নবম-দশম শ্রেণির সাধারণ বিজ্ঞান ত্রয়োদশ অধ্যায় সবাই কাছাকাছি

এসএসসি সাধারণ বিজ্ঞান ত্রয়োদশ অধ্যায় সবাই কাছাকাছি

পাঠ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াদি

যোগাযোগ: যোগাযোগ হলো একস্থান থেকে অন্যস্থানে বা এক ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তিতে বা এক যন্ত্র থেকে আরেক যন্ত্রে কথা-বার্তা, চিন্তাভাবনা বা তথ্যের আদান-প্রদান বা বিনিময় করা।
 মাইক্রোফোন: যেকোনো বড় সভা বা অনুষ্ঠানের সময় বক্তা যে ইলেকট্রনিক যন্ত্রের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলেন তাকে বলা হয় মাইক্রোফোন। মাইক্রোফোন হলো এমন একটি যন্ত্র যা শব্দ শক্তিকে তড়িৎ সংকেতে পরিবর্তিত করে।
 স্পিকার: শ্রোতা যে যন্ত্র থেকে জোরে শব্দ শুনতে পান তা হলো লাউড স্পিকার বা স্পিকার। স্পিকার হলো এমন একটি যন্ত্র যা তড়িৎ সংকেতকে শব্দ শক্তিতে পরিবর্তিত করে।
 সংকেত: সংকেত হলো কোনো চিহ্ন বা কার্য বা শব্দ যা নির্দিষ্ট বার্তা বহন করে। যেমন: রেডিওর ক্ষেত্রে সংকেত হলো কোনো ঘাত বা শব্দ তরঙ্গ যা প্রেরণ করা হয়।
 এনালগ সংকেত: এনালগ সংকেত হলো নিরবচ্ছিন্নভাবে পরিবর্তনশীল ভোল্টেজ বা কারেন্ট। যেমন: অডিও, ভিডিও, ভোল্টেজ হলো এনালগ সংকেতের উদাহরণ।
 ডিজিটাল সংকেত: ডিজিটাল সংকেত বলতে বোঝায় এমন যোগাযোগ সংকেত যাদের প্রত্যেককে পৃথকভাবে চেনা যায়। এ অবস্থায় বাইনারি কোড অর্থাৎ ০ ও ১-এর সাহায্য নিয়ে যেকোনো তথ্য, সংখ্যা, অক্ষর বিশেষ ইত্যাদি বোঝানো এবং প্রেরিত হয়।
 বেতার তরঙ্গ: যখন তড়িৎ তরঙ্গকে বাহক তরঙ্গ নামক এক প্রকার উচ্চ কম্পাঙ্কবিশিষ্ট তাড়িতচৌম্বক তরঙ্গের সাথে মিশ্রিত করা হয়; তখন ঐ মিশ্রিত তরঙ্গকে বেতার তরঙ্গ বলে।
 মোডেম: যে যন্ত্র এনালগ ডেটাকে ডিজিটাল বা ডিজিটাল ডেটাকে এনালগে রূপান্তরিত করে তাকে মোডেম বলে।
 টেলিভিশন: টেলিভিশন হলো এমন একটি যন্ত্র যার সাহায্যে আমরা দূরবর্তী কোনো স্থান থেকে শব্দ শোনার সঙ্গে বক্তার ছবিও টেলিভিশনের পর্দায় দেখতে পাই।
 টেলিভিশনের আবিষ্কারক: স্কটিশ বিজ্ঞানী লজি বেয়ার্ড ১৯২৬ সালে টেলিভিশন আবিষ্কার করেন।
 টেলিফোনের আবিষ্কারক: আলেকজান্ডার গ্রাহামবেল ১৮৭৫ সালে টেলিফোন আবিষ্কার করেন।
 মোবাইল ফোন বা সেল ফোন: আজকাল এক ধরনের বহনযোগ্য টেলিফোন সেট দেখা যায়, যা মানুষের হাতে বা পকেটে থাকে। এ ধরনের টেলিফোনের নাম মোবাইল ফোন।
 ফ্যাক্স: ফ্যাক্স হলো তার বা রেডিওর সাহায্যে গ্রাফিক্যাল তথ্য (ছবি, চিত্র, ডায়াগ্রাম বা লেখা) বা যেকোনো লিখিত ডকুমেন্ট হুবহু কপি করে প্রেরণ ও গ্রহণের একটি ইলেকট্রনিক ব্যবস্থা।
 ফ্যাক্স এর আবিষ্কারক : স্কটল্যান্ডের বিজ্ঞানী আলেকজান্ডার বেইন ১৮৪২ সালে ফ্যাক্স আবিষ্কার করেন।
 কম্পিউটার: কম্পিউটার শব্দের অর্থ গণক বা হিসাবকারী। কম্পিউটার হলো এমন একটি ডিভাইস, যা ডেটা বা উপাত্ত প্রক্রিয়াকরণ করে মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যে রূপান্তর করে।
 সিপিইউ (ঈচট): ঈচট এর পূর্ণরূপ হলো- ঈবহঃৎধষ চৎড়পবংংরহম টহরঃ অর্থাৎ কম্পিউটারের যেখানে তথ্য প্রক্রিয়াজাত করা হয় তাকে সিপিইউ বা কেন্দ্রীয় প্রক্রিয়াকরণ ইউনিট বলা হয়।
 অন্তর্গামী (ওহঢ়ঁঃ): কম্পিউটার যেখানে তথ্য গ্রহণ করে তাকে বলা হয় (ওহঢ়ঁঃ) অন্তর্গামী।
 বহির্গামী (ঙঁঃঢ়ঁঃ): যে প্রান্ত থেকে ফলাফল পাওয়া যায় সেটিই হলো বহির্গামী (ঙঁঃঢ়ঁঃ)।
 হার্ডওয়্যার: যে সকল ভৌত ডিভাইস দিয়ে কম্পিউটার তৈরি হয় তাদেরকে বলা হয় হার্ডওয়্যার। এগুলো হাত দ্বারা স্পর্শ করা যায়। যেমন: কিবোর্ড, মাউস, মনিটর, প্রিন্টার ইত্যাদি।
 সফটওয়্যার: সফটওয়্যার হলো একসেট নির্দেশনা, যা কম্পিউটারকে কী কাজ করতে হবে তা নির্দেশনা দেয়। এগুলো হলো বিভিন্ন রকম প্রোগ্রাম। যেমন: উইন্ডোজ ৯৮, উইন্ডোজ ২০০৩ ও ২০০৭ ইত্যাদি।
 ই-মেইল: ইলেকট্রনিক মেইলকে সংক্ষেপে বলা হয় ই-মেইল। ই-মেইল হলো ইন্টারনেটের মাধ্যমে বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন বা সহকর্মীদের সাথে দ্রæত যোগাযোগের উপায়।
 তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি: তথ্য তৈরি, সংরক্ষণ, আধুনিকীকরণ এবং আদান-প্রদান ও যোগাযোগের জন্য বিভিন্ন প্রযুক্তির ব্যবহার বা প্রয়োগকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বলে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি হলোÑ টেলিফোন, ফ্যাক্সমেশিন, রেডিও, টেলিভিশন, কম্পিউটার, ইন্টারনেট ইত্যাদি।
 যোগাযোগের উদ্দেশ্য: যোগাযোগের উদ্দেশ্য হলো তথ্য আদান-প্রদান করা। এর মাধ্যমে মানুষ তার চিন্তা, ধারণা, অনুভব একে অন্যের কাছে প্রকাশ করতে পারে বা পৌঁছে দিতে পারে। পড়ালেখা, গবেষণা, ব্যবসায়-বাণিজ্য, শিল্প কারখানা, রাজনীতি, অর্থনীতি, ক‚টনীতি, পরিবহন ব্যবস্থাপনা, অপরাধী ধরা, অপরাধ দমন ইত্যাদি কাজ সার্থকভাবে ও দ্রæত সম্পাদন করা যায় উন্নত যোগাযোগের মাধ্যমে।
 অডিও সংকেত: কোনো বক্তা বা উপস্থাপকের কথা বা কণ্ঠস্বর বা যেকোনো শব্দ তরঙ্গকে মাইক্রোফোনের সাহায্যে তড়িৎ সংকেতে রূপান্তরিত করা হয়। এভাবে উৎপন্ন তড়িৎ সংকেতই হলো অডিও সংকেত। যেমন:

 ভিডিও সংকেত: ভিডিও সংকেতের উৎস হলো কোনো ছবি বা দৃশ্য। কোনো দৃশ্যকে টেলিভিশন ক্যামেরা ধারণ করে এবং স্ক্যানিং প্রক্রিয়ায় একে তড়িৎ সংকেতে রূপান্তরিত করা হয়। এই সংকেতের নাম ভিডিও সংকেত। যেমন:

 ডিজিটাল সংকেত: ডিজিটাল কথাটি এসেছে ডিজিট শব্দ থেকে। সাধারণত ডিজিট শব্দটির অর্থ হলো সংখ্যা। ডিজিটাল সংকেত বলতে বোঝায় সেই যোগাযোগ সংকেত যাদের প্রত্যেককে পৃথকভাবে চেনা যায়। এই ব্যবস্থায় বাইনারি কোড অর্থাৎ ০ ও ১ এর সাহায্য নিয়ে যেকোনো তথ্য, সংকেত, অক্ষর, বিশেষ সংকেত ইত্যাদি বোঝানো হয়।

অনুশীলনীর বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর

১. সকল নেটওয়ার্কের জননী কোনটি?
ক ই-মেইল  ইন্টারনেট
গ মোবাইল ঘ টেলিফোন
২. কম্পিউটারের ক্ষেত্রে প্রযোজ্যÑ
র. কম্পিউটার ভুল করে না ভুল শনাক্ত করতে পারে
রর. কম্পিউটার নিজে ভুল সংশোধন করতে পারে
ররর. কম্পিউটার অক্লান্ত ও নির্ভুলভাবে কাজ করতে পারে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর
গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
নিচের চিত্রগুলো থেকে ৩ ও ৪নং প্রশ্নের উত্তর দাও :

