ষষ্ঠ শ্রেণির ইসলাম কুরআন ও হাদিস শিক্ষা

তৃতীয় অধ্যায়
কুরআন ও হাদিস শিক্ষা
ভ‚মিকা
মানবজাতির হিদায়াতের জন্য আমাদের নবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর পবিত্র কুরআন নাযিল করা হয়। এটি মহান আল্লাহর বাণী। আজ পর্যন্ত অবিকৃত রয়েছে। কেউ এর একটি নুকতা, অক্ষর, শব্দ বা হরকতও পরিবর্তন করতে পারেনি। আর ভবিষ্যতেও পারবে না। কেননা, এর সংরক্ষক স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা। আর মহানবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর বাণী, কর্ম ও সম্মতিকে বলা হয় হাদিস। হাদিস ইসলামি জীবনব্যবস্থার দ্বিতীয় উৎস। হাদিস হলো কুরআনের ব্যাখ্যাস্বরূপ।

বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর

 বিষয়ক্রম অনুযায়ী বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
ন্ধ পাঠ-১ : আল কুরআনের পরিচয়
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১. কুরআন মজিদ কার বাণী? (জ্ঞান)
 আল্লাহ তায়ালার খ মহানবি (স.)-এর
গ আদম (আ.)-এর ঘ ইবরাহিম (আ.)-এর
২. ইসলামের প্রধান দুটি উৎস হলো-
ক কুরআন, ইজমা খ হাদিস, কিয়াস
 কুরআন, হাদিস ঘ কুরআন, কিয়াস
৩. সর্বশ্রেষ্ঠ আসমানি কিতাব কোনটি? (জ্ঞান)
ক তাওরাত খ যাবুর
গ ইনজিল  কুরআন
৪. ছোট আসমানি কিতাব কতখানা?
 ১০০ খ ১০১ গ ১০২ ঘ ১০৩
৫. বড় আসমানি কিতাব কতখানা? (জ্ঞান)
ক ৩  ৪ গ ৫ ঘ ৬
৬. কুরআন মজিদের ভাষা কী? (জ্ঞান)
ক ফার্সি  আরবি
গ উর্দু ঘ ইংরেজি
৭. সর্বশেষ আসমানি কিতাব কোনটি? (জ্ঞান)
ক তাওরাত  কুরআন গ ইনজিল ঘ যাবুর
৮. মহানবি (স.)-এর ওপর কত বছর ধরে কুরআন নাযিল হয়? (জ্ঞান)
ক ২০  ২৩ গ ২৫ ঘ ৪০
৯. মহানবি (স.) কত বছর বয়সে নবুয়তপ্রাপ্ত হন? (জ্ঞান)
ক ২৩ খ ২৫  ৪০ ঘ ৬৩
১০. কার মাধ্যমে কুরআন অবতীর্ণ হয়? [খুলনা জিলা স্কুল
ক হযরত আজরাইল (আ.)  হযরত জিবরাইল (আ.)
গ হযরত মিকাইল (আ.) ঘ হযরত ইসরাফিল (আ.)
১১. কুরআন নাযিল হয় কীভাবে? (অনুধাবন)
ক কিতাব আকারে খ অর্ধেক করে
 প্রয়োজন অনুসারে ঘ এক সাথে
১২. কুরআন মজিদ নাযিল হয় কেন? (অনুধাবন)
ক মানুষের শিক্ষার জন্য খ হাফেজ হওয়ার জন্য
গ ব্যবসা করার জন্য  মানব জাতির হিদায়াতের জন্য
১৩. মহানবি (স.) ধ্যানমগ্ন থাকতেন কেন? (অনুধাবন)
ক ঘুম না হওয়ার জন্য খ মনের কষ্টে
গ অত্যাচারিত হয়ে  মানুষের দুঃখ দূর করতে
১৪. আরবে কলহ-বিবাদ লেগে থাকত কেন?
 অজ্ঞতার কারণে খ টাকা-পয়সার কারণে
গ হিংসার কারণে ঘ অহংকারের কারণে
১৫. বাসির আল্লাহ তায়ালার পরিচয়, তাঁর গুণাবলি, ইমান ও ইসলামের সকল বিষয় সম্পর্কে জানতে আগ্রহী। এজন্য তার করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক ফিক্হ শাস্ত্র অধ্যয়ন খ সাহিত্য অধ্যয়ন
গ দর্শন শাস্ত্র অধ্যয়ন  আল-কুরআন অধ্যয়ন
১৬. কুরআন মজিদ লিপিবদ্ধ রয়েছে? (জ্ঞান)
 লাওহে মাহফুজে খ ১ম আসমানে
গ বাইতুল্লাহ শরিফে ঘ ৭ম আসমানে
১৭. সত্য-মিথ্যার পার্থক্যকারী হিসেবে মহান আল্লাহ কোন গ্রন্থ নাযিল করেছেন? (অনুধাবন)
 আল-কুরআন খ তাওরাত
গ ইনজীল ঘ যাবুর
১৮. শিক্ষক বললেন, মানবজাতির হিদায়াতের জন্য আল্লাহ তা‘য়ালা শেষ নবি হযরত মুহাম্মদ (স.) এর ওপর একটি কিতাব নাযিল করেন। এখানে শিক্ষক কোন কিতাবের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন? (প্রয়োগ)
ক তাওরাত খ যাবুর গ ইনজিল  কুরআন
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৯. কুরআন মজিদের ভাব ও ভাষা- [যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ]
র. অনন্য রর. অপূর্ব
ররর. প্রাচীন
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২০. বড় কয়েকটি আসমানি গ্রন্থের নাম হলো (অনুধাবন)
র. কুরআন
রর. বুখারি
ররর. ইনজিল
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২১. হযরত মুহাম্মদ (স.) নবুয়ত লাভের আগে হেরা গুহায় ধ্যানমগ্ন থাকতেন। তিনি বুঝতে পারলেন যে, আল্লাহর সান্নিধ্য পাওয়ার জন্য (উচ্চতর দক্ষতা)
র. আরও বেশি ধ্যানমগ্ন থাকতে হবে
রর. বাহ্যিক কাজ কর্ম ত্যাগ করতে হবে
ররর. এটাই অন্যতম মাধ্যম
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ রর ও ররর  র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২২. মুজিযা অর্থ- [মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা]
র. অলৌকিক বস্তু বা ঘটনা
রর. নবি-রাসুলগণের দ্বারা প্রকাশিত ঘটনা
ররর. সাহাবায়ে কেরামদের দ্বারা প্রকাশিত ঘটনা
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ রর ও ররর গ র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২৩ ও ২৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
জাকারিয়া প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে এমন একটি গ্রন্থ তিলাওয়াত করে যার ভাব, ভাষা ও গুণাবলি অতুলনীয়।
২৩. জাকারিয়া কোন গ্রন্থ তিলাওয়াত করে?
 কুরআন খ হাদিস গ ইজমা ঘ কিয়াস
২৪. উক্ত গ্রন্থ তিলাওয়াতের ফলে জাকারিয়া-
র. আল­াহর পরিচয় সম্পর্কে জানতে পারবে
রর. সৃষ্টি জগৎ সম্পর্কে জানতে পারবে
ররর. নিজের দেশ সম্পর্কে জানতে পারবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-২ : কুরআন তিলাওয়াত
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২৫. পবিত্র কুরআন কোন ভাষায় নাযিল হয়েছে? (জ্ঞান)
ক বাংলা খ হিন্দি  আরবি ঘ ইংরেজি
২৬. নফল ইবাদতের মধ্যে সর্বোত্তম ইবাদত কোনটি? (জ্ঞান)
ক হাদিস তিলাওয়াত  কুরআন তিলাওয়াত
গ আরবি তিলাওয়াত ঘ বাংলা তিলাওয়াত
২৭. তিলাওয়াত কী শব্দ? (জ্ঞান)
 আরবি খ ফারসি গ উর্দু ঘ ইংরেজি
২৮. কুরআন তিলাওয়াত করা কোন ইবাদতের মধ্যে সর্বোত্তম? (জ্ঞান)
ক ফরয খ ওয়াজিব গ সুন্নত  নফল
২৯. কুরআন শব্দটির মূল অর্থ কী? [যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ]
ক আবৃত্তি করা  পঠিত গ পড়া ঘ পাঠ করা
৩০. কোন কিতাব আরবি ভাষায় নাযিল হয়েছে? (জ্ঞান)
 কুরআন খ ইনজিল গ তাওরাত ঘ যাবুর
৩১. কোন কিতাব বিশ্বে বেশি পাঠ করা হয়? (জ্ঞান)
ক ইনজিল খ বাইবেল  কুরআন ঘ যাবুর
৩২. কুরআন তিলাওয়াত করলে কে খুশি হন? (জ্ঞান)
ক রাসুল খ নবি  আল­াহ ঘ ফেরেশতা
৩৩. যে ঘরে কুরআন পড়া হয় সে ঘরে কী নাযিল হয়? (জ্ঞান)
ক গযব  রহমত গ শস্য ঘ খাদ্য
৩৪. নাযিরা তিলাওয়াত বলতে কী বোঝায়? (অনুধাবন)
 দেখে দেখে পড়া খ মুখস্থ পড় গ না বুঝে পড়া ঘ দ্রুত পড়া
৩৫. কুরআনের প্রতিটি হরফ পাঠ করলে কী পরিমাণ নেকি হয়? (জ্ঞান)
 দশ খ বিশ গ ত্রিশ ঘ চলি­শ
৩৬. মুসলমানগণ দৈনিক কতবার সালাতে কুরআন তিলাওয়াত করে? (জ্ঞান)
ক দুই খ তিন  পাঁচ ঘ চার
৩৭. কুরআনকে ‘কুরআন’ বলা হয় কেন? [মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা]
ক আল্লাহ এরূপ নামকরণ করেছেন বলে
খ মহানবি (স.) এরূপ নামকরণ করেছেন বলে
 বিশ্বের সর্বাধিক পঠিত গ্রন্থ বলে
ঘ সালাতে কুরআন তিলাওয়াত করা হয় বলে
৩৮. আমরা সবাই বেশি বেশি কুরআন তিলাওয়াত করব কেন? (অনুধাবন)
ক আল্লাহ তায়ালার নির্দেশ পালনের জন্য
খ মহানবি (স.)-এর নির্দেশ পালনের জন্য
গ মাতা-পিতার মাগফিরাতের জন্য
 কুরআন তিলাওয়াত অত্যন্ত ফযিলতপূর্ণ কাজ এজন্য
৩৯. আঃ কাদের সর্বোত্তম নফল ইবাদতের মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালাকে খুশি করতে চায়। এজন্য তার করণীয় কী?
ক বেশি বেশি দান-সাদকা করা
খ প্রতিবেশীর হক যথাযথভাবে আদায় করা
গ পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায় করা
 কুরআন তিলাওয়াত করা
৪০. রাহেলা বেগম প্রতিদিন ফজর নামাযের পর দেখে দেখে কুরআন তিলাওয়াত করেন। তাঁর এ তিলাওয়াতকে কী বলা হয়? (প্রয়োগ)
ক হেজফ তিলাওয়াত খ কুরআন পাঠ
 নাযিরা তিলাওয়াত ঘ কুরআন তিলাওয়াত
৪১. সোমা প্রতিদিন নিজগৃহে কুরআন তিলাওয়াত করে থাকেন। এর ফলাফল কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক তার ঘরে প্রচুর ধন-সম্পদ আসবে
খ তার ঘরে শয়তান প্রবেশ করবে না
 তার ঘরে আল্লাহর রহমত নাযিল হবে
ঘ তার ঘরের বিপদ দূর হবে
৪২. “কুরআনের প্রতিটি হরফের বিনিময়ে ১০টি নেকি পাওয়া যায়”। এটা কে বলেছেন? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক আল­াহ  মহানবি (স.)
গ ফেরেশতা ঘ ফকির
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৪৩. তিলাওয়াত বলতে বোঝায় (অনুধাবন)
র. পাঠ করা রর. আবৃত্তি করা
ররর. তৈরি করা
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৪৪. কুরআন তিলাওয়াতের ফলে- (উচ্চতর দক্ষতা)
র. মনে প্রশান্তি আসে রর. সময় নষ্ট হয়
ররর. আত্মা পরিশুদ্ধ হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৪৫ ও ৪৬ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
ফয়সাল মাহমুদ ষষ্ঠ শ্রেণির একজন ছাত্র। তার কণ্ঠস্বর খুবই মধুর। সে প্রতিদিন উচ্চস্বরে একটি গ্রস্থ পাঠ করে।
৪৫. ফয়সালের উচ্চস্বরে পাঠকৃত গ্রন্থটি কী? (প্রয়োগ)
 আল-কুরআন খ আল-হাদিস
গ আল-ইজমা ঘ আল-কিয়াস
৪৬. ফয়সালের উক্ত গ্রন্থ পাঠের ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. সে সাওয়াব পাবে
রর. তার পিতামাতা খুশি হবেন
ররর. আল­াহ খুশি হবেন
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৩ : তাজবিদ
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৪৭. ‘তাজবিদ’ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক বিশৃঙ্খলা করা  সুন্দর করা
গ ভুল করা ঘ তিলাওয়াত করা
৪৮. ক্বুল শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক পড়া খ সুন্দর করা  বলুন ঘ খাও
৪৯. শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 এক বা অদ্বিতীয় খ অংশীদার
গ প্রতিপালক ঘ জিন
৫০. আরবি হরফ কতটি? (জ্ঞান)
ক ২১ খ ২৩ গ ২৫  ২৯
৫১. উত্তম ব্যক্তি কে? (জ্ঞান)
 যে কুরআন পড়ে খ যে বাইবেল পড়ে
গ যে গীতা পড়ে ঘ যে ইংরেজি পড়ে
৫২. তাজবিদ সহকারে কুরআন পড়া কার নির্দেশ? (জ্ঞান)
ক নবির  আল­াহর গ ফেরেশতার ঘ মানুষের
৫৩. কুরআন শরিফ শুদ্ধ করে পড়া বলতে কী বোঝায়?
 তাজবিদ সহকারে পড়া খ শুদ্ধ করে পড়া
গ ভুল করে পড়া ঘ অশুদ্ধ করে পড়া
৫৪. আমরা তাজবিদ সহকারে কুরআন পড়ব কেন? (অনুধাবন)
 শুদ্ধতার জন্য খ টাকা পাওয়ার জন্য
গ অশুদ্ধতার জন্য ঘ ভুলের জন্য
৫৫. আরিফ আরবি হরফের মাখরাজ ও সিফাত অনুসারে বিশুদ্ধভাবে কুরআন তিলাওয়াত করে না। তার এরূপ তিলাওয়াত কীসের পরিপন্থী? (প্রয়োগ)
ক ইমানের  তাজবিদের গ নিফাকের ঘ ইসলামের
৫৬. মোজাহার নামাযে দাঁড়িয়ে অশুদ্ধভাবে কুরআন তিলাওয়াত করে। এর ফলে তার নামায কী হবে? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক পূর্ণাঙ্গ হবে  পূর্ণাঙ্গ হবে না
গ আদায় হবে ঘ আংশিক শুদ্ধ হবে
৫৭. ‘আপনি কুরআন আবৃত্তি করুন ধীরে ধীরে ও সুস্পষ্টভাবে’ Ñ অনূদিত বাণীটি কোন সূরার আয়াত?
ক সূরা আল-বাকারা  সূরা আল-মুয্যাম্মিল
গ সূরা আনকাবুত ঘ সূরা আন-নিসা
৫৮. (ক্বুল) শব্দের ق (ক্বাফ) কে ভুল মাখরাজ থেকে উচ্চারণের ফলাফল কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক আল্লাহ তা‘য়ালা খুশি হন
 অর্থের বিকৃতি ঘটে
গ নামায শুদ্ধ হবে
ঘ উচ্চারণ সুন্দর হবে না
৫৯. ‘তোমাদের মধ্যে সে ব্যক্তি উত্তম যে নিজে কুরআন শিক্ষা করে এবং অপরকে তা শিক্ষা দেয়।’Ñ অনূদিত বাণীটি কার? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক আল্লাহ তায়ালার
 মহানবি (স.)-এর
গ আবু বকর (রা.)-এর
ঘ ওমর ফারুক (রা.)-এর
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৬০. তাজবিদ বলতে বোঝায় [
র. শুদ্ধ করে পড়া রর. সুন্দর করে পড়া
ররর. অশুদ্ধ করে পড়া
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৬১. তোমাদের মধ্যে সেই ব্যক্তি উত্তম যে (উচ্চতর ক্ষতা)
র. কুরআন শিখে রর. অন্যকে কুরআন শিখায়
ররর. নামায আদায় করে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৬২ ও ৬৩ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র আজিম প্রতিদিন আসরের পর গ্রামের মক্তবে যায়। ইতোমধ্যে সে হুজুরের কাছ থেকে শুদ্ধভাবে কুরআন তিলাওয়াতের সব নিয়ম জেনেছে।
৬২. আজিমের শুদ্ধভাবে তিলাওয়াতকে কী বলে? (অনুধাবন)
ক তাওহিদ  তাজবিদ গ মাখরাজ ঘ সিফাত
৬৩. এরূপ তিলাওয়াতের ফলে আজিম লাভ করবেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. আল্লাহর সন্তুষ্টি
রর. প্রচুর ধন-সম্পদ
ররর. অনেক সাওয়াব
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও ররর খ র ও ররর গ রর ও রর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৪ : মাখরাজ
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৬৪. ১৭টি মাখরাজ মুখের কয়টি স্থানে অবস্থিত? (জ্ঞান)
ক ৩ খ ৪  ৫ ঘ ৬
৬৫. “ﺭ” (রা) কত নং মাখরাজ? [ফরিদপুর জিলা স্কুল]
ক ৯ খ ১০  ১১ ঘ ১২
৬৬. জায়েয শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক অবৈধ  বৈধ গ বাণী ঘ বর্ণ
৬৭. ﺝ (জিম) কত নং মাখরাজ? (জ্ঞান)
ক ৬  ৭ গ ৮ ঘ ৯
৬৮. মাখরাজের স্থান কয়টি? [আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল, ঢাকা]
ক ১৫  ১৭ গ ১৮ ঘ ২০
৬৯. কালাম অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক অবতীর্ণ খ বর্ণ  বাণী ঘ বৈধ
৭০. পঞ্চম নম্বর মাখরাজ কোনটি? (জ্ঞান)
ক লাম খ জীম  ক্বাফ ঘ বা
৭১. শেষ মাখরাজ কোনটি? [ফরিদপুর জিলা স্কুল]
ক জিহŸা খ হলক গ উভয় ঠোঁট  নাসিকামূল
৭২. দুই ঠোঁট থেকে কয়টি হরফ উচ্চারিত হয়? (জ্ঞান)
 ৩ খ ৪ গ ৫ ঘ ৬
৭৩. নবিগণের থেকে ঘটিত অলৌকিক ঘটনা বা বস্তুকে কী বলে? (জ্ঞান)
ক ওহি  মুজিযা গ নুকতা ঘ তাজবিদ
৭৪. কণ্ঠনালির উপরিভাগ থেকে উচ্চারিত হরফ ২টি কী? (জ্ঞান)
ক ﻑ ﻝ  ﻍ ﺥ গ ﻥ ﻢ ঘ ﺭ ﻁ
৭৫. মামুন কুরআন তিলাওয়াতের সময় ‘তা বর্ণকে ‘তোয়া’ বর্ণ পড়ল। তার এরূপ পড়া কী?
 গুনাহের কাজ খ সাওয়াবের কাজ
গ অশুদ্ধ হয়নি ঘ শুদ্ধ হয়েছে
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৭৬. ১৭টি মাখরাজ অবস্থিত (উচ্চতর দক্ষতা)
র. কণ্ঠনালি রর. উভয় হাত
ররর. জিহŸা, গলা, ঠোঁট
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের তথ্যের আলোকে ৭৭ ও ৭৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
আয়মান কুরআন পড়ার সময় ‘ﺖ’ কে ‘ﻁ’ এবং ‘ﻉ’ কে ‘ﺀ’ পড়ে।
৭৭. আয়মানের কুরআন পাঠ কীসের পরিপন্থী?

