যেমন :
আর্থ-সামাজিক কর্মসূচি : কিশোরদের অপরাধ প্রবণতার একটি প্রধান কারণ পরিবারের দারিদ্র্য। সেজন্য অভিভাবকদের জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও পরিবারের আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটাতে হবে। এ ব্যাপারে সরকার এবং বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থাকে এগিয়ে আসতে হবে।
শিক্ষার সুযোগ : সকল শিশু-কিশোরকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার আওতায় আনতে হবে। এতে তারা একদিকে শিক্ষার প্রভাবে সুস্থ ও সুন্দর জীবন-যাপনে আগ্রহী হবে। অন্যদিকে বিদ্যালয়ের পরিবেশ তাদেরকে অপরাধ থেকে দূরে রাখবে।
চিত্তবিনোদন : শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের জন্য পাড়া ও মহল্লায় পাঠাগার, ব্যায়ামাগার প্রভৃতি স্থাপন করা প্রয়োজন। এছাড়া বিদ্যালয়ে ও আবাসিক এলাকায় খেলার মাঠ থাকতে হবে।
উপরোক্ত প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাগুলো গ্রহণ এবং মাতাপিতা সন্তানকে সময় দিলে আমরা কিশোর অপরাধ সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে পারি।
প্রশ্ন -৭ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
ইউনুসের বয়স মাত্র চৌদ্দ বছর। তার বাবা একজন কৃষক। খেয়ে না খেয়ে তাদের সংসার চলে। পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার পর সে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। বস্তির এক বখাটে ছেলের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়। এখন সে মোড়ে মোড়ে আড্ডা দেয় আর জুয়া খেলে।
ক. মাদকাসক্তির সূত্রপাত প্রধানত কাদের মাধ্যমে ঘটে? ১
খ. মাদকাসক্তিরোধে নৈতিক শিক্ষার গুরুত্ব লেখ। ২
গ. উদ্দীপকে কোন সামাজিক সমস্যাটি বিবৃত হয়েছে? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.ইউনুসের সমস্যার পেছনে কী কী কারণ দায়ী? উদ্দীপকের আলোকে ব্যাখ্যা কর। ৪
ল্ফল্প ৭নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. মাদকাসক্তির সূত্রপাত প্রধানত মাদকাসক্ত সঙ্গীদের মাধ্যমে ঘটে।
খ. নৈতিক শিক্ষা মাদকাসক্তি রোধে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করতে পারে। সন্তানদের যদি ছোটবেলা থেকেই নৈতিক মূল্যবোধ শেখানো যায় তবে তারা মাদকদ্রব্য গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকবে। ফলে মাদকাসক্তি রোধ করা সম্ভব হবে।
গ. উদ্দীপকে যে সামাজিক সমস্যাটি বিবৃত হয়েছে তা হলো কিশোর অপরাধ। নি¤েœ এর ব্যাখ্যা দেওয়া হলোÑ
প্রাপ্তবয়স্ক ছেলেমেয়ে বা কিশোরদের দ্বারা সংঘটিত বিভিন্ন ধরনের অপরাধকেই বলা হয় কিশোর অপরাধ। বাংলাদেশে ৭-১৬ বছর বয়সী কিশোরদের অপরাধমূলক কাজকে কিশোর অপরাধ বলা হয়। যেসব কাজ কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে সেগুলো হচ্ছে চুরি, খুন, জুয়া খেলা, স্কুল পালানো, পরীক্ষায় নকল করা, বিদ্যালয় বা পথেঘাটে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ, পকেটমারা, মারপিট করা, পথে ঘাটে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি। অনুরূপভাবে উদ্দীপকেও দেখা যায়, চৌদ্দ বছর বয়সী ইউনুস পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার পর স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। বর্তমানে সে মোড়ে মোড়ে আড্ডা দেয় আর জুয়া খেলে যা কিশোর অপরাধের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ।
ঘ. ইউনুস একজন কিশোর অপরাধী। তার এ সমস্যার পেছনে যেসব কারণ দায়ী তা নি¤েœ উদ্দীপকের আলোকে ব্যাখ্যা করা হলোÑ
শিশু-কিশোররা নানা কারণে অপরাধী হয়ে ওঠে। আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রধান কারণ দারিদ্র্য। দরিদ্র পরিবারের কিশোরদের অনেক সাধ বা ইচ্ছাই অপূর্ণ থেকে যায়। এর ফলে হতাশা বাড়ে এবং তারা অপরাধী হয়ে বেড়ে ওঠে। উদ্দীপকে বর্ণিত ইউনুসের বাবা একজন কৃষক। খেয়ে না খেয়ে তাদের সংসার চলে যা দারিদ্রকে নির্দেশ করে। এছাড়া পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ার পর সে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। বস্তির এক বখাটে ছেলের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব হয়। এখন সে মোড়ে মোড়ে আড্ডা দেয় আর জুয়া খেলে যা কিশোর অপরাধের অন্যতম কারণ সঙ্গদোষকে নির্দেশ করে। সঙ্গদোষেও শিশু-কিশোররা অনেক সময় অপরাধী হয়ে ওঠে। এ বিষয়টি উদ্দীপকে বর্ণিত ইউনুসের ক্ষেত্রেও দেখা যায়।
প্রশ্ন -৮ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিক তিন বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় পিতামাতাকে হারিয়ে বর্তমানে ভাই-বোনের তত্ত¡াবধানে পড়ালেখা করে। শ্রেণি কার্যক্রমে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে অমনোযোগী থাকার বিষয়টি উপলব্ধি করে অরিকের সাথে কথা বলার পর জানা যায়, সে যেন কী হারিয়ে খোঁজে। তার সহপাঠী বন্ধুরা ও শিক্ষকগণ এ সমস্যার সমাধানে অরিকের বর্তমান অভিভাবকের সাথে আলোচনা করেন।
ক. বাংলাদেশে কিশোরদের বয়সসীমা কত বছর? ১
খ. শিশু মনে হীনম্মন্যতার জš§ দেওয়ার কারণটি ব্যাখ্যা কর। ২
গ. অরিকের মধ্যে বিরাজমান সামাজিক সমস্যার কারণটি ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.অরিকের সমস্যা সমাধানের জন্য দৃশ্যকল্পের শেষোক্ত পদক্ষেপটির কার্যকারিতা মূল্যায়ন কর। ৪
ল্ফল্প ৮নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. বাংলাদেশে কিশোরদের বয়সসীমা ৭ থেকে ১৬ বছর।
খ. শারীরিক মানসিক ত্রæটি বা বৈকল্য শিশুমনে হীনম্মন্যতার জš§ দেয়। সকল শিশু সুস্থ ও স্বাভাবিক অবস্থায় জš§গ্রহণ করে না। কারো কারো মধ্যে শারীরিক-মানসিক ত্রæটি বা বৈকল্য থাকে। এর ফলে শিশু মনে হীনম্মন্যতার সৃষ্টি হয়।