৩. আবহাওয়ার সংবাদ শুনতে কোনটি কার্যকর?
ক চ খ ছ গ জ  ঝ
৪. ‘চ’ যন্ত্রটির অধিক ব্যবহারÑ
র. মাথা ব্যথা ও বমি বমি ভাব হতে পারে
রর. খিঁচুনি ও উচ্চ রক্তচাপ হতে পারে
ররর. ভালো ঘুম হতে পারে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর

গুরুত্বপূর্ণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর

৫. যেকোনো প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়নে ব্যবহৃত হয় নিচের কোনটি?
ক ই-মেইল খ ইন্টারনেট
গ ফ্যাক্স  কম্পিউটার
৬. রেডিওতে শব্দ প্রেরণ করা হয় কীভাবে?
ক তড়িৎ তরঙ্গকে শব্দ তরঙ্গে রূপান্তরিত করে
খ আলোক তরঙ্গরূপে
 শব্দ তরঙ্গকে তড়িৎ তরঙ্গে রূপান্তরিত করে
ঘ আলোক শক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করে
৭. রঙিন টেলিভিশনে ব্যবহৃত রং কোনগুলো?
ক লাল, হলুদ, সবুজ  লাল, আসমানী, সবুজ
গ লাল, কমলা, সবুজ ঘ লাল, সাদা, সবুজ
৮. কোনটির সাহায্যে এনালগ ডেটাকে ডিজিটাল ডেটায় রূপান্তর করা যায়?
ক টেলিফোন খ কম্পিউটার  মডেম ঘ রেডিও
৯. কোনটি কম্পিউটারের বৈশিষ্ট্য?
ক মানুষের তুলনায় ধীর গতিতে কাজ করে
 উপাত্ত প্রক্রিয়াকরণ করতে পারে
গ কম্পিউটার ভুল শনাক্ত করতে পারে না
ঘ কম্পিউটার নিজেকে নিজে সংশোধন করতে পারে
১০. বার্তা কথা কোড ছবি ডাটা ইত্যাদি
প্রেরক যন্ত্রযোগাযোগ চ্যানেল বা মাধ্যম
 গ্রাহক যন্ত্র মানুষ দ্বারা গ্রহণ
উদ্দীপকটি কী নির্দেশ করে?
ক অডিও সংকেত খ ভিডিও সংকেত
গ যোগাযোগ প্রক্রিয়া  ইলেকট্রনিক যোগাযোগ মূল ধাপ
১১. কত সালে ফ্যাক্স আবিষ্কৃত হয়?
ক ১৮৭৫ খ ১৮৫০  ১৮৪২ ঘ ১৯০৭
১২. মডেম এর কাজ কোনটি?
ক শব্দ প্রেরণ করা
খ গণনা কাজে সহায়তা করা
 ডিজিটাল সংক্রান্ত এনালগে পরিণত করা
ঘ একাউন্ট সংক্রান্ত তথ্য সংরক্ষণ করা
১৩. কোনটি আউটপুট ডিভাইস?
ক মাইক্রোফোন খ মাউস
 স্পিকার ঘ উইন্ডোজ-২০০৭
১৪. ট্রাফিক সিগন্যালে কোন বাতি সামনে এগিয়ে যাওয়ার অনুমতি নির্দেশ করে?
ক মনিটর ও প্রসেসর খ স্ক্যানার ও মাইক্রোফোন
গ কিবোর্ড ও মনিটর  কিবোর্ড ও মাউস
১৫. কোনটিকে সকল নেটওয়ার্কের জননী বলা হয়?
ক ই-মেইল খ কম্পিউটার  ইন্টারনেট ঘ ফ্যাক্স
১৬. টেলিভিশন শব্দের বাংলা অর্থ কী?
ক বেতার যন্ত্র খ মুঠোফোন  দূরদর্শন ঘ গণনা যন্ত্র
১৭. অধিক সংখ্যক কম্পিউটার নেটওয়ার্কের জন্য কোন সংকেত ব্যবহার করা উত্তম?
ক অডিও খ ভিডিও গ এনালগ  ডিজিটাল
১৮. স্পিকার তড়িৎ সংকেতকে কীসে পরিবর্তন করে?
ক শক্তিতে খ বায়ুতে  শব্দে ঘ ছবিতে
১৯. নিচের কোনটি সম্পর্কযুক্ত?
ক রেডিও-লজি বেয়ার্ড খ টেলিভিশন-মার্কনি
 আলেকজান্ডার বেইন-ফ্যাক্স ঘ জগদীশ চন্দ্র বসু-কম্পিউটার
২০. রেডিও প্রেরক ব্যবস্থার গুরুত্বপূর্ণ অংশ হলো-
র. প্রেরণ ব্যবস্থা
রর. গ্রহণ ব্যবস্থা
ররর. তরঙ্গ সঞ্চালন ব্যবস্থা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ রর ও ররর  র ও ররর ঘ র, রর ও ররর

জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তর 

প্রশ্ন \ ১ \ কম্পিউটারের শাব্দিক অর্থ কী?
উত্তর : কম্পিউটারের শাব্দিক অর্থ গণক বা হিসাবকারী।
প্রশ্ন \ ২ \ কম্পিউটার কী প্রক্রিয়াকরণ করে প্রয়োজনীয় তথ্যে রূপান্তর করে?
উত্তর : কম্পিউটার ডেটা বা উপাত্ত প্রক্রিয়াকরণ করে প্রয়োজনীয় তথ্যে রূপান্তর করে।
প্রশ্ন \ ৩ \ কোন যন্ত্র ব্যবহারের ফলে অস্বাভাবিকভাবে মুদ্রণ ব্যয় কমেছে?
উত্তর : কম্পিউটার ব্যবহারের ফলে অস্বাভাবিকভাবে মুদ্রণ ব্যয় কমেছে।
প্রশ্ন \ ৪ \ দীর্ঘদিন ও দীর্ঘক্ষণ একটানা কম্পিউটারে কাজ করলে চোখের কোন রোগ হয়?
উত্তর : কম্পিউটার ভিশন সিনড্রোম রোগ হয়।
প্রশ্ন \ ৫ \ কম্পিউটারে কাজ করার সময় কতক্ষণ পর পর দূরের বস্তুর দিকে তাকানো উচিত?
উত্তর : কম্পিউটারে কাজ করার সময় ১০ মিনিট পর পর দূরের বস্তুর দিকে তাকানো উচিত।
প্রশ্ন \ ৬ \ টিভি থেকে নিঃসৃত বিকিরণ থেকে রক্ষা পেতে কত দূরে বসে টিভি দেখতে হবে?
উত্তর : ৫০Ñ৭৫ সেমি দূরে বসে টিভি দেখতে হবে।
প্রশ্ন \ ৭ \ মোবাইল নেটওয়ার্কে কী তরঙ্গ ব্যবহার করা হয়?
উত্তর : মোবাইল নেটওয়ার্কে মাইক্রো তরঙ্গ ব্যবহার করা হয়।
প্রশ্ন \ ৮ \ যোগাযোগের ভাষা কেমন হবে?
উত্তর : যোগাযোগের ভাষা হবে সহজ, সরল, সুস্পষ্ট ও সম্পূর্ণ।
প্রশ্ন \ ৯ \ টেলিফোনের ইয়ারপিসের স্পিকারের কাজ কী?
উত্তর : তড়িৎ সংকেতকে শব্দে রূপান্তরিত করা টেলিফোনের ইয়ারপিসের স্পিকারের কাজ।
প্রশ্ন \ ১০ \ ফ্যাক্স মেশিন যেকোনো ডকুমেন্টকে স্ক্যান করে কী ধরনের সংকেতে রূপান্তরিত করে?
উত্তর : ইলেকট্রনিক সংকেতে রূপান্তরিত হবে।
প্রশ্ন \ ১১ \ মাইক্রোফোন কী?
উত্তর : যেকোনো সভা বা অনুষ্ঠানের সময় বক্তা যে ইলেকট্রনিক যন্ত্রের সামনে দাঁড়িয়ে কথা বলেন তাকে মাইক্রোফোন বলে।
প্রশ্ন \ ১২ \ অন্তর্গামী বা গ্রহণমুখ কাকে বলে?
উত্তর : কম্পিউটার যেখানে তথ্য গ্রহণ করে তাকে বলা হয় অন্তর্গামী (ওহঢ়ঁঃ) বা গ্রহণমুখ।
প্রশ্ন \ ১৩ \ স্পিকার কী?
উত্তর : স্পিকার হলো এমন একটি যন্ত্র, যা তড়িৎ সংকেতকে শব্দ শক্তিতে পরিবর্তিত করে।
প্রশ্ন \ ১৪ \ মডেম-এর কাজ কী?
উত্তর : মডেম এনালগ ডেটাকে ডিজিটাল ডেটায় এবং ডিজিটাল ডেটাকে এনালগ ডেটায় পরিবর্তিত করে।
প্রশ্ন \ ১৫ \ লাউড স্পিকারের কাজ কী?
উত্তর : গ্রাহক যন্ত্র কর্তৃক গৃহীত তড়িৎ সংকেতকে লাউড স্পিকার মূল শব্দে রূপান্তরিত করে এবং আমরা তা শুনতে পাই।
প্রশ্ন \ ১৬ \ রঙিন টেলিভিশনে কী কী মৌলিক রং ব্যবহার করা হয়?
উত্তর : রঙিন টেলিভিশনে সাধারণত তিনটি মৌলিক রং ব্যবহার করা হয়। এগুলো হলোÑ লাল, আসমানি এবং সবুজ।

 অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর 

প্রশ্ন \ ১ \ কম্পিউটার ভিশন সিনড্রোম বলতে কী বোঝ?
উত্তর : কাজের ফাঁকে ফাঁকে বিশ্রাম না নিয়ে দীর্ঘদিন ও দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটারে কাজ করলে চোখে নানারকম সমস্যার সৃষ্টি হয়, একে বলা হয় কম্পিউটার ভিশন সিনড্রোম। এই সিনড্রোমের মধ্যে রেেয়ছে চোখ জ্বালাপেড়া করা, চোখ শুষ্ক হয়ে যাওয়া, চোখ চুলকানো, চোখ লাল হয়ে যাওয়া এবং চোখের পানি শুকিয়ে যাওয়া।
প্রশ্ন \ ২ \ ডায়াফ্রাম কীভাবে কাজ করে?
উত্তর : মাইক্রোফোনের মধ্যে ডায়াফ্রাম নামে ধাতুর একটি পাতলা পাত থাকে। শব্দ তরঙ্গ দ্বারা এ পাত কম্পিত হয়। ডায়াফ্রাম হলো মাইাক্রোফোনের সে অংশ, যা শব্দের কম্পনকে তড়িতে রূপান্তরের জন্য ডিজাইন করা থাকে। বিভিন্ন রকমের শব্দের কম্পন ডায়াফ্রামকে বিভিন্নভাবে কম্পিত করে। এই কম্পনকে মাইক্রোফোন পরিবর্তনশীল তড়িৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করে।
প্রশ্ন \ ৩ \ ফিডব্যাক বলতে কী বোঝ?
উত্তর : যোগাযোগের জন্য প্রেরক বার্তার সংকেত রূপ দিয়ে কোনো মাধ্যমে প্রেরণ করে। গ্রাহক সংকেতরূপী বার্তা গ্রহণ করে এর অর্থ উদ্ধার করে সাড়া প্রদান করে বা উত্তর দেয়। এ সাড়া বা উত্তরকে পাঠানো হয় প্রেরকের কাছে। এ কাজটিকে বলা হয় ফিডব্যাক।
প্রশ্ন \ ৪ \ স্পিকার কীভাবে কাজ করে বুঝিয়ে লেখ।
উত্তর : স্পিকারে থাকে একটি স্থায়ী চুম্বক। স্পিকারের বায়ু ফাঁকে একটি ছোট ভয়েস কয়েল ঝুলানো থাকে। যখন শব্দ থেকে তৈরি প্রতিবর্তী তড়িৎপ্রবাহ এ কয়েলের সাথে সংযুক্ত করা হয়, তখন স্থির ক্ষেত্র (চৌম্বক ক্ষেত্র) ও চলক্ষেত্রের মধ্যে মিথস্ক্রিয়া ঘটে। ফলে কয়েলটি অগ্র-পশ্চাৎ যাওয়া আসা করে। এতে বায়ুতে সংকোচন-প্রসারণ ঘটে, ফলে শব্দের সৃষ্টি হয়।
প্রশ্ন \ ৫ \ মোবাইল কল কীভাবে প্রেরক থেকে গ্রাহকের কাছে পৌঁছায়?
উত্তর : যখন মোবাইলে কল করা হয় তখন কলটি বেতার তরঙ্গ হিসেবে কোনো প্রেরক-গ্রাহক টাওয়ারে যায়। এরপর কলটি তার বা মাইক্রোওয়েভের মাধ্যমে মোবাইল সুইচ স্টেশনে যায়। এ স্টেশন কলটিকে স্থানীয় টেলিফোন এক্সচেঞ্জে পাঠায়। সেখানে এটি প্রচলিত ফোন কল হয়ে গ্রাহকের নিকট পৌঁছায়।
প্রশ্ন \ ৬ \ প্রতিদিন দীর্ঘ সময় ধরে কম্পিউটার গেম খেললে কী সমস্যা হতে পারেÑ ব্যাখ্যা কর।
উত্তর : প্রতিদিন দীর্ঘসময় ধরে কম্পিউটারে গেম খেললে অতিরিক্ত মাউস ও কি-বোর্ড ব্যবহারের ফলে হাতের আঙুলে বিভিন্ন রকম সমস্যা হতে পারে যেমনÑ হাতের আঙুলের মাথায় সুঁই ফোটানোর মতো ব্যথা, আঙুলের মাথায় ফোস্কা পড়া, আঙুল ফুলে যাওয়া ইত্যাদি। এছাড়াও অধিকক্ষণ মনিটরের দিকে তাকিয়ে থাকার দরুন কম্পিউটার ভিশন সিনড্রোম দেখা দিতে পারে।
প্রশ্ন \ ৭ \ টেলিভিশন নিঃসৃত বিকিরণ থেকে রক্ষা পেতে কী করা উচিতÑ লেখ।
উত্তর : টেলিভিশন নিঃসৃত বিকিরণ থেকে রক্ষা পেতে টেলিভিশন থেকে নিরাপদ দূরত্বে (৫০Ñ৭৫ সেমি) বসে টিভি দেখতে হবে। চোখ ব্যথা বা চোখের ওপর অতিরিক্ত চাপ বা টান এড়াতে হলে চোখ ও টিভি পর্দার লেভেল একই থাকতে হবে। টিভির দিকে এক নাগাড়ে তাকিয়ে না থেকে কিছুক্ষণ পর পর চোখের পলক ফেলতে হবে।
প্রশ্ন \ ৮ \ ফ্যাক্সের কয়েকটি ব্যবহার লেখ।
উত্তর : ফ্যাক্সের কয়েকটি উল্লেখযোগ্য ব্যবহার নিম্নরূপ :
র. লিখিত বক্তব্য একস্থান থেকে অন্যস্থানে পৌঁছাতে ফ্যাক্স ব্যবহার করা হয়।
রর. ব্যাংক অ্যাকাউন্ট সংক্রান্ত তথ্য ও স্বাক্ষরের রেকর্ড রক্ষা ও আদান-প্রদান করা হয়।
ররর. অপরাধীর ছবি, আঙুলের ছাপ ইত্যাদি এক দেশ থেকে অন্য দেশে পাঠিয়ে অপরাধীকে শনাক্ত করতে ব্যবহৃত হয়।
প্রশ্ন \ ৯ \ রঙিন টেলিভিশনের কার্যনীতি বর্ণনা কর।
উত্তর : রঙিন টেলিভিশনের ক্যামেরা তিনটি মৌলিক রঙের (লাল, আসমানি এবং সবুজ)। টেলিভিশনের পর্দা তৈরি হয় তিন রকম ফসফর দানা দিয়ে। একটি বিশেষ রং শুধু তার বিশেষ রঙের ফসফর দানাগুলোকে আলোকিত করে। ফলে টেলিভিশনের পর্দায় একই সাথে ফুটে ওঠে লাল, আসমানি ও সবুজ রঙের বিন্দু এবং এদের বিভিন্ন রকম মিশ্রণে টেলিভিশনের পর্দায় ফুটে ওঠে রঙিন ছবির বিভিন্ন রং।
প্রশ্ন \ ১০ \ সাদাকালো টেলিভিশন ও রঙিন টেলিভিশনের মধ্যে দুটি পার্থক্য লেখ।
উত্তর : সাদাকালো টেলিভিশন ও রঙিন টেলিভিশনের মধ্যে দুটি পার্থক্য হলোÑ
ক. সাদাকালো টেলিভিশনের পর্দা তৈরি হয় এক রঙের ফসফর দানা দিয়ে। কিন্তু রঙিন টেলিভিশনের পর্দা তৈরি হয় তিন রঙের ফসফর দানা দিয়ে।
খ. সাদাকালো টেলিভিশনে একটি ইলেকট্রন গান থাকে। কিন্তু রঙিন টেলিভিশনে তিনটি ইলেকট্রন গান থাকে।
প্রশ্ন \ ১১ \ সফটওয়্যারকে হার্ডওয়্যারের প্রাণ বলা হয় কেন?
উত্তর : হার্ডওয়্যার নিজে কোনো কাজ করতে পারে না। সফটওয়্যারের নির্দেশ অনুসারে হার্ডওয়্যার কাজ করে। অর্থাৎ নিষ্প্রাণ হার্ডওয়্যারের দেহে প্রাণ সঞ্চার করে সফটওয়্যার। এ কারণে সফটওয়্যারকে হার্ডওয়্যারের প্রাণ বলা হয়।

