চতুর্থ শ্রেণির বাংলা বড় রাজা ছোট রাজা অনুশীলনী, অতিরিক্ত ও মডেল টেস্ট প্রশ্ন উত্তর

বড় রাজা ছোট রাজা
 গল্পটি পড়ে জানতে পারব
 অহংকারের পরিণাম সম্পর্কে
 অল্পতে তুষ্ট থাকার গুরুত্ব সম্পর্কে
 ‘শক্তির চেয়ে বুদ্ধি বড়’-এ বিষয়টি সম্পর্কে
 গল্পটির মূলভাব জেনে নিই
গল্পটিতে প্রকাশিত হয়েছে দুইজন রাজার কথা। বড় রাজা প্রায় সারা পৃথিবী জয় করে ফেলেছেন। তবু তাঁর আরও রাজ্য চাই। ছোট রাজার অতি ছোট রাজ্যটিও নিজের অধিকারে নিতে তিনি যুদ্ধে চললেন। শেষ পর্যন্ত ছোট রাজার বুদ্ধিমত্তার কাছে বড় রাজার শক্তির হার হলো।
 বানানগুলো লক্ষ করি
রাজত্ব, পুঁটলি, দূত, অণুবীক্ষণ, মন্ত্রী, মন্ত্রণা, টুঁটি, মৌমাছি, হুল, যন্ত্রণা, ফাঁপরে, সন্ধি।
অনুশীলনীর প্রশ্ন ও উত্তর

১. শব্দগুলো পাঠ থেকে খুঁজে বের করি। অর্থ বলি।
দিগ্বিজয়, সেনাপতি, রাজত্ব, জয়ঢাক, চর, দূত, অগোচর, খাপ্পা, মন্ত্রণা, অণুবীক্ষণ, ফৌজ, অস্ত্র, সন্ধি, রথ-রথী, ঝুপঝাপ, রাজ্য, মুঠো।
উত্তর :
শব্দ অর্থ
দিগ্বিজয় Ñ চারদিকের নানান জায়গা জয় করা।
সেনাপতি Ñ সেনাদলের প্রধান, প্রধান সৈনিক।
রাজত্ব Ñ রাজার শাসন যেখানে চালু আছে।
জয়ঢাক Ñ জয়ী হওয়ার পর যে ঢাক (একধরনের বাদ্য) বাজানো হয়।
চর Ñ গোপন খবর সংগ্রহ করে দেন যিনি। যুদ্ধের কৌশল হিসেবে এই চর নিয়োগ করা হয়।
দূত Ñ বার্তাবাহক।
অগোচর Ñ চোখের আড়ালে থাকা।
খাপ্পা Ñ রাগান্বিত হওয়া।
মন্ত্রণা Ñ পরামর্শ।
অণুবীক্ষণ Ñ চোখে দেখা যায় না এরকম জিনিস দেখার যন্ত্র।
ফৌজ Ñ সৈনিক।
অস্ত্র Ñ হাতিয়ার।
সন্ধি Ñ চুক্তি হওয়া, বন্ধুত্ব।
রথ-রথী Ñ রথে চড়ে যুদ্ধ করেন যিনি।
ঝুপঝাপ Ñ পতনের শব্দ।
রাজ্য Ñ রাষ্ট্র, যে দেশে পৃথক শাসন-ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠিত আছে।
মুঠো Ñ মুষ্ঠি।
২. ঘরের ভিতরের শব্দগুলো খালি জায়গায় বসিয়ে বাক্য তৈরি করি।
ফাঁপরে অন্যত্র আন্দাজ দিগ্বিজয় রাজসিংহাসনে
ক. সমস্ত ছোট রাজ্য জয় করে রাজা …… বসলেন।
খ. রাজার খামখেয়ালিতে মন্ত্রী মহা …….. পড়লেন।
গ. রাজা ……… করে এসেছেন।
ঘ. শিকারের খোঁজে রাজা ………. যাচ্ছেন।
ঙ. রাজ্য জয়ের আনন্দে চারিদিকে …….. বাজছে।
চ. রাজা ……… করলেন ছোট রাজা পালিয়ে যেতে পারেন।
উত্তর :
ক. সমস্ত ছোট রাজ্য জয় করে রাজা রাজসিংহাসনে বসলেন।
খ. রাজার খামখেয়ালিতে মন্ত্র মহা ফাঁপরে পড়লেন।
গ. রাজা দিগ্বিজয় করে এসেছেন।
ঘ. শিকারের খোঁজে রাজা অন্যত্র যাচ্ছেন।
ঙ. রাজ্য জয়ের আনন্দে চারিদিকে জয়ঢাক বাজছে।
চ. রাজা আন্দাজ করলেন ছোট রাজা পালিয়ে যেতে পারেন।
৩. যুক্তবর্ণগুলো দেখি ও যুক্তবর্ণ দিয়ে গঠিত শব্দগুলো পড়ি ও লিখি।
মস্ত স্ত স ত আস্ত, গোস্ত