গ. অরিকের মধ্যে বিরাজমান সামাজিক সমস্যার কারণটি হচ্ছে পিতামাতার অকাল মৃত্যু। দৃশ্যকল্পে বর্ণিত অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী অরিক তিন বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় পিতামাতাকে হারিয়ে বর্তমানে ভাই-বোনের তত্ত¡বধানে পড়ালেখা করছে। তবে সে শ্রেণি কার্যক্রমে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে অমনোযোগী থাকে। বিষয়টি উপলব্ধি করে অরিকের সাথে কথা বলার পর জানা যায়, সে যেন কী হারিয়ে খোঁজে। এ থেকে বোঝা যায় পিতামাতার অকাল মৃত্যুই অরিকের এরূপ অবস্থার কারণ। পিতামাতার অকাল মৃত্যু অরিকের মনে একাকীত্ব সৃষ্টি করে। পিতামাতাকে হারিয়ে অরিক ভাইবোনের তত্ত¡াবধানে থেকে পড়ালেখা করলেও সে পিতামাতার অভাব অনুভাব করছে। আর এ কারণেই সে হতাশায় ভুগছে এবং শ্রেণি কার্যক্রমে অমনোযোগী থাকছে।
ঘ. আরিফের সমস্যা হচ্ছে শ্রেণিকার্যক্রমে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে সে অমনোযোগী থাকে। সে যেন কী হারিয়ে খোঁজে। বিষয়টি উপলব্ধি করে অরিকের সাথে কথা বলার পর জানা যায় সে তিন বছর আগে সড়ক দূর্ঘটনায় তার পিতামাতাকে হারিয়ে বর্তমানে ভাইবোনের তত্বাবধানে পড়ালেখা করেছে। অরিকের এ সমস্যার সমাধানে তার বন্ধুরা ও শিক্ষকগণ অরিকের বর্তমান অভিভাবকের সাথে আলোচনা করেন। তাদের এ পদক্ষেপটি অর্থাৎ দৃশ্যকল্পের শেষোক্ত পদক্ষেপটি কার্যকর হবে বলে আমি মনে করি। কারণ এ বিষয়টি জানার পর অরিকের বর্তমান অভিভাবক অর্থাৎ তার ভাই-বোনরা তার প্রতি আগের তুলনায় আরও বেশি সচেতন হবেন। পিতামাতার অভাববোধ মুছে ফেলার চেষ্টা করবেন। তার সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করবেন। অরিকের চলাফেরা ও আচার আচরণের প্রতি খেয়াল রাখবেন। তার বন্ধু ও সাথিদের সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখবেন। তার সাথে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলবেন। সুতরাং বলা যায়, অরিকের সমস্যা সমাধানের জন্য দৃশ্যকল্পের শেষোক্ত পদক্ষেপটি যথেষ্ট কার্যকরী।
প্রশ্ন -৯ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
প্রবাসে কর্মরত বাবার একমাত্র সন্তান রাশেদ শহরের নামী-দামি প্রতিষ্ঠানের নবম শ্রেণির মেধাবী শিক্ষার্থী। কিন্তু উচ্ছৃঙ্খল ছেলেদের সাথে মিশে স্কুল পালানো, অশোভন ছবি দেখা, পথে ঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করা তার নিত্যদিনের কাজ। স¤প্রতি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাশেদের মাকে ডেকে বিষয়টি নজরে আনেন এবং বলেন, “সন্তানদের এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে দূরে রাখার জন্য অভিভাবকদের সচেতন ও দায়িত্বশীল হওয়া প্রয়োজন।”
ক. থাইল্যাণ্ডে কিশোর অপরাধীর বয়সসীমা কত? ১
খ. “পিতামাতার কর্মস্থল পরিবর্তন কিশোর অপরাধের একটি কারণ” ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকের রাশেদের কর্মকাণ্ড বাংলাদেশের কোন সামাজিক সমস্যাকে প্রতিনিধিত্ব করে? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.উদ্দীপকের উক্ত সমস্যা প্রতিরোধে প্রধান শিক্ষকের বক্তব্যের যথার্থতা মূল্যায়ন কর। ৪
ল্ফল্প ৯নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. থাইল্যান্ডে কিশোর অপরাধীর বয়সসীমা ৭ থেকে ১৮ বছর।
খ. পিতামাতার কর্মস্থল পরিবর্তন কিশোর অপরাধের একটি কারণ। যেসব পিতামাতা বারবার কর্মস্থল পরিবর্তন করেন তাঁদের সন্তানরা নতুন নতুন পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারে না। সঙ্গী বা বন্ধু নির্বাচনেও তাদের সমস্যা হয়। এভাবে সঙ্গদোষেও কেউ কেউ অপরাধী হয়ে ওঠে।
গ. উদ্দীপকের রাশেদের কর্মকাণ্ড যে সামাজিক সমস্যাকে প্রতিনিধিত্ব করে তাহলো কিশোর অপরাধ। অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেমেয়ে বা কিশোরদের দ্বারা সংঘটিত বিভিন্ন ধরনের অপরাধকেই কিশোর অপরাধ বলা হয়।
যেসব কাজ কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে সেগুলো হচ্ছে চুরি, খুন, জুয়া খেলা, স্কুল পালানো, বাড়ি থেকে পালানো, পরীক্ষায় নকল করা, বিদ্যালয় ও পথেঘাটে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ, পকেটমারা, মারপিট করা, বোমাবাজি, গাড়ি ভাংচুর, বিনা টিকিটে গাড়ি ভ্রমণ, পথেঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করা, এসিড নিক্ষেপ, নারী নির্যাতন, অশোভন ছবি দেখা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি। উদ্দীপকে বর্ণিত রাশেদও একজন কিশোর। কারণ সে নবম শ্রেণির মেধাবী শিক্ষার্থী। কিন্তু সে উচ্ছৃঙ্খল ছেলেদের সাথে মিশে স্কুল পালায়, অশোভন ছবি দেখে, পথে-ঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করে যা কিশোর অপরাধের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ। কাজেই বলা যায়, উদ্দীপকের রাশেদের কর্মকাণ্ড কিশোর অপরাধকে প্রতিনিধিত্ব করে।
ঘ. উদ্দীপকের উক্ত সমস্যা হলো কিশোর অপরাধ। এ সমস্যা প্রতিরোধে প্রধান শিক্ষক বলেন “সন্তানদের এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে দূরে রাখার জন্য অভিভাবকদের সচেতন ও দায়িত্বশীল হওয়া প্রয়োজন”Ñ তার এ বক্তব্যের যথার্থতা নিচে মূল্যায়ন করা হলো:
কিশোরদের অপরাধ প্রবণতার ধরন, তার কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে পিতামাতা ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠরা যদি সচেতন থাকেন তবে তাঁরা সহজেই কিশোরদের অপরাধ থেকে দূরে রাখতে বা সে পথ থেকে সরিয়ে আনতে পারবেন। এজন্য পরিবারে সন্তানদের সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তাদের চলাফেরার ওপর নজর রাখতে হবে। তাদের বন্ধু ও সাথিদের সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখতে হবে। সন্তানদের সঙ্গে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।