অনুশীলনীর সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

প্রশ্ন -১ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
ফারহান ও ফাহাদ সময় পেলেই কম্পিউটারে গেম খেলে এবং টিভি দেখে। ফারহান খুব কাছে বসে টিভি দেখে। ইদানীং ফারহানের আঙুলে ব্যথা ও চোখ জ্বালা পোড়া করে। মা ফারহানকে কম্পিউটার চালাতে ও কাছাকাছি বসে টিভি দেখতে নিষেধ করলেন।
ক. রঙিন টেলিভিশনের মৌলিক রং কয়টি?
খ. ডিজিটাল সংকেত বলতে কী বুঝায়?
গ. উদ্দীপকের প্রথম যন্ত্রটির যান্ত্রিক কৌশল বর্ণনা কর।
ঘ. উদ্দীপকে উলি­খিত ফারহানের সমস্যার কারণ বিশ্লেষণ কর।
 ১নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. রঙিন টেলিভিশনের মৌলিক রং ৩টি।
খ. ডিজিটাল সংকেত বলতে বোঝায় সেই যোগাযোগ সংকেত, যাদের প্রত্যেককে পৃথকভাবে চেনা যায়।
সাধারণভাবে ডিজিট কথাটির অর্থ সংখ্যা। ডিজিটাল কথাটি এসেছে ‘ডিজিট’ বা সংখ্যা কথাটি থেকে। এ ব্যবস্থায় বাইনারি কোড অর্থাৎ ০ ও ১-এর সাহায্য নিয়ে যেকোনো তথ্য, সংখ্যা, অক্ষর, বিশেষ সংকেত ইত্যাদি বোঝানো এবং প্রেরিত হয়।
গ. উদ্দীপকের প্রথম যন্ত্রটি হলো কম্পিউটার। নিচে এর যান্ত্রিক কৌশল বর্ণনা করা হলো-
কম্পিউটার তথ্য সংগ্রহ করে, সুনির্দিষ্ট নির্দেশ অনুযায়ী তথ্যকে প্রক্রিয়াজাত করে এবং প্রয়োজন অনুযায়ী ফলাফল উপস্থাপন করে। কম্পিউটার যেখানে তথ্য গ্রহণ করে তাকে গ্রহণমুখ (ওহঢ়ঁঃ) বলে। যেখানে তথ্য প্রক্রিয়াজাত করে তাকে বলা হয় সিপিইউ (ঈচট) বা কেন্দ্রীয় প্রক্রিয়াকরণ ইউনিট, যে প্রান্ত থেকে ফলাফল পাওয়া যায় তাকে বলা হয় নির্গমন মুখ (ঙঁঃঢ়ঁঃ)। নিচের চিত্রে কম্পিউটারের একটি মৌলিক কাঠামো দেওয়া হলোÑ