ক কুরআনের খ হাদিসের
গ ইমানের  তাজবিদের
৭৮. এরূপ ভুল পড়ার ফলে আয়মানের
র. গুনাহ হবে রর. সাওয়াব হবে
ররর. অর্থের পরিবর্তন হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৫ : সূরা আল-ফাতিহা
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৭৯. ফাতিহা শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রশংসা  ভ‚মিকা গ অধিপতি ঘ রাস্তা
৮০. (সিরাতুন) শব্দটির অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক রব  পথ গ প্রশংসা ঘ ইবাদত
৮১. সূরা ফাতিহার উলে­খযোগ্য নাম কয়টি? (জ্ঞান)
ক ৩ খ ৪  ৫ ঘ ৬
৮২. মাক্কী সূরা কোনটি?
ক বাকারা খ ইমরান  সূরা ফাতিহা ঘ মারিয়াম
৮৩. সূরা ফাতিহার আয়াত কয়টি? (জ্ঞান)
ক ৬  ৭ গ ৮ ঘ ৯
৮৪. (রব) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক পথ খ রাস্তা
 প্রতিপালক ঘ কুরআন
৮৫. সূরাতুশ-শিফা শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রার্থনা খ দোয়া গ প্রশংসা  রোগমুক্তির সূরা
৮৬. সূরাতুদ-দোয়া শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক আবেগ খ প্রতিবাদ  প্রার্থনামূলক সূরা ঘ জননী
৮৭. يَوْمِ الدِّيْنِ(ইয়াওমুদ দ্বীন) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক শেষ দিবস  বিচার দিবস
গ কুরআন দিবস ঘ বিজয় দিবস
৮৮. সূরা ফাতিহা কয়ভাগে বিভক্ত? (জ্ঞান)
ক ২  ৩ গ ৪ ঘ ৫
৮৯. নামায শুদ্ধ হয় না কেন?
 সূরা ফাতিহা ব্যতীত খ সূরা নাস ব্যতীত
গ সূরা মাউন ব্যতীত ঘ সূরা আলাক ব্যতীত
৯০. সরল সঠিক পথের সন্ধান দেন কে? (জ্ঞান)
ক রাসুল  আল­াহ গ শয়তান ঘ নবি
৯১. আল্লাহর সাথে বান্দার সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যম হিসেবে কোন সূরাটি তিলাওয়াত করা যায়?
ক আল-আসর  আল-ফাতিহা
গ আল-নাস ঘ হুমাযাহ
৯২. সূরা ফাতিহাকে মাক্কি সূরা বলা হয় কেন? (অনুধাবন)
 মক্কায় নাযিল হয়েছে বলে
খ মদিনায় নাযিল হয়েছে বলে
গ আরাফায় নাযিল হয়েছে বলে
ঘ জিদ্দায় নাযিল হয়েছে বলে
৯৩. সূরা ফাতিহা কখন নাযিল হয়? (জ্ঞান)
 হিজরতের পূর্বে খ হিজরতের পরে
গ হিজরত চলাকালীন ঘ নবির জন্মের পূর্বে
৯৪. সূরা ফাতিহা-এর অন্য নাম কী?
ক আল হাদিস খ মেশকাত শরিফ
 উম্মুল কুরআন ঘ বুখারি
৯৫. প্রত্যেক নামাযে কোন সূরা তিলাওয়াত করতে হয়? (জ্ঞান)
ক সূরা কদর খ সূরা রাহমান
গ সূরা ফিল  সূরা ফাতিহা
৯৬. হাশেম সূরা ফাতিহা দিয়ে নামায পড়া শুরু করে। ফলে তার নামায (উচ্চতর দক্ষতা)
 শুদ্ধ হবে খ অশুদ্ধ হবে
গ ভুল হবে ঘ শুদ্ধ হবে না
৯৭. জনাব রফিক একটি সূরা দিয়ে নামায় শুরু করেন। তিনি কোন সূরাটি পড়েন? (প্রয়োগ)
 ফাতিহা খ আলাক গ ইয়াসিন ঘ হুজুরাত
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৯৮. সূরা ফাতিহার উলে­খযোগ্য নামগুলো [শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজ, ঢাকা
র. সিরাতুল মুস্তাকিম
রর. উম্মুল কুরআন
ররর. সূরাতুল হামদ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৯৯. সূরা ফাতিহা সম্পর্কে নিচের যে তথ্যটি সঠিক (উচ্চতর দক্ষতা)
র. প্রথম তিনটি আয়াতে আল্লাহ তায়ালার প্রশংসা করা হয়েছে
রর. শেষ তিনটি আয়াতে মানুষের পক্ষ থেকে মুনাজাতের ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে
ররর.আল্লাহর পরিচয় সংক্ষিপ্ত আকারে বর্ণনা করা হয়েছে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১০০ ও ১০১ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
রাবেয়া ষষ্ঠ শ্রেণির একজন ছাত্রী। সে দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়ে এবং নামাযে একটি সূরা পাঠ করে।
১০০. রাবেয়ার নামাযে পঠিত সূরাটির নাম হলোÑ (অনুধাবন)
র. সূরাতুল ফাতিহা
রর. সিরাতুল মুস্তাকিম
ররর. সূরাতুশ শিফা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১০১. রাবেয়া সূরাটি পাঠ করার ফলে তার (উচ্চতর দক্ষতা)
র. সাওয়াব হবে রর. নামায শুদ্ধ হবে
ররর. গুনাহ হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৬ : সূরা আন-নাস
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১০২. সূরা নাস কোথায় নাযিল হয়? (জ্ঞান)
ক মক্কায়  মদিনায় গ আরাফায় ঘ হেযাযে
১০৩. আল-কুরআনের সর্বশেষ সূরা কোনটি? (জ্ঞান)
ক সূরা ফাতিহা  সূরা নাস
গ সূরা ইখলাস ঘ সূরা কাফিরুন
১০৪. আন-নাস শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 মানুষ খ জিন গ পশুপাখি ঘ সাগর
১০৫. কুরআনের ১১৪তম সূরার নাম কী? (জ্ঞান)
ক সূরা ফাতিহা  সূরা আন-নাস
গ সূরা আল-ফালাক ঘ সূরা আল-আসর
১০৬. (ক্বুল) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক ভক্ষণ করা খ সরল পথ
 তুমি বল ঘ উত্তম
১০৭. (আয়ুজু) শব্দের অর্থ কী? [খুলনা জিলা স্কুল]
 আমি আশ্রয় চাই খ প্রশংসা করা
গ অভিশপ্ত পথ ঘ মালিক
১০৮. বিশ্বজগতের প্রকৃত অধিপতি কে? (জ্ঞান)
ক শয়তান  আল­াহ গ মানুষ ঘ জিন
১০৯. (ইলাহ) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 মাবুদ খ মানুষ গ জিন ঘ ফেরেশতা
১১০. সূরা-আন নাসে কাদের হতে বাঁচার কথা বলা হয়েছে? [খুলনা
ক জিন হতে খ ফেরেশতা হতে
গ মানুষ হতে  শয়তান হতে
১১১. সূরা আন-নাসের আয়াতসমূহে কয় প্রকারের আলোচনা রয়েছে? (অনুধাবন)
ক এক  দুই গ তিন ঘ চার
১১২. সূরা আন-নাসের প্রথম তিন আয়াতে কীসের প্রকাশ ঘটেছে? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক জিন ও মানুষের কর্মের  আল্লাহর তিনটি গুণের
গ ফেরেশতাদের গুণাবলির ঘ মহানবি (স.)-এর শ্রেষ্ঠত্বের
১১৩. “আত্মগোপনকারী শয়তানের কুমন্ত্রণার অনিষ্ট থেকে আশ্রয় চাই।” এটি কোন সূরায় বলা হয়েছে? (প্রয়োগ)
ক সূরা ফাতিহা খ সূরা আসর
 সূরা আন-নাস ঘ সূরা ফিল
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১১৪. সূরা নাসের প্রথম তিন আয়াতে মহান আল­াহর যে গুণের কথা উলে­খ করা হয়েছে (অনুধাবন)
র. খালিক
রর. মালিক
ররর. ইলাহ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১১৫. ঝাড়-ফুঁক বা জাদু-মন্ত্রণা থেকে বেঁচে থাকার জন্য আমরা যেসব সূরা পাঠ করব (প্রয়োগ)
র. সূরা আন-নাস
রর. সূরা আল-ফালাক
ররর. সূরা আল-আসর
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১১৬. শয়তান কুমন্ত্রণা দেয়। ফলে মানুষ (অনুধাবন)
র. পাপ করে
রর. অমনোযোগী হয়
ররর. গুনাহ করে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১১৭ ও ১১৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
শাকিলা ও রুমানা শিক্ষকের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ সূরা পড়া শিখছে। তারা জানল যে, এ সূরা কুরআনের সর্বশেষ সূরা।
১১৭. শাকিলা ও রুমানা যে সূরাটি শিখেছে তার নাম কী? (প্রয়োগ)
 সূরা নাস খ সূরা বাকারা
গ সূরা নিসা ঘ সূরা জুমার
১১৮. এ সূরা থেকে শিক্ষা নিয়ে শাকিলা ও রুমানার করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
র. অশ্লীল কথা ও আচরণ পরিহার করা
রর. শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে বেঁচে থাকা
ররর. শালীন পোশাক পরে বাইরে চলাচল করা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র  রর গ ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৭ : সূরা আল-ফালাক্ব
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১১৯. সূরা আল-ফালাক্বের আয়াত সংখ্যা কয়টি? (জ্ঞান)
 ৫ খ ১১ গ ১৮ ঘ ২০
১২০. আল-ফালাক্ব শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 প্রভাত খ দিন গ রাত ঘ দুপুর
১২১. হাছাদ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রশংসা করা  হিংসা
গ দোয়া করা ঘ সাহায্য করা
১২২. ইজা শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক সময়  যখন
গ রাতের অন্ধকার ঘ দিন
১২৩. ওয়াকাব শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রভাত খ হিংসা
 গভীর হওয়া ঘ থেকে
১২৪. আল-ফালাক্ব কুরআনের কততম সূরা? (জ্ঞান)
ক ১১২  ১১৩ গ ১১৪ ঘ ১১৫
১২৫. ইয়াহুদি কয়টি গিরা দিয়ে জাদু করে? (জ্ঞান)
 ১১ খ ১২ গ ১৩ ঘ ১৪
১২৬. ইয়াহুদি কী সংগ্রহ করে জাদু করে? (জ্ঞান)
 চুল খ পানি গ আগুন ঘ কাপড়
১২৭. সূরা আল-ফালাক্ব কোথায় অবতীর্ণ হয়? (জ্ঞান)
ক মক্কায়  মদিনায়
গ বসরা ঘ কুফায়
১২৮. ইয়াহুদি জাদু করেছিল কাকে? (জ্ঞান)
ক হযরত আদম (আ.) কে খ হযরত ইসমাইল (আ.) কে
 হযরত মুহাম্মদ (স.) কে ঘ হযরত দাউদ (আ.) কে
১২৯. আল্লাহ তায়ালা মহানবি (স.) এর ওপর সূরা ফালাক্ব নাযিল করেন। এর কারণ কী? (প্রয়োগ)
ক মন ভালো হয়  নানারকম বিপদ থেকে মুক্তি পাওয়া
গ অর্থসম্পদ বৃদ্ধি পায় ঘ লোভ-হিংসা দূর হয়
১৩০. জাদুকর লাবিদ মহানবি (স.) কে জাদু করলে মহান আল্লাহ সূরা ফালাক্ব নাযিল করেন। এর ফলে মহানবি (স.) জাদু থেকে কী পান? (উচ্চতর দক্ষতা)
 মুক্তি খ টাকা গ গহনা ঘ ধনসম্পদ
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৩১. সূরা আল-ফালাক্বে আল­াহর কাছে আশ্রয় চাওয়া হয়েছে যা থেকে (উচ্চতর দক্ষতা)
র. ক্ষতি থেকে রর. অনিষ্ট থেকে
ররর. লাভ থেকে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৩২. গভীর রাতের নানারূপ বিপদাপদ হলো (অনুধাবন)
র. জিন-শয়তান রর. হিংস্র কুকুর
ররর. চোর-ডাকাত
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৩৩ ও ১৩৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
কবিরের শিক্ষক কবিরকে সূরা ফালাক্ব জিজ্ঞাসা করলে সে পুরো সূরাটা মুখস্থ বলল। এই সূরা থেকে সে এ শিক্ষা পেল যে, আল­াহই সকল কিছুর উপর পূর্ণ ক্ষমতাবান।
১৩৩. অনুচ্ছেদে উল্লিখিত সূরার শিক্ষা অনুযায়ী কবিরের কর্তব্য কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠে নামায আদায় করা
 সকল অনিষ্ট থেকে আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করা
গ প্রতিদিন প্রতিবেশীর খোঁজখবর নেওয়া
ঘ পিতামাতার সাথে সদ্ব্যবহার করা
১৩৪. উক্ত সূরা পড়ার ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. বিপদাপদ দূর হয় রর. ধন-সম্পদ বৃদ্ধি পায়
ররর. জাদুর প্রভাব নষ্ট হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৮ : সূরা আল-হুমাযাহ
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৩৫. সূরা আল-হুমাযাহ কোথায় অবতীর্ণ হয়? [দাউদ পাবলিক স্কুল, যশোর]
 মক্কায় খ মদিনায় গ জেদ্দায় ঘ তায়েফে
১৩৬. ‘আমাদিন’ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক আগুন  খুঁটি গ নামায ঘ রোযা
১৩৭. সূরা আল-হুমাযাহকে কয় ভাগে ভাগ করা যায়? (জ্ঞান)
 ২ খ ৩ গ ৪ ঘ ৫
১৩৮. সূরা হুমাযাহর দ্বিতীয় অংশে কয়টি আয়াত? (জ্ঞান)
ক ৫  ৬ গ ৭ ঘ ৮
১৩৯. সূরা আল-হুমাযাহ এর আয়াত সংখ্যা সর্বমোট (জ্ঞান)
ক ৫  ৯ গ ১৬ ঘ ২০
১৪০. মুমিনদের গিবত করত কে? (জ্ঞান)
ক হযরত আনাস (রা.) খ আবু জেহেল
গ আবু লাহাব  ওলীদ ইবনে মুগিরা
১৪১. পশ্চাতে কারো নিন্দা করাকে কী বলে? (জ্ঞান)
ক হারাম  গিবত গ হালাল ঘ জায়েজ
১৪২. সূরার দ্বিতীয় অংশে কয়টি জঘন্য কাজের শাস্তির কথা বলা হয়েছে? (উচ্চতর দক্ষতা)
 ৩ খ ৪ গ ৫ ঘ ৬
১৪৩. ‘আর আপনি কি জানেন হুতামা কী’ আয়াতটি কোন সূরার? (প্রয়োগ)
ক সূরা আন-নাস খ সূরা লাহাব
গ সূরা ফালাক  সূরা আল-হুমাযাহ
১৪৪. সূরা হুমাযাহ নাযিল হয়েছে কেন?
 গিবত করার পরিণতি জানাতে
খ গিবত করার সুফল জানাতে
গ সম্পদের বর্ণনা করতে ঘ জান্নাতের সুসংবাদ দিতে
১৪৫. গিবত, পরনিন্দা ও অর্থলিপ্সা তিনটিই খারাপ কাজ। এর ফলে মানুষের কী হয়? (উচ্চতর দক্ষতা)
 কবিরা গুনাহ হয় খ সাওয়াব হয়
গ সম্পদ বাড়ে ঘ লাভ হয়
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৪৬. সামনাসামনি কারো নিন্দা করার ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. মানুষ অপমানিত হয়
রর. ঝগড়া-ফাসাদ সৃষ্টি হয়
ররর. স¤প্রীতি বৃদ্ধি পায়
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৪৭ ও ১৪৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
সিফাত মাহফিলে ওয়াজ শুনতে গিয়েছিল। সেখানে আল­ামা শরিফুল ইসলাম একটি সূরার তাফসির করেন। সিফাত তা মন দিয়ে শোনে এবং এ সূরার মর্মার্থ বুঝতে পারে।
১৪৭. অনুচ্ছেদের সিফাত আল্লামা শরিফুল ইসলাম থেকে কোন সূরার তাফসির শুনেছে? (প্রয়োগ)
 সূরা আল-হুমাযাহ খ সূরা লাহাব
গ সূরা লুকমান ঘ সূরা ফাতাহ
১৪৮. সূরাটিতে যে বিষয়ের কথা বলা হয়েছে (উচ্চতর দক্ষতা)
র. শাস্তির কথা
রর. আল­াহর পরিচয়
ররর. জঘন্য গুনাহের পরিচয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৯ : সূরা আল-আসর
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৪৯. সূরা আল-আসর কুরআনের কত নং সূরা? (জ্ঞান)
 ১০৩ খ ১০৪ গ ১০৫ ঘ ১০৬
১৫০. আল ইনসানু শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক শপথ  মানুষ গ জিন ঘ পাখি
১৫১. আল-হাক্কু শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক মিথ্যা  সত্য গ গোপন ঘ আলো
১৫২. ইন্না শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক আগামীকাল  অবশ্যই
গ মানুষ ঘ ধৈর্য
১৫৩. খুসরুন শব্দের অর্থ কী?
 ক্ষতি খ লাভ গ কষ্ট ঘ দুঃখ
১৫৪. আসর শব্দ দ্বারা কী বোঝায়? (জ্ঞান)
ক দিন  সময় গ রাত ঘ দুপুর
১৫৫. সূরা আসরে ক্ষতি থেকে বাঁচার কয়টি উপায়ের কথা বলা হয়েছে? (অনুধাবন)
ক ২টি খ ৩টি  ৪টি ঘ ৫টি
১৫৬. সূরা আল-আসরে আল­াহ কীসের শপথ করেছেন? [দাউদ তাবলিক স্কুল, যশোর]
 মহাকালের খ মাসের
গ বছরের ঘ যুগের
১৫৭. সূরা আল-আসর থেকে আমরা কী নৈতিক শিক্ষা পাই? [দাউদ পাবলিক স্কুল, যশোর]
 অন্যায়-অত্যাচার করব না
খ প্রতিবেশীর সাথে সদ্ব্যবহার করব
গ মানুষকে ভালোবাসব
ঘ আল্লাহর ইবাদত করব
১৫৮. ‘নিশ্চয়ই মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত’ অনূদিত আয়াতটি কোন সূরার? (প্রয়োগ)
 সূরা আল-আসর খ সূরা আল-হুমাযাহ
গ সূরা আল-বায়্যিনাহ ঘ সূরা আল-ফিল
১৫৯. সূরা আসরের নাম আসর রাখা হয়েছে কেন? (অনুধাবন)
 সূরার প্রথম শব্দ আসর হওয়ায়
খ সূরাটি মাক্কী হওয়ায়
গ সূরাটি ছোট হওয়ায়
ঘ সূরায় তিন আয়াত হওয়ায়
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৬০. ‘আল-আসর’ বলতে বোঝায়- (অনুধাবন)
র. মহাকাল রর. যুগ
ররর. ক্ষতি
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৬১. যারা ইমান আনার পর সৎ কাজ করেছে তারা ক্ষতির মধ্যে নেই। এর কারণ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. এরা আল্লাহর নির্দেশ পালনকারী
রর. এরা আল্লাহর নির্দেশ পালন করে না
ররর. এদের পরকাল মঙ্গলময় হওয়ার কারণে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৬২. আল্লাহ তায়ালার ক্ষতি থেকে বাঁচতে হলে (অনুধাবন)
র. ইমান আনতে হবে
রর. সত্যের উপদেশ দিতে হবে
ররর. দৃঢ়তা ও সাহসিকতা প্রদর্শন করতে হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ রর ও ররর গ র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৬৩ ও ১৬৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
সাব্বির শিক্ষকের নিকট থেকে এমন একটি সূরা সম্পর্কে জানতে পেরেছে যে, এটি পবিত্র কুরআনের ছোট সূরা হলেও এর তাৎপর্য অত্যন্ত ব্যাপক।
১৬৩. সাব্বির কোন সূরা সম্পর্কে জানতে পেরেছে? (প্রয়োগ)
ক সূরা আলাক  সূরা আসর
গ সূরা বালাদ ঘ সূরা হুমাযাহ
১৬৪. এ সূরার তাৎপর্য বুঝতে পারলে সাব্বির লাভ করতে পারেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. দুনিয়ার কল্যাণ
রর. প্রচুর ধনসম্পদ
ররর. আখিরাতের কল্যাণ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১০ : অর্থসহ মুনাজাতের তিনটি আয়াত
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৬৫. মুনাজাত শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 প্রার্থনা করা খ প্রশংসা করা
গ বান্দা ঘ মানুষ
১৬৬. মুনাজাত করলে কে খুশি হন? (জ্ঞান)
ক মানুষ খ ফেরেশতা  আল­াহ ঘ নবি
১৬৭. মানুষকে জ্ঞান দান করেন কে? (জ্ঞান)
ক নবি খ রাসুল (স.)
গ ফেরেশতা  আল­াহ
১৬৮. দুনিয়া-আখিরাতের সব নিয়ামত কার দান? (জ্ঞান)
ক প্রকৃতির খ মানুষের
গ মহানবির (স.)  আল্লাহর
১৬৯. আমাদের রব কে? (জ্ঞান)
ক পিতামাতা খ ফেরেশতা
গ মহানবি (স.)  আল্লাহ
১৭০. জ্ঞানার্জন করা জরুরি কেন? (অনুধাবন)
ক চাকরি লাভের জন্য  জীবনে উন্নতি লাভের জন্য
গ অর্থ উপার্জন করার জন্য ঘ মানুষকে জ্ঞান দান করার জন্য
১৭১. তিনি আমাদের পালনকর্তা, রিযিকদাতা, মৃত্যুদানকারী-তিনি কে? (প্রয়োগ)
ক বান্দা  আল­াহ গ নবি-রাসুল ঘ ফেরেশতা
১৭২. শিশুকালে সকল মানুষই অসহায় থাকে। এ সময় প্রধান অবলম্বন কারা? (প্রয়োগ)
ক ভাইবোন খ দাদাদাদি  পিতামাতা ঘ পাড়াপড়শি
১৭৩. আমরা পিতামাতার জন্য দোয়া করব। এর ফলে আল্লাহ তাদের কী করবেন? (উচ্চতর দক্ষতা)
 ক্ষমা করবেন খ সম্পদ দিবেন
গ শাস্তি দিবেন ঘ উপকার করবেন
১৭৪. দুনিয়া আখিরাতের সমস্ত নিয়ামত মহান আল্লাহর। এ নিয়ামত পাওয়ার জন্য আমাদের করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
 চেষ্টা করা ও মুনাজাত করা
খ চেষ্টা না করে মুনাজাত করা
গ চেষ্টা না করা ও মুনাজাত না করা
ঘ অকর্মন্য হয়ে বসে থাকা
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৭৫. আমরা মুনাজাত করব (অনুধাবন)
র. জান্নাত লাভের জন্য রর. জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য
ররর. শত্রæতা বৃদ্ধির জন্য
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৭৬. মুনাজাতের মাধ্যমে আল্লাহর নিকট কিছু চাওয়া হয়। এতে আল­াহ (প্রয়োগ)
র. খুশি হন রর. সাওয়াব দেন
ররর. শাস্তি দেন
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৭৭ ও ১৭৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
জুমার নামায সমাপ্ত করে আজাদ সাহেব আল­াহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে মানুষের শান্তি কামনা করলেন।
১৭৭. আজাদ সাহেবের এরূপ কাজটিকে কী বলে? (প্রয়োগ)
ক মাগফিরাত খ ক্ষমা
 মুনাজাত ঘ কথা বলা
১৭৮. এরূপ করার ফলে আজাদ সাহেব- (উচ্চতর দক্ষতা)
র. শান্তি লাভ করবেন রর. অশান্তি লাভ করবেন
ররর. অকল্যাণ লাভ করবেন
নিচের কোনটি সঠিক?
 র খ রর গ ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১১ : আল হাদিস
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৭৯. ‘হাদিস’ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক বিশ্বাস খ পড়া  কথা ঘ শব্দ
১৮০. হাদিস কী শব্দ?
 আরবি খ উর্দু গ ফারসি ঘ হিন্দি
১৮১. হাদিসের অপর নাম কী? (জ্ঞান)
ক কুরআন  সুন্নাহ গ ইজমা ঘ কিয়াস
১৮২. হাদিস কীসের ব্যাখ্যাস্বরূপ? (জ্ঞান)
ক ইনজিলের খ যাবুরের
গ বাইবেলের  আল-কুরআনের
১৮৩. হাদিস ইসলামি জীবনব্যবস্থার দ্বিতীয় উৎস কেন? (অনুধাবন)
 মহানবি (স.) এর বাণী হওয়ায়
খ হাদিস অনেক হওয়ায়
গ ইজমা থেকে মর্যাদাবান হওয়ায়
ঘ কিয়াসের ন্যায় হওয়ায়
১৮৪. মহানবি (স.) আল-কুরআনের নির্দেশ মানুষের নিকট কীভাবে বিশ্লেষণ করেছেন? (অনুধাবন)
ক সাহাবিদের মাধ্যমে খ কুরআনের মাধ্যমে
 হাদিসের মাধ্যমে ঘ ইজমার মাধ্যমে
১৮৫. সালমা নামায আদায়ের নিয়ম-কানুন জানতে চায়। এজন্য তাকে কী করতে হবে? (প্রয়োগ)
ক কিয়াস সম্পর্কে জানতে হবে খ ইজমা সম্পর্কে জানতে হবে
 হাদিস সম্পর্কে জানতে হবে ঘ ইতিহাস সম্পর্কে জানতে হবে
১৮৬. মোতাহার পবিত্র কুরআনের ব্যাখ্যা জানতে চায়। এজন্য তাকে কোনটি জানতে হবে? (প্রয়োগ)
ক কুরআন  হাদিস গ ইতিহাস ঘ দর্শন
১৮৭. “রাসুল তোমাদের যা দেন তা তোমরা গ্রহণ কর। আর যা নিষেধ করেন তা থেকে বিরত থাক।” এতে আমাদের করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
 মহানবি (স.) কে অনুসরণ করা
খ মহানবি (স.) কে অনুসরণ না করা
গ মহানবি (স.) কে বাদ দেওয়
া ঘ নামায না পড়া
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৮৮. হাদিস বলতে বোঝায় (অনুধাবন)
র. বাণী রর. কথা
ররর. বিশ্বাস
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৮৯. ইসলামি শরিয়তে হাদিসের অবস্থান (অনুধাবন)
র. প্রথম রর. দ্বিতীয়
ররর. কুরআনের পরই
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৯০ ও ১৯১ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
রাসেল অফিসে চাকরি করে। সে যুহরের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে গেল। কিন্তু সে ঠিকমতো রুকু, সিজদা দিতে পারল না।
১৯০. রাসেল ঠিকমতো রুকু, সিজদাহ করতে না পারার কারণ কী? (প্রয়োগ)
ক কুরআন তিলাওয়াত না করা  হাদিস অধ্যয়ন না করা
গ ইসলামের ইতিহাস না জানা ঘ তার হাঁটুতে ব্যথা
১৯১. সঠিকভাবে নামায আদায়ের জন্য তার উচিত- (উচ্চতর দক্ষতা)
র. কামনা করা
রর. কুরআন ঠিকমতো পড়া
ররর. হাদিস পড়ে নামাযের নিয়ম জানা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র খ রর  ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১২ : অর্থসহ নৈতিক গুণাবলি বিষয়ক দুটি হাদিস

সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৯২. মিথ্যাবাদীকে সবাই কী করে? (জ্ঞান)
ক ভালোবাসে খ শ্রদ্ধা করে
 ঘৃণা করে ঘ অবজ্ঞা করে
১৯৩. দীনদার ব্যক্তির লক্ষণ কী? (জ্ঞান)
ক ওয়াদা ভঙ্গ করা  ওয়াদা রক্ষা করা
গ খিয়ানত করা ঘ ঘুষ খাওয়া
১৯৪. ওয়াদা ভঙ্গকারী ইসলামের দৃষ্টিতে কী? (জ্ঞান)
ক মুমিন খ কাফির
 মুনাফিক ঘ ঘুষখোর
১৯৫. কে জান্নাতে প্রবেশ করবে না? (জ্ঞান)
ক সত্যবাদী খ মুমিন গ ইমানদার  মুনাফিক
১৯৬. প্রকৃত কথা গোপন করাকে কী বলে? (জ্ঞান)
 মিথ্যা খ সত্য গ হক ঘ জ্ঞান
১৯৭. যে ব্যক্তি চলাফেরা ও কথাবার্তায় নীতির অনুসরণ করে না সেই নীতিহীন মানুষ। সমাজে সবাই তাকে কী করে? (প্রয়োগ)
 ঘৃণা খ ভালোবাসে
গ টাকা দেয় ঘ গালি দেয়
১৯৮. পাপ কাজের পরিণতি কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
 জাহান্নাম খ জান্নাত গ শান্তি ঘ সমৃদ্ধি
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৯৯. নীতি বলতে বোঝায়
র. কথায় ও কাজে সুন্দর
রর. পড়াশোনা ঠিকমতো করা
ররর. সুন্দর মার্জিত ব্যবহার
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২০০. নীতিহীন মানুষকে সমাজে দেখা হয় (অনুধাবন)
র. ভালোবাসার চোখে
রর. ঘৃণার চোখে
ররর. অসম্মানের সাথে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২০১ ও ২০২ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
জাহিদ ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। সে তার বাবা-মা ও গুরুজনদের সম্মান করে, দেখলে সালাম দেয়, তাদের সাথে ভালো ব্যবহার করে।
২০১. উপরিউক্ত আচরণের কারণে জাহিদকে কী বলা যাবে? (প্রয়োগ)
ক নীতিহীন মানুষ  নীতিবান মানুষ
গ চরিত্রহীন মানুষ ঘ আদর্শহীন মানুষ
২০২. এরূপ আচরণের ফলে জাহিদকে মানুষÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. ভালোবাসবে
রর. ঘৃণা করবে
ররর. স্নেহ করবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১৩ : অর্থসহ মুনাজাতমূলক দুটি হাদিস
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২০৩. ইসলামে কোন খাদ্য গ্রহণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে? (জ্ঞান)
ক হারাম  হালাল গ অপবিত্র ঘ নষ্ট
২০৪. মানুষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় কী? (জ্ঞান)
ক ব্যবসা-বাণিজ্য খ টাকা-পয়সা
 খাদ্য ও জ্ঞান ঘ আরাম ও ঘুম
২০৫. বিদ্যা অর্জন করা কী? (জ্ঞান)
ক সুন্নত খ নফল  ফরয ঘ মুস্তাহাব
২০৬. মানবজাতির মহান শিক্ষক কে? (জ্ঞান)
ক আল­াহ  হযরত মুহাম্মদ (স.)
গ জিন ঘ পিতামাতা
২০৭. আমরা আল্লাহর নিকট ক্ষমা চাইব কেন? (অনুধাবন)
ক ক্ষমা মহৎ গুণ এজন্য
খ মহানবি (স.)-এর নির্দেশ পালনের জন্য
 ভুলত্রæটি ও পাপের ক্ষমার জন্য
ঘ মুনাজাত করার জন্য
২০৮. আমরা কথাবার্তা, চলাফেরায় নানারূপ পাপ কাজ করে ফেলি। এক্ষেত্রে আমাদের করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক মাজারে গিয়ে সিজদা করা
খ পীর-মাশায়েখদের কাছে ক্ষমা চাওয়া
গ দরগায় মান্নত করা
 আল্লাহ তা‘য়ালার নিকট ক্ষমা চাওয়া
২০৯. মাসুম ধনে ও জ্ঞানে বড় হতে চায়। এজন্য তাকে কী করতে হবে?(প্রয়োগ)
ক পীরের কাছে দোয়া চাইতে হবে
খ ধনী ও জ্ঞানীদের অনুসরণ করতে হবে
গ বাড়িতে মিলাদ মাহফিল করতে হবে
 আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করতে হবে
২১০. আমরা মহান আল­াহর কাছে প্রার্থনা করব কেন? (অনুধাবন)
ক হারাম রিযিকের জন্য
খ ভেজাল রিযিকের জন্য
 হালাল রিযিকের জন্য
ঘ অপবিত্র রিযিকের জন্য
২১১. “হে আল­াহ! আমার পাপসমূহ, ভুলত্র“টিগুলো এবং ইচ্ছাকৃত অপরাধসমূহ ক্ষমা করে দাও।” অনূদিত হাদিসটির শিক্ষা কোনটি? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক ঘুমানো খ ক্ষমা চাওয়া
গ ইবাদত  মুনাজাত
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২১২. প্রার্থনামূলক হাদিসের উদ্দেশ্য (উচ্চতর দক্ষতা)
র. পাপসমূহ ক্ষমা চাওয়া
রর. ইচ্ছাকৃত অপরাধের ক্ষমা চাওয়া
ররর. ভুলত্র“টিগুলোর ক্ষমা চাওয়া
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
২১৩. হাদিসের ভাষ্য অনুযায়ী উপকারী বিদ্যায় (অনুধাবন)
র. মানুষের উপকার হবে
রর. নিজের উপকার হবে
ররর. সমাজের উপকার হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
২১৪. আখিরাতে আমাদের শাস্তির কারণ হবেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. ছোট-বড় পাপ
রর. ইচ্ছা ও অনিচ্ছাকৃত পাপ
ররর. আল্লাহর নিকট মুনাজাত
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২১৫ ও ২১৬ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
সাদেকা ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। সে প্রতিদিন জনৈক পীরের কাছে তার ভুলত্র“টির জন্য ক্ষমা প্রার্থনা ও হালাল রিযিক এর জন্য দোয়া চায়।
২১৫. সাদেকার কর্মকাণ্ড কীসের পরিপন্থী? (প্রয়োগ)
ক শিরকের  তাওহিদের গ কুফরের ঘ নিফাকের
২১৬. এরূপ কাজের ফলে সাদেকাÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. গুনাহগার হবে
রর. ক্ষমা লাভ করবে
ররর. শাস্তি পাবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ রর ও ররর  র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১৪ : নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠায় হাদিস

সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২১৭. আল-আমিন শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক মিথ্যাবাদী  বিশ্বাসী
গ অস্বীকারকারী ঘ অহংকারী
২১৮. আমরা বিরত থাকব কী থেকে? (জ্ঞান)
ক সত্য থেকে খ হালাল থেকে
গ সঠিক থেকে  হিংসা থেকে
২১৯. ওয়াদা ভঙ্গকারীকে কী বলে? (জ্ঞান)
 মুনাফিক খ সৎ ব্যক্তি গ জ্ঞানী ব্যক্তি ঘ ধনী ব্যক্তি
২২০. আমরা সর্বদা মানুষের সাথে কী রকম আচরণ করব? (জ্ঞান)
 উত্তম খ অশ্লীল গ জটিল ঘ কঠোর
২২১. সর্বোত্তম চরিত্রের অধিকারী কে? (জ্ঞান)
ক হযরত আদম (আ.) খ হযরত ইবরাহিম (আ.)
 হযরত মুহাম্মদ (স.) ঘ ইমাম আবু হানিফা (র.)
২২২. প্রকৃত মানুষ হওয়ার উপায় বলতে কী বোঝায়? (অনুধাবন)
ক শয়তানের অনুসরণ খ ফেরেশতার অনুসরণ
গ জিনের অনুসরণ  মহানবি (স.)-এর অনুসরণ
২২৩. মহানবি (স.) সর্বদা সত্য কথা বলতেন কেন? (অনুধাবন)
ক সম্পদের জন্য খ অশ্লীল কথা বলা ভালো
 উম্মতের শিক্ষার জন্য ঘ ভুল কথা বরকত হয়
২২৪. নবি ও রাসুল সর্বদা ভালো শিক্ষা দিতেন কেন? (অনুধাবন)
ক সম্পদের জন্য খ সুনামের জন্য
 উত্তম চরিত্রের জন্য ঘ ফেরেশতাদের দোয়া পাওয়ার জন্য
২২৫. আমাদের চরিত্র কেমন হওয়া উচিত? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক খারাপ  উত্তম
গ অশ্লীল ঘ মিথ্যাবাদী
২২৬. কী থেকে আমরা বিরত থাকব? (জ্ঞান)
 চুরি-ডাকাতি খ নামায গ হজ ঘ যাকাত
২২৭. কার উপাধি আল-আমীন ছিল? (জ্ঞান)
ক হযরত জিবরাইল (আ.)-এর খ হযরত মিকাইল (আ.)-এর
গ হযরত ইউসুফ (আ.)-এর  হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর
২২৮. ‘নিশ্চয়ই আপনি মহান চরিত্রের অধিকারী।’’ অনূদিত আয়াতটির শিক্ষা কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক মহানবি (স.) ইন্তিকাল করেছেন
খ মহানবি (স.) স্বাভাবিক
গ মহানবি (স.) নবি ও রাসুল
 মহানবি (স.) অনুসরণীয় ব্যক্তি
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২২৯. নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধের ফলে মানুষ সমাজে (উচ্চতর দক্ষতা)
র. সম্মান লাভ করে
রর. মর্যাদা লাভ করে
ররর. ঘৃণিত হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২৩০. সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয় (প্রয়োগ)
র. দুর্নীতির দ্বারা
রর. সন্ত্রাসের দ্বারা
ররর. চুরি-ডাকাতির দ্বারা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২৩১ ও ২৩২ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
আমাদের প্রিয় নবি হযরত মুহাম্মদ (স.) ছিলেন ক্ষমাশীল, দয়াবান, অতিথিপরায়ণ, মিষ্টভাষী। তিনি অন্যায় ও অশ্লীল কাজ কখনো করতেন না। সারাজীবন তিনি মানুষকে উত্তম চরিত্র সম্পর্কে হাতে-কলমে শিক্ষা দিয়েছেন।
২৩১. অনুচ্ছেদে মহানবি (স.)-এর কীসের প্রতিফলন লক্ষ করা যায়? (প্রয়োগ)
ক ক্ষমার খ সত্যবাদিতার
 সৎ গুণাবলির ঘ ইবাদতের
২৩২. উক্ত গুণাবলি অনুসরণ করার ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. প্রকৃত মানুষ হতে পারব
রর. দুর্নীতি ও পশুত্ব দূরীভ‚ত হবে
ররর. ধন-সম্পদ লাভ করতে পারব
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর

সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

 মাস্টার ট্রেইনার প্রণীত সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর
প্রশ্ন- ১  আল-কুরআনের গুরুত্ব ও বৈশিষ্ট্য

আল­াহ রাব্বুল আলামিন মানবজাতির হিদায়াতের জন্য কিতাব দিয়ে অসংখ্য নবি-রাসুল প্রেরণ করেছেন। আরব বিশ্বের মানুষ যখন অন্ধকার পথে ধাবিত হচ্ছিল তখন আল­াহ তা‘য়ালা হযরত মুহাম্মদ (স.)কে একটি মূল্যবান কিতাব দিয়ে পৃথিবীতে পাঠান। [বাংলাদেশ নৌবাহিনী স্কুল এন্ড কলেজ, খুলনা]
ক. জ্ঞানের ভাণ্ডার কোনটি? ১
খ. আল কুরআনের পরিচয় দাও। ২
গ. উদ্দীপকে কোন কিতাব নাযিলের কথা বলা হয়েছে? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. তুমি কি মনে কর গুরুত্বের দিক থেকে এ কিতাব অতুলনীয়? মতামত দাও। ৪

ক পবিত্র কুরআন শরিফ জ্ঞানের ভাণ্ডার।
খ আল কুরআন সর্বশেষ আসমানি কিতাব, পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ গ্রন্থ। মহানবি (স.)-এর ওপর এটি নাযিল হয়। আল কুরআন জ্ঞানসমূহের ভাণ্ডারস্বরূপ। এ গ্রন্থে আল­াহর পরিচয়, নানারকম বিধিবিধান ও আইনকানুন বর্ণিত হয়েছে। এটি সত্য ও মিথ্যার পার্থক্যকারী। সমগ্র মানবজাতির নিকট এটি একটি মূল্যবান গ্রন্থ।
গ উদ্দীপকে পবিত্র আল কুরআন নাযিলের কথা বলা হয়েছে। আল্লাহ তায়ালা হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর পবিত্র কুরআন নাযিল করেছেন। এটি মহান আল্লাহর পবিত্র বাণী। আজ পর্যন্ত এটি অবিকৃত রয়েছে। আল্লাহ তায়ালার পরিচয় তাঁর গুণাবলি, ইমান ও ইসলামের সকল বিষয় এতে বর্ণনা করা করা হয়েছে। এতে রয়েছে জ্ঞান-বিজ্ঞানের সার কথা। ২৩ বছরে এটি সম্পূর্ণরূপে নাযিল হয়। আল কুরআন হলো সর্বশেষ আসমানি গ্রন্থ। এরপর আর কোনো কিতাব নাযিল হবে না। উদ্দীপকেও এ বিষয়টিরই ইঙ্গিত করা হয়েছে যে, যখন আরব জাতি অন্ধকার পথে ধাবিত হচ্ছিল তখন তাদের হিদায়াতের জন্য হযরত মুহাম্মদ (স.) কে পবিত্র, সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বশেষ কিতাব কুরআন দিয়ে পৃথিবীতে পাঠান। সুতরাং উপরিউক্ত আলোচনায় প্রতীয়মান হয় যে, আল্লাহ তায়ালা হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর পবিত্র কুরআন শরিফ নাযিল করেছেন।
ঘ আমি মনে করি, গুরুত্বের দিক থেকে পবিত্র কুরআন অতুলনীয়। মানবজাতির হিদায়াতের একমাত্র পথ হলো ইসলাম। আর ইসলামের একমাত্র মূল দর্শন কুরআন। এতে দীনের যাবতীয় বিষয় বর্ণনা করা হয়েছে। এর ভাব ও ভাষা অনন্য ও অপূর্ব। সকল জ্ঞানসমূহের ভাণ্ডার। মানুষের জীবনে যেসব সমস্যার উদ্ভব হয়ে থাকে তার সমাধানের ব্যাপারেও এতে উলে­খ আছে।
উপরিউক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায়, পবিত্র কুরআন গুরুত্বের দিক থেকে সর্বশেষ্ঠ ও অতুলনীয়। আমি এর সাথে একমত।
প্রশ্ন- ২  তাজবিদের গুরুত্ব

ধর্মীয় শিক্ষক বললেন, প্রতিটি ভাষারই একটি ব্যাকরণ আছে, তদ্রæপ কুরআন মজিদেরও একটি ব্যাকরণ আছে। এ ব্যাকরণ পাঠ ছাড়া কুরআন তিলাওয়াত শুদ্ধ হয় না। এজন্য আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী কুরআন শুদ্ধ করে পড়ার অভ্যাস করতে হবে।
[বিএফ শাহীন স্কুল এন্ড কলেজ, যশোর]
ক. তাজবিদ শব্দের অর্থ কী? ১
খ. সিফাত কাকে বলে? ২
গ. উদ্দীপকের ধর্মীয় বিষয় কুরআন মজিদের ব্যাকরণ বলতে কীসের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. ধর্মীয় শিক্ষকের শেষোক্ত উক্তিটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ কর। ৪

ক তাজবিদ শব্দের অর্থ উত্তম করা, সুন্দর করা।
খ আরবি হরফ কোনোটি মোটা করে পড়তে হয়, আবার কোনোটি চিকন করে পড়তে হয়। উচ্চারণের এ বিশেষ অবস্থাকে সিফাত বলে। যেমন : ‘তা’ এবং ‘ত্বয়া’ হরফ দুটির উচ্চাণের স্থান একই। কিন্তু এদের সিফাত ভিন্ন। এ দুটো বর্ণের মধ্যে ‘ত্বয়া’ কে মোটা করে পড়তে হয় এবং ‘তা’ কে চিকন করে পড়তে হয়।
গ উদ্দীপকের ধর্মীয় শিক্ষক কুরআন মজিদের ব্যাকরণ বলতে তাজবিদের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন। প্রতিটি ভাষা শুদ্ধরূপে পড়ার জন্য সেই ভাষার ব্যাকরণ জানা আবশ্যক। তেমনি মহাগ্রন্থ আল কুরআন শুদ্ধ ও সুন্দরভাবে পড়ার জন্য যে নিয়ম ও কৌশল রয়েছে তাকেই তাজবিদ বলে। তাজবিদ অনুযায়ী কুরআন শুদ্ধরূপে তিলাওয়াত না করলে একদিকে অর্থের যেমন বিকৃতি ঘটে অন্যদিকে তিলাওয়াতকারী গুনাহগার হয়। আর তাজবিদ শাস্ত্র থেকে কুরআন শুদ্ধভাবে তিলাওয়াত করার নিয়ম জানা যায়। তাই উদ্দীপকের ধর্মীয় শিক্ষক তাজবিদকে কুরআন মজিদের ব্যাকরণ বলেছেন।
ঘ “কুরআন শুদ্ধ করে পড়ার অভ্যাস করতে হবে”উদ্দীপকের ধর্মীয় শিক্ষকের শেষোক্ত এ উক্তিটি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। কেননা তাজবিদ অনুযায়ী কুরআন পড়া ওয়াজিব বা আবশ্যক। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ বলেনÑ‘আপনি কুরআন আবৃত্তি করুন ধীরে ধীরে ও সুস্পষ্টভাবে।’ (সূরা আল-মুয্যাম্মিল) তাজবিদ অনুসারে কুরআন না পড়লে গুনাহ হয়। যেমন : সূরা ইখলাসে আল্লাহ বলেন- قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ বলুন (হে নবি)! তিনি আল্লাহ; একক ও অদ্বিতীয়। এখানে قُلْ শব্দের অর্থ- বলুন। আর যদি ق (ক্বাফ) কে ভুল মাখরাজ থেকে উচ্চারণ করে বলা হয় كُلْ তাহলে অর্থ বিকৃত হয়ে যায়। কেননা كُلْ শব্দের অর্থ খাও বা ভক্ষণ কর। ফলে আল কুরআনের অর্থের বিকৃতি ঘটে। যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। উদ্দীপকে ধর্মীয় শিক্ষক তাজবিদের প্রতি ইঙ্গিত করেই মন্তব্য করে বলেন, আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী কুরআন শুদ্ধ করে পড়ার অভ্যাস করতে হবে।
প্রশ্ন- ৩  মাখরাজ

মাওলানা ইলিয়াছ নূরপুর মসজিদের ইমাম। তিনি মসজিদ সংলগ্ন মক্তবে ছাত্রছাত্রীদের এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় শিক্ষা দেন যা কুরআন তিলাওয়াতের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজন। এ প্রসঙ্গে তিনি বললেন, “আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ হতে হবে।”
ক. মাখরাজ শব্দের অর্থ কী? ১
খ. মাখরাজ বলতে কী বোঝ? ২
গ. উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ ছাত্রছাত্রীদের কী শিক্ষা দেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. মাওলানা ইলিয়াছের শিক্ষাদানের উক্ত বিষয়টির তাৎপর্য বিশ্লেষণ কর। ৪