শিশু-কিশোররা যেন খারাপ সংস্পর্শে না পড়ে সে ব্যাপারে তাদের নিজেদের যেমন সতর্ক থাকতে হবে, তেমনি অভিভাকদেরও এ ব্যাপারে সব সময় সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।
সুতরাং উপরিউক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায়, কিশোর অপরাধ প্রতিরোধে প্রধান শিক্ষকের বক্তব্য সঠিক এবং যথার্থ।
প্রশ্ন -১০ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
দিন মজুর আফাজ উদ্দিনের বাড়ি সীমান্ত এলাকায়। তার ১২ বছরের ছেলেটি প্রায়ই স্কুলে না গিয়ে চোরাচালান কারবারে লিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে সে মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ে।
ক. কিশোর অপরাধ কোন ধরনের সমস্যা? ১
খ. “মাদকাসক্তির বড় কারণ অপসংস্কৃতি”।ব্যাখ্যা কর। ২
গ. আফাজ উদ্দিনের ছেলের পরিণতির জন্য কিশোর অপরাধের কোন কারণটি বেশি দায়ী? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.“আফাজ উদ্দিনের সচেতনতাই পারে তার ছেলেকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনতে।”-তোমার মতের পক্ষে যুক্তি দাও। ৪
ল্ফল্প ১০নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. কিশোর অপরাধ সামাজিক সমস্যা।
খ. অপসংস্কৃতির প্রভাব মাদকাসক্তির পিছনে একটি বড় কারণ হিসেবে কাজ করে। চলচ্চিত্র, টিভি চ্যানেল, ইন্টারনেট প্রভৃতির মাধ্যমে আজকাল এক দেশের সংস্কৃতি সহজেই অন্য দেশের সংস্কৃতি ও জনজীবনকে প্রভাবিত করছে। দুই ভিন্ন সংস্কৃতির টানাপড়েনে পড়ে যুব সমাজের একটা অংশ বিভ্রান্ত ও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে মাদকে আকৃষ্ট হচ্ছে।
গ. আফাজ উদ্দিনের ছেলের পরিণতির জন্য কিশোর অপরাধের যে কারণটি বেশি দায়ী তা হচ্ছে দারিদ্র্য।
শিশু-কিশোররা নানা কারণে অপরাধী হয়ে ওঠে। আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে দারিদ্র্য। দরিদ্র পরিবারের কিশোরদের অনেক সাধ বা ইচ্ছাই অপূর্ণ থেকে যায়। এর ফলে তাদের মধ্যে বাড়ে হতাশা এবং এ হতাশাই তাদের অপরাধের দিকে ঠেলে দেয়।
উদ্দীপকে বর্ণিত আফাজ উদ্দিনের বাড়ি সীমান্ত এলাকায়। তিনি একজন দিন মজুর অর্থাৎ দরিদ্র। তাই তার ১২ বছরের ছেলেটি প্রায়ই স্কুলে না গিয়ে চোরাচালান কারবারে লিপ্ত হয় এবং এক পর্যায়ে মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ে অর্থাৎ কিশোর অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। এ থেকে বোঝা যায়, কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রধান কারণ দারিদ্র্যই আফাজ উদ্দিনের ছেলের পরিণতির জন্য বেশী দায়ী।
ঘ. “আফাজ উদ্দিনের সচেতনতাই পারে তার ছেলেকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনতে”- বক্তব্যটির সাথে আমি সম্পূর্ণরূপে একমত নই। এর পক্ষের যুক্তিগুলো নিচে দেওয়া হলো-
কিশোরদের অপরাধ প্রবণতার ধরন, তার কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে পিতামাতা ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠরা যদি সচেতন থাকেন তবে তাঁরা সহজেই কিশোরদের অপরাধ থেকে দূরে রাখতে বা সে পথ থেকে সরিয়ে আনতে পারবেন। এজন্য পরিবারে সন্তানদের সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তাদের চলাফেরার ওপর নজর রাখতে হবে। তাদের বন্ধু ও সাথিদের সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখতে হবে। সন্তানদের সঙ্গে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।
তবে উদ্দীপকে বর্ণিত আফাজ উদ্দিন একজন দিন মজুর অর্থাৎ দরিদ্র মানুষ। যেহেতু সে দরিদ্র মানুষ, তাই ছেলেকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনার জন্য আফাজ উদ্দিনের সচেতনতার পাশাপাশি তার জন্য কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও পরিবারের আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটাতে হবে। এ ব্যাপারে সরকার এবং বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থাকে এগিয়ে আসতে হবে।
পরিশেষে বলা যায়- আফাজ উদ্দিনের সচেতনতার পাশাপাশি তার আর্থিক অবস্থার উন্নতিই তার ছেলেকে সঠিক পথে ফিরিয়ে আনতে পারে।
প্রশ্ন -১১ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
রবিনের বয়স ১৪ বছর। তার মা-বাবা উভয়ই দিনমজুর। সে বাস ও রেলস্টেশনে কাগজ কুঁড়ায়। সে মনের দুঃখ থেকেই ধূমপান শুরু করে। মাঝে মাঝে সে চাকু দেখিয়ে যাত্রীদের টাকা পয়সা লুট করে।
ক. আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের প্রধান কারণ কী? ১
খ. কিশোর অপরাধ দমনে শিক্ষার সুযোগের গুরুত্ব কতটুকু ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকে যে সামাজিক সমস্যাটি বিবৃত হয়েছে, তা ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.রবিন কীভাবে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে তোমার মতামত দাও। ৪
ল্ফল্প ১১নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের প্রধান কারণ দারিদ্র্য।
খ. কিশোর অপরাধ দমনে শিক্ষার সুযোগের গুরুত্ব অনেক। কেননা সকল শিশু-কিশোরকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার আওতায় আনলে তারা একদিকে যেমন শিক্ষার প্রভাবে সুস্থ ও সুন্দর জীবন-যাপনে আগ্রহী হবে; তেমনি বিদ্যালয়ের পরিবেশ তাদেরকে অপরাধ থেকে দূরে রাখবে।
গ. উদ্দীপকে বিবৃত সামাজিক সমস্যাটি হচ্ছে কিশোর অপরাধ। বাংলাদেশে ৭ থেকে ১৬ বছর বয়সী কিশোরদের অপরাধমূলক কাজকে কিশোর অপরাধ বলা হয়।
উদ্দীপকের দিনমজুরের ছেলে রবিনের মতো কিশোরদের দ্বারা সংঘটিত হয় চুরি, খুন, জুয়া খেলা, স্কুল পালানো, বাড়ি থেকে পালানো, পরীক্ষায় নকল করা, বিদ্যালয় ও পথেঘাটে উচ্ছ্খৃল আচরণ, পকেটমারা, মারপিট করা, বোমাবাজি, গাড়ি ভাংচুর, বিনা টিকিটে গাড়ি ভ্রমণ, পথেঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করা, এসিড নিক্ষেপ, নারী নির্যাতন, অশোভন ছবি দেখা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি। আমাদের দেশে দারিদ্র্যসহ বিভিন্ন আর্থসামাজিক কারণে কিশোর অপরাধ সংঘটিত হয়।