কম্পিউটারের বেলায় আরও দুটি বিষয় হলো হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যার। যেসব ভৌত ডিভাইস দিয়ে কম্পিউটার তৈরি তাদেরকে বলা হয় হার্ডওয়্যার। যেমনÑ মাউস, মনিটর, প্রসেসর ইত্যাদি। সফটওয়্যার হলো এক সেট নির্দেশনা যা কম্পিউটারকে কী কাজ করতে হবে তা বলে দেয়। যেমনÑ উইন্ডোজ ৯৮, উইন্ডোজ ২০০৩ ও ২০০৭ ইত্যাদি।
ঘ. উদ্দীপকে উলি­খিত ফারহানের সমস্যা হলো আঙুলে ব্যথা এবং চোখ জ্বালা পোড়া করা। ফারহানের এ সমস্যার কারণ হলো দীর্ঘক্ষণ ধরে কম্পিউটারে গেম খেলা এবং টিভির খুব কাছাকাছি বসে টিভি দেখা।
খুব কাছাকাছি বসে টিভি দেখলে টিভির পর্দা থেকে যে রশ্মি বিকিরিত হয় তা সরাসরি চোখে পড়ে। এতে চোখের ক্ষতি হয় এবং চোখ জ্বালা-পোড়া করে। এছাড়াও টিভি ও চোখের লেভেল এক না হলেও চোখের সমস্যা হয়। আর ফারহানের আঙুলের ব্যথার প্রধান কারণ হলো কম্পিউটারে গেম খেলা।
যারা অধিকক্ষণ ধরে কম্পিউটার নিয়ে কাজ করে, কম্পিউটার কিবোর্ড ও মাউসের দীর্ঘক্ষণ ও দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে তাদের হাতের রগ, স্নায়ু, কব্জি, বাহুতে, কাঁধ ও ঘাড়ে অতিরিক্ত টান বা চাপ পড়ে। ফলে কাজের ফাঁকে যথেষ্ট বিশ্রাম না নিলে এসব অঙ্গে ব্যথাসহ নানারকম সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। এসব সমস্যার মধ্যে রয়েছে হাত, বাহু ও আঙুলে ব্যথা, আঙুল ফুলে যাওয়া ইত্যাদি।
কাজের ফাঁকে ফাঁকে বিশ্রাম না নিয়ে দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটারে কাজ করলে চোখে নানারকম সমস্যার সৃষ্টি হয়। একে বলা হয় কম্পিউটার ভিশন সিনড্রোম। এই সিনড্রোমের মধ্যে রয়েছে চোখ জ্বালা-পোড়া করা, চোখ শুষ্ক হয়ে যাওয়া, চোখ চুলকানো, চোখ লাল হয়ে যাওয়া এবং চোখের পানি শুকিয়ে যাওয়া।
প্রশ্ন -২ ল্ফ নিচের উদ্দীপকটি পড়ে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
নজরুল ইসলাম সবসময় ইন্টারনেটে কাজ করেন। একদিন ইন্টারনেটে বিদেশে একটি চাকরির বিজ্ঞপ্তি দেখে তিনি আবেদন করলে অপর প্রান্ত থেকে দরকারি কাগজপত্র, মূল সার্টিফিকেটের কপি পাঠাতে বলা হয়। তিনি কাগজপত্র স্ক্যান না করে বিশেষ প্রক্রিয়ায় কয়েক মিনিটের মধ্যে পাঠিয়ে দেন।
ক. হার্ডওয়্যার কী?
খ. অডিও সংকেত বলতে কী বুঝায়?
গ. নজরুল ইসলামের যোগাযোগের প্রথম মাধ্যমটির কার্যকারিতা ব্যাখ্যা কর।
ঘ. নজরুল ইসলাম প্রয়োজনীয় কাগজপত্রগুলো ইন্টারনেটের পরিবর্তে বিশেষ প্রক্রিয়ায় কেন পাঠালেন? বিশ্লেষণ কর।
 ২নং প্রশ্নের উত্তর 
ক. মনিটর, কিবোর্ড, মাউস, প্রসেসর ইত্যাদি যে সকল ভৌত ডিভাইস দিয়ে কম্পিউটার তৈরি তাদের বলা হয় হার্ডওয়্যার।
খ. অডিও সংকেতের উৎস হলো শব্দ। কোনো বক্তা বা উপস্থাপকের কথা বা কণ্ঠস্বর বা যেকোনো শব্দ তরঙ্গকে মাইক্রোফোনের সাহায্যে তড়িৎ সংকেতে রূপান্তরিত করা হয়। এর নাম অডিও সংকেত। এ অডিও সংকেতের কম্পাঙ্ক বা শক্তি এতো কম থাকে যে একে দূর-দূরান্তে প্রেরণ করা যায় না।

গ. নজরুল ইসলামের যোগাযোগের প্রথম মাধ্যমটি হলো ইন্টারনেট যা আজকের দিনে যোগাযোগের ক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা পালন করছে।
আধুনিক যুগে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হলো ইন্টারনেট। ইন্টারনেট হলো নেটওয়ার্কের নেটওয়ার্ক বা সকল নেটওয়ার্কের জননী। এটি একটি আন্তর্জাতিক নেটওয়ার্ক যা সংযুক্ত হয়েছে ২০০ এর বেশি দেশের প্রায় ৪,০০,০০০ নেটওয়ার্কের সাথে। ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক তৈরি হয়েছে শিক্ষামূলক, বাণিজ্যিক, অলাভজনক, সরকারি ও বেসরকারি সত্তা নিয়ে। এটি সবাই ব্যবহার করতে পারে। ইন্টারনেটের মাধ্যমে আমরা ই-মেইল ব্যবহার করতে পারি। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে ই-মেইল বার্তা পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে পৌছে যেতে পারে অপর প্রান্তে এবং বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে বার্তা সেকেন্ডের মধ্যে আসতেও পারে।
ইন্টারনেটের সাহায্যে এক কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটারে চিঠি পাঠানো যায়, ডকুমেন্ট, চিত্র, ছবি এবং যেকোনো তথ্য আদান-প্রদান করা যায়। এছাড়াও ইন্টারনেটের মাধ্যমে আমরা ফেসবুক, টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো ব্যবহার করতে পারি। ইন্টারনেটের মাধ্যমে যেকোনো সময় আমরা অনলাইন লাইব্রেরির হাজার হাজার বই, জার্নাল, ম্যাগাজিন ইত্যাদির সন্ধান পেতে পারি এবং পাঠ করতে পারি। ইন্টারনেটের মাধ্যমে আমরা ট্রেন, বাস বা বিমানের টিকেট বুকিং দিতে পারি, ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারি এবং ই-ব্যাংকিং করতে পারি।
ঘ. নজরুল ইসলাম প্রয়োজনীয় কাগজপত্রগুলো ইন্টারনেটের পরিবর্তে ফ্যাক্স এর মাধ্যমে বিদেশে পাঠালেন।
ফ্যাক্স হলো তার বা রেডিওর সাহায্যে গ্রাফিক্যাল তথ্য (ছবি, চিত্র, ডায়াগ্রাম বা লেখা) বা যেকোনো লিখিত ডকুমেন্ট হুবহু কপি করে প্রেরণ ও গ্রহণের একটি ইলেকট্রনিক ব্যবস্থা। এ যন্ত্রের সাহায্যে যেকোনো চিত্র, ছবি, রেখাচিত্র, লিখিত ডকুমেন্ট কোনো ফ্যাক্স মেশিনের সাহায্যে স্ক্যান করে টেলিফোন লাইনের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেওয়া যায়।
ফ্যাক্স মেশিনে যেকোনো ডকুমেন্ট ইলেকট্রনিক সংকেতে রূপান্তরিত করা হয়, তারপর টেলিফোন বা বেতারের মাধ্যমে প্রেরণ করা হয়। নিচে ফ্যাক্স সিস্টেম দেখানো হলো।
আধুনিক ফ্যাক্স মেশিনে কোনো ডকুমেন্ট ইলেকট্রনিক উপায়ে স্ক্যানিং করা হয় এবং স্ক্যানকৃত সংকেতকে বাইনারি সংকেতে রূপান্তর করা হয়। এরপর স্ট্যান্ডার্ড মোডেম কৌশল ব্যবহার করে টেলিফোনের মাধ্যমে প্রেরণ করা হয়।
গ্রাহক ফ্যাক্স মেশিন প্রেরিত ইলেকট্রনিক সংকেত গ্রহণ করে মোডেমের সাহায্যে মূল ডকুমেন্টে পরিণত করে। এরপর একে একটি প্রিন্টারে প্রেরণ করে, যা ডকুমেন্টটিকে হুবহু ছেপে বের করে।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top