ক মাখরাজ শব্দের অর্থ বের হওয়ার স্থান, উচ্চারণের স্থান।
খ হরফ উচ্চারিত হওয়ার স্থানকে মাখরাজ বলে। আরবিতে ২৯টি হরফ রয়েছে। এগুলো মুখের মোট ১৭টি স্থান থেকে উচ্চারিত হয়। এই স্থানগুলোকে বলা হয় মাখরাজ।
গ উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ সাহেব ছাত্রছাত্রীদের মাখরাজ শিক্ষা দেন। উদ্দীপক পাঠে জানা যায় যে, মাওলানা ইলিয়াছ নূরপুর মসজিদের ইমাম। তিনি মসজিদ সংলগ্ন মক্তবে ছাত্রছাত্রীদের এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় শিক্ষা দেন যা কুরআন তিলাওয়াতের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজন। অর্থাৎ তিনি মাখরাজ শিক্ষা দেন। এ প্রসঙ্গেই তিনি বলেন, “আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ হতে হবে।” উপরিউক্ত আলোচনায় প্রতীয়মান হয় যে, উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ মসজিদ সংলগ্ন মক্তবে তাজবিদের নিয়ম ও মাখরাজ শিক্ষা দেন।
ঘ মাওলানা ইলিয়াছের শিক্ষাদানের বিষয় তথা মাখরাজের তাৎপর্য কুরআন শিক্ষার জন্য অপরিসীম। কারণ আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ না হলে তিলাওয়াত শুদ্ধ হয় না। তাই উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ এর উপর জোর দেন। তাজবিদের মূল হলো আরবি বর্ণমালা ও এর মাখরাজ। বর্ণমালা ছাড়া কোনো ভাষাই হতে পারে না। তদ্রæপ আরবি বর্ণমালা ছাড়াও আরবি ভাষা হতে পারে না। পবিত্র কুরআন শরিফও ২৯টি আরবি বর্ণ দিয়ে তৈরি। আর এ ২৯টি বর্ণ উচ্চারণ করতে পাঁচটি স্থানের প্রয়োজন হয়। যেমন : মুখের খালি জায়গা থেকে একটি, কণ্ঠনালি থেকে তিনটি, জিহবা থেকে দশটি, উভয় ঠোঁট থেকে দুইটি এবং নাসিকামূল থেকে একটি। এ পাঁচটি স্থান থেকেই ২৯টি হরফ উচ্চারিত হয়। আরবি ২৯টি হরফের মাখরাজ অর্থাৎ উচ্চারণ স্থান সঠিক না হলে আরবির অর্থ পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এতে গুনাহ হয়। উদ্দীপকেও মাওলানা ইলিয়াছ তাই যথার্থই এ প্রসঙ্গে বলেন, “আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ হতে হবে।”
প্রশ্ন- ৪  সূরা ফাতিহার তাৎপর্য

মাওলানা আঃ বাতেন ওয়াজ মাহফিলে দাঁড়িয়ে মুসলি­দের একটি সূরার ফজিলত সম্পর্কে বলেন, এ সূরাটি হলো কুরআনের সর্বপ্রথম সূরা। প্রত্যেক নামাযে এ সূরাটি পাঠ করতে হয়। এ সূরা ব্যতীত নামায হয় না।
ক. ফাতিহা শব্দের অর্থ কী? ১
খ. সূরা ফাতিহার নাম আল ফাতিহা রাখা হয়েছে কেন? ২
গ. উদ্দীপকের মাওলানা আঃ বাতেন কোন সূরাটির প্রতি ইঙ্গিত করেছেন। ব্যাখ্যা দাও। ৩
ঘ. তুমি কি মনে কর, উদ্দীপকের সূরা খুবই তাৎপর্যপূর্ণ? মতামত দাও। ৪

ক ফাতিহা শব্দের অর্থ ভ‚মিকা, মুখবন্ধ, দ্বার উন্মোচন করা ইত্যাদি।
খ ফাতিহা শব্দের অর্থ ভ‚মিকা, মুখবন্ধ, দ্বার উন্মোচনকারী ইত্যাদি। যেহেতু এ সূরার মাধ্যমে কুরআনুল কারিম শুরু করা হয়, সেজন্য এ সূরাটির নাম রাখা হয়েছে আল ফাতিহা। একে ফাতিহাতুল কিতাব বা ফাতিহাতুল কুরআনও বলা হয়। অর্থাৎ কিতাব বা কুরআনের ভ‚মিকা।
গ উদ্দীপকে মাওলানা আঃ বাতেন যে সূরাটির প্রতি ইঙ্গিত করেছেন তা হলো সূরা ফাতিহা। সূরা আল ফাতিহা কুরআনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সূরা যা প্রত্যেক নামাযে পাঠ করতে হয়। ফাতিহা শব্দের অর্থ ভ‚মিকা, মুখ বন্ধ, দ্বার উšে§াচনকারী। যেহেতু এ সূরার মাধ্যমে কুরআনে করিম শুরু করা হয় সে জন্য এ সূরার নাম আল ফাতিহা। একে কুরআনের ভ‚মিকাও বলা হয়। এ সূরার শুরুতে মহান আল্লাহর প্রশংসা করা হয়েছে। এ সূরাটি পাঠের মাধ্যমে আমরা আল্লাহর ক্ষমা ও কুদরতের কথা জানতে পারি। উদ্দীপকে মাওলানা আঃ বাতেন ওয়াজ মাহফিলে বলেন, এ সূরাটি হলো কুরআনের সর্বপ্রথম সূরা। প্রত্যেক নামাযে এ সূরাটি পাঠ করতে হয়। এ সূরা ব্যতীত নামায হয় না। সুতরাং উদ্দীপকের মাওলানা আঃ বাতেন সূরা ফাতিহার প্রতি ইঙ্গিত করেছেন।
ঘ উদ্দীপকে আলোচিত সূরাটিকে আমি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ সূরা মনে করি। কেননা আল কুরআনের সর্বপ্রথম এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এ সূরাটি মক্কায় অবতীর্ণ হয়। এ সূরায় সম্পূর্ণ কুরআনের সারসংক্ষেপ বর্ণনা করা হয়েছে। এই সূরার প্রথম তিন আয়াতে আল্লাহ তায়ালার সীমাহীন কুদরত ও ক্ষমতার কথা বলা হয়েছে এবং মধ্যবর্তী আয়াতে বলা হয়েছে যে, মানুষ শুধু তাঁরই ইবাদত করবে এবং তাঁরই নিকট সাহায্য চাইবে। কেননা তিনিই ইবাদতের যোগ্য। আর তিনি ব্যতীত সাহায্যকারী কেউ নেই। এ সূরার শেষ তিন আয়াতে আল্লাহ তায়ালার নিকট মানুষের প্রার্থনা ও মুনাজাত বর্ণিত হয়েছে। উদ্দীপকেও দেখা যায়, মাওলানা আঃ বাতেন ওয়াজ মাহফিলে দাঁড়িয়ে মুসলি­দের একটি সূরার ফযিলত সম্পর্কে বলেন, এ সূরাটি হলো কুরআনের সর্বপ্রথম সূরা। প্রত্যেক নামাযে এ সূরাটি পাঠ করতে হয়। এ সূরা ব্যতীত নামায হয় না। উপরিউক্ত আলোচনায় বলা যায় যে, এ সূরা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।
প্রশ্ন- ৫  সূরা নাসের তাৎপর্য

পবিত্র কুরআন মানুষকে সঠিক পথের সন্ধান দিয়েছে। তবে এক্ষেত্রে শয়তান আমাদের প্রকাশ্য দুশমন। সে কুমন্ত্রণা দিয়ে আমাদেরকে বিপদগামী করে। শয়তান থেকে বাঁচতে কুরআন শরিফে কতিপয় সূরা আছে। সুতরাং এ সংক্রান্ত সূরা থেকে শিক্ষা নিয়ে শয়তানের কুমন্ত্রণা ও অনিষ্ট থেকে বেঁচে থাকার জন্য আল্লাহ তায়ালার নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করতে হবে।
ক. আল কুরআনের সর্বশেষ সূরা কোনটি? ১
খ. শয়তান মানুষকে কীভাবে ধোঁকা দেয়? ২
গ. উদ্দীপকে কোন সূরার প্রতি ইঙ্গিত করেছেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. উদ্দীপকের সূরাটি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ- বিশ্লেষণ কর। ৪

ক আল কুরআনের সর্বশেষ সূরা হলো “সূরা আন-নাস”।
খ শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন। সে গোপনে, প্রকাশ্যে, ঘুমন্ত অবস্থায়, জাগ্রত অবস্থায় সব সময় মানুষকে কুমন্ত্রণা দিয়ে থাকে। তার কাজই হলো কুমন্ত্রণা দিয়ে মানুষকে বিপদগামী করা। সে মানুষের অন্তরে কুমন্ত্রণা ঢেলে দেয়। এভাবেই শয়তান মানুষকে ধোঁকা দেয়।
গ উদ্দীপকে সূরা নাসের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন। আমরা জানি, পবিত্র কুরআনের সর্বশেষ অর্থাৎ ১১৪তম সূরা হলো আন-নাস। কুরআনের অন্যান্য সূরায় মানুষকে সঠিক পথের সন্ধান দেওয়া হয়েছে। কিন্তু শয়তান মানুষকে সঠিক পথ থেকে বিরত রাখতে চায়। তাই এ সূরায় আল্লাহ তায়ালার নিকট শয়তান থেকে আশ্রয় চাওয়ার শিক্ষা প্রদান করা হয়েছে এবং আল্লাহর তিনটি গুণের কথা উল্লেখ রয়েছে। এগুলো হলো রব, মালিক ও ইলাহ। এছাড়াও সূরাটির শেষে শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে বেঁচে থাকার জন্য মহান আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করা হয়েছে। উদ্দীপকেও আমরা দেখতে পাই, শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন। সে বিভিন্নভাবে মানুষকে ধোঁকা দেয়। অর্থাৎ উদ্দীপকে সূরা নাসের প্রতি ইঙ্গিত করা হয়েছে।
ঘ উদ্দীপকের সূরা নাস অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। কেননা, আল্লাহ তায়ালাই মানুষের রব, মালিক ও ইলাহ। তিনি ব্যতীত আর কেউ এ তিনটি গুণের অধিকারী নয়। শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন। সে গোপনে, প্রকাশ্যে, ঘুমন্ত অবস্থায়, জাগ্রত অবস্থায় সবসময় মানুষকে কুমন্ত্রণা দিয়ে বিপদগামী করে। শয়তান শুধু জিনই নয়, বরং মানুষের মধ্যেও শয়তান রয়েছে, যারা মানুষকে দীন থেকে দূরে সরিয়ে নেয়। এজন্য এ সূরায় শয়তানের সকল কুমন্ত্রণা ও অনিষ্ট থেকে বেঁচে থাকার জন্য আল্লাহ তা‘য়ালার নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করার শিক্ষা দেওয়া হয়েছে। সুতরাং, নাস সূরা থেকে শিক্ষা নিয়ে শয়তানের কুমন্ত্রণা ও অনিষ্ট থেকে বেঁচে থাকার জন্য আল্লাহ তা‘য়ালার নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করতে হবে। বস্তুত শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে বাঁচার এবং আল্লাহর রহমত পাবার জন্য সূরা নাস অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।
প্রশ্ন- ৬  হাদিসের গুরুত্ব

সায়েম ও তারেক ঘনিষ্ঠ বন্ধু। একদিন তাদের মাঝে একটি বিষয় নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়। ফলে তাদের মাঝে ঝগড়ার সৃষ্টি হয় তারা প্রথমে কুরআনের মাধ্যমে বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করে। কিন্তু কুরআনের মাধ্যমে সমাধান করা গেল না। ফলে ইসলামের দ্বিতীয় উৎসের অনুসরণ করে এবং বিষয়টি মীমাংসা করে। অবশেষে তাদের মাঝে দ্ব›েদ্বর অবসান ঘটে। [মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ, ঢাকা
ক. সর্বপ্রথম কোন সূরা অবতীর্ণ হয়? ১
খ. হাদিস বলতে কী বোঝায়? ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকে দু’বন্ধু তাদের ঝগড়া যার অনুসরণে মীমাংসা করল তা ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. ইসলামি শরিয়তের উক্ত উৎসের প্রয়োজনীয়তা কতটুকু? পাঠ্যপুস্তকের আলোকে বিশ্লেষণ কর। ৪

ক সর্বপ্রথম সূরা ফাতিহা অবতীর্ণ হয়।
খ মহানবি (স.)-এর বাণী, কাজ ও অনুমোদনকে হাদিস বলা হয়। অর্থাৎ আমাদের প্রিয় নবি (স.) যা কিছু বলেছেন, যেসব কাজ করেছেন আর যেসব কাজ সাহাবিগণ তাঁর সামনে করেছেন কিন্তু তিনি তাদের নিষেধ না করে মৌন সম্মতি দিয়েছেন, তাকে হাদিস বলে। হাদিসের অপর নাম হলো সুন্নাহ।
গ উদ্দীপকে দু’বন্ধু তাদের ঝগড়া হাদিসের অনুসরণ করে মীমাংসা করল। মহানবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর কথা, কাজ ও অনুমোদনকে হাদিস বলা হয়। অর্থাৎ আমাদের প্রিয় নবি (স.) যা বলতেন তাই হাদিস। তিনি যে সমস্ত কাজ করেছেন তাও হাদিস। আর যে সমস্ত কাজ সাহাবিগণ তাঁর সামনে করেছেন কিন্তু তিনি তাদের নিষেধ করেননি। বরং ঐ সমস্ত কাজে মৌনসম্মতি দিয়েছেন এগুলোও হাদিস। সাহাবিগণ রাসূল (স.)-এর সব রকম হাদিসই সংরক্ষণ করতেন। পরবর্তীতে মুহাদ্দিসগণ রাসূল (স.)-এর সকল হাদিস লিপিবদ্ধ করে রাখেন। আর এভাবে আমরা মহানবি (স.)-এর হাদিস লাভ করি।
ঘ উদ্দীপকের ইঙ্গিতপূর্ণ বিষয় অর্থাৎ ইসলামি শরিয়তের দ্বিতীয় উৎস হিসেবে হাদিসের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। মূলত হাদিস হলো আল কুরআনের ব্যাখ্যাস্বরূপ। আল কুরআনে আল্লাহ তায়ালা মানুষকে নানা নির্দেশ দিয়েছেন। অত:পর নবি করীম (স.) হাদিসসের মাধ্যমে তা মানুষের নিকট বিশ্লেষণ করেছেন। যেমন আল কুরআনে সালাত আদায় করার কথা বলা হলেও কীভাবে তা আদায় করতে হবে সে সম্পর্কে কিছু বলা হয়নি। আর মহানবি (স.)-এর হাদিসে আমরা এগুলো পাই। রাসূলল্লাহ (স.) এসব নিয়ম কানুন আমাদের বলে দিয়েছেন। তিনি নিজে সালাত আদায় করে আমাদের হাতে কলমে শিক্ষা দিয়েছেন। এজন্য হাদিস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া আল্লাহ বলেন, “রাসুল তোমাদের যা দেন তা তোমরা গ্রহণ কর। আর যা নিষেধ করেন তা থেকে বিরত থাক” (সূরা আল-হাশর : ৭) অতএব, রাসুল (স.)-এর হাদিস আমরা পাঠ করব এবং তদনুযায়ী আমল কর।
 অনুশীলনের জন্য সৃজনশীল প্রশ্নব্যাংক (উত্তরসংকেতসহ)
প্রশ্ন- ৭  সূরা আল-আসর

আল্লাহ পবিত্র কুরআনে বলেন মহাকালের শপথ। নিশ্চয়ই মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। কিন্তু তারা নয়, যারা ইমান আনে ও সৎকর্ম করে এবং পরস্পরকে সত্যের উপদেশ দেয় ও ধৈর্যের উপদেশ দেয়। কিন্তু দেখা যায়, সাবিয়া কখনও কারও ক্ষতি করে না। এমন কি অন্যায়ের প্রতিবাদও করে না। কাউকে কোন সৎ পরামর্শ পর্যন্ত দেয় না।
ক. উম্মুল কুরআন অর্থ কী? ১
খ. ‘মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত’ বলতে কী বোঝানো হয়েছে? ২
গ. পবিত্র কুরআনের আলোকে সাবিয়ার সামাজিক দায়িত্ব পালন হয়েছে কি না ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. উদ্দীপকে নির্দেশিত সূরার শিক্ষা সমাজে কতটুকু প্রয়োজন? আলোচনা কর। ৪

ক উম্মুল কুরআন অর্থ কুরআনের জননী।
খ সূরা আসরের ‘মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত’ বলতে আল্লাহপাক বোঝাতে চেয়েছেন যে, মানুষ সৎ পথ ভুলে গিয়ে বিপথে পরিচালিত হচ্ছে। ফলে মানুষকে কিয়ামতের দিন কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। এখানে সেসব ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কথা বলা হয়েছে যারা মহান আল্লাহ পাকের প্রতি ইমান আনে নি এবং যারা সৎ কর্ম করে না, একে অপরকে সত্যের উপদেশ দেয় না ও ধৈর্যের উপদেশ দান করে না।
ঢ-পষঁংরাব লিংক : প্রয়োগ (গ) ও উচ্চতর দক্ষতার (ঘ) প্রশ্নের উত্তরের জন্য অনুরূপ যে প্রশ্নের উত্তর জানা থাকতে হবে
গ সামাজিক দায়িত্ব পালনে সূরা আল-আসরের গুরুত্ব বর্ণনা কর।
ঘ সূরা আল-আসরের শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা আলোচনা কর।
প্রশ্ন- ৮  মাখরাজ

সাইমুন প্রতিদিন মক্তব্যে গিয়ে কুরআন তিলাওয়াত শেখে। তার ভাই মাহিন মাদরাসায় পড়ে। একদিন ভোরে সাইমুন সূরা ফাতিহা দেখে দেখে তিলাওয়াত করছিল। মাহিন শুনতে পেল সাইমুনের মাখরাজ ঠিক হচ্ছে না। সে সাইমুনের ভুলগুলো ধরিয়ে দিল।
ক. নাযিরা তিলাওয়াত কী? ১
খ. মাখরাজ বলতে কী বোঝ? ২
গ. সাইমুন আরবি হরফগুলো কীভাবে আদায় করবে ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. মাহিনের কাজটি কি সঠিক হয়েছে? তোমার মতামতসহ বিশ্লেষণ কর। ৪

ক আল-কুরআন দেখে দেখে পড়াকে বলা হয় নাযিরা তিলাওয়াত।
খ মাখরাজ শব্দের অর্থ বের হওয়ার স্থান, উচ্চারণের স্থান। আরবি হরফসমূহ মুখের যে স্থান থেকে উচ্চারিত হয় সে স্থানকে মাখরাজ বলা হয়।
ঢ-পষঁংরাব লিংক : প্রয়োগ (গ) ও উচ্চতর দক্ষতার (ঘ) প্রশ্নের উত্তরের জন্য অনুরূপ যে প্রশ্নের উত্তর জানা থাকতে হবে
গ মাখরাজের পরিচয় বর্ণনা কর।
ঘ কুরআন তিলাওয়াতে মাখরাজের গুরুত্ব আলোচনা কর।

জ্ঞান ও অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর

 জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তর 
প্রশ্ন \ ১ \ কুরআন মজিদ কী?
উত্তর : মহান আল­াহর সবশ্রেষ্ঠ আসমানি কিতাব।
প্রশ্ন \ ২ \ কার ওপর কুরআন মজিদ নাযিল হয়?
উত্তর : হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর কুরআন মজিদ নাযিল হয়।
প্রশ্ন \ ৩ \ কুরআনের প্রথম কোন সূরা নাযিল হয়?
উত্তর : সূরা আলাকের পাঁচ আয়াত নাযিল হয়।
প্রশ্ন \ ৪ \ নাযিরা তিলাওয়াত কাকে বলে?
উত্তর : আল কুরআন দেখে দেখে পড়াকে নাযিরা তিলাওয়াত বলে।
প্রশ্ন \ ৫ \ কুরআন কোন ভাষায় নাযিল হয়েছে?
উত্তর : কুরআন আরবি ভাষায় নাযিল হয়েছে।
প্রশ্ন \ ৬ \ মাখরাজ শব্দের অর্থ কী?
উত্তর : উচ্চারণ স্থান বা বের হওয়ার স্থান।
প্রশ্ন \ ৭ \ হাদিস কাকে বলে?
উত্তর : মহানবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর বাণী, কাজ ও অনুমোদনকে হাদিস বলা হয়।
 অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর 
প্রশ্ন \ ১ \ কুরআন তিলাওয়াতের গুরুত্ব বর্ণনা কর।
উত্তর : কুরআন মজিদ তিলাওয়াতের গুরুত্ব অনেক। এটি আমাদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ। কুরআনে মানুষের দিকনির্দেশনা উলে­খ করা হয়েছে। কুরআন তিলাওয়াতে মাধ্যমে আল্লাহর আদেশ-নিষেধ জানতে পারা যায়। সুতরাং আমাদের বেশি বেশি করে বুঝে কুরআন তিলাওয়াত করা উচিত।
প্রশ্ন \ ২ \ তাজবিদের গুরুত্ব বর্ণনা কর।
উত্তর : তাজবিদ অনুযায়ী কুরআন পড়া ওয়াজিব বা আবশ্যক। তাজবিদ অনুসারে কুরআন না পড়লে গুনাহ হয়। এতে অনেক সময় কুরআনের অর্থ পরিবর্তন হয়ে যায়। আর অশুদ্ধভাবে নামাযের মধ্যে তিলাওয়াত করলে নামায শুদ্ধ হয় না। সুতরাং তাজবিদ অনুসারে শুদ্ধ ও সুন্দরভাবে তিলাওয়াত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
প্রশ্ন \ ৩ \ আমরা কার জীবন অনুসরণ করব?
উত্তর : আমরা কথাবার্তায়, কাজকর্মে হযরত মুহাম্মদ (স.) কে অনুসরণ করব। কারণ তাঁর চরিত্র অনুসরণ করলে নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ লঙ্ঘিত হবে না এবং এর দ্বারা আমরা প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠব।

তৃতীয় অধ্যায়
কুরআন ও হাদিস শিক্ষা
ভ‚মিকা
মানবজাতির হিদায়াতের জন্য আমাদের নবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর পবিত্র কুরআন নাযিল করা হয়। এটি মহান আল্লাহর বাণী। আজ পর্যন্ত অবিকৃত রয়েছে। কেউ এর একটি নুকতা, অক্ষর, শব্দ বা হরকতও পরিবর্তন করতে পারেনি। আর ভবিষ্যতেও পারবে না। কেননা, এর সংরক্ষক স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা। আর মহানবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর বাণী, কর্ম ও সম্মতিকে বলা হয় হাদিস। হাদিস ইসলামি জীবনব্যবস্থার দ্বিতীয় উৎস। হাদিস হলো কুরআনের ব্যাখ্যাস্বরূপ।

বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর

 বিষয়ক্রম অনুযায়ী বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
ন্ধ পাঠ-১ : আল কুরআনের পরিচয়
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১. কুরআন মজিদ কার বাণী? (জ্ঞান)
 আল্লাহ তায়ালার খ মহানবি (স.)-এর
গ আদম (আ.)-এর ঘ ইবরাহিম (আ.)-এর
২. ইসলামের প্রধান দুটি উৎস হলো-
ক কুরআন, ইজমা খ হাদিস, কিয়াস
 কুরআন, হাদিস ঘ কুরআন, কিয়াস
৩. সর্বশ্রেষ্ঠ আসমানি কিতাব কোনটি? (জ্ঞান)
ক তাওরাত খ যাবুর
গ ইনজিল  কুরআন
৪. ছোট আসমানি কিতাব কতখানা?
 ১০০ খ ১০১ গ ১০২ ঘ ১০৩
৫. বড় আসমানি কিতাব কতখানা? (জ্ঞান)
ক ৩  ৪ গ ৫ ঘ ৬
৬. কুরআন মজিদের ভাষা কী? (জ্ঞান)
ক ফার্সি  আরবি
গ উর্দু ঘ ইংরেজি
৭. সর্বশেষ আসমানি কিতাব কোনটি? (জ্ঞান)
ক তাওরাত  কুরআন গ ইনজিল ঘ যাবুর
৮. মহানবি (স.)-এর ওপর কত বছর ধরে কুরআন নাযিল হয়? (জ্ঞান)
ক ২০  ২৩ গ ২৫ ঘ ৪০
৯. মহানবি (স.) কত বছর বয়সে নবুয়তপ্রাপ্ত হন? (জ্ঞান)
ক ২৩ খ ২৫  ৪০ ঘ ৬৩
১০. কার মাধ্যমে কুরআন অবতীর্ণ হয়? [খুলনা জিলা স্কুল
ক হযরত আজরাইল (আ.)  হযরত জিবরাইল (আ.)
গ হযরত মিকাইল (আ.) ঘ হযরত ইসরাফিল (আ.)
১১. কুরআন নাযিল হয় কীভাবে? (অনুধাবন)
ক কিতাব আকারে খ অর্ধেক করে
 প্রয়োজন অনুসারে ঘ এক সাথে
১২. কুরআন মজিদ নাযিল হয় কেন? (অনুধাবন)
ক মানুষের শিক্ষার জন্য খ হাফেজ হওয়ার জন্য
গ ব্যবসা করার জন্য  মানব জাতির হিদায়াতের জন্য
১৩. মহানবি (স.) ধ্যানমগ্ন থাকতেন কেন? (অনুধাবন)
ক ঘুম না হওয়ার জন্য খ মনের কষ্টে
গ অত্যাচারিত হয়ে  মানুষের দুঃখ দূর করতে
১৪. আরবে কলহ-বিবাদ লেগে থাকত কেন?
 অজ্ঞতার কারণে খ টাকা-পয়সার কারণে
গ হিংসার কারণে ঘ অহংকারের কারণে
১৫. বাসির আল্লাহ তায়ালার পরিচয়, তাঁর গুণাবলি, ইমান ও ইসলামের সকল বিষয় সম্পর্কে জানতে আগ্রহী। এজন্য তার করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক ফিক্হ শাস্ত্র অধ্যয়ন খ সাহিত্য অধ্যয়ন
গ দর্শন শাস্ত্র অধ্যয়ন  আল-কুরআন অধ্যয়ন
১৬. কুরআন মজিদ লিপিবদ্ধ রয়েছে? (জ্ঞান)
 লাওহে মাহফুজে খ ১ম আসমানে
গ বাইতুল্লাহ শরিফে ঘ ৭ম আসমানে
১৭. সত্য-মিথ্যার পার্থক্যকারী হিসেবে মহান আল্লাহ কোন গ্রন্থ নাযিল করেছেন? (অনুধাবন)
 আল-কুরআন খ তাওরাত
গ ইনজীল ঘ যাবুর
১৮. শিক্ষক বললেন, মানবজাতির হিদায়াতের জন্য আল্লাহ তা‘য়ালা শেষ নবি হযরত মুহাম্মদ (স.) এর ওপর একটি কিতাব নাযিল করেন। এখানে শিক্ষক কোন কিতাবের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন? (প্রয়োগ)
ক তাওরাত খ যাবুর গ ইনজিল  কুরআন
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৯. কুরআন মজিদের ভাব ও ভাষা- [যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ]
র. অনন্য রর. অপূর্ব
ররর. প্রাচীন
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২০. বড় কয়েকটি আসমানি গ্রন্থের নাম হলো (অনুধাবন)
র. কুরআন
রর. বুখারি
ররর. ইনজিল
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২১. হযরত মুহাম্মদ (স.) নবুয়ত লাভের আগে হেরা গুহায় ধ্যানমগ্ন থাকতেন। তিনি বুঝতে পারলেন যে, আল্লাহর সান্নিধ্য পাওয়ার জন্য (উচ্চতর দক্ষতা)
র. আরও বেশি ধ্যানমগ্ন থাকতে হবে
রর. বাহ্যিক কাজ কর্ম ত্যাগ করতে হবে
ররর. এটাই অন্যতম মাধ্যম
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ রর ও ররর  র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২২. মুজিযা অর্থ- [মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা]
র. অলৌকিক বস্তু বা ঘটনা
রর. নবি-রাসুলগণের দ্বারা প্রকাশিত ঘটনা
ররর. সাহাবায়ে কেরামদের দ্বারা প্রকাশিত ঘটনা
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ রর ও ররর গ র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২৩ ও ২৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
জাকারিয়া প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে এমন একটি গ্রন্থ তিলাওয়াত করে যার ভাব, ভাষা ও গুণাবলি অতুলনীয়।
২৩. জাকারিয়া কোন গ্রন্থ তিলাওয়াত করে?
 কুরআন খ হাদিস গ ইজমা ঘ কিয়াস
২৪. উক্ত গ্রন্থ তিলাওয়াতের ফলে জাকারিয়া-
র. আল­াহর পরিচয় সম্পর্কে জানতে পারবে
রর. সৃষ্টি জগৎ সম্পর্কে জানতে পারবে
ররর. নিজের দেশ সম্পর্কে জানতে পারবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-২ : কুরআন তিলাওয়াত
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২৫. পবিত্র কুরআন কোন ভাষায় নাযিল হয়েছে? (জ্ঞান)
ক বাংলা খ হিন্দি  আরবি ঘ ইংরেজি
২৬. নফল ইবাদতের মধ্যে সর্বোত্তম ইবাদত কোনটি? (জ্ঞান)
ক হাদিস তিলাওয়াত  কুরআন তিলাওয়াত
গ আরবি তিলাওয়াত ঘ বাংলা তিলাওয়াত
২৭. তিলাওয়াত কী শব্দ? (জ্ঞান)
 আরবি খ ফারসি গ উর্দু ঘ ইংরেজি
২৮. কুরআন তিলাওয়াত করা কোন ইবাদতের মধ্যে সর্বোত্তম? (জ্ঞান)
ক ফরয খ ওয়াজিব গ সুন্নত  নফল
২৯. কুরআন শব্দটির মূল অর্থ কী? [যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ]
ক আবৃত্তি করা  পঠিত গ পড়া ঘ পাঠ করা
৩০. কোন কিতাব আরবি ভাষায় নাযিল হয়েছে? (জ্ঞান)
 কুরআন খ ইনজিল গ তাওরাত ঘ যাবুর
৩১. কোন কিতাব বিশ্বে বেশি পাঠ করা হয়? (জ্ঞান)
ক ইনজিল খ বাইবেল  কুরআন ঘ যাবুর
৩২. কুরআন তিলাওয়াত করলে কে খুশি হন? (জ্ঞান)
ক রাসুল খ নবি  আল­াহ ঘ ফেরেশতা
৩৩. যে ঘরে কুরআন পড়া হয় সে ঘরে কী নাযিল হয়? (জ্ঞান)
ক গযব  রহমত গ শস্য ঘ খাদ্য
৩৪. নাযিরা তিলাওয়াত বলতে কী বোঝায়? (অনুধাবন)
 দেখে দেখে পড়া খ মুখস্থ পড় গ না বুঝে পড়া ঘ দ্রুত পড়া
৩৫. কুরআনের প্রতিটি হরফ পাঠ করলে কী পরিমাণ নেকি হয়? (জ্ঞান)
 দশ খ বিশ গ ত্রিশ ঘ চলি­শ
৩৬. মুসলমানগণ দৈনিক কতবার সালাতে কুরআন তিলাওয়াত করে? (জ্ঞান)
ক দুই খ তিন  পাঁচ ঘ চার
৩৭. কুরআনকে ‘কুরআন’ বলা হয় কেন? [মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়, ঢাকা]
ক আল্লাহ এরূপ নামকরণ করেছেন বলে
খ মহানবি (স.) এরূপ নামকরণ করেছেন বলে
 বিশ্বের সর্বাধিক পঠিত গ্রন্থ বলে
ঘ সালাতে কুরআন তিলাওয়াত করা হয় বলে
৩৮. আমরা সবাই বেশি বেশি কুরআন তিলাওয়াত করব কেন? (অনুধাবন)
ক আল্লাহ তায়ালার নির্দেশ পালনের জন্য
খ মহানবি (স.)-এর নির্দেশ পালনের জন্য
গ মাতা-পিতার মাগফিরাতের জন্য
 কুরআন তিলাওয়াত অত্যন্ত ফযিলতপূর্ণ কাজ এজন্য
৩৯. আঃ কাদের সর্বোত্তম নফল ইবাদতের মাধ্যমে আল্লাহ তায়ালাকে খুশি করতে চায়। এজন্য তার করণীয় কী?
ক বেশি বেশি দান-সাদকা করা
খ প্রতিবেশীর হক যথাযথভাবে আদায় করা
গ পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায় করা
 কুরআন তিলাওয়াত করা
৪০. রাহেলা বেগম প্রতিদিন ফজর নামাযের পর দেখে দেখে কুরআন তিলাওয়াত করেন। তাঁর এ তিলাওয়াতকে কী বলা হয়? (প্রয়োগ)
ক হেজফ তিলাওয়াত খ কুরআন পাঠ
 নাযিরা তিলাওয়াত ঘ কুরআন তিলাওয়াত
৪১. সোমা প্রতিদিন নিজগৃহে কুরআন তিলাওয়াত করে থাকেন। এর ফলাফল কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক তার ঘরে প্রচুর ধন-সম্পদ আসবে
খ তার ঘরে শয়তান প্রবেশ করবে না
 তার ঘরে আল্লাহর রহমত নাযিল হবে
ঘ তার ঘরের বিপদ দূর হবে
৪২. “কুরআনের প্রতিটি হরফের বিনিময়ে ১০টি নেকি পাওয়া যায়”। এটা কে বলেছেন? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক আল­াহ  মহানবি (স.)
গ ফেরেশতা ঘ ফকির
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৪৩. তিলাওয়াত বলতে বোঝায় (অনুধাবন)
র. পাঠ করা রর. আবৃত্তি করা
ররর. তৈরি করা
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৪৪. কুরআন তিলাওয়াতের ফলে- (উচ্চতর দক্ষতা)
র. মনে প্রশান্তি আসে রর. সময় নষ্ট হয়
ররর. আত্মা পরিশুদ্ধ হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৪৫ ও ৪৬ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
ফয়সাল মাহমুদ ষষ্ঠ শ্রেণির একজন ছাত্র। তার কণ্ঠস্বর খুবই মধুর। সে প্রতিদিন উচ্চস্বরে একটি গ্রস্থ পাঠ করে।
৪৫. ফয়সালের উচ্চস্বরে পাঠকৃত গ্রন্থটি কী? (প্রয়োগ)
 আল-কুরআন খ আল-হাদিস
গ আল-ইজমা ঘ আল-কিয়াস
৪৬. ফয়সালের উক্ত গ্রন্থ পাঠের ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. সে সাওয়াব পাবে
রর. তার পিতামাতা খুশি হবেন
ররর. আল­াহ খুশি হবেন
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৩ : তাজবিদ
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৪৭. ‘তাজবিদ’ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক বিশৃঙ্খলা করা  সুন্দর করা
গ ভুল করা ঘ তিলাওয়াত করা
৪৮. ক্বুল শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক পড়া খ সুন্দর করা  বলুন ঘ খাও
৪৯. শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 এক বা অদ্বিতীয় খ অংশীদার
গ প্রতিপালক ঘ জিন
৫০. আরবি হরফ কতটি? (জ্ঞান)
ক ২১ খ ২৩ গ ২৫  ২৯
৫১. উত্তম ব্যক্তি কে? (জ্ঞান)
 যে কুরআন পড়ে খ যে বাইবেল পড়ে
গ যে গীতা পড়ে ঘ যে ইংরেজি পড়ে
৫২. তাজবিদ সহকারে কুরআন পড়া কার নির্দেশ? (জ্ঞান)
ক নবির  আল­াহর গ ফেরেশতার ঘ মানুষের
৫৩. কুরআন শরিফ শুদ্ধ করে পড়া বলতে কী বোঝায়?
 তাজবিদ সহকারে পড়া খ শুদ্ধ করে পড়া
গ ভুল করে পড়া ঘ অশুদ্ধ করে পড়া
৫৪. আমরা তাজবিদ সহকারে কুরআন পড়ব কেন? (অনুধাবন)
 শুদ্ধতার জন্য খ টাকা পাওয়ার জন্য
গ অশুদ্ধতার জন্য ঘ ভুলের জন্য
৫৫. আরিফ আরবি হরফের মাখরাজ ও সিফাত অনুসারে বিশুদ্ধভাবে কুরআন তিলাওয়াত করে না। তার এরূপ তিলাওয়াত কীসের পরিপন্থী? (প্রয়োগ)
ক ইমানের  তাজবিদের গ নিফাকের ঘ ইসলামের
৫৬. মোজাহার নামাযে দাঁড়িয়ে অশুদ্ধভাবে কুরআন তিলাওয়াত করে। এর ফলে তার নামায কী হবে? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক পূর্ণাঙ্গ হবে  পূর্ণাঙ্গ হবে না
গ আদায় হবে ঘ আংশিক শুদ্ধ হবে
৫৭. ‘আপনি কুরআন আবৃত্তি করুন ধীরে ধীরে ও সুস্পষ্টভাবে’ Ñ অনূদিত বাণীটি কোন সূরার আয়াত?
ক সূরা আল-বাকারা  সূরা আল-মুয্যাম্মিল
গ সূরা আনকাবুত ঘ সূরা আন-নিসা
৫৮. (ক্বুল) শব্দের ق (ক্বাফ) কে ভুল মাখরাজ থেকে উচ্চারণের ফলাফল কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক আল্লাহ তা‘য়ালা খুশি হন
 অর্থের বিকৃতি ঘটে
গ নামায শুদ্ধ হবে
ঘ উচ্চারণ সুন্দর হবে না
৫৯. ‘তোমাদের মধ্যে সে ব্যক্তি উত্তম যে নিজে কুরআন শিক্ষা করে এবং অপরকে তা শিক্ষা দেয়।’Ñ অনূদিত বাণীটি কার? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক আল্লাহ তায়ালার
 মহানবি (স.)-এর
গ আবু বকর (রা.)-এর
ঘ ওমর ফারুক (রা.)-এর
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৬০. তাজবিদ বলতে বোঝায় [
র. শুদ্ধ করে পড়া রর. সুন্দর করে পড়া
ররর. অশুদ্ধ করে পড়া
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৬১. তোমাদের মধ্যে সেই ব্যক্তি উত্তম যে (উচ্চতর ক্ষতা)
র. কুরআন শিখে রর. অন্যকে কুরআন শিখায়
ররর. নামায আদায় করে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৬২ ও ৬৩ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র আজিম প্রতিদিন আসরের পর গ্রামের মক্তবে যায়। ইতোমধ্যে সে হুজুরের কাছ থেকে শুদ্ধভাবে কুরআন তিলাওয়াতের সব নিয়ম জেনেছে।
৬২. আজিমের শুদ্ধভাবে তিলাওয়াতকে কী বলে? (অনুধাবন)
ক তাওহিদ  তাজবিদ গ মাখরাজ ঘ সিফাত
৬৩. এরূপ তিলাওয়াতের ফলে আজিম লাভ করবেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. আল্লাহর সন্তুষ্টি
রর. প্রচুর ধন-সম্পদ
ররর. অনেক সাওয়াব
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও ররর খ র ও ররর গ রর ও রর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৪ : মাখরাজ
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৬৪. ১৭টি মাখরাজ মুখের কয়টি স্থানে অবস্থিত? (জ্ঞান)
ক ৩ খ ৪  ৫ ঘ ৬
৬৫. “ﺭ” (রা) কত নং মাখরাজ? [ফরিদপুর জিলা স্কুল]
ক ৯ খ ১০  ১১ ঘ ১২
৬৬. জায়েয শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক অবৈধ  বৈধ গ বাণী ঘ বর্ণ
৬৭. ﺝ (জিম) কত নং মাখরাজ? (জ্ঞান)
ক ৬  ৭ গ ৮ ঘ ৯
৬৮. মাখরাজের স্থান কয়টি? [আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল, ঢাকা]
ক ১৫  ১৭ গ ১৮ ঘ ২০
৬৯. কালাম অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক অবতীর্ণ খ বর্ণ  বাণী ঘ বৈধ
৭০. পঞ্চম নম্বর মাখরাজ কোনটি? (জ্ঞান)
ক লাম খ জীম  ক্বাফ ঘ বা
৭১. শেষ মাখরাজ কোনটি? [ফরিদপুর জিলা স্কুল]
ক জিহŸা খ হলক গ উভয় ঠোঁট  নাসিকামূল
৭২. দুই ঠোঁট থেকে কয়টি হরফ উচ্চারিত হয়? (জ্ঞান)
 ৩ খ ৪ গ ৫ ঘ ৬
৭৩. নবিগণের থেকে ঘটিত অলৌকিক ঘটনা বা বস্তুকে কী বলে? (জ্ঞান)
ক ওহি  মুজিযা গ নুকতা ঘ তাজবিদ
৭৪. কণ্ঠনালির উপরিভাগ থেকে উচ্চারিত হরফ ২টি কী? (জ্ঞান)
ক ﻑ ﻝ  ﻍ ﺥ গ ﻥ ﻢ ঘ ﺭ ﻁ
৭৫. মামুন কুরআন তিলাওয়াতের সময় ‘তা বর্ণকে ‘তোয়া’ বর্ণ পড়ল। তার এরূপ পড়া কী?
 গুনাহের কাজ খ সাওয়াবের কাজ
গ অশুদ্ধ হয়নি ঘ শুদ্ধ হয়েছে
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৭৬. ১৭টি মাখরাজ অবস্থিত (উচ্চতর দক্ষতা)
র. কণ্ঠনালি রর. উভয় হাত
ররর. জিহŸা, গলা, ঠোঁট
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের তথ্যের আলোকে ৭৭ ও ৭৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
আয়মান কুরআন পড়ার সময় ‘ﺖ’ কে ‘ﻁ’ এবং ‘ﻉ’ কে ‘ﺀ’ পড়ে।
৭৭. আয়মানের কুরআন পাঠ কীসের পরিপন্থী?