ঘ. রবিনের পরিবারের আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটলে সে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে। রবিনের পরিবার যদি আর্থিকবাবে সচ্ছল হয় তবে তার অপরাধপ্রবণতার ধরন, তার কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে পিতামাতা ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠরা সচেতন হতে পারবেন আর সহজেই রবিনকে অপরাধ থেকে দূরে রাখতে বা সে পথ থেকে সরিয়ে আনতে পারবেন। এজন্য পরিবারে রবিনের সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তার চলাফেরার ওপর নজর রাখতে হবে। তার বন্ধু ও সাথিদের সম্পর্কে খোঁজ-খবর রাখতে হবে। তার সঙ্গে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। রবিনকে শিক্ষার আওতায় আনতে হবে। এতে সে একদিকে শিক্ষার প্রভাবে সুস্থ ও সুন্দর জীবনযাপনে আগ্রহী হবে; অন্যদিকে বিদ্যালয়ের পরিবেশ তাকে অপরাধ থেকে দূরে রাখবে। রবিনের মানসিক বিকাশের জন্য পাড়া ও মহল্লায় পাঠাগার, ব্যায়ামাগার থাকলে সেখানেও তাকে সুযোগ দিতে হবে।
উল্লিখিত কার্যক্রম ছাড়াও রবিনকে সবরকম খারাপ কাজ থেকে দূরে রাখতে হবে।
পরিশেষে বলায় যায়, উপরিউক্ত উপায়ে রবিন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারে।
প্রশ্ন -১২ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
মিলন নবম শ্রেণির একজন মেধাবী ছাত্র। সে খারাপ ছেলেদের সাথে মিশে এক সময় ধূমপান শুরু করে। পড়া-লেখা বন্ধ করে দেয়। নানা রকম অপকর্মে লিপ্ত হয়ে পড়ে। এক সময় সে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়।
ক. বাংলাদেশের কিশোর অপরাধের বয়স কত? ১
খ. কিশোর অপরাধ বলতে কী বোঝ? ২
গ. উদ্দীপকে কোন সামাজিক সমস্যার কথা বলা হয়েছে তা ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.মিলনের মত কিশোরদের উক্ত সমস্যা সমাজ জীবনে ভয়াবহ প্রভাব ফেলতে পারে তোমার মতামত বিশ্লেষণ কর। ৪
ল্ফল্প ১২নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. বাংলাদেশের কিশোর অপরাধের বয়স ৭ থেকে ১৬ বছর।
খ. অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেমেয়ে বা কিশোরদের দ্বারা সংঘটিত বিভিন্ন ধরনের অপরাধকেই বলা হয় কিশোর অপরাধ। বাংলাদেশে ৭ থেকে ১৬ বছর বয়সী কিশোরদের অপরাধমূলক কাজকে কিশোর অপরাধ বলা হয়। চুরি, খুন, জুয়া খেলা, স্কুল পালানো, পকেটমারা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি কিশোর অপরাধের পর্যায়ভুক্ত।
গ. উদ্দীপকে যে সামাজিক সমস্যার কথা বলা হয়েছে তা হলো মাদকাসক্তি।
মাদকাসক্ত সঙ্গীদের সাথে মেলামেশার মধ্য দিয়েই প্রধানত মাদকাসক্তির সূত্রপাত ঘটে। মাদকের ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে না জেনেই কেবল সাময়িক উত্তেজনা লাভের জন্য ও বন্ধুদের প্ররোচনায় কিশোর-কিশোরীরা মাদকদ্রব্য সেবন করে। পরে তা তাদের মরণনেশায় পরিণত করে। কিশোরমন স্বভাবতই কৌত‚হলপ্রবণ। পিতা বা বাড়ির অন্য বয়স্কদের পকেট থেকে বিড়ি-সিগারেট চুরি করে শিশু-কিশোররা অনেক সময় তাদের কৌত‚হল মেটায়। এ কৌত‚হল থেকে একসময় তাদের ধূমপানের অভ্যাস গড়ে উঠে। এই ধূমপান থেকেই তারা পরে অন্যান্য নেশাদ্রব্য, যেমন : গাঁজা, ফেনসিডিল, হেরোইন, ইয়াবা প্রভৃতিতে আসক্ত হয়ে পড়ে। উদ্দীপকে বর্ণিত নবম শ্রেণির মেধাবী ছাত্র মিলন এ ধরনের অপরাধই করে যাচ্ছে। অর্থাৎ উদ্দীপকে মাদকাসক্তির কথা বলা হয়েছে।
ঘ. মিলনের মতো কিশোরদের এ সমস্যা অর্থাৎ মাদকাসক্তি সমাজ জীবনে ভয়াবহ প্রভাব ফেলতে পারে বলে আমি মনে করি।
আমাদের সমাজজীবনে মাদকাসক্তি বর্তমানে একটি ভয়াবহ সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে। এটি আমাদের সামাজিক ও নৈতিক জীবনেও মারাত্মক প্রভাব ফেলছে। মাদক গ্রহণকারীরা নিজেদের ক্ষতি তো করেই, উপরন্তু ভয়, উৎকণ্ঠা ও উত্তেজনার শিকার হয়ে সমাজেও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে। পারিবারিক জীবনে মাদকের প্রভাব নানা জটিল সমস্যা সৃষ্টি করে। পুরো পরিবারের সুখ-শান্তিকে নষ্ট করে। যে পরিবারে একটিও মাদকাসক্ত সন্তান থাকে সে পরিবারে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকে। প্রতিবেশীদের কাছে ঐ পরিবারের মর্যাদা থাকে না। মাদকের টাকার জোগান দিতে গিয়ে অনেক সময় পরিবারটি একেবারে নিঃস্ব হয়ে যায়। তাছাড়া হত্যা, আত্মহত্যা, বাড়ি থেকে পালানো বা নিরুদ্দেশ হওয়ার মতো ঘটনাও ঘটে। যে দেশে সহজেই মাদক পাওয়া যায় সেখানে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, রাহাজানি ও হত্যার ঘটনাও বেশি ঘটে। মাদকের প্রভাবে সামাজিক অস্থিরতা ও মূল্যবোধের অবক্ষয় দেখা দেয়।

প্রশ্ন -১৩ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
শিশু-কিশোররা বিভিন্ন প্রকার অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। যেমন চুরি, খুন, জুয়াখেলা প্রভৃতি। দারিদ্র্য, সুষ্ঠু পরিবেশের অভাব, পিতামাতার অযতœ, বিবাহবিচ্ছেদ ইত্যাদির কারণে শিশু-কিশোররা অপরাধী হয়ে ওঠে। বাংলাদেশে কিশোর অপরাধ প্রবণতা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। এ সমস্যা প্রতিরোধে আমাদের বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরি।
ক. কিশোর অপরাধ কী ধরনের সমস্যা? ১
খ. পারিবারিক জীবনে মাদকাসক্তির প্রভাব ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকে উল্লিখিত শিশু-কিশোরদের অপরাধ করার কারণ বর্ণনা কর। ৩
ঘ.উক্ত অপরাধ রোধে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করা যেতে পারে তা বিশ্লেষণ কর। ৪