বন্দুক ন্দ ন দ নিন্দুক, বিন্দু

রাজ্য জ্য জ ্য (য-ফলা) জ্যাকেট, জ্যামিতি

ক্রমে ক্র ক ্র (র-ফলা) চক্র, বক্র

খাপ্পা প্প প প ধাপ্পা, বেখাপ্পা
৪. বাক্য রচনা করি।
রাজ্য চর রথ মুঠো রাজসিংহাসন
উত্তর :
রাজ্য Ñ রাজা পাশের রাজ্যে গিয়েছেন।
চর Ñ চরের কাছে গোপন খবর থাকে।
রথ Ñ সেনাপতি রথে চড়লেন।
মুঠো Ñ বাবু চকলেটটি মুঠোতে রেখেছে।
রাজসিংহাসন Ñ রাজা রাজসিংহাসনে বসলেন।
৫. বাম পাশের শব্দাংশের সাথে ডান পাশের ঠিক শব্দাংশ মিলিয়ে বাক্য পড়ি ও লিখি।
বড় রাজা আর ছোট রাজা Ñ সেখানে হাতি চলে না, ঘোড়া চলে না।
ক্রমে ক্রমে মস্ত বড় এই পৃথিবী Ñ ঢোল হয়ে উঠল।
ছোট শহর এতটাই ছোট যে Ñ বড় জিনিসকেই লক্ষ করে।
বড় রাজার আঙুল ফুলে Ñ বড় রাজা জয় করে ফেললেন।
বড় বড় অস্ত্র Ñ দিগ্বিজয় করতে চললেন।
উত্তর :
বড় রাজা আর ছোট রাজা দিগ্বিজয় করতে চললেন।
ক্রমে ক্রমে মস্ত বড় এই পৃথিবী বড় রাজা জয় করে ফেললেন।
ছোট শহর এতটাই ছোট যে সেখানে হাতি চলে না, ঘোড়া চলে না।
বড় রাজার আঙুল ফুলে ঢোল হয়ে উঠল।
বড় বড় অস্ত্র বড় জিনিসকেই লক্ষ করে।
৬. একই শব্দের ভিন্ন অর্থ শিখি ও বাক্য তৈরি করি।
চর Ñ দূত
চর Ñ নদীর চর
চলা Ñ পায়ে হাঁটা
চলা Ñ চালিত হওয়া
উত্তর :
চর Ñ দূত Ñ চর খবর নিয়ে এসেছে।
চর Ñ নদীর চর Ñ চরে কাশফুল ফুটেছে।
চলা Ñ পায়ে হাঁটা Ñ চলার সময় পায়ে ব্যথা পেলাম।
চলা Ñ চালিত হওয়া Ñ শিক্ষকের কথা মেনে চলা উচিত।
৭. প্রশ্নগুলোর উত্তর বলি ও লিখি।
ক) বড় রাজা কীভাবে রাজ্য জয় করতে বের হলেন?
উত্তর : বড় রাজা মহাসমারোহে রাজ্য জয় করতে বের হলেন। সাথে নিলেন বড় বড় হাতি, ঘোড়া, কামান, বন্দুক। মস্ত জয়ঢাক পিটিয়ে, বড় বড় সেনাপতির সঙ্গে বড় বড় রাজ্য জয় করতে গেলেন তিনি।
খ) বড় রাজা ছোট রাজার উপর রেগে গেলেন কেন?
উত্তর : বড় রাজা যুদ্ধ করতে এসে ছোট রাজার কৌশলের কাছে ধরাশায়ী হলেন। তাই তিনি সন্ধির প্রস্তাব করলেন। বুদ্ধিমান ছোট রাজা কথার মাধ্যমেও বড় রাজাকে কুপোকাৎ করলেন। এ কারণে বড় রাজা ছোট রাজার উপর রেগে গেলেন।
গ) বড় রাজা কেন ছোট রাজ্যকে জয় করতে পারলেন না?
উত্তর : ছোট রাজার রাজ্য এতই ছোট যে তা খালি চোখে দেখা যায় না। ছোট রাজার ফৌজের কৌশলের সাথে বড় রাজার সৈন্যরা পেরে উঠল না। নিজেদের ছোড়া অস্ত্রে নিজেরাই আক্রান্ত হতে লাগল। এজন্য বড় রাজা ছোট রাজ্যটিকে জয় করতে পারলেন না।
ঘ) বড় রাজা কেন সন্ধি করতে চাইলেন?
উত্তর : বড় রাজা যুদ্ধ করতে গিয়ে ছোট রাজার বুদ্ধির কাছে নাস্তানাবুদ হলেন। রাজার বড় বড় মন্ত্রী, সেনাপতি সবাই ফাঁপরে পড়ে গেল। শেষমেশ উপায় খুঁজে না পেয়ে বড় রাজা সন্ধি করতে চাইলেন।
ঙ) বড় রাজা আর ছোট রাজার মধ্যে তোমার কাকে বেশি পছন্দ? কেন?
উত্তর : বড় রাজা আর ছোট রাজার মধ্যে আমার ছোট রাজাকেই বেশি পছন্দ।
ছোট রাজা তাঁর ছোট রাজ্য নিয়েই সন্তুষ্ট। বড় রাজার মতো তিনি বিনা কারণে যুদ্ধ করতে চান না। তাঁর কথায় ও কাজে অসাধারণ বুদ্ধিমত্তার পরিচয় পাওয়া যায়। এসব কারণেই ছোট রাজাকে আমার বেশি ভালো লাগে।
৮. অল্প কথায় গল্পটা বলি।
উত্তর : বড় রাজা আর ছোট রাজা। দুজনে বের হলেন দিগ্বিজয় করতে। বড় রাজা বড় বড় হাতি-ঘোড়া, কামান-বন্দুক আর সেনাপতিকে সাথে নিয়ে বড় বড় রাজ্য জয় করতে চললেন। অন্যদিকে ছোট রাজা চললেন সাধারণ মানুষের সাজে। ছোট ছোট খেলবার কামান-বন্দুক, হাতি-ঘোড়া তাঁর সম্বল। তিনি চললেন ছোট রাজ্য জয় করতে। বড় রাজা পৃথিবীর সব রাজ্য জয় করে ফেলেছেন। এমন সময় তার চোখ পড়ল ছোট রাজার জয় করা ছোট রাজ্যের উপর। সে রাজ্য এতই ছোট যে খালি চোখে দেখা যায় না। বড় রাজা আবার মস্ত সব হাতি-ঘোড়া, সৈন্য-সামন্ত নিয়ে ছুটলেন রাজ্যটি জয় করতে। কিন্তু ছোট রাজার ফৌজ এতই ক্ষুদ্র যে সেনাপতির পায়ের তলা দিয়ে তারা গলে পালায়। বড় রাজার তীর কামান কোনো কাজেই এলো না বরং সেগুলো তাদের উপরই ঝুপঝাপ এসে পড়তে লাগল। অবস্থা বেগতিক দেখে বড় রাজা সন্ধি করতে চাইলেন। কিন্তু ছোট রাজার কৌশলী কথায় বড় রাজা গেলেন রেগে। সন্ধির কথা ভুলে গিয়ে তিনি ছোট রাজা আর-তাঁর সমস্ত রাজ্যটাকে তুলে নিলেন হাতের মুঠোয়। কিন্তু ছোট রাজা, রাজপুরী, সমস্তই তাঁর হাত গলে বেরিয়ে গেল। আর মৌমাছির হুলের মতো কী যেন একটা বিঁধে বড় রাজার বুড়ো আঙুলটা ফুলে ঢোল হয়ে উঠল।
৯. কর্ম-অনুশীলন।
ক. শক্তির চেয়ে বুদ্ধির জোর বেশি-বিষয়টি নিয়ে শিক্ষকের সহায়তায় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করি।
উত্তর : প্রথমে শিক্ষকের সহায়তা নিয়ে দুটি দলে ভাগ হয়ে নাও। এক পক্ষ ‘শক্তির চেয়ে বুদ্ধির জোর বেশি’ এ বিষয়ে যুক্তি তুলে ধরবে। আরেক পক্ষ তাদের যুক্তি ভুল প্রমাণ করার চেষ্টা করবে। শিক্ষক পুরো বিষয়টি পরিচালনা ও বিজয়ী পক্ষ নির্বাচনের দায়িত্বে থাকবেন।
খ. বড় রাজা এবং ছোট রাজার ভ‚মিকায় অভিনয় করে দেখাই।
উত্তর : শিক্ষকের সহায়তা নিয়ে নিজেরা চেষ্টা কর।

অতিরিক্ত প্রশ্ন ও উত্তর

 সঠিক উত্তরটি লেখ।
১) বড় রাজা ও ছোট রাজা কী কাজে চললেন? ছ
ক বিদ্যা অর্জনে খ রাজ্য জয়ে
গ রাজকন্যাকে উদ্ধারে
ঘ যুদ্ধের কৌশল শিখতে
২) ছোট রাজা কিসের সাজে চললেন? জ
ক সৈনিকের সাজে খ রাজার সাজে
গ সাধারণ মানুষের সাজে ঘ রাজপুত্রের সাজে
৩) বড় রাজা ছিলেন Ñ ঝ
ক নিরহংকার খ নির্লোভ
গ বুদ্ধিমান ঘ লোভী
৪) বড় রাজার দূত ছোট রাজার রাজ্য দেখতে পেল না কেন? জ
ক রাজ্যটি হঠাৎ অদৃশ্য হয়ে যাওয়ায়
খ দূত অন্ধ হয়ে যাওয়ায়
গ রাজ্য অত্যন্ত ক্ষুদ্র হওয়ায়
ঘ রাস্তা ভুল করে ফেলায়
৫) বড় রাজার মস্ত হাতি ঘোড়াগুলো ছোট রাজার রাজ্যেÑ চ
ক কোনো কাজেই এলো না
খ দাপিয়ে বেড়াল
গ ভয়ে ঢুকল না
ঘ ধ্বংসযজ্ঞ চালাল
৬) যুদ্ধের জন্য বড় রাজার মন্ত্রীরা চোখে কী লাগানোর বুদ্ধি দিল? জ
ক চশমা খ মলম
গ অণুবীক্ষণ ঘ কাজল
৭) ছোট রাজা বড় রাজার সাথে Ñ জ
ক বন্ধুত্ব করলেন খ সন্ধি করলেন
গ সন্ধি করলেন না ঘ কথা বললেন না
৮) ছোট রাজা কেমন ছিলেন? জ
ক বোকা খ অহংকারী
গ বুদ্ধিমান ঘ লোভী
 নিচের শব্দগুলোর অর্থ লেখ।
অন্যত্র, আন্দাজ, রথ, ফাঁপর, টুঁটি।
উত্তর : শব্দ অর্থ
অন্যত্র Ñ অন্য স্থানে।
আন্দাজ Ñ অনুমান, ধারণা।
রথ Ñ চাকা লাগানো প্রাচীন যুদ্ধযান।
ফাঁপর Ñ বিপদ, সমস্যা।
টুঁটি Ñ কণ্ঠনালি।
 নিচের শব্দগুলো দিয়ে বাক্য রচনা কর।
পুঁটলি, ক্রমে, প্রবেশ, যন্ত্রণা।
উত্তর :
শব্দ বাক্য
পুঁটলি Ñ ভিক্ষুকটি টাকাগুলো পুঁটলিতে রাখছে।
ক্রমে Ñ খুকুর জ্বর ক্রমেই বাড়ছে।
প্রবেশ Ñ ছাত্ররা ক্লাসে প্রবেশ করেছে।
যন্ত্রণা Ñ সকাল থেকেই পেটের যন্ত্রণায় ভুগছি।
 নিচের যুক্তবর্ণগুলো কোন কোন বর্ণ দিয়ে গঠিত ভেঙে দেখাও এবং প্রতিটি যুক্তবর্ণ দিয়ে একটি করে শব্দ গঠন করে বাক্যে প্রয়োগ দেখাও।
স্ত, ত্ব, ন্ত্র, জ্য।
উত্তর :
স্ত = স + ত Ñ অস্ত
Ñ সূর্য পশ্চিমে অস্ত যায়।
ত্ব = ত + ব Ñ ত্বক
Ñ ফল খেলে ত্বক ভালো থাকে।
ন্ত্র = ন + ত + র-ফলা ( ্র ) Ñ গণতন্ত্র
Ñ বাংলাদেশে গণতন্ত্র চালু আছে।
জ্য = জ + য-ফলা ( ্য ) Ñ বিভাজ্য
Ñ দশে পাঁচ দুইবার বিভাজ্য।
 শূন্যস্থান পূরণ কর।
ক) বড় রাজা হাত খুলে দেখলেন মুঠো ।
খ)  অগোচর সে-রাজত্ব।
গ) যন্ত্রণায় বড় রাজার আঙুলটা দেখতে দেখতে ফুলে  হয়ে উঠল।
ঘ)  পায়ের তলা দিয়ে ছোট রাজার ফৌজ গলে পালাল।
ঙ) দুজনে একদিন  করতে চললেন।
উত্তর : ক) খালি; খ) চক্ষুর; গ) ঢোল; ঘ) সেনাপতির; ঙ) দিগ্বিজয়।
 নিচের বানানগুলো শুদ্ধ করে লেখ।
আঙ্গুল, দিগ্বিযয়, রাজত্ত, মন্ত্রনা, অনুবীক্ষণ।
উত্তর : ভুল বানান শুদ্ধ বানান
আঙ্গুল Ñ আঙুল
দিগ্বিযয় Ñ দিগ্বিজয়
রাজত্ত Ñ রাজত্ব
মন্ত্রনা Ñ মন্ত্রণা
অনুবীক্ষণ Ñ অণুবীক্ষণ
 এককথায় প্রকাশ কর।
ক) চারদিকের নানান জায়গা জয় করা।
খ) সেনাদলের প্রধান।
গ) চোখের আড়ালে থাকা।
ঘ) রাজার শাসন যেখানে চালু আছে।
ঙ) সুখে আছেন যিনি।
উত্তর : ক) দিগ্বিজয়; খ) সেনাপ্রধান; গ) অগোচর;
ঘ) রাজত্ব; ঙ) সুখী।
 নিচের শব্দগুলোর কোনটি কোন পদ লেখ।
চলা, দূত, খাপ্পা, দেখা, তাকে।
উত্তর : মূল শব্দ পদ
চলা Ñ ক্রিয়া
দূত Ñ বিশেষ্য
খাপ্পা Ñ বিশেষণ
দেখা Ñ ক্রিয়া
তাকে Ñ সর্বনাম
 নিচের শব্দগুলোর বিপরীত শব্দ লেখ।
সাধারণ, পেছনে, অগোচর, কঠিন, প্রবেশ।
উত্তর : মূল শব্দ বিপরীত শব্দ
সাধারণ Ñ অসাধারণ
পেছনে Ñ সামনে
অগোচর Ñ গোচর
কঠিন Ñ সহজ
প্রবেশ Ñ বাহির
 নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
ক) ছোট রাজা কীভাবে রাজ্য জয় করতে বের হলেন?
উত্তর : ছোট রাজা সাধারণ মানুষের সাজে ছোট রাজ্য জয় করতে বের হলেন। সাথে ছোট একটি পুঁটলিতে নিলেন ছোট ছোট কামান-বন্দুক আর হাতি-ঘোড়া।
খ) চর বড় রাজাকে কী খবর এনে দিল?
উত্তর : চর বড় রাজাকে খবর দিল যে ছোট রাজা তাঁর ছোট রাজ্য নিয়ে সুখে রয়েছেন।
গ) বড় রাজা কীভাবে ছোট রাজার রাজ্য জয় করতে গেলেন?
উত্তর : বড় রাজা মস্ত মস্ত হাতি-ঘোড়া আর রথ-রথী সঙ্গে নিয়ে পৃথিবী কাঁপিয়ে ছোট রাজার রাজ্য জয় করতে গেলেন।
ঘ) মন্ত্রীরা কেন চোখে অণুবীক্ষণ লাগানোর পরামর্শ দিল?
উত্তর : অণুবীক্ষণ হচ্ছে এমন একটি যন্ত্র যা দিয়ে খালি চোখে দেখা সম্ভব নয় এমন জিনিসও দেখা যায়। ছোট রাজার রাজ্য এতই ছোট ছিল যে তা খালি চোখে দেখাই যাচ্ছিল না। বড় রাজার মন্ত্রীরা তাই চোখে অণুবীক্ষণ লাগানোর পরামর্শ দিলেন।
ঙ) বড় রাজা ছোট রাজাকে মুঠোয় পুরলে কী ঘটল?
উত্তর : বড় রাজা ছোট রাজাকে তাঁর রাজত্বসহ কষে হাতের মুঠোয় চেপে ধরলেন। কিন্তু সবই বড় রাজার মোটা মোটা আঙুলের ফাঁক দিয়ে পানির মতো গলে বাইরে বেরিয়ে গেল।

প্রাথমিক সমাপনী নমুনা প্রশ্ন ও উত্তর

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ১, ২, ৩ ও ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর লেখ।
বড় রাজা মস্ত মস্ত হাতি-ঘোড়া, রথ-রথী নিয়ে চললেন পৃথিবী কাঁপিয়ে। কিন্তু ছোট শহর এতটাই ছোট যে সেখানে হাতি চলে না, ঘোড়া চলে না। মন্ত্রীরা মন্ত্রণা দিল- সবাই চোখে অণুবীক্ষণ লাগিয়ে যুদ্ধে চলো! সেনাপতি বললেন, ‘এতে করে চোখ চলবে, গোলাগুলি চলার উপায় হবে না।’ রাজা বললেন, ‘দেখাই যাক-না!’ যুদ্ধ বাধল-সেনাপতির পায়ের তলা দিয়ে ছোট রাজার ফৌজ গলে পালাল। তীর-কামান আন্দাজ করতে না পেরে বাতাসে হানা দিতে থাকল, নয়তো আকাশে ঝুপঝাপ বড় রাজার ছাউনির উপর পড়তে লাগল। বড় বড় অস্ত্র- সেসব অস্ত্র বড় জিনিসকেই লক্ষ করে। ছোটকে দেখতে পায় না। বড় রাজা, বড় বড় মন্ত্রী, বড় বড় সেনাপতি ফাঁপরে পড়ে গেলেন। ছোট রাজার সঙ্গে সন্ধি করতে চাইলেন।
১. সঠিক উত্তরটি উত্তরপত্রে লেখ।
১) মন্ত্রীরা কী পরামর্শ দিল?
(ক) ছোট রাজার রাজত্ব আক্রমণ করার
(খ) চোখে অণুবীক্ষণ লাগানোর
(গ) সন্ধি করার
(ঘ) বড় বড় অস্ত্র সংগ্রহের
২) রাজার হাতি-ঘোড়া কেমন ছিল?
(ক) বিশাল বড় বড় (খ) ছোট ছোট
(গ) অনেক ছোট ছোট (ঘ) বড় বড়
৩) ছোট রাজার রাজত্বে বড় রাজার হাতি-ঘোড়া চলে না কেন?
(ক) ক্লান্ত হয়ে যাওয়ায়
(খ) চালক না থাকায়
(গ) রাস্তা না থাকায়
(ঘ) রাজ্য অত্যন্ত ক্ষুদ্র হওয়ায়
৪) বড় রাজা ছোট রাজার সাথেÑ
(ক) যুদ্ধে জিতে গেলেন
(খ) যুদ্ধ করলেন না
(গ) বন্ধুত্ব করতে চাইলেন
(ঘ) দেখা করতে এলেন
৫) ‘চক্ষু’ শব্দটির সমার্থক নিচের কোনটি?
(ক) নাক (খ) নয়ন
(গ) স্বপ্ন (ঘ) চিন্তা
উত্তর : ১) (খ) চোখে অণুবীক্ষণ লাগানোর;
২) (ক) বিশাল বড় বড়; ৩) (ঘ) রাজ্য অত্যন্ত ক্ষুদ্র হওয়ায়; ৪) (গ) বন্ধুত্ব করতে চাইলেন; ৫) (খ) নয়ন।
২. নিচের শব্দগুলোর অর্থ লেখ।
ফৌজ, অস্ত্র, দূত, অগোচর, খাপ্পা।
উত্তর : শব্দ অর্থ
ফৌজ Ñ সৈনিক।
অস্ত্র Ñ হাতিয়ার।
দূত Ñ বার্তাবাহক।
অগোচর Ñ চোখের আড়ালে থাকা।
খাপ্পা Ñ রাগান্বিত।
৩. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
ক) সেনাপতির পায়ের তলা দিয়ে কী গলে পালাল?
উত্তর : সেনাপতির পায়ের তলা দিয়ে ছোট রাজার ফৌজ গলে পালাল।
খ) বড় রাজা সন্ধি করতে চাওয়ার কারণ কী?
উত্তর : বড় রাজা যুদ্ধ করতে গিয়ে ছোট রাজার বুদ্ধির কাছে নাস্তানাবুদ হলেন। রাজার বড় বড় মন্ত্রী, সেনাপতি সবাই ফাঁপরে পড়ে গেল। শেষমেশ উপায় খুঁজে না পেয়ে বড় রাজা সন্ধি করতে চাইলেন।
গ) দূত এসে বড় রাজাকে কী খবর দিল?
উত্তর : দূত এসে বড় রাজাকে ছোট রাজার রাজ্যের খবর দিল। সে আরও বলল, রাজ্যটি এতই ছোট যে সেখানে প্রবেশ করা তো দূরের কথা চোখেই দেখা যায় না।
৪. অনুচ্ছেদটির মূলভাব লেখ।
উত্তর : বড় রাজা মহাসমারোহে চললেন ছোট রাজার রাজ্য জয় করতে। কিন্তু ছোট রাজার অতি ক্ষুদ্র রাজ্যে বড় বড় সব অস্ত্রশস্ত্র কোনো কাজেই এলো না। বড় রাজা, রাজার মন্ত্রী ও সেনাপতিরা ফাঁপরে পড়ে গেলেন। ছোট রাজার সাথে তাঁরা সন্ধি করতে চাইলেন।

এ অংশে পাঠ্য বই বহির্ভূত অনুচ্ছেদ/কবিতাংশ দেওয়া থাকবে। প্রদত্ত অনুচ্ছেদ/কবিতাংশটি পড়ে ৩ ধরনের প্রশ্নের উত্তর করতে হবে। এখানে থাকবেÑ (৫) বহুনির্বাচনি প্রশ্ন, (৬) শূন্যস্থান পূরণ ও (৭) প্রশ্নের উত্তর লিখন। প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর করতে হবে।
পাঠ্য বই বহির্ভূত অনুচ্ছেদ/কবিতাংশ পরীক্ষায় কমন পড়বে না। তাই এটি এখানে দেওয়া হলো না। তবে পরীক্ষার প্রশ্নের পূর্ণাঙ্গ নমুনা (ঋড়ৎসধঃ) বোঝার সুবিধার্থে বইয়ের প্রথম দুটি অধ্যায়ে পাঠ্য বই বহির্ভূত অংশটি সংযোজন করা হয়েছে।
৮. নিচের যুক্তবর্ণগুলো কোন কোন বর্ণ দিয়ে গঠিত ভেঙে দেখাও এবং প্রতিটি যুক্তবর্ণ দিয়ে একটি করে শব্দ গঠন করে বাক্যে প্রয়োগ দেখাও।
ক্র, পৃ, ঙ্গ, ন্দ, ক্ষ।
উত্তর :
ক্র = ক + র-ফলা ( ্র ) Ñ ক্রমিক
Ñ আমার ক্রমিক নং ০১।
পৃ = প + ঋ-কার ( ৃ ) Ñ পৃষ্ঠা
Ñ বইটিতে ১০০টি পৃষ্ঠা আছে।
ঙ্গ = ঙ + গ Ñ লুঙ্গি
Ñ দাদু লুঙ্গি পরেছেন।
ন্দ = ন +দ Ñ আনন্দ
Ñ ঈদে খুব আনন্দ করি।
ক্ষ = ক + ষ Ñ পরীক্ষা
Ñ কাল থেকে পরীক্ষা শুরু।
৯. সঠিক স্থানে বিরামচিহ্ন বসিয়ে অনুচ্ছেদটি আবার লেখ।
ছোট রাজা বললেন তাহলে এবারকার মতো এতটুকু জেনেই ঘরে চলে যান সকলে আরও কী জানতে চান
উত্তর : ছোট রাজা বললেন, ‘তাহলে এবারকার মতো এতটুকু জেনেই ঘরে চলে যান সকলে। আরও কী জানতে চান?’
১০. নিচের ক্রিয়াপদগুলোর চলিত রূপ লেখ।
চলিলেন, চাপিয়া, জানিতে, যাইব, লইয়াছি।
উত্তর : ক্রিয়াপদ চলিত রূপ
চলিলেন Ñ চললেন
চাপিয়া Ñ চেপে
জানিতে Ñ জানতে
যাইব Ñ যাব
লইয়াছি Ñ নিয়েছি
১১. নিচের শব্দগুলোর সমার্থক শব্দ লেখ।
পৃথিবী, বাতাস, চক্ষু, যন্ত্রণা, যুদ্ধ।
উত্তর : মূল শব্দ সমার্থক শব্দ
পৃথিবী Ñ বসুন্ধরা, ভুবন।
বাতাস Ñ পবন, বায়ু।
চক্ষু Ñ চোখ, নয়ন।
যন্ত্রণা Ñ ব্যথা, কষ্ট।
যুদ্ধ  রণ, সমর।
১২. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।
(গদ্যের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়)

প্রিয় জনের সাথে শেয়ার করুন

This Post Has One Comment

  1. Tasbeer

    This thing is so nice

Leave a Reply