ক কুরআনের খ হাদিসের
গ ইমানের  তাজবিদের
৭৮. এরূপ ভুল পড়ার ফলে আয়মানের
র. গুনাহ হবে রর. সাওয়াব হবে
ররর. অর্থের পরিবর্তন হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৫ : সূরা আল-ফাতিহা
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৭৯. ফাতিহা শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রশংসা  ভ‚মিকা গ অধিপতি ঘ রাস্তা
৮০. (সিরাতুন) শব্দটির অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক রব  পথ গ প্রশংসা ঘ ইবাদত
৮১. সূরা ফাতিহার উলে­খযোগ্য নাম কয়টি? (জ্ঞান)
ক ৩ খ ৪  ৫ ঘ ৬
৮২. মাক্কী সূরা কোনটি?
ক বাকারা খ ইমরান  সূরা ফাতিহা ঘ মারিয়াম
৮৩. সূরা ফাতিহার আয়াত কয়টি? (জ্ঞান)
ক ৬  ৭ গ ৮ ঘ ৯
৮৪. (রব) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক পথ খ রাস্তা
 প্রতিপালক ঘ কুরআন
৮৫. সূরাতুশ-শিফা শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রার্থনা খ দোয়া গ প্রশংসা  রোগমুক্তির সূরা
৮৬. সূরাতুদ-দোয়া শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক আবেগ খ প্রতিবাদ  প্রার্থনামূলক সূরা ঘ জননী
৮৭. يَوْمِ الدِّيْنِ(ইয়াওমুদ দ্বীন) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক শেষ দিবস  বিচার দিবস
গ কুরআন দিবস ঘ বিজয় দিবস
৮৮. সূরা ফাতিহা কয়ভাগে বিভক্ত? (জ্ঞান)
ক ২  ৩ গ ৪ ঘ ৫
৮৯. নামায শুদ্ধ হয় না কেন?
 সূরা ফাতিহা ব্যতীত খ সূরা নাস ব্যতীত
গ সূরা মাউন ব্যতীত ঘ সূরা আলাক ব্যতীত
৯০. সরল সঠিক পথের সন্ধান দেন কে? (জ্ঞান)
ক রাসুল  আল­াহ গ শয়তান ঘ নবি
৯১. আল্লাহর সাথে বান্দার সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যম হিসেবে কোন সূরাটি তিলাওয়াত করা যায়?
ক আল-আসর  আল-ফাতিহা
গ আল-নাস ঘ হুমাযাহ
৯২. সূরা ফাতিহাকে মাক্কি সূরা বলা হয় কেন? (অনুধাবন)
 মক্কায় নাযিল হয়েছে বলে
খ মদিনায় নাযিল হয়েছে বলে
গ আরাফায় নাযিল হয়েছে বলে
ঘ জিদ্দায় নাযিল হয়েছে বলে
৯৩. সূরা ফাতিহা কখন নাযিল হয়? (জ্ঞান)
 হিজরতের পূর্বে খ হিজরতের পরে
গ হিজরত চলাকালীন ঘ নবির জন্মের পূর্বে
৯৪. সূরা ফাতিহা-এর অন্য নাম কী?
ক আল হাদিস খ মেশকাত শরিফ
 উম্মুল কুরআন ঘ বুখারি
৯৫. প্রত্যেক নামাযে কোন সূরা তিলাওয়াত করতে হয়? (জ্ঞান)
ক সূরা কদর খ সূরা রাহমান
গ সূরা ফিল  সূরা ফাতিহা
৯৬. হাশেম সূরা ফাতিহা দিয়ে নামায পড়া শুরু করে। ফলে তার নামায (উচ্চতর দক্ষতা)
 শুদ্ধ হবে খ অশুদ্ধ হবে
গ ভুল হবে ঘ শুদ্ধ হবে না
৯৭. জনাব রফিক একটি সূরা দিয়ে নামায় শুরু করেন। তিনি কোন সূরাটি পড়েন? (প্রয়োগ)
 ফাতিহা খ আলাক গ ইয়াসিন ঘ হুজুরাত
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
৯৮. সূরা ফাতিহার উলে­খযোগ্য নামগুলো [শহীদ পুলিশ স্মৃতি কলেজ, ঢাকা
র. সিরাতুল মুস্তাকিম
রর. উম্মুল কুরআন
ররর. সূরাতুল হামদ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
৯৯. সূরা ফাতিহা সম্পর্কে নিচের যে তথ্যটি সঠিক (উচ্চতর দক্ষতা)
র. প্রথম তিনটি আয়াতে আল্লাহ তায়ালার প্রশংসা করা হয়েছে
রর. শেষ তিনটি আয়াতে মানুষের পক্ষ থেকে মুনাজাতের ভাষা ব্যবহার করা হয়েছে
ররর.আল্লাহর পরিচয় সংক্ষিপ্ত আকারে বর্ণনা করা হয়েছে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১০০ ও ১০১ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
রাবেয়া ষষ্ঠ শ্রেণির একজন ছাত্রী। সে দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়ে এবং নামাযে একটি সূরা পাঠ করে।
১০০. রাবেয়ার নামাযে পঠিত সূরাটির নাম হলোÑ (অনুধাবন)
র. সূরাতুল ফাতিহা
রর. সিরাতুল মুস্তাকিম
ররর. সূরাতুশ শিফা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১০১. রাবেয়া সূরাটি পাঠ করার ফলে তার (উচ্চতর দক্ষতা)
র. সাওয়াব হবে রর. নামায শুদ্ধ হবে
ররর. গুনাহ হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৬ : সূরা আন-নাস
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১০২. সূরা নাস কোথায় নাযিল হয়? (জ্ঞান)
ক মক্কায়  মদিনায় গ আরাফায় ঘ হেযাযে
১০৩. আল-কুরআনের সর্বশেষ সূরা কোনটি? (জ্ঞান)
ক সূরা ফাতিহা  সূরা নাস
গ সূরা ইখলাস ঘ সূরা কাফিরুন
১০৪. আন-নাস শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 মানুষ খ জিন গ পশুপাখি ঘ সাগর
১০৫. কুরআনের ১১৪তম সূরার নাম কী? (জ্ঞান)
ক সূরা ফাতিহা  সূরা আন-নাস
গ সূরা আল-ফালাক ঘ সূরা আল-আসর
১০৬. (ক্বুল) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক ভক্ষণ করা খ সরল পথ
 তুমি বল ঘ উত্তম
১০৭. (আয়ুজু) শব্দের অর্থ কী? [খুলনা জিলা স্কুল]
 আমি আশ্রয় চাই খ প্রশংসা করা
গ অভিশপ্ত পথ ঘ মালিক
১০৮. বিশ্বজগতের প্রকৃত অধিপতি কে? (জ্ঞান)
ক শয়তান  আল­াহ গ মানুষ ঘ জিন
১০৯. (ইলাহ) শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 মাবুদ খ মানুষ গ জিন ঘ ফেরেশতা
১১০. সূরা-আন নাসে কাদের হতে বাঁচার কথা বলা হয়েছে? [খুলনা
ক জিন হতে খ ফেরেশতা হতে
গ মানুষ হতে  শয়তান হতে
১১১. সূরা আন-নাসের আয়াতসমূহে কয় প্রকারের আলোচনা রয়েছে? (অনুধাবন)
ক এক  দুই গ তিন ঘ চার
১১২. সূরা আন-নাসের প্রথম তিন আয়াতে কীসের প্রকাশ ঘটেছে? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক জিন ও মানুষের কর্মের  আল্লাহর তিনটি গুণের
গ ফেরেশতাদের গুণাবলির ঘ মহানবি (স.)-এর শ্রেষ্ঠত্বের
১১৩. “আত্মগোপনকারী শয়তানের কুমন্ত্রণার অনিষ্ট থেকে আশ্রয় চাই।” এটি কোন সূরায় বলা হয়েছে? (প্রয়োগ)
ক সূরা ফাতিহা খ সূরা আসর
 সূরা আন-নাস ঘ সূরা ফিল
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১১৪. সূরা নাসের প্রথম তিন আয়াতে মহান আল­াহর যে গুণের কথা উলে­খ করা হয়েছে (অনুধাবন)
র. খালিক
রর. মালিক
ররর. ইলাহ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১১৫. ঝাড়-ফুঁক বা জাদু-মন্ত্রণা থেকে বেঁচে থাকার জন্য আমরা যেসব সূরা পাঠ করব (প্রয়োগ)
র. সূরা আন-নাস
রর. সূরা আল-ফালাক
ররর. সূরা আল-আসর
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১১৬. শয়তান কুমন্ত্রণা দেয়। ফলে মানুষ (অনুধাবন)
র. পাপ করে
রর. অমনোযোগী হয়
ররর. গুনাহ করে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১১৭ ও ১১৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
শাকিলা ও রুমানা শিক্ষকের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ সূরা পড়া শিখছে। তারা জানল যে, এ সূরা কুরআনের সর্বশেষ সূরা।
১১৭. শাকিলা ও রুমানা যে সূরাটি শিখেছে তার নাম কী? (প্রয়োগ)
 সূরা নাস খ সূরা বাকারা
গ সূরা নিসা ঘ সূরা জুমার
১১৮. এ সূরা থেকে শিক্ষা নিয়ে শাকিলা ও রুমানার করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
র. অশ্লীল কথা ও আচরণ পরিহার করা
রর. শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে বেঁচে থাকা
ররর. শালীন পোশাক পরে বাইরে চলাচল করা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র  রর গ ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৭ : সূরা আল-ফালাক্ব
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১১৯. সূরা আল-ফালাক্বের আয়াত সংখ্যা কয়টি? (জ্ঞান)
 ৫ খ ১১ গ ১৮ ঘ ২০
১২০. আল-ফালাক্ব শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 প্রভাত খ দিন গ রাত ঘ দুপুর
১২১. হাছাদ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রশংসা করা  হিংসা
গ দোয়া করা ঘ সাহায্য করা
১২২. ইজা শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক সময়  যখন
গ রাতের অন্ধকার ঘ দিন
১২৩. ওয়াকাব শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক প্রভাত খ হিংসা
 গভীর হওয়া ঘ থেকে
১২৪. আল-ফালাক্ব কুরআনের কততম সূরা? (জ্ঞান)
ক ১১২  ১১৩ গ ১১৪ ঘ ১১৫
১২৫. ইয়াহুদি কয়টি গিরা দিয়ে জাদু করে? (জ্ঞান)
 ১১ খ ১২ গ ১৩ ঘ ১৪
১২৬. ইয়াহুদি কী সংগ্রহ করে জাদু করে? (জ্ঞান)
 চুল খ পানি গ আগুন ঘ কাপড়
১২৭. সূরা আল-ফালাক্ব কোথায় অবতীর্ণ হয়? (জ্ঞান)
ক মক্কায়  মদিনায়
গ বসরা ঘ কুফায়
১২৮. ইয়াহুদি জাদু করেছিল কাকে? (জ্ঞান)
ক হযরত আদম (আ.) কে খ হযরত ইসমাইল (আ.) কে
 হযরত মুহাম্মদ (স.) কে ঘ হযরত দাউদ (আ.) কে
১২৯. আল্লাহ তায়ালা মহানবি (স.) এর ওপর সূরা ফালাক্ব নাযিল করেন। এর কারণ কী? (প্রয়োগ)
ক মন ভালো হয়  নানারকম বিপদ থেকে মুক্তি পাওয়া
গ অর্থসম্পদ বৃদ্ধি পায় ঘ লোভ-হিংসা দূর হয়
১৩০. জাদুকর লাবিদ মহানবি (স.) কে জাদু করলে মহান আল্লাহ সূরা ফালাক্ব নাযিল করেন। এর ফলে মহানবি (স.) জাদু থেকে কী পান? (উচ্চতর দক্ষতা)
 মুক্তি খ টাকা গ গহনা ঘ ধনসম্পদ
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৩১. সূরা আল-ফালাক্বে আল­াহর কাছে আশ্রয় চাওয়া হয়েছে যা থেকে (উচ্চতর দক্ষতা)
র. ক্ষতি থেকে রর. অনিষ্ট থেকে
ররর. লাভ থেকে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৩২. গভীর রাতের নানারূপ বিপদাপদ হলো (অনুধাবন)
র. জিন-শয়তান রর. হিংস্র কুকুর
ররর. চোর-ডাকাত
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৩৩ ও ১৩৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
কবিরের শিক্ষক কবিরকে সূরা ফালাক্ব জিজ্ঞাসা করলে সে পুরো সূরাটা মুখস্থ বলল। এই সূরা থেকে সে এ শিক্ষা পেল যে, আল­াহই সকল কিছুর উপর পূর্ণ ক্ষমতাবান।
১৩৩. অনুচ্ছেদে উল্লিখিত সূরার শিক্ষা অনুযায়ী কবিরের কর্তব্য কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক খুব ভোরে ঘুম থেকে উঠে নামায আদায় করা
 সকল অনিষ্ট থেকে আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করা
গ প্রতিদিন প্রতিবেশীর খোঁজখবর নেওয়া
ঘ পিতামাতার সাথে সদ্ব্যবহার করা
১৩৪. উক্ত সূরা পড়ার ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. বিপদাপদ দূর হয় রর. ধন-সম্পদ বৃদ্ধি পায়
ররর. জাদুর প্রভাব নষ্ট হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৮ : সূরা আল-হুমাযাহ
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৩৫. সূরা আল-হুমাযাহ কোথায় অবতীর্ণ হয়? [দাউদ পাবলিক স্কুল, যশোর]
 মক্কায় খ মদিনায় গ জেদ্দায় ঘ তায়েফে
১৩৬. ‘আমাদিন’ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক আগুন  খুঁটি গ নামায ঘ রোযা
১৩৭. সূরা আল-হুমাযাহকে কয় ভাগে ভাগ করা যায়? (জ্ঞান)
 ২ খ ৩ গ ৪ ঘ ৫
১৩৮. সূরা হুমাযাহর দ্বিতীয় অংশে কয়টি আয়াত? (জ্ঞান)
ক ৫  ৬ গ ৭ ঘ ৮
১৩৯. সূরা আল-হুমাযাহ এর আয়াত সংখ্যা সর্বমোট (জ্ঞান)
ক ৫  ৯ গ ১৬ ঘ ২০
১৪০. মুমিনদের গিবত করত কে? (জ্ঞান)
ক হযরত আনাস (রা.) খ আবু জেহেল
গ আবু লাহাব  ওলীদ ইবনে মুগিরা
১৪১. পশ্চাতে কারো নিন্দা করাকে কী বলে? (জ্ঞান)
ক হারাম  গিবত গ হালাল ঘ জায়েজ
১৪২. সূরার দ্বিতীয় অংশে কয়টি জঘন্য কাজের শাস্তির কথা বলা হয়েছে? (উচ্চতর দক্ষতা)
 ৩ খ ৪ গ ৫ ঘ ৬
১৪৩. ‘আর আপনি কি জানেন হুতামা কী’ আয়াতটি কোন সূরার? (প্রয়োগ)
ক সূরা আন-নাস খ সূরা লাহাব
গ সূরা ফালাক  সূরা আল-হুমাযাহ
১৪৪. সূরা হুমাযাহ নাযিল হয়েছে কেন?
 গিবত করার পরিণতি জানাতে
খ গিবত করার সুফল জানাতে
গ সম্পদের বর্ণনা করতে ঘ জান্নাতের সুসংবাদ দিতে
১৪৫. গিবত, পরনিন্দা ও অর্থলিপ্সা তিনটিই খারাপ কাজ। এর ফলে মানুষের কী হয়? (উচ্চতর দক্ষতা)
 কবিরা গুনাহ হয় খ সাওয়াব হয়
গ সম্পদ বাড়ে ঘ লাভ হয়
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৪৬. সামনাসামনি কারো নিন্দা করার ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. মানুষ অপমানিত হয়
রর. ঝগড়া-ফাসাদ সৃষ্টি হয়
ররর. স¤প্রীতি বৃদ্ধি পায়
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৪৭ ও ১৪৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
সিফাত মাহফিলে ওয়াজ শুনতে গিয়েছিল। সেখানে আল­ামা শরিফুল ইসলাম একটি সূরার তাফসির করেন। সিফাত তা মন দিয়ে শোনে এবং এ সূরার মর্মার্থ বুঝতে পারে।
১৪৭. অনুচ্ছেদের সিফাত আল্লামা শরিফুল ইসলাম থেকে কোন সূরার তাফসির শুনেছে? (প্রয়োগ)
 সূরা আল-হুমাযাহ খ সূরা লাহাব
গ সূরা লুকমান ঘ সূরা ফাতাহ
১৪৮. সূরাটিতে যে বিষয়ের কথা বলা হয়েছে (উচ্চতর দক্ষতা)
র. শাস্তির কথা
রর. আল­াহর পরিচয়
ররর. জঘন্য গুনাহের পরিচয়
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-৯ : সূরা আল-আসর
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৪৯. সূরা আল-আসর কুরআনের কত নং সূরা? (জ্ঞান)
 ১০৩ খ ১০৪ গ ১০৫ ঘ ১০৬
১৫০. আল ইনসানু শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক শপথ  মানুষ গ জিন ঘ পাখি
১৫১. আল-হাক্কু শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক মিথ্যা  সত্য গ গোপন ঘ আলো
১৫২. ইন্না শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক আগামীকাল  অবশ্যই
গ মানুষ ঘ ধৈর্য
১৫৩. খুসরুন শব্দের অর্থ কী?
 ক্ষতি খ লাভ গ কষ্ট ঘ দুঃখ
১৫৪. আসর শব্দ দ্বারা কী বোঝায়? (জ্ঞান)
ক দিন  সময় গ রাত ঘ দুপুর
১৫৫. সূরা আসরে ক্ষতি থেকে বাঁচার কয়টি উপায়ের কথা বলা হয়েছে? (অনুধাবন)
ক ২টি খ ৩টি  ৪টি ঘ ৫টি
১৫৬. সূরা আল-আসরে আল­াহ কীসের শপথ করেছেন? [দাউদ তাবলিক স্কুল, যশোর]
 মহাকালের খ মাসের
গ বছরের ঘ যুগের
১৫৭. সূরা আল-আসর থেকে আমরা কী নৈতিক শিক্ষা পাই? [দাউদ পাবলিক স্কুল, যশোর]
 অন্যায়-অত্যাচার করব না
খ প্রতিবেশীর সাথে সদ্ব্যবহার করব
গ মানুষকে ভালোবাসব
ঘ আল্লাহর ইবাদত করব
১৫৮. ‘নিশ্চয়ই মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত’ অনূদিত আয়াতটি কোন সূরার? (প্রয়োগ)
 সূরা আল-আসর খ সূরা আল-হুমাযাহ
গ সূরা আল-বায়্যিনাহ ঘ সূরা আল-ফিল
১৫৯. সূরা আসরের নাম আসর রাখা হয়েছে কেন? (অনুধাবন)
 সূরার প্রথম শব্দ আসর হওয়ায়
খ সূরাটি মাক্কী হওয়ায়
গ সূরাটি ছোট হওয়ায়
ঘ সূরায় তিন আয়াত হওয়ায়
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৬০. ‘আল-আসর’ বলতে বোঝায়- (অনুধাবন)
র. মহাকাল রর. যুগ
ররর. ক্ষতি
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৬১. যারা ইমান আনার পর সৎ কাজ করেছে তারা ক্ষতির মধ্যে নেই। এর কারণ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. এরা আল্লাহর নির্দেশ পালনকারী
রর. এরা আল্লাহর নির্দেশ পালন করে না
ররর. এদের পরকাল মঙ্গলময় হওয়ার কারণে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৬২. আল্লাহ তায়ালার ক্ষতি থেকে বাঁচতে হলে (অনুধাবন)
র. ইমান আনতে হবে
রর. সত্যের উপদেশ দিতে হবে
ররর. দৃঢ়তা ও সাহসিকতা প্রদর্শন করতে হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ রর ও ররর গ র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৬৩ ও ১৬৪ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
সাব্বির শিক্ষকের নিকট থেকে এমন একটি সূরা সম্পর্কে জানতে পেরেছে যে, এটি পবিত্র কুরআনের ছোট সূরা হলেও এর তাৎপর্য অত্যন্ত ব্যাপক।
১৬৩. সাব্বির কোন সূরা সম্পর্কে জানতে পেরেছে? (প্রয়োগ)
ক সূরা আলাক  সূরা আসর
গ সূরা বালাদ ঘ সূরা হুমাযাহ
১৬৪. এ সূরার তাৎপর্য বুঝতে পারলে সাব্বির লাভ করতে পারেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. দুনিয়ার কল্যাণ
রর. প্রচুর ধনসম্পদ
ররর. আখিরাতের কল্যাণ
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১০ : অর্থসহ মুনাজাতের তিনটি আয়াত
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৬৫. মুনাজাত শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
 প্রার্থনা করা খ প্রশংসা করা
গ বান্দা ঘ মানুষ
১৬৬. মুনাজাত করলে কে খুশি হন? (জ্ঞান)
ক মানুষ খ ফেরেশতা  আল­াহ ঘ নবি
১৬৭. মানুষকে জ্ঞান দান করেন কে? (জ্ঞান)
ক নবি খ রাসুল (স.)
গ ফেরেশতা  আল­াহ
১৬৮. দুনিয়া-আখিরাতের সব নিয়ামত কার দান? (জ্ঞান)
ক প্রকৃতির খ মানুষের
গ মহানবির (স.)  আল্লাহর
১৬৯. আমাদের রব কে? (জ্ঞান)
ক পিতামাতা খ ফেরেশতা
গ মহানবি (স.)  আল্লাহ
১৭০. জ্ঞানার্জন করা জরুরি কেন? (অনুধাবন)
ক চাকরি লাভের জন্য  জীবনে উন্নতি লাভের জন্য
গ অর্থ উপার্জন করার জন্য ঘ মানুষকে জ্ঞান দান করার জন্য
১৭১. তিনি আমাদের পালনকর্তা, রিযিকদাতা, মৃত্যুদানকারী-তিনি কে? (প্রয়োগ)
ক বান্দা  আল­াহ গ নবি-রাসুল ঘ ফেরেশতা
১৭২. শিশুকালে সকল মানুষই অসহায় থাকে। এ সময় প্রধান অবলম্বন কারা? (প্রয়োগ)
ক ভাইবোন খ দাদাদাদি  পিতামাতা ঘ পাড়াপড়শি
১৭৩. আমরা পিতামাতার জন্য দোয়া করব। এর ফলে আল্লাহ তাদের কী করবেন? (উচ্চতর দক্ষতা)
 ক্ষমা করবেন খ সম্পদ দিবেন
গ শাস্তি দিবেন ঘ উপকার করবেন
১৭৪. দুনিয়া আখিরাতের সমস্ত নিয়ামত মহান আল্লাহর। এ নিয়ামত পাওয়ার জন্য আমাদের করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
 চেষ্টা করা ও মুনাজাত করা
খ চেষ্টা না করে মুনাজাত করা
গ চেষ্টা না করা ও মুনাজাত না করা
ঘ অকর্মন্য হয়ে বসে থাকা
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৭৫. আমরা মুনাজাত করব (অনুধাবন)
র. জান্নাত লাভের জন্য রর. জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য
ররর. শত্রæতা বৃদ্ধির জন্য
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৭৬. মুনাজাতের মাধ্যমে আল্লাহর নিকট কিছু চাওয়া হয়। এতে আল­াহ (প্রয়োগ)
র. খুশি হন রর. সাওয়াব দেন
ররর. শাস্তি দেন
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৭৭ ও ১৭৮ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
জুমার নামায সমাপ্ত করে আজাদ সাহেব আল­াহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে মানুষের শান্তি কামনা করলেন।
১৭৭. আজাদ সাহেবের এরূপ কাজটিকে কী বলে? (প্রয়োগ)
ক মাগফিরাত খ ক্ষমা
 মুনাজাত ঘ কথা বলা
১৭৮. এরূপ করার ফলে আজাদ সাহেব- (উচ্চতর দক্ষতা)
র. শান্তি লাভ করবেন রর. অশান্তি লাভ করবেন
ররর. অকল্যাণ লাভ করবেন
নিচের কোনটি সঠিক?
 র খ রর গ ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১১ : আল হাদিস
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৭৯. ‘হাদিস’ শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক বিশ্বাস খ পড়া  কথা ঘ শব্দ
১৮০. হাদিস কী শব্দ?
 আরবি খ উর্দু গ ফারসি ঘ হিন্দি
১৮১. হাদিসের অপর নাম কী? (জ্ঞান)
ক কুরআন  সুন্নাহ গ ইজমা ঘ কিয়াস
১৮২. হাদিস কীসের ব্যাখ্যাস্বরূপ? (জ্ঞান)
ক ইনজিলের খ যাবুরের
গ বাইবেলের  আল-কুরআনের
১৮৩. হাদিস ইসলামি জীবনব্যবস্থার দ্বিতীয় উৎস কেন? (অনুধাবন)
 মহানবি (স.) এর বাণী হওয়ায়
খ হাদিস অনেক হওয়ায়
গ ইজমা থেকে মর্যাদাবান হওয়ায়
ঘ কিয়াসের ন্যায় হওয়ায়
১৮৪. মহানবি (স.) আল-কুরআনের নির্দেশ মানুষের নিকট কীভাবে বিশ্লেষণ করেছেন? (অনুধাবন)
ক সাহাবিদের মাধ্যমে খ কুরআনের মাধ্যমে
 হাদিসের মাধ্যমে ঘ ইজমার মাধ্যমে
১৮৫. সালমা নামায আদায়ের নিয়ম-কানুন জানতে চায়। এজন্য তাকে কী করতে হবে? (প্রয়োগ)
ক কিয়াস সম্পর্কে জানতে হবে খ ইজমা সম্পর্কে জানতে হবে
 হাদিস সম্পর্কে জানতে হবে ঘ ইতিহাস সম্পর্কে জানতে হবে
১৮৬. মোতাহার পবিত্র কুরআনের ব্যাখ্যা জানতে চায়। এজন্য তাকে কোনটি জানতে হবে? (প্রয়োগ)
ক কুরআন  হাদিস গ ইতিহাস ঘ দর্শন
১৮৭. “রাসুল তোমাদের যা দেন তা তোমরা গ্রহণ কর। আর যা নিষেধ করেন তা থেকে বিরত থাক।” এতে আমাদের করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
 মহানবি (স.) কে অনুসরণ করা
খ মহানবি (স.) কে অনুসরণ না করা
গ মহানবি (স.) কে বাদ দেওয়
া ঘ নামায না পড়া
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৮৮. হাদিস বলতে বোঝায় (অনুধাবন)
র. বাণী রর. কথা
ররর. বিশ্বাস
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
১৮৯. ইসলামি শরিয়তে হাদিসের অবস্থান (অনুধাবন)
র. প্রথম রর. দ্বিতীয়
ররর. কুরআনের পরই
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১৯০ ও ১৯১ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
রাসেল অফিসে চাকরি করে। সে যুহরের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে গেল। কিন্তু সে ঠিকমতো রুকু, সিজদা দিতে পারল না।
১৯০. রাসেল ঠিকমতো রুকু, সিজদাহ করতে না পারার কারণ কী? (প্রয়োগ)
ক কুরআন তিলাওয়াত না করা  হাদিস অধ্যয়ন না করা
গ ইসলামের ইতিহাস না জানা ঘ তার হাঁটুতে ব্যথা
১৯১. সঠিকভাবে নামায আদায়ের জন্য তার উচিত- (উচ্চতর দক্ষতা)
র. কামনা করা
রর. কুরআন ঠিকমতো পড়া
ররর. হাদিস পড়ে নামাযের নিয়ম জানা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র খ রর  ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১২ : অর্থসহ নৈতিক গুণাবলি বিষয়ক দুটি হাদিস

সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৯২. মিথ্যাবাদীকে সবাই কী করে? (জ্ঞান)
ক ভালোবাসে খ শ্রদ্ধা করে
 ঘৃণা করে ঘ অবজ্ঞা করে
১৯৩. দীনদার ব্যক্তির লক্ষণ কী? (জ্ঞান)
ক ওয়াদা ভঙ্গ করা  ওয়াদা রক্ষা করা
গ খিয়ানত করা ঘ ঘুষ খাওয়া
১৯৪. ওয়াদা ভঙ্গকারী ইসলামের দৃষ্টিতে কী? (জ্ঞান)
ক মুমিন খ কাফির
 মুনাফিক ঘ ঘুষখোর
১৯৫. কে জান্নাতে প্রবেশ করবে না? (জ্ঞান)
ক সত্যবাদী খ মুমিন গ ইমানদার  মুনাফিক
১৯৬. প্রকৃত কথা গোপন করাকে কী বলে? (জ্ঞান)
 মিথ্যা খ সত্য গ হক ঘ জ্ঞান
১৯৭. যে ব্যক্তি চলাফেরা ও কথাবার্তায় নীতির অনুসরণ করে না সেই নীতিহীন মানুষ। সমাজে সবাই তাকে কী করে? (প্রয়োগ)
 ঘৃণা খ ভালোবাসে
গ টাকা দেয় ঘ গালি দেয়
১৯৮. পাপ কাজের পরিণতি কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
 জাহান্নাম খ জান্নাত গ শান্তি ঘ সমৃদ্ধি
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
১৯৯. নীতি বলতে বোঝায়
র. কথায় ও কাজে সুন্দর
রর. পড়াশোনা ঠিকমতো করা
ররর. সুন্দর মার্জিত ব্যবহার
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২০০. নীতিহীন মানুষকে সমাজে দেখা হয় (অনুধাবন)
র. ভালোবাসার চোখে
রর. ঘৃণার চোখে
ররর. অসম্মানের সাথে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর  রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২০১ ও ২০২ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
জাহিদ ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। সে তার বাবা-মা ও গুরুজনদের সম্মান করে, দেখলে সালাম দেয়, তাদের সাথে ভালো ব্যবহার করে।
২০১. উপরিউক্ত আচরণের কারণে জাহিদকে কী বলা যাবে? (প্রয়োগ)
ক নীতিহীন মানুষ  নীতিবান মানুষ
গ চরিত্রহীন মানুষ ঘ আদর্শহীন মানুষ
২০২. এরূপ আচরণের ফলে জাহিদকে মানুষÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. ভালোবাসবে
রর. ঘৃণা করবে
ররর. স্নেহ করবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর  র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১৩ : অর্থসহ মুনাজাতমূলক দুটি হাদিস
সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২০৩. ইসলামে কোন খাদ্য গ্রহণ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে? (জ্ঞান)
ক হারাম  হালাল গ অপবিত্র ঘ নষ্ট
২০৪. মানুষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয় কী? (জ্ঞান)
ক ব্যবসা-বাণিজ্য খ টাকা-পয়সা
 খাদ্য ও জ্ঞান ঘ আরাম ও ঘুম
২০৫. বিদ্যা অর্জন করা কী? (জ্ঞান)
ক সুন্নত খ নফল  ফরয ঘ মুস্তাহাব
২০৬. মানবজাতির মহান শিক্ষক কে? (জ্ঞান)
ক আল­াহ  হযরত মুহাম্মদ (স.)
গ জিন ঘ পিতামাতা
২০৭. আমরা আল্লাহর নিকট ক্ষমা চাইব কেন? (অনুধাবন)
ক ক্ষমা মহৎ গুণ এজন্য
খ মহানবি (স.)-এর নির্দেশ পালনের জন্য
 ভুলত্রæটি ও পাপের ক্ষমার জন্য
ঘ মুনাজাত করার জন্য
২০৮. আমরা কথাবার্তা, চলাফেরায় নানারূপ পাপ কাজ করে ফেলি। এক্ষেত্রে আমাদের করণীয় কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক মাজারে গিয়ে সিজদা করা
খ পীর-মাশায়েখদের কাছে ক্ষমা চাওয়া
গ দরগায় মান্নত করা
 আল্লাহ তা‘য়ালার নিকট ক্ষমা চাওয়া
২০৯. মাসুম ধনে ও জ্ঞানে বড় হতে চায়। এজন্য তাকে কী করতে হবে?(প্রয়োগ)
ক পীরের কাছে দোয়া চাইতে হবে
খ ধনী ও জ্ঞানীদের অনুসরণ করতে হবে
গ বাড়িতে মিলাদ মাহফিল করতে হবে
 আল্লাহর নিকট প্রার্থনা করতে হবে
২১০. আমরা মহান আল­াহর কাছে প্রার্থনা করব কেন? (অনুধাবন)
ক হারাম রিযিকের জন্য
খ ভেজাল রিযিকের জন্য
 হালাল রিযিকের জন্য
ঘ অপবিত্র রিযিকের জন্য
২১১. “হে আল­াহ! আমার পাপসমূহ, ভুলত্র“টিগুলো এবং ইচ্ছাকৃত অপরাধসমূহ ক্ষমা করে দাও।” অনূদিত হাদিসটির শিক্ষা কোনটি? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক ঘুমানো খ ক্ষমা চাওয়া
গ ইবাদত  মুনাজাত
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২১২. প্রার্থনামূলক হাদিসের উদ্দেশ্য (উচ্চতর দক্ষতা)
র. পাপসমূহ ক্ষমা চাওয়া
রর. ইচ্ছাকৃত অপরাধের ক্ষমা চাওয়া
ররর. ভুলত্র“টিগুলোর ক্ষমা চাওয়া
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
২১৩. হাদিসের ভাষ্য অনুযায়ী উপকারী বিদ্যায় (অনুধাবন)
র. মানুষের উপকার হবে
রর. নিজের উপকার হবে
ররর. সমাজের উপকার হবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
২১৪. আখিরাতে আমাদের শাস্তির কারণ হবেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. ছোট-বড় পাপ
রর. ইচ্ছা ও অনিচ্ছাকৃত পাপ
ররর. আল্লাহর নিকট মুনাজাত
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২১৫ ও ২১৬ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
সাদেকা ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। সে প্রতিদিন জনৈক পীরের কাছে তার ভুলত্র“টির জন্য ক্ষমা প্রার্থনা ও হালাল রিযিক এর জন্য দোয়া চায়।
২১৫. সাদেকার কর্মকাণ্ড কীসের পরিপন্থী? (প্রয়োগ)
ক শিরকের  তাওহিদের গ কুফরের ঘ নিফাকের
২১৬. এরূপ কাজের ফলে সাদেকাÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. গুনাহগার হবে
রর. ক্ষমা লাভ করবে
ররর. শাস্তি পাবে
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ রর ও ররর  র ও ররর ঘ র, রর ও ররর
ন্ধ পাঠ-১৪ : নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠায় হাদিস

সাধারণ বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২১৭. আল-আমিন শব্দের অর্থ কী? (জ্ঞান)
ক মিথ্যাবাদী  বিশ্বাসী
গ অস্বীকারকারী ঘ অহংকারী
২১৮. আমরা বিরত থাকব কী থেকে? (জ্ঞান)
ক সত্য থেকে খ হালাল থেকে
গ সঠিক থেকে  হিংসা থেকে
২১৯. ওয়াদা ভঙ্গকারীকে কী বলে? (জ্ঞান)
 মুনাফিক খ সৎ ব্যক্তি গ জ্ঞানী ব্যক্তি ঘ ধনী ব্যক্তি
২২০. আমরা সর্বদা মানুষের সাথে কী রকম আচরণ করব? (জ্ঞান)
 উত্তম খ অশ্লীল গ জটিল ঘ কঠোর
২২১. সর্বোত্তম চরিত্রের অধিকারী কে? (জ্ঞান)
ক হযরত আদম (আ.) খ হযরত ইবরাহিম (আ.)
 হযরত মুহাম্মদ (স.) ঘ ইমাম আবু হানিফা (র.)
২২২. প্রকৃত মানুষ হওয়ার উপায় বলতে কী বোঝায়? (অনুধাবন)
ক শয়তানের অনুসরণ খ ফেরেশতার অনুসরণ
গ জিনের অনুসরণ  মহানবি (স.)-এর অনুসরণ
২২৩. মহানবি (স.) সর্বদা সত্য কথা বলতেন কেন? (অনুধাবন)
ক সম্পদের জন্য খ অশ্লীল কথা বলা ভালো
 উম্মতের শিক্ষার জন্য ঘ ভুল কথা বরকত হয়
২২৪. নবি ও রাসুল সর্বদা ভালো শিক্ষা দিতেন কেন? (অনুধাবন)
ক সম্পদের জন্য খ সুনামের জন্য
 উত্তম চরিত্রের জন্য ঘ ফেরেশতাদের দোয়া পাওয়ার জন্য
২২৫. আমাদের চরিত্র কেমন হওয়া উচিত? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক খারাপ  উত্তম
গ অশ্লীল ঘ মিথ্যাবাদী
২২৬. কী থেকে আমরা বিরত থাকব? (জ্ঞান)
 চুরি-ডাকাতি খ নামায গ হজ ঘ যাকাত
২২৭. কার উপাধি আল-আমীন ছিল? (জ্ঞান)
ক হযরত জিবরাইল (আ.)-এর খ হযরত মিকাইল (আ.)-এর
গ হযরত ইউসুফ (আ.)-এর  হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর
২২৮. ‘নিশ্চয়ই আপনি মহান চরিত্রের অধিকারী।’’ অনূদিত আয়াতটির শিক্ষা কী? (উচ্চতর দক্ষতা)
ক মহানবি (স.) ইন্তিকাল করেছেন
খ মহানবি (স.) স্বাভাবিক
গ মহানবি (স.) নবি ও রাসুল
 মহানবি (স.) অনুসরণীয় ব্যক্তি
বহুপদী সমাপ্তিসূচক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
২২৯. নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধের ফলে মানুষ সমাজে (উচ্চতর দক্ষতা)
র. সম্মান লাভ করে
রর. মর্যাদা লাভ করে
ররর. ঘৃণিত হয়
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর
২৩০. সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয় (প্রয়োগ)
র. দুর্নীতির দ্বারা
রর. সন্ত্রাসের দ্বারা
ররর. চুরি-ডাকাতির দ্বারা
নিচের কোনটি সঠিক?
ক র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর  র, রর ও ররর
অভিন্ন তথ্যভিত্তিক বহুনির্বাচনি প্রশ্নোত্তর
নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ২৩১ ও ২৩২ নং প্রশ্নের উত্তর দাও :
আমাদের প্রিয় নবি হযরত মুহাম্মদ (স.) ছিলেন ক্ষমাশীল, দয়াবান, অতিথিপরায়ণ, মিষ্টভাষী। তিনি অন্যায় ও অশ্লীল কাজ কখনো করতেন না। সারাজীবন তিনি মানুষকে উত্তম চরিত্র সম্পর্কে হাতে-কলমে শিক্ষা দিয়েছেন।
২৩১. অনুচ্ছেদে মহানবি (স.)-এর কীসের প্রতিফলন লক্ষ করা যায়? (প্রয়োগ)
ক ক্ষমার খ সত্যবাদিতার
 সৎ গুণাবলির ঘ ইবাদতের
২৩২. উক্ত গুণাবলি অনুসরণ করার ফলেÑ (উচ্চতর দক্ষতা)
র. প্রকৃত মানুষ হতে পারব
রর. দুর্নীতি ও পশুত্ব দূরীভ‚ত হবে
ররর. ধন-সম্পদ লাভ করতে পারব
নিচের কোনটি সঠিক?
 র ও রর খ র ও ররর গ রর ও ররর ঘ র, রর ও ররর

সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

 মাস্টার ট্রেইনার প্রণীত সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর
প্রশ্ন- ১  আল-কুরআনের গুরুত্ব ও বৈশিষ্ট্য

আল­াহ রাব্বুল আলামিন মানবজাতির হিদায়াতের জন্য কিতাব দিয়ে অসংখ্য নবি-রাসুল প্রেরণ করেছেন। আরব বিশ্বের মানুষ যখন অন্ধকার পথে ধাবিত হচ্ছিল তখন আল­াহ তা‘য়ালা হযরত মুহাম্মদ (স.)কে একটি মূল্যবান কিতাব দিয়ে পৃথিবীতে পাঠান। [বাংলাদেশ নৌবাহিনী স্কুল এন্ড কলেজ, খুলনা]
ক. জ্ঞানের ভাণ্ডার কোনটি? ১
খ. আল কুরআনের পরিচয় দাও। ২
গ. উদ্দীপকে কোন কিতাব নাযিলের কথা বলা হয়েছে? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. তুমি কি মনে কর গুরুত্বের দিক থেকে এ কিতাব অতুলনীয়? মতামত দাও। ৪

ক পবিত্র কুরআন শরিফ জ্ঞানের ভাণ্ডার।
খ আল কুরআন সর্বশেষ আসমানি কিতাব, পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ গ্রন্থ। মহানবি (স.)-এর ওপর এটি নাযিল হয়। আল কুরআন জ্ঞানসমূহের ভাণ্ডারস্বরূপ। এ গ্রন্থে আল­াহর পরিচয়, নানারকম বিধিবিধান ও আইনকানুন বর্ণিত হয়েছে। এটি সত্য ও মিথ্যার পার্থক্যকারী। সমগ্র মানবজাতির নিকট এটি একটি মূল্যবান গ্রন্থ।
গ উদ্দীপকে পবিত্র আল কুরআন নাযিলের কথা বলা হয়েছে। আল্লাহ তায়ালা হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর পবিত্র কুরআন নাযিল করেছেন। এটি মহান আল্লাহর পবিত্র বাণী। আজ পর্যন্ত এটি অবিকৃত রয়েছে। আল্লাহ তায়ালার পরিচয় তাঁর গুণাবলি, ইমান ও ইসলামের সকল বিষয় এতে বর্ণনা করা করা হয়েছে। এতে রয়েছে জ্ঞান-বিজ্ঞানের সার কথা। ২৩ বছরে এটি সম্পূর্ণরূপে নাযিল হয়। আল কুরআন হলো সর্বশেষ আসমানি গ্রন্থ। এরপর আর কোনো কিতাব নাযিল হবে না। উদ্দীপকেও এ বিষয়টিরই ইঙ্গিত করা হয়েছে যে, যখন আরব জাতি অন্ধকার পথে ধাবিত হচ্ছিল তখন তাদের হিদায়াতের জন্য হযরত মুহাম্মদ (স.) কে পবিত্র, সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বশেষ কিতাব কুরআন দিয়ে পৃথিবীতে পাঠান। সুতরাং উপরিউক্ত আলোচনায় প্রতীয়মান হয় যে, আল্লাহ তায়ালা হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর পবিত্র কুরআন শরিফ নাযিল করেছেন।
ঘ আমি মনে করি, গুরুত্বের দিক থেকে পবিত্র কুরআন অতুলনীয়। মানবজাতির হিদায়াতের একমাত্র পথ হলো ইসলাম। আর ইসলামের একমাত্র মূল দর্শন কুরআন। এতে দীনের যাবতীয় বিষয় বর্ণনা করা হয়েছে। এর ভাব ও ভাষা অনন্য ও অপূর্ব। সকল জ্ঞানসমূহের ভাণ্ডার। মানুষের জীবনে যেসব সমস্যার উদ্ভব হয়ে থাকে তার সমাধানের ব্যাপারেও এতে উলে­খ আছে।
উপরিউক্ত আলোচনার প্রেক্ষিতে বলা যায়, পবিত্র কুরআন গুরুত্বের দিক থেকে সর্বশেষ্ঠ ও অতুলনীয়। আমি এর সাথে একমত।
প্রশ্ন- ২  তাজবিদের গুরুত্ব

ধর্মীয় শিক্ষক বললেন, প্রতিটি ভাষারই একটি ব্যাকরণ আছে, তদ্রæপ কুরআন মজিদেরও একটি ব্যাকরণ আছে। এ ব্যাকরণ পাঠ ছাড়া কুরআন তিলাওয়াত শুদ্ধ হয় না। এজন্য আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী কুরআন শুদ্ধ করে পড়ার অভ্যাস করতে হবে।
[বিএফ শাহীন স্কুল এন্ড কলেজ, যশোর]
ক. তাজবিদ শব্দের অর্থ কী? ১
খ. সিফাত কাকে বলে? ২
গ. উদ্দীপকের ধর্মীয় বিষয় কুরআন মজিদের ব্যাকরণ বলতে কীসের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. ধর্মীয় শিক্ষকের শেষোক্ত উক্তিটির তাৎপর্য বিশ্লেষণ কর। ৪

ক তাজবিদ শব্দের অর্থ উত্তম করা, সুন্দর করা।
খ আরবি হরফ কোনোটি মোটা করে পড়তে হয়, আবার কোনোটি চিকন করে পড়তে হয়। উচ্চারণের এ বিশেষ অবস্থাকে সিফাত বলে। যেমন : ‘তা’ এবং ‘ত্বয়া’ হরফ দুটির উচ্চাণের স্থান একই। কিন্তু এদের সিফাত ভিন্ন। এ দুটো বর্ণের মধ্যে ‘ত্বয়া’ কে মোটা করে পড়তে হয় এবং ‘তা’ কে চিকন করে পড়তে হয়।
গ উদ্দীপকের ধর্মীয় শিক্ষক কুরআন মজিদের ব্যাকরণ বলতে তাজবিদের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন। প্রতিটি ভাষা শুদ্ধরূপে পড়ার জন্য সেই ভাষার ব্যাকরণ জানা আবশ্যক। তেমনি মহাগ্রন্থ আল কুরআন শুদ্ধ ও সুন্দরভাবে পড়ার জন্য যে নিয়ম ও কৌশল রয়েছে তাকেই তাজবিদ বলে। তাজবিদ অনুযায়ী কুরআন শুদ্ধরূপে তিলাওয়াত না করলে একদিকে অর্থের যেমন বিকৃতি ঘটে অন্যদিকে তিলাওয়াতকারী গুনাহগার হয়। আর তাজবিদ শাস্ত্র থেকে কুরআন শুদ্ধভাবে তিলাওয়াত করার নিয়ম জানা যায়। তাই উদ্দীপকের ধর্মীয় শিক্ষক তাজবিদকে কুরআন মজিদের ব্যাকরণ বলেছেন।
ঘ “কুরআন শুদ্ধ করে পড়ার অভ্যাস করতে হবে”উদ্দীপকের ধর্মীয় শিক্ষকের শেষোক্ত এ উক্তিটি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। কেননা তাজবিদ অনুযায়ী কুরআন পড়া ওয়াজিব বা আবশ্যক। এ প্রসঙ্গে আল্লাহ বলেনÑ‘আপনি কুরআন আবৃত্তি করুন ধীরে ধীরে ও সুস্পষ্টভাবে।’ (সূরা আল-মুয্যাম্মিল) তাজবিদ অনুসারে কুরআন না পড়লে গুনাহ হয়। যেমন : সূরা ইখলাসে আল্লাহ বলেন- قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ বলুন (হে নবি)! তিনি আল্লাহ; একক ও অদ্বিতীয়। এখানে قُلْ শব্দের অর্থ- বলুন। আর যদি ق (ক্বাফ) কে ভুল মাখরাজ থেকে উচ্চারণ করে বলা হয় كُلْ তাহলে অর্থ বিকৃত হয়ে যায়। কেননা كُلْ শব্দের অর্থ খাও বা ভক্ষণ কর। ফলে আল কুরআনের অর্থের বিকৃতি ঘটে। যা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। উদ্দীপকে ধর্মীয় শিক্ষক তাজবিদের প্রতি ইঙ্গিত করেই মন্তব্য করে বলেন, আল্লাহর নির্দেশ অনুযায়ী কুরআন শুদ্ধ করে পড়ার অভ্যাস করতে হবে।
প্রশ্ন- ৩  মাখরাজ

মাওলানা ইলিয়াছ নূরপুর মসজিদের ইমাম। তিনি মসজিদ সংলগ্ন মক্তবে ছাত্রছাত্রীদের এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় শিক্ষা দেন যা কুরআন তিলাওয়াতের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজন। এ প্রসঙ্গে তিনি বললেন, “আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ হতে হবে।”
ক. মাখরাজ শব্দের অর্থ কী? ১
খ. মাখরাজ বলতে কী বোঝ? ২
গ. উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ ছাত্রছাত্রীদের কী শিক্ষা দেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. মাওলানা ইলিয়াছের শিক্ষাদানের উক্ত বিষয়টির তাৎপর্য বিশ্লেষণ কর। ৪

ক মাখরাজ শব্দের অর্থ বের হওয়ার স্থান, উচ্চারণের স্থান।
খ হরফ উচ্চারিত হওয়ার স্থানকে মাখরাজ বলে। আরবিতে ২৯টি হরফ রয়েছে। এগুলো মুখের মোট ১৭টি স্থান থেকে উচ্চারিত হয়। এই স্থানগুলোকে বলা হয় মাখরাজ।
গ উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ সাহেব ছাত্রছাত্রীদের মাখরাজ শিক্ষা দেন। উদ্দীপক পাঠে জানা যায় যে, মাওলানা ইলিয়াছ নূরপুর মসজিদের ইমাম। তিনি মসজিদ সংলগ্ন মক্তবে ছাত্রছাত্রীদের এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় শিক্ষা দেন যা কুরআন তিলাওয়াতের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজন। অর্থাৎ তিনি মাখরাজ শিক্ষা দেন। এ প্রসঙ্গেই তিনি বলেন, “আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ হতে হবে।” উপরিউক্ত আলোচনায় প্রতীয়মান হয় যে, উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ মসজিদ সংলগ্ন মক্তবে তাজবিদের নিয়ম ও মাখরাজ শিক্ষা দেন।
ঘ মাওলানা ইলিয়াছের শিক্ষাদানের বিষয় তথা মাখরাজের তাৎপর্য কুরআন শিক্ষার জন্য অপরিসীম। কারণ আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ না হলে তিলাওয়াত শুদ্ধ হয় না। তাই উদ্দীপকের মাওলানা ইলিয়াছ এর উপর জোর দেন। তাজবিদের মূল হলো আরবি বর্ণমালা ও এর মাখরাজ। বর্ণমালা ছাড়া কোনো ভাষাই হতে পারে না। তদ্রæপ আরবি বর্ণমালা ছাড়াও আরবি ভাষা হতে পারে না। পবিত্র কুরআন শরিফও ২৯টি আরবি বর্ণ দিয়ে তৈরি। আর এ ২৯টি বর্ণ উচ্চারণ করতে পাঁচটি স্থানের প্রয়োজন হয়। যেমন : মুখের খালি জায়গা থেকে একটি, কণ্ঠনালি থেকে তিনটি, জিহবা থেকে দশটি, উভয় ঠোঁট থেকে দুইটি এবং নাসিকামূল থেকে একটি। এ পাঁচটি স্থান থেকেই ২৯টি হরফ উচ্চারিত হয়। আরবি ২৯টি হরফের মাখরাজ অর্থাৎ উচ্চারণ স্থান সঠিক না হলে আরবির অর্থ পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এতে গুনাহ হয়। উদ্দীপকেও মাওলানা ইলিয়াছ তাই যথার্থই এ প্রসঙ্গে বলেন, “আরবি বর্ণমালা ও এর উচ্চারণ যথার্থ হতে হবে।”
প্রশ্ন- ৪  সূরা ফাতিহার তাৎপর্য

মাওলানা আঃ বাতেন ওয়াজ মাহফিলে দাঁড়িয়ে মুসলি­দের একটি সূরার ফজিলত সম্পর্কে বলেন, এ সূরাটি হলো কুরআনের সর্বপ্রথম সূরা। প্রত্যেক নামাযে এ সূরাটি পাঠ করতে হয়। এ সূরা ব্যতীত নামায হয় না।
ক. ফাতিহা শব্দের অর্থ কী? ১
খ. সূরা ফাতিহার নাম আল ফাতিহা রাখা হয়েছে কেন? ২
গ. উদ্দীপকের মাওলানা আঃ বাতেন কোন সূরাটির প্রতি ইঙ্গিত করেছেন। ব্যাখ্যা দাও। ৩
ঘ. তুমি কি মনে কর, উদ্দীপকের সূরা খুবই তাৎপর্যপূর্ণ? মতামত দাও। ৪

ক ফাতিহা শব্দের অর্থ ভ‚মিকা, মুখবন্ধ, দ্বার উন্মোচন করা ইত্যাদি।
খ ফাতিহা শব্দের অর্থ ভ‚মিকা, মুখবন্ধ, দ্বার উন্মোচনকারী ইত্যাদি। যেহেতু এ সূরার মাধ্যমে কুরআনুল কারিম শুরু করা হয়, সেজন্য এ সূরাটির নাম রাখা হয়েছে আল ফাতিহা। একে ফাতিহাতুল কিতাব বা ফাতিহাতুল কুরআনও বলা হয়। অর্থাৎ কিতাব বা কুরআনের ভ‚মিকা।
গ উদ্দীপকে মাওলানা আঃ বাতেন যে সূরাটির প্রতি ইঙ্গিত করেছেন তা হলো সূরা ফাতিহা। সূরা আল ফাতিহা কুরআনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সূরা যা প্রত্যেক নামাযে পাঠ করতে হয়। ফাতিহা শব্দের অর্থ ভ‚মিকা, মুখ বন্ধ, দ্বার উšে§াচনকারী। যেহেতু এ সূরার মাধ্যমে কুরআনে করিম শুরু করা হয় সে জন্য এ সূরার নাম আল ফাতিহা। একে কুরআনের ভ‚মিকাও বলা হয়। এ সূরার শুরুতে মহান আল্লাহর প্রশংসা করা হয়েছে। এ সূরাটি পাঠের মাধ্যমে আমরা আল্লাহর ক্ষমা ও কুদরতের কথা জানতে পারি। উদ্দীপকে মাওলানা আঃ বাতেন ওয়াজ মাহফিলে বলেন, এ সূরাটি হলো কুরআনের সর্বপ্রথম সূরা। প্রত্যেক নামাযে এ সূরাটি পাঠ করতে হয়। এ সূরা ব্যতীত নামায হয় না। সুতরাং উদ্দীপকের মাওলানা আঃ বাতেন সূরা ফাতিহার প্রতি ইঙ্গিত করেছেন।
ঘ উদ্দীপকে আলোচিত সূরাটিকে আমি খুবই তাৎপর্যপূর্ণ সূরা মনে করি। কেননা আল কুরআনের সর্বপ্রথম এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এ সূরাটি মক্কায় অবতীর্ণ হয়। এ সূরায় সম্পূর্ণ কুরআনের সারসংক্ষেপ বর্ণনা করা হয়েছে। এই সূরার প্রথম তিন আয়াতে আল্লাহ তায়ালার সীমাহীন কুদরত ও ক্ষমতার কথা বলা হয়েছে এবং মধ্যবর্তী আয়াতে বলা হয়েছে যে, মানুষ শুধু তাঁরই ইবাদত করবে এবং তাঁরই নিকট সাহায্য চাইবে। কেননা তিনিই ইবাদতের যোগ্য। আর তিনি ব্যতীত সাহায্যকারী কেউ নেই। এ সূরার শেষ তিন আয়াতে আল্লাহ তায়ালার নিকট মানুষের প্রার্থনা ও মুনাজাত বর্ণিত হয়েছে। উদ্দীপকেও দেখা যায়, মাওলানা আঃ বাতেন ওয়াজ মাহফিলে দাঁড়িয়ে মুসলি­দের একটি সূরার ফযিলত সম্পর্কে বলেন, এ সূরাটি হলো কুরআনের সর্বপ্রথম সূরা। প্রত্যেক নামাযে এ সূরাটি পাঠ করতে হয়। এ সূরা ব্যতীত নামায হয় না। উপরিউক্ত আলোচনায় বলা যায় যে, এ সূরা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।
প্রশ্ন- ৫  সূরা নাসের তাৎপর্য

পবিত্র কুরআন মানুষকে সঠিক পথের সন্ধান দিয়েছে। তবে এক্ষেত্রে শয়তান আমাদের প্রকাশ্য দুশমন। সে কুমন্ত্রণা দিয়ে আমাদেরকে বিপদগামী করে। শয়তান থেকে বাঁচতে কুরআন শরিফে কতিপয় সূরা আছে। সুতরাং এ সংক্রান্ত সূরা থেকে শিক্ষা নিয়ে শয়তানের কুমন্ত্রণা ও অনিষ্ট থেকে বেঁচে থাকার জন্য আল্লাহ তায়ালার নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করতে হবে।
ক. আল কুরআনের সর্বশেষ সূরা কোনটি? ১
খ. শয়তান মানুষকে কীভাবে ধোঁকা দেয়? ২
গ. উদ্দীপকে কোন সূরার প্রতি ইঙ্গিত করেছেন? ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. উদ্দীপকের সূরাটি অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ- বিশ্লেষণ কর। ৪

ক আল কুরআনের সর্বশেষ সূরা হলো “সূরা আন-নাস”।
খ শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন। সে গোপনে, প্রকাশ্যে, ঘুমন্ত অবস্থায়, জাগ্রত অবস্থায় সব সময় মানুষকে কুমন্ত্রণা দিয়ে থাকে। তার কাজই হলো কুমন্ত্রণা দিয়ে মানুষকে বিপদগামী করা। সে মানুষের অন্তরে কুমন্ত্রণা ঢেলে দেয়। এভাবেই শয়তান মানুষকে ধোঁকা দেয়।
গ উদ্দীপকে সূরা নাসের প্রতি ইঙ্গিত করেছেন। আমরা জানি, পবিত্র কুরআনের সর্বশেষ অর্থাৎ ১১৪তম সূরা হলো আন-নাস। কুরআনের অন্যান্য সূরায় মানুষকে সঠিক পথের সন্ধান দেওয়া হয়েছে। কিন্তু শয়তান মানুষকে সঠিক পথ থেকে বিরত রাখতে চায়। তাই এ সূরায় আল্লাহ তায়ালার নিকট শয়তান থেকে আশ্রয় চাওয়ার শিক্ষা প্রদান করা হয়েছে এবং আল্লাহর তিনটি গুণের কথা উল্লেখ রয়েছে। এগুলো হলো রব, মালিক ও ইলাহ। এছাড়াও সূরাটির শেষে শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে বেঁচে থাকার জন্য মহান আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করা হয়েছে। উদ্দীপকেও আমরা দেখতে পাই, শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন। সে বিভিন্নভাবে মানুষকে ধোঁকা দেয়। অর্থাৎ উদ্দীপকে সূরা নাসের প্রতি ইঙ্গিত করা হয়েছে।
ঘ উদ্দীপকের সূরা নাস অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। কেননা, আল্লাহ তায়ালাই মানুষের রব, মালিক ও ইলাহ। তিনি ব্যতীত আর কেউ এ তিনটি গুণের অধিকারী নয়। শয়তান মানুষের প্রকাশ্য দুশমন। সে গোপনে, প্রকাশ্যে, ঘুমন্ত অবস্থায়, জাগ্রত অবস্থায় সবসময় মানুষকে কুমন্ত্রণা দিয়ে বিপদগামী করে। শয়তান শুধু জিনই নয়, বরং মানুষের মধ্যেও শয়তান রয়েছে, যারা মানুষকে দীন থেকে দূরে সরিয়ে নেয়। এজন্য এ সূরায় শয়তানের সকল কুমন্ত্রণা ও অনিষ্ট থেকে বেঁচে থাকার জন্য আল্লাহ তা‘য়ালার নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করার শিক্ষা দেওয়া হয়েছে। সুতরাং, নাস সূরা থেকে শিক্ষা নিয়ে শয়তানের কুমন্ত্রণা ও অনিষ্ট থেকে বেঁচে থাকার জন্য আল্লাহ তা‘য়ালার নিকট আশ্রয় প্রার্থনা করতে হবে। বস্তুত শয়তানের কুমন্ত্রণা থেকে বাঁচার এবং আল্লাহর রহমত পাবার জন্য সূরা নাস অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।
প্রশ্ন- ৬  হাদিসের গুরুত্ব

সায়েম ও তারেক ঘনিষ্ঠ বন্ধু। একদিন তাদের মাঝে একটি বিষয় নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়। ফলে তাদের মাঝে ঝগড়ার সৃষ্টি হয় তারা প্রথমে কুরআনের মাধ্যমে বিষয়টি মীমাংসা করার চেষ্টা করে। কিন্তু কুরআনের মাধ্যমে সমাধান করা গেল না। ফলে ইসলামের দ্বিতীয় উৎসের অনুসরণ করে এবং বিষয়টি মীমাংসা করে। অবশেষে তাদের মাঝে দ্ব›েদ্বর অবসান ঘটে। [মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজ, ঢাকা
ক. সর্বপ্রথম কোন সূরা অবতীর্ণ হয়? ১
খ. হাদিস বলতে কী বোঝায়? ব্যাখ্যা কর। ২
গ. উদ্দীপকে দু’বন্ধু তাদের ঝগড়া যার অনুসরণে মীমাংসা করল তা ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. ইসলামি শরিয়তের উক্ত উৎসের প্রয়োজনীয়তা কতটুকু? পাঠ্যপুস্তকের আলোকে বিশ্লেষণ কর। ৪

ক সর্বপ্রথম সূরা ফাতিহা অবতীর্ণ হয়।
খ মহানবি (স.)-এর বাণী, কাজ ও অনুমোদনকে হাদিস বলা হয়। অর্থাৎ আমাদের প্রিয় নবি (স.) যা কিছু বলেছেন, যেসব কাজ করেছেন আর যেসব কাজ সাহাবিগণ তাঁর সামনে করেছেন কিন্তু তিনি তাদের নিষেধ না করে মৌন সম্মতি দিয়েছেন, তাকে হাদিস বলে। হাদিসের অপর নাম হলো সুন্নাহ।
গ উদ্দীপকে দু’বন্ধু তাদের ঝগড়া হাদিসের অনুসরণ করে মীমাংসা করল। মহানবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর কথা, কাজ ও অনুমোদনকে হাদিস বলা হয়। অর্থাৎ আমাদের প্রিয় নবি (স.) যা বলতেন তাই হাদিস। তিনি যে সমস্ত কাজ করেছেন তাও হাদিস। আর যে সমস্ত কাজ সাহাবিগণ তাঁর সামনে করেছেন কিন্তু তিনি তাদের নিষেধ করেননি। বরং ঐ সমস্ত কাজে মৌনসম্মতি দিয়েছেন এগুলোও হাদিস। সাহাবিগণ রাসূল (স.)-এর সব রকম হাদিসই সংরক্ষণ করতেন। পরবর্তীতে মুহাদ্দিসগণ রাসূল (স.)-এর সকল হাদিস লিপিবদ্ধ করে রাখেন। আর এভাবে আমরা মহানবি (স.)-এর হাদিস লাভ করি।
ঘ উদ্দীপকের ইঙ্গিতপূর্ণ বিষয় অর্থাৎ ইসলামি শরিয়তের দ্বিতীয় উৎস হিসেবে হাদিসের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। মূলত হাদিস হলো আল কুরআনের ব্যাখ্যাস্বরূপ। আল কুরআনে আল্লাহ তায়ালা মানুষকে নানা নির্দেশ দিয়েছেন। অত:পর নবি করীম (স.) হাদিসসের মাধ্যমে তা মানুষের নিকট বিশ্লেষণ করেছেন। যেমন আল কুরআনে সালাত আদায় করার কথা বলা হলেও কীভাবে তা আদায় করতে হবে সে সম্পর্কে কিছু বলা হয়নি। আর মহানবি (স.)-এর হাদিসে আমরা এগুলো পাই। রাসূলল্লাহ (স.) এসব নিয়ম কানুন আমাদের বলে দিয়েছেন। তিনি নিজে সালাত আদায় করে আমাদের হাতে কলমে শিক্ষা দিয়েছেন। এজন্য হাদিস অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া আল্লাহ বলেন, “রাসুল তোমাদের যা দেন তা তোমরা গ্রহণ কর। আর যা নিষেধ করেন তা থেকে বিরত থাক” (সূরা আল-হাশর : ৭) অতএব, রাসুল (স.)-এর হাদিস আমরা পাঠ করব এবং তদনুযায়ী আমল কর।
 অনুশীলনের জন্য সৃজনশীল প্রশ্নব্যাংক (উত্তরসংকেতসহ)
প্রশ্ন- ৭  সূরা আল-আসর

আল্লাহ পবিত্র কুরআনে বলেন মহাকালের শপথ। নিশ্চয়ই মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত। কিন্তু তারা নয়, যারা ইমান আনে ও সৎকর্ম করে এবং পরস্পরকে সত্যের উপদেশ দেয় ও ধৈর্যের উপদেশ দেয়। কিন্তু দেখা যায়, সাবিয়া কখনও কারও ক্ষতি করে না। এমন কি অন্যায়ের প্রতিবাদও করে না। কাউকে কোন সৎ পরামর্শ পর্যন্ত দেয় না।
ক. উম্মুল কুরআন অর্থ কী? ১
খ. ‘মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত’ বলতে কী বোঝানো হয়েছে? ২
গ. পবিত্র কুরআনের আলোকে সাবিয়ার সামাজিক দায়িত্ব পালন হয়েছে কি না ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. উদ্দীপকে নির্দেশিত সূরার শিক্ষা সমাজে কতটুকু প্রয়োজন? আলোচনা কর। ৪

ক উম্মুল কুরআন অর্থ কুরআনের জননী।
খ সূরা আসরের ‘মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত’ বলতে আল্লাহপাক বোঝাতে চেয়েছেন যে, মানুষ সৎ পথ ভুলে গিয়ে বিপথে পরিচালিত হচ্ছে। ফলে মানুষকে কিয়ামতের দিন কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। এখানে সেসব ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কথা বলা হয়েছে যারা মহান আল্লাহ পাকের প্রতি ইমান আনে নি এবং যারা সৎ কর্ম করে না, একে অপরকে সত্যের উপদেশ দেয় না ও ধৈর্যের উপদেশ দান করে না।
ঢ-পষঁংরাব লিংক : প্রয়োগ (গ) ও উচ্চতর দক্ষতার (ঘ) প্রশ্নের উত্তরের জন্য অনুরূপ যে প্রশ্নের উত্তর জানা থাকতে হবে
গ সামাজিক দায়িত্ব পালনে সূরা আল-আসরের গুরুত্ব বর্ণনা কর।
ঘ সূরা আল-আসরের শিক্ষার প্রয়োজনীয়তা আলোচনা কর।
প্রশ্ন- ৮  মাখরাজ

সাইমুন প্রতিদিন মক্তব্যে গিয়ে কুরআন তিলাওয়াত শেখে। তার ভাই মাহিন মাদরাসায় পড়ে। একদিন ভোরে সাইমুন সূরা ফাতিহা দেখে দেখে তিলাওয়াত করছিল। মাহিন শুনতে পেল সাইমুনের মাখরাজ ঠিক হচ্ছে না। সে সাইমুনের ভুলগুলো ধরিয়ে দিল।
ক. নাযিরা তিলাওয়াত কী? ১
খ. মাখরাজ বলতে কী বোঝ? ২
গ. সাইমুন আরবি হরফগুলো কীভাবে আদায় করবে ব্যাখ্যা কর। ৩
ঘ. মাহিনের কাজটি কি সঠিক হয়েছে? তোমার মতামতসহ বিশ্লেষণ কর। ৪

ক আল-কুরআন দেখে দেখে পড়াকে বলা হয় নাযিরা তিলাওয়াত।
খ মাখরাজ শব্দের অর্থ বের হওয়ার স্থান, উচ্চারণের স্থান। আরবি হরফসমূহ মুখের যে স্থান থেকে উচ্চারিত হয় সে স্থানকে মাখরাজ বলা হয়।
ঢ-পষঁংরাব লিংক : প্রয়োগ (গ) ও উচ্চতর দক্ষতার (ঘ) প্রশ্নের উত্তরের জন্য অনুরূপ যে প্রশ্নের উত্তর জানা থাকতে হবে
গ মাখরাজের পরিচয় বর্ণনা কর।
ঘ কুরআন তিলাওয়াতে মাখরাজের গুরুত্ব আলোচনা কর।

জ্ঞান ও অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর

 জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তর 
প্রশ্ন \ ১ \ কুরআন মজিদ কী?
উত্তর : মহান আল­াহর সবশ্রেষ্ঠ আসমানি কিতাব।
প্রশ্ন \ ২ \ কার ওপর কুরআন মজিদ নাযিল হয়?
উত্তর : হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর ওপর কুরআন মজিদ নাযিল হয়।
প্রশ্ন \ ৩ \ কুরআনের প্রথম কোন সূরা নাযিল হয়?
উত্তর : সূরা আলাকের পাঁচ আয়াত নাযিল হয়।
প্রশ্ন \ ৪ \ নাযিরা তিলাওয়াত কাকে বলে?
উত্তর : আল কুরআন দেখে দেখে পড়াকে নাযিরা তিলাওয়াত বলে।
প্রশ্ন \ ৫ \ কুরআন কোন ভাষায় নাযিল হয়েছে?
উত্তর : কুরআন আরবি ভাষায় নাযিল হয়েছে।
প্রশ্ন \ ৬ \ মাখরাজ শব্দের অর্থ কী?
উত্তর : উচ্চারণ স্থান বা বের হওয়ার স্থান।
প্রশ্ন \ ৭ \ হাদিস কাকে বলে?
উত্তর : মহানবি হযরত মুহাম্মদ (স.)-এর বাণী, কাজ ও অনুমোদনকে হাদিস বলা হয়।
 অনুধাবনমূলক প্রশ্ন ও উত্তর 
প্রশ্ন \ ১ \ কুরআন তিলাওয়াতের গুরুত্ব বর্ণনা কর।
উত্তর : কুরআন মজিদ তিলাওয়াতের গুরুত্ব অনেক। এটি আমাদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ। কুরআনে মানুষের দিকনির্দেশনা উলে­খ করা হয়েছে। কুরআন তিলাওয়াতে মাধ্যমে আল্লাহর আদেশ-নিষেধ জানতে পারা যায়। সুতরাং আমাদের বেশি বেশি করে বুঝে কুরআন তিলাওয়াত করা উচিত।
প্রশ্ন \ ২ \ তাজবিদের গুরুত্ব বর্ণনা কর।
উত্তর : তাজবিদ অনুযায়ী কুরআন পড়া ওয়াজিব বা আবশ্যক। তাজবিদ অনুসারে কুরআন না পড়লে গুনাহ হয়। এতে অনেক সময় কুরআনের অর্থ পরিবর্তন হয়ে যায়। আর অশুদ্ধভাবে নামাযের মধ্যে তিলাওয়াত করলে নামায শুদ্ধ হয় না। সুতরাং তাজবিদ অনুসারে শুদ্ধ ও সুন্দরভাবে তিলাওয়াত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
প্রশ্ন \ ৩ \ আমরা কার জীবন অনুসরণ করব?
উত্তর : আমরা কথাবার্তায়, কাজকর্মে হযরত মুহাম্মদ (স.) কে অনুসরণ করব। কারণ তাঁর চরিত্র অনুসরণ করলে নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ লঙ্ঘিত হবে না এবং এর দ্বারা আমরা প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠব।

 

Share to help others:

Leave a Reply