ল্ফল্প ১৩নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. কিশোর অপরাধ একটি ভয়ানক সামাজিক সমস্যা।
খ. পারিবারিক জীবনে মাদকের প্রভাব নানা জটিল সমস্যার সৃষ্টি করে। পুরো পরিবারের সুখ-শান্তি নষ্ট করে। যে পরিবারে মাদকাসক্ত সন্তান থাকে সে পরিবারে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকে। প্রতিবেশীদের কাছে পরিবারের কোনো মর্যাদা থাকে না। মাদকের টাকা জোগান দিতে গিয়ে পরিবারটি অনেক সময় নিঃস্ব হয়ে যায়। এছাড়া হত্যা, আত্মহত্যা, বাড়ি থেকে পালানো ইত্যাদি ঘটনাও ঘটে থাকে।
গ. উদ্দীপকে উল্লিখিত শিশু-কিশোরদের অপরাধ করার কারণ বহুমাত্রিক।
অপ্রাপ্তবয়স্ক ছেলেমেয়ে বা কিশোরদের দ্বারা সংঘটিত বিভিন্ন ধরনের অপরাধকেই বলা হয় কিশোর অপরাধ। আমাদের দেশে কিশোর অপরাধের অন্যতম প্রধান কারণ দারিদ্র্য। দরিদ্র পরিবারের শিশু-কিশোরদের অনেক সাধ বা ইচ্ছা পূরণ হয় না। এর ফলে তাদের মধ্যে বাড়ে হতাশা এবং এ হতাশাই তাদের অপরাধের দিকে ঠেলে দেয়। বাংলাদেশে শিশু-কিশোর অপরাধের কারণসমূহ হলোÑ ১. পিতামাতার অসংগতিপূর্ণ আচরণ; ২. পারিবারিক বিশৃঙ্খলা; ৩. আদর বা স্নেহের অভাব; ৪. সামাজিক পরিবেশ; ৫. সমবয়সী বন্ধুদের প্রভাব; ৬. চিত্তবিনোদনের অভাব; ৭. ত্র“টিপূর্ণ মানসিক বিকাশ; ৮. শহরায়ন ও অপরিকল্পিত শিল্পায়ন ইত্যাদি।
ঘ. বাংলাদেশে কিশোর অপরাধ দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। এ সমস্যার প্রতিরোধে নিম্নোক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা যেতে পারে
১. অভিভাবক সচেতনতা ও দায়িত্ব : কিশোর অপরাধ রোধের জন্য পরিবারে সন্তানদের সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তাদের বন্ধু ও সাথীদের খোঁজখবর রাখতে হবে। সন্তানদের সাথে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।
২. আর্থসামাজিক কর্মসূচি : পরিবারের দারিদ্র্য কিশোরদের অপরাধ প্রবণতার একটি অন্যতম কারণ। সেজন্য অভিভাবকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও পরিবারের আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটাতে হবে। এ ব্যাপারে সরকার ও বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থাকে এগিয়ে আসতে হবে।
৩. শিক্ষার সুযোগ : সকল শিশু কিশোরকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার আওতায় আনতে হবে। এতে তারা একদিকে শিক্ষার প্রভাবে সুস্থ ও সুন্দর জীবনযাপনে আগ্রহী হবে, অন্যদিকে বিদ্যালয়ের পরিবেশ তাদেরকে অপরাধ থেকে দূরে রাখবে।
৪. চিত্তবিনোদন : শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের জন্য পাড়া ও মহল­ায় পাঠাগার, ব্যায়ামাগার প্রভৃতি স্থাপন করা প্রয়োজন।
উপরে উলি­খিত কার্যক্রম ছাড়াও অশোভন ছবি প্রদর্শন এবং প্রকাশনা সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করতে হবে। শিশুশ্রম বন্ধ করতে হবে। শিশু-কিশোররা যেন খারাপ সংস্পর্শে না পড়ে সে ব্যাপারে তাদের সতর্ক থাকতে হবে। উলি­খিত পদক্ষেপসমূহ বাস্তবায়নের মাধ্যমে কিশোর অপরাধ রোধ করা সম্ভব।
প্রশ্ন -১৪  নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
রতনের বাবা একজন কৃষক। তিনি একটি খামারে কাজ করেন। সংসারের অভাব মেটানোর জন্য রতনকেও তার বাবার সঙ্গে কাজ করতে হয়। একসময় সে পড়াশোনা বাদ দেয়। মাঝে মাঝেই রতনের বাবা-মার মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। আস্তে আস্তে রতনও পাড়ার অসৎ বন্ধুদের সঙ্গে মিশে। অসৎ বন্ধুদের প্রভাবে সে রাস্তায় মেয়েদের উত্ত্যক্ত করা ও মাদক গ্রহণসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে।
ক. কাদের উৎপাতে কখনো কখনো ছাত্রীদের পড়ালেখা বন্ধ হয়ে যায়? ১
খ. কিশোর অপরাধ দমনে অভিভাবকদের সচেতন হওয়া জরুরি কেন? ২
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত রতনের বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ার কারণ কী? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.রতনের কাজ কি কিশোর অপরাধের মধ্যে পড়ে? তোমার মতামত দাও। ৪
ল্ফল্প ১৪নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. বখাটেদের উৎপাতে কখনো কখনো ছাত্রীদের পড়ালেখা বন্ধ হয়ে যায়।
খ. কিশোর অপরাধ দমনে অভিভাবকদের সচেতন হওয়া জরুরি। কিশোরদের অপরাধ প্রবণতার ধরন, তার কারণ ও প্রতিকার সম্পর্কে পিতামাতা ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠরা যদি সচেতন থাকেন তবে তাঁরা সহজেই কিশোরদের অপরাধ থেকে দূরে রাখতে বা সে পথ থেকে সরিয়ে আনতে পারবেন। এজন্য পরিবারে সন্তানদের সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি এবং তাদের সঙ্গে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।
গ. উদ্দীপকে বর্ণিত রতনের বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ার কারণ হচ্ছে দারিদ্র্য, পিতামাতার মধ্যকার জটিল দাম্পত্য সম্পর্ক এবং সঙ্গদোষ।
দরিদ্র পরিবারের কিশোরদের অনেক সাধ বা ইচ্ছাই অপূর্ণ থেকে যায়। এর ফলে তাদের মধ্যে হতাশা বাড়ে এবং এ হতাশাই তাদের অপরাধের দিকে ঠেলে দেয়। রতনও দরিদ্র পরিবারের সন্তান। আবার, সঙ্গদোষের কারণেও শিশু-কিশোররা বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে যুক্ত হয়। দরিদ্র শিশু-কিশোররা পাড়ার অসৎ বন্ধুদের সঙ্গে মিশে নানা ধরনের অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে। রতনও পাড়ার অসৎ বন্ধুদের সাথে মিশে বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ে। তাছাড়া পিতামাতার মধ্যকার জটিল সম্পর্কের কারণেও শিশু-কিশোররা বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে যেটি উদ্দীপকে বর্ণিত রতনের ক্ষেত্রেও দেখা যায়।
ঘ. উদ্দীপকের রতনের কাজ অবশ্যই কিশোর অপরাধের মধ্যে পড়ে। যেসব কাজ কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে সেগুলো হচ্ছে চুরি, খুন, জুয়া খেলা, স্কুল পালানো, পরীক্ষায় নকল করা, পকেটমার, বাড়ি থেকে পালানো পথে-ঘাটে মেয়েদের উত্যক্ত করা, এসিড নিক্ষেপ, নারী নির্যাতন, অশোভন ছবি দেখা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি। এছাড়া বিনা টিকিটে ভ্রমণ করাও কিশোর অপরাধের অন্তর্ভুক্ত। উদ্দীপকে বর্ণিত রতন রাস্তায় মেয়েদের উত্যক্ত করা ও মাদক গ্রহণসহ বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত। তাই রতনের কাজ কিশোর অপরাধের মধ্যে পড়ে বলে আমি মনে করি।
প্রশ্ন -১৫ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
শাকিল ও সৌরভ দুই বন্ধু। শাকিল মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে এবং বাবা-মা তাকে যথেষ্ট সময় দেন, অপরদিকে সৌরভের বাবা-মা দুজনই চাকরিজীবী হওয়ায় তারা সৌরভকে পর্যাপ্ত সময় দিতে পারেন না। এক সময় দেখা যায়, শাকিল জিপিএ-৫ পেলেও সৌরভ এসএসসি পরীক্ষায় ‘বি’ পেয়েছে এবং মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে।
ক. জাপানে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা কত ধরা হয়? ১
খ. কোন কোন অপরাধ কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে? ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকের সৌরভের মাদকাসক্ত হয়ে পড়ার পেছনে কোন কারণটি কাজ করেছে? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. সৌরভের মতো কিশোরদের সুন্দর জীবনযাপনে অভ্যস্ত করার উপায় বিশ্লেষণ কর। ৪
ল্ফল্প ১৫নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. জাপানে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা ধরা হয় ১৪ থেকে ২০ বছর।
খ. যেসব কাজ কিশোর অপরাধের পর্যায়ে পড়ে সেগুলো হচ্ছেÑ চুরি, খুন, জুয়াখেলা, স্কুল পালানো, বাড়ি থেকে পালানো, পরীক্ষায় নকল করা, বিদ্যালয় ও পথেঘাটে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ, পকেটমারা, মারপিট করা, বোমাবাজি, গাড়ি ভাংচুর, বিনা টিকিটে ভ্রমণ, পথেঘাটে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করা, এসিড নিক্ষেপ, নারী নির্যাতন, অশোভন ছবি দেখা, মাদক গ্রহণ ইত্যাদি।
গ. উদ্দীপকের সৌরভের মাদকাসক্ত হয়ে পড়ার পেছনে যে কারণটি কাজ করেছে তাহলো পিতামাতার স্নেহ বা মনোযোগ থেকে বঞ্চিত হওয়া।
উদ্দীপক পাঠে জানা যায়, সৌরভের বাবা-মা দুজনেই চাকরিজীবী হওয়ায় তারা সৌরভকে পর্যাপ্ত সময় দিতে পারেন না। ফলে তার মধ্যে নিঃসঙ্গতা কাজ করে। পিতামাতার স্নেহ বা মনোযোগ থেকে বঞ্চিত হলে সৌরভের মতো শিশু-কিশোরদের মনে হতাশা জন্ম নেয়। আর এ হতাশা থেকে মুক্তি লাভের আশায় প্রথমে বন্ধু-বান্ধবের পরামর্শে বা তাদের দেখাদেখি অনেকে মাদকদ্রব্য গ্রহণ করতে শুরু করে। পরে এটা তাদের নেশায় পরিণত হয়। একপর্যায়ে তারা মাদকে আসক্ত হয়ে পড়ে। একসময় দেখা যায়, মেধাবী হয়েও তার পরীক্ষার ফলাফল খারাপ হতে থাকে। সৌরভের ক্ষেত্রে যেমনটি ঘটেছে।
ঘ. সৌরভের মতো কিশোরদের অর্থাৎ মাদকাসক্ত কিশোরদের নিম্নলিখিত উপায়ে সুন্দর জীবনযাপনে অভ্যস্ত করা যায়-
সৌরভের মতো কিশোরদের ছোটবেলা থেকেই ধর্মীয় ও নৈতিক মূল্যবোধ শেখানোর জন্য অভিভাবক ও পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠ সদস্যদের সচেষ্ট হতে হবে। মাদকের ক্ষতিকর প্রভাব এবং মাদক সম্পর্কে ধর্মে যেসব বিধিনিষেধ রয়েছে তা জানাতে হবে। সুস্থ চিত্তবিনোদনের ব্যবস্থা করে সৌরভের মতো কিশোরদের সেদিকে আকর্ষণ করতে হবে, যাতে তারা মাদক গ্রহণ ও অন্যান্য খারাপ অভ্যাসের দিকে ঝুঁকে না পড়ে। পারিবারিক পরিবেশ সুন্দর ও স্বাভাবিক রাখতে হবে। পারিবারিক ঝামেলা যেন সৌরভের মতো কিশোরদের মনকে বিচলিত না করে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। ধূমপান ও অন্যান্য নেশাজাতীয় দ্রব্যের উৎপাদন ও বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধ করতে হবে। বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে মাদকাসক্তির বিরুদ্ধে বক্তব্য তুলে ধরে সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে।
পরিশেষে বলা যায়, মাদকাসক্তি প্রতিরোধে উপরিউক্ত পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করা গেলে সৌরভের মতো কিশোরদের সুন্দর জীবনযাপনে অভ্যস্ত করে তোলা যাবে।
প্রশ্ন -১৬ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
রহিম খুব ছোটবেলা থেকে রাস্তায় ঘুরে ঘুরে কাগজ কুঁড়িয়ে বেড়ায়। এসব কাগজ বিক্রি করে সে খাবার জোগায়। সে অল্প বয়স থেকেই ধূমপান শুরু করে। ধীরে ধীরে সে গাঁজায় আসক্ত হয়ে পড়ে। গাঁজার টাকা জোগাড় করতে গিয়ে এখন সে ছিনতাইও করে। [খুলনা জিলা স্কুল]
ক. কিশোর মন স্বভাবতই কেমন? ১
খ. হতাশা মাদকাসক্তির অন্যতম কারণব্যখ্যা কর। ২
গ. রহিমের দ্বারা সংঘটিত কর্মকাণ্ড আমাদের সামাজিক জীবনে কী ধরনের প্রভাব ফেলতে পারে? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ.‘রহিমের অপরাধপ্রবণতা হ্রাস করতে দরকার উপযুক্ত শিক্ষা ও চিত্তবিনোদন’- যুক্তিসহ উক্তিটি বিশ্লেষণ কর। ৪
ল্ফল্প ১৬নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. কিশোর মন স্বভাবতই কৌত‚হলপ্রবণ।
খ. হতাশা মাদকাসক্তির অন্যতম কারণ। বেকারত্ব, নিঃসঙ্গতা, প্রিয়জনের মৃত্যু, প্রেমে ব্যর্থতা, পারিবারিক অশান্তি ইত্যাদি কারণে অনেকের মনে হতাশার সৃষ্টি হয়। আর এই হতাশা থেকে মুক্তি লাভের আশায় প্রথমে বন্ধুবান্ধবের পরামর্শে বা তাদের দেখাদেখি অনেকে মাদকদ্রব্য গ্রহণ করতে শুরু করে। পরে এটা তাদের নেশায় পরিণত হয়।
গ. রহিমের দ্বারা সংঘটিত কর্মকাণ্ড আমাদের সামাজিক জীবনে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। উদ্দীপক পাঠে জানা যায়, রহিম ধূমপান ও গাঁজা সেবনে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে এবং এর জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ জোগাড় করতে সে ছিনতাই শুরু করে। একসময় রহিম দোকান ও ব্যবসায়ীর নিকট থেকে চাঁদা আদায় করতে পারে। পথেঘাটে আসা-যাওয়া মেয়েদের প্রতি অশ্লীল ও অশোভন উক্তিও করতে পারে। এমনকি উত্ত্যক্ত পর্যন্ত করতে পারে। আর তার দেখাদেখি অন্যান্য কিশোররাও এ ধরনের অসামাজিক ও গর্হিত কর্মকাণ্ডে উদ্বুদ্ধ হতে পারে। এতে আমাদের সামাজিক জীবনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিঘিœত হতে পারে। সুতরাং বলা যায়, উদ্দীপকের রহিমের কর্মকাণ্ড আমাদের সামাজিক জীবনে ভয়াবহ প্রভাব ফেলতে পারে।
ঘ. রহিমের অপরাধপ্রবণতা হ্রাস করতে প্রয়োজন উপযুক্ত শিক্ষা ও চিত্তবিনোদন। উদ্দীপকের মাদকাসক্ত রহিমের মানসিক বিকাশের জন্য শিক্ষা ও চিত্তবিনোদনের কেন্দ্র স্থাপন প্রয়োজন। মূলত রহিমের মতো পথে ঘুরে বেড়ানো শিশুদের জন্য পার্ক, ক্লাব, খেলার মাঠ, ভ্রাম্যমাণ পাঠাগারসহ নানা কার্যক্রম গ্রহণ করা প্রয়োজন। এছাড়া এদেশে নির্মিত ও আমদানিকৃত ছায়াছবিগুলো কিশোরদের উপযোগী করে প্রদর্শনের অনুমতি প্রদান করতে হবে। অশোভন ছবি প্রদর্শন এবং প্রকাশনা বন্ধ করার উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন। এছাড়া সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে গড়ে তোলা চিত্তবিনোদন কেন্দ্রগুলোর পরিধি আরও বিস্তৃতি লাভ করলে রহিমের মতো কিশোররা সুযোগ-সুবিধা পাবে এবং এক সুস্থ সাংস্কৃতিক পরিবেশে তারা সুস্থ ধারার জীবন অতিবাহিত করতে উদ্বুদ্ধ হবে।
সুতরাং বলা যায়, রহিমের অপরাধপ্রবণতা হ্রাস করতে প্রয়োজন উপযুক্ত শিক্ষা ও সুস্থ চিত্তবিনোদন।

সৃজনশীল প্রশ্নব্যাংক

প্রশ্ন-১৭  একাদশ শ্রেণির ছাত্র অপু নিয়মিত কলেজে যায় না। রাস্তার মোড়ে আড্ডা দেয় এবং মেয়েদের দেখলে অশালীন উক্তি ও আচরণ করে।
ক. বাংলাদেশে সাধারণত কত বছর বয়সের কিশোরদের কিশোর অপরাধের অন্তর্ভুক্ত করা হয়? ১
খ. বাংলাদেশে কিশোর অপরাধীরা সাধারণত কী কী অপরাধের সঙ্গে জড়িত? ২
গ. অপুকে কোন ধরণের অপরাধী বলা যায়? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. অপুর এ ধরনের অপরাধী হওয়ার হাত হতে রক্ষা করার উপায় পাঠ্যপুস্তকের আলোকে বিশ্লেষণ কর। ৪
প্রশ্ন-১৮  মাধ্যমিক পরীক্ষায় ফেল করেই সাহাব পড়াশোনা ছেড়ে দেয়। এলাকার বখাটে ছেলেদের সাথেই এখন সাহাবের মেলামেশা। এদের সাথে মিশে একসময় সাহাব মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। শুধু সাহাব নয় গ্রামের আরও কিছু কিশোর মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে। এর ফলে উক্ত গ্রামের পরিবেশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।
ক. ভারতে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা কত? ১
খ. ‘মাদককে না বলুন’Ñব্যাখ্যা কর। ২
গ. সাহাব ও তার বন্ধুদের মাদকাসক্ত হওয়ার কারণ ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. সাহাবের মতো কিশোরদের মাদকাসক্তি আমাদের জাতীয় জীবনে ভয়াবহ প্রভাব ফেলতে সক্ষমÑ যুক্তিসহ উক্তিটি বিশ্লেষণ কর। ৪
প্রশ্ন-১৯  তুহিন ছোটনকে বলে আজকাল ছোটরাও অনেক অপরাধ করে। আর তাদের এ অপরাধ এক ধরনের সামাজিক সমস্যা। তুহিন মনে করে সুষ্ঠু সামাজিকীকরণের মাধ্যমে এ অপরাধ কমিয়ে আনা সম্ভব। তাই তুহিন ছোটনকে বলে এ অপরাধ প্রতিরোধে আমাদেরকে উদ্যোগ নিতে হবে।
ক. বাংলাদেশে কিশোর অপরাধের বয়সসীমা কত? ১
খ. মাদকাসক্তি বিস্তারের কয়েকটি কারণ লিখ। ২
গ. উদ্দীপকে কোন সামাজিক সমস্যার প্রতিফলন ঘটেছে? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. উক্ত সামাজিক সমস্যা প্রতিরোধের উপায় বিশ্লেষণ কর। ৪
প্রশ্ন-২০  ফারহানের বয়স ১৪ বছর। তার বাবা একজন ক্ষুদ্র কৃষক। কোনো রকমে অভাব অনটনের মধ্যে তাদের সংসার চলে। ফারমান স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। বস্তির এক বখাটে ছেলের সাথে তার বন্ধুত্ব হয়। এখন সে মোড়ে আড্ডা দেয় আর জুয়া খেলে।
ক. কিশোর অপরাধ কী? ১
খ. “মাদককে না বলুন”- ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকে কোন সামাজিক সমস্যাটি বিবৃত হয়েছে? ব্যাখ্যা দাও। ৩
ঘ. ফারহানের স্কুলে না যাওয়া, মোড়ে মোড়ে আড্ডা ও জুয়া খেলা এর পেছনে কী কী কারণ দায়ী বলে তুমি মনে কর? পাঠ্যবইয়ের আলোকে বিশ্লেষণ কর। ৪

প্রশ্ন -২১ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
বাংলাদেশে কিশোর অপরাধ প্রবণতা দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। এ সমস্যা প্রতিরোধে পদক্ষেপ নেওয়া না গেলে তা আরও বেড়ে যাবে। ফলশ্রæতিতে দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে প্রভাব ফেলবে। এসব কিশোরদের মানবসম্পদে পরিণত করতে সঠিক শিক্ষা প্রদানসহ যাবতীয় কর্মশালা গ্রহণ করা প্রয়োজন। [৬ষ্ঠ ও ১০ম অধ্যায়]
ক. বাংলাদেশে কিশোরদের বয়সসীমা কত বছর? ১
খ. মাদকাসক্তি বলতে কী বোঝ? ২
গ. উদ্দীপকের আলোকে মানবসম্পদ উন্নয়নে বাংলাদেশের গৃহীত কার্যক্রমের একটি তালিকা দাও। ৩
ঘ.উদ্দীপকে উল্লিখিত সমস্যা রোধে যেসব পদক্ষেপ নেওয়া যায় তা পাঠ্যপুস্তকের আলোকে বিশ্লেষণ কর। ৪
ল্ফল্প ২১নং প্রশ্নের উত্তর ল্ফল্প
ক. বাংলাদেশের কিশোরদের বয়সসীমা ৭ থেকে ১৭ বছর।
খ. ‘মদ’ কথাটি হতে ‘মাদক’ শব্দটির উৎপত্তি। যে দ্রব্য গ্রহণের ফলে মানুষের শারীরিক ও মানসিক অবস্থার উল্লেখযোগ্য নেতিবাচক পরিবর্তন ঘটে এবং ওই দ্রব্যের প্রতি নির্ভরশীলতা সৃষ্টি হয়, পাশাপাশি দ্রব্যটি গ্রহণের পরিমাণ ক্রমশই বাড়তে থাকে, এমন দ্রব্যকে মাদকদ্রব্য বলে এবং তা গ্রহণকারী ব্যক্তির অবস্থাকে মাদকাসক্তি বলে।
গ. উদ্দীপকে কিশোরদের মানবসম্পদে পরিণত করার দিকে ইঙ্গিত রয়েছে। মূলত বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য মানবসম্পদের উন্নয়ন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এক্ষেত্রে জীবনের প্রথম থেকেই লক্ষ্য স্থির রাখতে হবে। আর সরকারও এ ব্যাপারে সংরক্ষিত। মানবসম্পদ উন্নয়নে বাংলাদেশের গৃহীত কার্যক্রমের একটি তালিকা নিচে দেয়া হলো।
মানবসম্পদ উন্নয়নে বাংলাদেশের গৃহীত কার্যক্রম
র. শিক্ষার প্রসার, রর. যুব উন্নয়ন, ররর. জনস্বাস্থ্যের উন্নয়ন,
রা. পরিবেশ উন্নয়ন, া. শ্রম ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধি।
ঘ. উদ্দীপকে উল্লিখিত সমস্যা তথা বাংলাদেশে কিশোর অপরাধ দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। এ সমস্যার প্রতিরোধে নিম্নোক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা যেতে পারে
১. অভিভাবক সচেতনতা ও দায়িত্ব : কিশোর অপরাধ রোধের জন্য পরিবারে সন্তানদের সুস্থ মানসিক বিকাশের উপযুক্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। তাদের বন্ধু ও সাথীদের খোঁজখবর রাখতে হবে। সন্তানদের সাথে সহজ ও স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে।
২. আর্থসামাজিক কর্মসূচি : পরিবারের দারিদ্র্য কিশোরদের অপরাধ প্রবণতার একটি অন্যতম কারণ। সেজন্য অভিভাবকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও পরিবারের আর্থিক অবস্থার উন্নতি ঘটাতে হবে। এ ব্যাপারে সরকার ও বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থাকে এগিয়ে আসতে হবে।
৩. শিক্ষার সুযোগ : সকল শিশু কিশোরকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার আওতায় আনতে হবে। এতে তারা একদিকে শিক্ষার প্রভাবে সুস্থ ও সুন্দর জীবনযাপনে আগ্রহী হবে, অন্যদিকে বিদ্যালয়ের পরিবেশ তাদেরকে অপরাধ থেকে দূরে রাখবে।
৪. চিত্তবিনোদন : শিশু-কিশোরদের মানসিক বিকাশের জন্য পাড়া ও মহল­ায় পাঠাগার, ব্যায়ামাগার প্রভৃতি স্থাপন করা প্রয়োজন।
উপরে উলি­খিত কার্যক্রম ছাড়াও অশোভন ছবি প্রদর্শন এবং প্রকাশনা সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করতে হবে। শিশুশ্রম বন্ধ করতে হবে। শিশু-কিশোররা যেন খারাপ সংস্পর্শে না পড়ে সে ব্যাপারে তাদের সতর্ক থাকতে হবে। উলি­খিত পদক্ষেপসমূহ বাস্তবায়নের মাধ্যমে কিশোর অপরাধ রোধ করা সম্ভব।

অনুশীলনের জন্য দক্ষতাস্তরের প্রশ্ন ও উত্তর

 জ্ঞানমূলক //
প্রশ্ন \ ১ \ পিতামাতার পারিবারিক জটিল আচার-আচরণের সাথে কিসের সম্পর্ক রয়েছে?
উত্তর : পিতামাতার পারিবারিক জটিল আচার-আচরণের সাথে কিশোর অপরাধের সম্পর্ক রয়েছে।
প্রশ্ন \ ২ \ কারা মেয়েদের প্রতি অশোভন উক্তি করে?
উত্তর : কিশোর অপরাধীরা মেয়েদের প্রতি অশোভন উক্তি করে।
প্রশ্ন \ ৩ \ কিশোর অপরাধ রোধকল্পে অভিভাবকদের সন্তানদের সঙ্গে কী রকম আচরণ করতে হবে?
উত্তর : কিশোর অপরাধ রোধকল্পে অভিভাবকদের সন্তানদের সঙ্গে স্বাভাবিক আচরণ করতে হবে।
প্রশ্ন \ ৪ \ মাদকাসক্ত সঙ্গীদের সাথে মেলামেশার মধ্যদিয়ে কিসের সূত্রপাত ঘটে?
উত্তর : মাদকাসক্ত সঙ্গীদের সাথে মেলামেশার মধ্যদিয়ে মাদকাসক্তির সূত্রপাত ঘটে।
প্রশ্ন \ ৫ \ দুই ভিন্ন সংস্কৃতির টানাপোড়নে পড়ে যুব সমাজের একটা অংশ বিভ্রান্ত ও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে কীসে আকৃষ্ট হচ্ছে?
উত্তর : দুই ভিন্ন সংস্কৃতির টানাপোড়নে পড়ে যুব সমাজের একটা অংশ বিভ্রান্ত ও লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে মাদকে আকৃষ্ট হচ্ছে।
প্রশ্ন \ ৬ \ আমাদের সমাজজীবনে বর্তমানে কোনটি একটি ভয়াবহ সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে?
উত্তর : আমাদের সমাজজীবনে বর্তমানে মাদকাসক্তি একটি ভয়াবহ সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে।
প্রশ্ন \ ৭ \ কোনটি আমাদের সামাজিক ও নৈতিক জীবনে মারাত্মক প্রভাব ফেলছে?
উত্তর : মাদকাসক্তি আমাদের সামাজিক ও নৈতিক জীবনে মারাত্মক প্রভাব ফেলছে।
 অনুধাবনমূলক //
প্রশ্ন \ ১ \ কিশোর অপরাধজনিত সমস্যা থেকে রক্ষার উপায় ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : দেশে নির্মিত ও বিদেশ থেকে আমদানিকৃত ছায়াছবিগুলো কিশোরদের উপযোগী হওয়া প্রয়োজন। তাছাড়া অশোভন ছবি প্রদর্শন ও প্রকাশনা বন্ধ করার উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন। শিশুশ্রম নিষিদ্ধ করা উচিত। অনাথ, বিকলাঙ্গ, পঙ্গু, মানসিক রোগগ্রস্ত, অসহায় শিশুর লালন-পালনে সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগকে অধিক গুরুত্ব দিতে হবে। এর পরিধি বিস্তৃত করতে হবে। তাছাড়া শিশুদের খেলাধুলা ও অন্যান্য শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক কার্যক্রমে জড়িত করে তাদেরকে এ সমস্যার হাত থেকে রক্ষা করতে হবে।
প্রশ্ন \ ২ \ পারিবারিক জীবনে মাদকাসক্তির প্রভাব ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : পারিবারিক জীবনে মাদকের প্রভাব নানা জটিল সমস্যার সৃষ্টি করে। পুরো পরিবারের সুখ-শান্তি নষ্ট করে। যে পরিবারে মাদকাসক্ত সন্তান থাকে সে পরিবারে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকে। প্রতিবেশীদের কাছে পরিবারের কোনো মর্যাদা থাকে না। মাদকের টাকা জোগান দিতে গিয়ে পরিবারটি অনেক সময় নিঃস্ব হয়ে যায়। এছাড়া হত্যা, আত্মহত্যা, বাড়ি থেকে পালানো ইত্যাদি ঘটনাও ঘটে থাকে।
প্রশ্ন \ ৩ \ কিশোর-কিশোরী মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে কেন?
উত্তর : মাদকাসক্তির প্রথম সূত্রপাত ঘটে মাদকাসক্ত সঙ্গীদের সাথে মেলামেশা করার মাধ্যমে। অনেক সময় কিশোর-কিশোরীরা না বুঝেই বা এর খারাপ দিকগুলো না জেনেই বন্ধুদের প্ররোচনায় মাদকদ্রব্য সেবন করে। কৌত‚হলের কারণেও অনেকে মাদকদ্রব্য নিতে শুরু করে। অনেক ক্ষেত্রে যেসব পরিবারে ধূমপায়ী পিতামাতা বা আত্মীয়স্বজন রয়েছে তাদের পকেট থেকে বিড়ি-সিগারেট চুরি করে শিশু-কিশোররা এ কৌতূহল পূরণ করে থাকে। এ কৌতূহলই একসময় আসক্তিতে পরিণত হয়।

 

প্রিয় জনের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply