এইচএসসি ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং দ্বাদশ অধ্যায় নৌ বিমা সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর

অধ্যায়-১২: নৌ বিমা

গুরুত্বপূর্ণ সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর

মমমপ্রশ্ন১ এমভি সাগরকন্যা নামে একটি জাহাজ ১ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ছেড়ে রিয়াদ বন্দরে যাবে বলে নৌ বিমার চুক্তিপত্রে লেখা ছিল। কিন্তু কোনো এক কারণে জাহাজটি ৩ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে যাত্রা করে। তারপর জাহাজের ক্যাপ্টেন নিজের ইচ্ছানুযায়ী যাত্রাপথ পরিবর্তন করেন। চলতে চলতে এক পর্যায়ে সমুদ্রের গভীরে থাকা একটি হিমবাহতে ধাক্কা লেগে জাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর বিমা কোম্পানির নিকট ক্ষতিপূরণ দাবি করলে বিমা কোম্পানি তা পরিশোধ করতে অপরাগতা প্রকাশ করে। [ঢা. বো. ১৭]
অ ক. জাহাজ বিমা কী? ১
অ খ. সমুদ্রে পণ্য নিক্ষেপণ কেন করা হয়? ২
অ গ. এমভি সাগরকন্যাকে কোন ধরনের নৌ বিপদ মোকাবিলা করতে হয়েছে? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. বিমা কোম্পানিটি বিমা দাবি প্রত্যাখানের যৌক্তিকতা বিশ্লেষণ করো। ৪
১ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক পণ্য পরিবহনে ব্যবহৃত জাহাজের সম্ভাব্য ক্ষতির বিপরীতে যে বিমা করা হয় তা হলো জাহাজ বিমা।
খ সামুদ্রিক ঝড়, জলোচ্ছ¡াস বা অন্যবিধ কারণে বিপদগ্রস্ত জাহাজকে হালকা করার জন্য পণ্য সমুদ্রে নিক্ষেপ করা হয়।
পণ্য নিক্ষেপ শুধু জাহাজ ও এর অধিকাংশ মালামালকে বিপদমুক্ত করার প্রয়োজনেই করা হয়ে থাকে। যা মানুষ সৃষ্ট বা অপ্রাকৃতিক বিপদ হিসেবে দেখা হয়। তবে সামুদ্রিক ক্ষতির ক্ষেত্রে পণ্য নিক্ষেপ আংশিক ক্ষতির সৃষ্টি করে।
গ উদ্দীপকের এমভি সাগরকন্যাকে প্রাকৃতিক নৌ বিপদ মোকাবেলা করতে হয়েছে।
সমুদ্রপথে জাহাজ চলাকালে প্রাকৃতিক কারণে সংঘটিত বিপর্যয় বা দুর্ঘটনাসমূহ হলো প্রাকৃতিক বিপদ। আকস্মিকভাবে এ ধরনের বিপদ ঘটায়, সতর্ক হওয়ার পূর্বেই অনেক সময় বিপদগ্রস্ত হতে হয়।
উদ্দীপকে এমভি সাগরকন্যা নামের একটি জাহাজ সমুদ্রে চলাচলকালে সমুদ্রের গভীরে নিমজ্জিত একটি হিমবাহতে ধাক্কা লাগে। যার ফলে জাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এক্ষেত্রে সাগর কন্যা জাহাজটি প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সম্মুখীন হয়েছে, যা নৌ বিমার ক্ষেত্রে প্রাকৃতিক বিপদের আওতাভুক্ত।
ঘ উদ্দীপকে নৌ বিমার ব্যক্ত শর্তাবলি ভঙ্গ হওয়ায় বিমা কোম্পানি কর্তৃক এমভি সাগরকন্যার বিমা দাবি প্রত্যাখ্যান করা যৌক্তিক হয়েছে।
নৌ বিমা একটি লিখিত আনুষ্ঠানিক চুক্তি। চুক্তিপত্রে উলে­খ্য শর্তসমূহ বিমাপত্রের জন্য ব্যক্ত শর্তাবলি। এটি ভঙ্গের কারণে বিমাকারী বিমা দাবি পরিশোধে অস্বীকৃতি জানাতে পারে।
উদ্দীপকের এমভি সাগরকন্যা নামে একটি জাহাজ নৌ বিমাপত্রের চুক্তিতে আবদ্ধ হয়। তবে চুক্তিপত্রে জাহাজটি ১ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ছেড়ে রিয়াদ বন্দরে যাবে বলে উলে­খ ছিল। কিন্তু জাহাজটি ৩ জানুয়ারি ২০১৭ তারিখে যাত্রা শুরু করে। পথিমধ্যে সমুদ্রে নিমজ্জিত হিমবাহতে ধাক্কা লেগে জাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
বিমাপত্রে উলি­খিত সমুদ্রযাত্রার তারিখ বিমাপত্রের জন্য একটি লিখিত শর্ত। অর্থাৎ যাত্রার তারিখ উভয়পক্ষের সম্মতিক্রমে নির্ধারিত হয় এবং তা চুক্তিপত্রে লিখিত থাকে। এই শর্ত ভঙ্গ হলে বিমাকারী বিমা দাবি পরিশোধে অস্বীকৃতি জানানোর অধিকার রাখে। তাই উলে­খ্য তথ্য বিশ্লেষণে বলা যায়, বিমা কোম্পানির বিমা দাবি প্রত্যাখ্যান যথার্থ হয়েছে।
মমমপ্রশ্ন২ কর্ণফুলি কোম্পানি লি. ৪৫ কোটি টাকা দামের একটি জাহাজ ‘ঢ’, ‘ণ’, ‘ত’ তিনটি বিমা কোম্পানির নিকট সমানমূল্যে বিমা করে। জাহাজটি অন্য একটি জাহাজের সাথে ধাক্কা লেগে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং মেরামত করতে ৯ কোটি টাকা খরচ হয়। কর্ণফুলি কোম্পানি লি. ‘ঢ’ বিমা কোম্পানির নিকট থেকে সম্পূর্ণ ক্ষতিপূরণ আদায় করে। পরবর্তীতে ‘ঢ’ বিমা কোম্পানি ‘ণ’ ও ‘ত’ বিমা কোম্পানির নিকট থেকে আনুপাতিক হারে ক্ষতিপূরণ দাবি করে। [রা. বো.; কু. বো. ১৭]
অ ক. নৌ বিমা কী? ১
অ খ. নৌ বিমা চুক্তিকে কেন ক্ষতিপূরণের চুক্তি বলা হয়? ব্যাখ্যা করো। ২
অ গ. কর্ণফুলি কোম্পানি লি. কোন ধরনের বিমা করেছে? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. উদ্দীপকে ‘ঢ’ কোম্পানি কর্তৃক ‘ণ’ ও ‘ত’ বিমা কোম্পানির নিকট ক্ষতিপূরণ দাবির যৌক্তিকতা মূল্যায়ন করো। ৪
২ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক নৌ বিমা হচ্ছে ক্ষতিপূরণের চুক্তি যেখানে নির্দিষ্ট প্রিমিয়ামের বিনিময়ে বিমাকারী নৌযাত্রায় ব্যবহৃত জাহাজ বা জাহাজে রক্ষিত পণ্য সামগ্রীর কোনো ক্ষতি হলে বিমাগ্রহীতাকে ক্ষতিপূরণের অঙ্গীকার প্রদান করে।
খ যে বিমা চুক্তি অনুযায়ী বিমাকারী প্রতিষ্ঠান বিমাগ্রহীতাকে শুধু ক্ষতিপূরণ দেয় তাকে ক্ষতিপূরণের চুক্তি বলা হয়।
নৌ বিমা চুক্তিতে বিমাকৃত বিষয়বস্তুর কোনো ক্ষতি হলে বিমাকারী প্রতিষ্ঠান বিমাগ্রহীতাকে ক্ষতিপূরণ প্রদানে বাধ্য থাকে। তবে শুধু যতটুকু ক্ষতি হয় নৌ বিমা তা পূরণ করে বিধায় একে ক্ষতিপূরণের চুক্তি বলা হয়।
গ উদ্দীপকে কর্ণফুলী কো. লি. বৃহৎ ঝুঁকির বিমা করেছে।
এই বিমাপত্রের ক্ষেত্রে একাধিক বিমা কোম্পানি একত্রিত হয়ে বৃহৎ অঙ্কের নৌ বিমার দায়িত্ব গ্রহণ করে। উক্ত বিমা কোম্পানিগুলো চুক্তি অনুযায়ী দায় পরিশোধে বাধ্য থাকে।
উদ্দীপকে কর্ণফুলী কোম্পানি ৪৫ কোটি টাকার একটি জাহাজ তিন বিমা কোম্পানির (ঢ, ণ, ত) কাছে বিমা করে। এখানে প্রতিটি বিমা কোম্পানির নিকট সমানমূল্যে বিমা চুক্তি করা হয়েছে। তাই বিমাকৃত জাহাজটির ক্ষতি হলে তিনটি বিমা কোম্পানি সমানভাবে ক্ষতিপূরণ বহন করবে। সাধারণত বৃহৎ ঝুঁকির বিমাপত্রের ক্ষেত্রে অনেকগুলো বিমা কোম্পানি একত্রিত হয়ে একটি বিমা চুক্তি করে থাকে। এখানেও তিনটি বিমা কোম্পানি একত্রিত হয়ে ৪৫ কোটি টাকার বিমাচুক্তি করেছে। সুতরাং বলা যায়, কর্ণফুলী কোম্পানি বৃহৎ ঝুঁকির বিমা করেছে।
ঘ নৌ বিমার আনুপাতিক অংশগ্রহণের (চৎড়ঢ়ড়ৎঃরড়হধঃব পড়হঃৎরনঁঃরড়হ) নীতি অনুযায়ী ‘ঢ’ কোম্পানি ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে যা সম্পূর্ণ যৌক্তিক।
এই নীতি অনুযায়ী একটি সম্পত্তি একাধিক কোম্পানির নিকট বিমা করা হলে প্রতিটি কোম্পানি আনুপাতিক হারে ঐ সম্পদের ক্ষতিপূরণ প্রদানে বাধ্য থাকবে।
উদ্দীপকে তিনটি কোম্পানি একত্রিত হয়ে কর্ণফুলী কোম্পানির সাথে জাহাজের জন্য বিমাচুক্তি করে। জাহাজটির সাথে অন্য জাহাজের ধাক্কা লাগার কারণে ৯ কোটি টাকা ক্ষতি হয়। ‘ঢ’ কোম্পানি সম্পূর্ণ ৯ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদান করে। পরবর্তীতে সেটি অন্য দুটি কোম্পানির কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করে।
এখানে প্রতিটি বিমাকারী প্রতিষ্ঠানের কাছে কর্ণফুলি কোম্পানি লি. সমানমূল্যে বিমা করায় ‘ঢ’ কোম্পানির মতো ‘ণ’ এবং ‘ত’ কোম্পানিও সমভাবে দায়বদ্ধ। তাই ৯ কোটি টাকার ক্ষতি তিনটি কোম্পানির মধ্যে সমান ভাগে ভাগ হবে। সুতরাং বলা যায় যে, ‘ঢ’ কোম্পানি যৌক্তিক দাবি করেছে।
মমমপ্রশ্ন৩ ‘ঢ’ ফার্মাসিউটিক্যাল লি. যুক্তরাজ্য থেকে কাঁচামাল আমদানির জন্য ‘মডার্ন শিপিং লাইনস’ এর সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়। আমদানিকৃত পণ্য সম্পূর্ণ বিমা করা হয়েছে এবং প্রিমিয়ামের টাকা সম্পূর্ণ পরিশোধ করা হয়েছে। যাত্রাপথে কোনো সমস্যা ছাড়াই মডার্ন শিপিং লাইনস এর জাহাজটি বন্দরে এসে পৌঁছে। [দি. বো. ১৭]
অ ক. দুর্ঘটনা বিমা কী? ১
অ খ. গবাদিপশু বিমা বলতে কী বোঝ? ২
অ গ. ‘ঢ’ ফার্মাসিউটিক্যাল লি.-এর বিমাপত্রটি ছিল কী ধরনের? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. ‘ঢ’ ফার্মাসিউটিক্যাল লি. প্রিমিয়ামের টাকা ফেরত পাবে কি? তোমার মতামতের সপক্ষে যুক্তি দাও। ৪
৩ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক অপ্রত্যাশিতভাবে ঘটে যাওয়া কোনো ঘটনার ফলে ব্যক্তির জীবন বা সম্পত্তির ক্ষতি হলে তা আর্থিকভাবে মোকাবিলা করার জন্য বিমাগ্রহীতা ও বিমাকারীর মধ্যে যে চুক্তি সম্পাদিত হয় তাকে দুর্ঘটনা বিমা বলে।
খ যে বিমা চুক্তিতে বিমাকারী গবাদি পশুর মৃত্যুজনিত ক্ষতি আর্থিকভাবে মোকাবিলা করার নিশ্চয়তা প্রদান করে তাকে গবাদি পশু বিমা বলে।
গবাদি পশু বিমার ক্ষেত্রে বিমাগ্রহীতা ও বিমাকারী উভয়পক্ষ পরম বিশ্বাসের নীতি মেনে বিমাচুক্তি সম্পাদন করে। এ ক্ষেত্রে বিমাপত্রে উলি­খিত কোনো রোগে বা দুর্ঘটনায় গবাদি পশুর মৃত্যু হলে বিমাকারী ক্ষতিপূরণ প্রদান করে থাকে। গবাদি পশু বিমার চুক্তির মেয়াদ সর্বোচ্চ এক বছর হয়ে থাকে।
গ উদ্দীপকে ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল লি. আমাদনিকৃত সম্পূর্ণ পণ্যের জন্য বিমা করায় গৃহীত বিমাপত্রটি নৌ বিমার আওতাভুক্ত পণ্য বিমা।
এ বিমা কেবল জাহাজ বোঝাই পণ্য ক্ষতিগ্রস্ত হলে পণ্যের ক্ষতিপূরণের জন্য করা হয়। পণ্য বিমা নির্দিষ্ট সমুদ্র যাত্রার জন্য অর্থাৎ মালামাল পৌঁছানো পর্যন্ত সময়ের জন্য গৃহীত হয়।
উদ্দীপকে ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল লি. যুক্তরাজ্য থেকে কাঁচামাল আমদানির জন্য মডার্ণ শিপিং লাইনস এর সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়। মডার্ণ শিপিং লাইনস একটি জাহাজ ভাড়া প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান। এক্ষেত্রে ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল আমদানি কাজে ব্যবহৃত জাহাজের সম্পূর্ণ পণ্যের জন্য একটি বিমাপত্র গ্রহণ করে। যার প্রিমিয়ামও সম্পূর্ণ রূপে পরিশোধ করে। অর্থাৎ ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল সমুদ্র পথে আগত পণ্যের সম্ভাব্য ঝুঁকি নিরসনে বিমাপত্রটি গ্রহণ করেছে। যার সম্পূর্ণ বা আংশিক ক্ষতিতে বিমাকারী প্রতিষ্ঠান ক্ষতিপূরণে বাধ্য থাকবে।
ঘ উদ্দীপকে ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল লি. গৃহীত পণ্য বিমার বিপরীতে প্রদত্ত প্রিমিয়ামের টাকা ঝুঁকি গ্রহণের মূল্য হওয়ায় তা ফেরত পাবে না।
বিমা চুক্তিতে প্রিমিয়াম হলো ঝুঁকি গ্রহণের প্রতিদান মূল্য। অর্থাৎ বিমাকারী নির্দিষ্ট একটি অর্থের বিনিময়ে বিমাকৃত বিষয়বস্তুর সম্ভাব্য ঝুঁকি গ্রহণ করে। এক্ষেত্রে ঝুঁকি দ্বারা সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হলে বিমাকারী ক্ষতিপূরণ করলেও কোনো প্রকার ক্ষতি সংঘটিত না হলে প্রিমিয়ামের অর্থ ফেরত প্রদান করে না।
উদ্দীপকে ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল লি. যুক্তরাজ্য হতে পণ্যের কাঁচামাল আমদানি করে। এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানটি আমদানি কাজে ব্যবহৃত জাহাজের পণ্যের জন্য নৌ বিমার আওতাভুক্ত একটি পণ্য বিমা করে। এতে নির্ধারিত প্রিমিয়ামের সম্পূর্ণ অংশই ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল প্রদান করে। তবে কোনো প্রকার সমস্যা ছাড়াই জাহাজটি বন্দরে এসে পৌঁছে।
উদ্দীপকে ঢ ফার্মাসিউটিক্যাল ও বিমাকারী প্রতিষ্ঠান উক্ত যাত্রাপথের জন্যই মূলত চুক্তিবদ্ধ ছিল। এ যাত্রাপথে বহনকৃত পণ্যের কোনোরূপ ক্ষতিতে বিমাকারী প্রতিষ্ঠান ক্ষতিপূরণে বাধ্য ছিল। তবে কোনোরূপ ক্ষতি সংঘটিত না হওয়ায় বিমা চুক্তিটি নিষ্পত্তি হয়, যাতে উভয়পক্ষ কোনো প্রকার অর্থ গ্রহণের যোগ্য দাবিদার নন।
মমমপ্রশ্ন৪ সোনারতরী শিপিং কোম্পানি লিমিটেড ‘মেরিনা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি’ এর কাছে তার পাঁচটি জাহাজকে একটি বিমাপত্রের আওতায় রেখে দুই বৎসরের জন্য একটি চুক্তি করে। চুক্তি অনুযার্য়ী জাহাজ কোম্পানি প্রতিটি জাহাজ যাত্রার সময় বিমা কোম্পানিকে অবহিত করবে। সম্প্রতি একটি জাহাজ যাত্রার সময় বিমা কোম্পানিকে অবহিত করে। কিন্তু যাত্রাকালে জাহাজের নাবিক দ্রুত গন্তব্য পৌঁছানোর জন্য নির্ধারিত পথে না গিয়ে যাত্রাপথ পরিবর্তন করে। এক সময় সমুদ্রের গভীরে নিমজ্জিত হিমবাহতে ধাক্কা লেগে জাহাজটির তলাদেশ ক্ষয়প্রাপ্ত হয় এবং সেটি অচল হয়ে পড়ে। বিমা কোম্পানির নিকট ক্ষতিপূরণ দাবি করলে তা প্রত্যাখ্যাত হয়। [চ. বো. ১৭]
অ ক. নৌ-বিমা কী? ১
অ খ. পণ্য নিক্ষেপণ বলতে কী বোঝ? ২
অ গ. উদ্দীপকে উলি­খিত বিমাপত্রটি কোন ধরনের? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. বিমা কোম্পানির বিমা দাবি প্রত্যাখ্যানের যৌক্তিকতা বিশ্লেষণ করো। ৪
৪ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক নৌ বিমা হচ্ছে ক্ষতিপূরণের চুক্তি যেখানে নির্দিষ্ট প্রিমিয়ামের বিনিময়ে বিমাকারী নৌযাত্রায় ব্যবহৃত জাহাজ বা জাহাজে রক্ষিত পণ্যসামগ্রীর কোনো ক্ষতি হলে বিমাগ্রহীতাকে ক্ষতিপূরণের অঙ্গীকার প্রদান করে।
উদাহরণ : রামিসা কর্পোরেশন-এর একটি জাহাজ মংলা বন্দর থেকে হংকং বন্দরের উদ্দেশ্যে রওনা হবে। ফলে রামিসা কর্পোরেশন-এর মালিক সানসাইন ইন্স্যুরেন্স-এর সাথে একটি নৌবিমা চুক্তি সম্পাদন করে। যাত্রাকালীন সময়ে জাহাজ ও জাহাজে পণ্য পরিবহনের সম্ভাব্য ঝুঁকি মোকাবিলার জন্য উক্ত বিমা করা হয়।
খ জাহাজ বা জাহাজস্থ পণ্যকে বড় কোনো বিপদের হাত থেকে রক্ষা করতে পরিবাহিত পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে ফেলে দেয়াকে পণ্য নিক্ষেপণ বলে।
এর মুখ্য উদ্দেশ্য হলো পণ্যবাহী জাহাজকে কিছুটা হালকা করে ডুবে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা। বিমাকারী আনুপাতিক হারে বিমাগ্রহীতাকে এর জন্য ক্ষতিপূরণ প্রদান করে।
গ উদ্দীপকে উলি­খিত বিমাপত্রটি ভাসমান বিমাপত্র।
ভাসমান বিমাপত্রে একাধিক জাহাজ নির্দিষ্ট সময়ের জন্য একটি বিমাপত্রের আওতায় বিমা করা হয়। এ বিমাপত্রে সকল জাহাজের অবস্থা, মান ও মূল্য বিবেচনা করে বিমাকৃত অঙ্ক নির্ধারণ করা হয়।
উদ্দীপকে সোনারতরী শিপিং কোম্পানি লিমিটেড মেরিনা ইন্সুরেন্স কোম্পানির নিকট পাঁচটি জাহাজের জন্য একটি বিমাপত্র গ্রহণ করে। উক্ত বিমাপত্রটি দুই বছরের জন্য করা হয়। চুক্তি অনুযায়ী জাহাজ কোম্পানি প্রতিটি জাহাজ যাত্রার সময় বিমা কোম্পানিকে অবহিত করবে। অর্থাৎ সোনার তরী কোম্পানি কর্তৃক গৃহীত বিমাপত্রের বৈশিষ্ট্য ভাসমান বিমা পত্রের বৈশিষ্ট্যের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। সুতরাং, সোনার তরী কোম্পানির গৃহীত বিমাপত্রটি হলো ভাসমান বিমাপত্র।
ঘ উদ্দীপকে নৌ-বিমা চুক্তির অব্যক্ত শর্ত ভঙ্গ করায় বিমা কোম্পানি কর্তৃক বিমা দাবি প্রত্যাখান করেছে – এক্ষেত্রে প্রত্যাখ্যানের বিষয়টি যৌক্তিক।
অব্যক্ত শর্ত বলতে লিখিতভাবে প্রকাশ করা হয়নি অথচ আইন অনুযায়ী পালনীয় এমন শর্তকে বোঝায়। জাহাজের সমুদ্রে চলাচলযোগ্যতা, যাত্রার বৈধতা, যাত্রাপথ পরিবর্তন না করা ইত্যাদি নৌ-বিমার অব্যক্ত শর্তাবলির অন্তর্ভুক্ত।
উদ্দীপকে সোনারতরী শিপিং কোম্পানি ভাসমান বিমাপত্রের আওতায় একাধিক জাহাজ দুই বছরের জন্য বিমা করে। দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছানোর জন্য জাহাজের নাবিক নির্ধারিত পথে না গিয়ে যাত্রাপথ পরিবর্তন করে। এক সময় জাহাজটি নিমজ্জিত হিমবাহতে ধাক্কা লাগার কারণে জাহাজের তলদেশ ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে অচল হয়ে পড়ে। পরবর্তীতে বিমা দাবি করলে বিমা কোম্পানি ক্ষতিপূরণ প্রদানে অস্বীকৃতি জানায়।
নৌ-বিমা চুক্তির শর্তানুযায়ী সোনার তারী শিপিং কোম্পানিকে কিছু শর্ত অবশ্যই পালন করতে হবে। ‘যাত্রা পথ পরিবর্তন না করা’ তার মধ্যে উলে­খযোগ্য একটি শর্ত। উদ্দীপকে জাহাজের নাবিক দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছানোর জন্য যাত্রাপথ পরিবর্তন করে। এতে নৌ-বিমা চুক্তির ‘যাত্রাপথ পরিবর্তন না করা’ নামক শর্তটি ভঙ্গ করা হয়েছে। অব্যক্ত শর্ত ভঙ্গ করলে আইন অনুযায়ী বিমা কোম্পানি বিমা চুক্তি বাতিল করতে পারে। অতএব, বিমা কোম্পানি কর্তৃক সোনার তারী শিপিং কোম্পানিকে ক্ষতিপূরণ প্রদানে অস্বীকৃতি জানানো যৌক্তিক হয়েছে।

মমমপ্রশ্ন৫ ‘বেঙ্গল শিপিং’ এর মালিক জনাব মামুন তার ৫টি জাহাজ ০১-০১-২০১৬ থেকে ৩০-০৬-২০১৬ তারিখ পর্যন্ত সময়ের জন্য ‘কর্ণফুলী ইন্সুরেন্স কোম্পানির’ নিকট একই বিমাপত্রের অধীনে বিমা করেন। উক্ত সময়ের মধ্যে সিঙ্গাপুর সমুদ্র বন্দর থেকে চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরে ফেরার পথে ‘বেঙ্গল শিপিং’ এর বিমাকৃত একটি জাহাজ সামুদ্রিক ঝড়ের মুখোমুখি হয়ে ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়। বিপদগ্রস্ত জাহাজটিকে বিপদমুক্ত করার লক্ষ্যে জাহাজে বোঝাইকৃত কিছু মালামাল সমুদ্রে নিক্ষেপ করলে জাহাজটি রক্ষা পায়। পরবর্তীতে ‘বেঙ্গল শিপিং’ ‘কর্ণফুলী ইন্সুরেন্স কোম্পানির’ নিকট সমুদ্রে নিক্ষিপ্ত পণ্যের সম্পূর্ণ ক্ষতিপূরণ দাবি করলে বিমা কোম্পানিটি আনুপাতিক হারে ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হবে বলে জানিয়ে দেয়। [সি. বো. ১৭]
অ ক. নৌ-বিপদ কী? ১
অ খ. জেটিসনের ফলে কোন ধরনের সামুদ্রিক ক্ষতির উদ্ভব হয়? ব্যাখ্যা করো। ২
অ গ. ‘বেঙ্গল শিপিং’ কর্তৃক গৃহীত বিমাপত্রটি কোন ধরনের নৌ বিমাপত্র? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. ‘কর্ণফুলী বিমা কোম্পানি’ কর্তৃক আনুপাতিক হারে ক্ষতিপূরণ প্রদানের সিদ্ধান্ত কতটুকু যৌক্তিক? উদ্দীপকের আলোকে তোমার মতামত দাও। ৪
৫ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক সমুদ্রপথে যে সকল বিপদের কারণে জাহাজ, জাহাজস্থিত পণ্য ও মাশুলের ক্ষতি হয় তাকে নৌ-বিপদ বলে।
খ জাহাজ ও জাহাজস্থিত পণ্যকে বড় ধরনের বিপদ থেকে রক্ষার জন্য পরিবহনকৃত পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে নিক্ষেপ করাকেই পণ্য নিক্ষেপণ বা জেটিসন বলে।
এরূপ পণ্য নিক্ষেপণের উদ্দেশ্য হলো পণ্যবাহী জাহাজকে কিছুটা হালকা করে ডুবে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা। পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে ফেলায় আংশিক সামগ্রিক ক্ষতির উদ্ভব হয়।
গ উদ্দীপকে বেঙ্গল শিপিং কর্তৃক গৃহীত বিমাপত্রটি ভাসমান নৌ বিমাপত্র।
এ ধরনের বিমাপত্রে একই মালিক বা প্রতিষ্ঠানের একাধিক জাহাজ নির্দিষ্ট সময়ের জন্য একটি বিমাপত্রের আওতায় বিমা করা হয়। এক্ষেত্রে যেকোনো জাহাজের ক্ষতিতে আনুপাতিক হারে ক্ষতির মূল্য নির্ধারিত হয়।
উদ্দীপকে বেঙ্গল শিপিং এর মালিক জনাব মামুন তার ৫টি জাহাজের জন্য কর্ণফুলী ইন্সুরেন্স কোম্পানির নিকট হতে একটি বিমাপত্র গ্রহণ করেন। উক্ত বিমাপত্রটি ছয় মাসের জন্য গৃহীত হয়। অর্থাৎ জনাব মামুন তার মালিকানাধীন ৫টি জাহাজের ঝুঁকিকে একটি বিমাপত্র দ্বারা প্রতিরক্ষার ব্যবস্থা নিয়েছেন। এটি মূলত নৌ বিমার ভাসমান বিমাপত্রের মূল বিষয়।
ঘ উদ্দীপকে পণ্য নিক্ষেপণে আংশিক ক্ষতি সৃষ্টি হওয়ায় কর্ণফুলী বিমা কোম্পানি কর্তৃক আনুপাতিক হারে ক্ষতিপূরণ প্রদান যৌক্তিক।
পণ্য নিক্ষেপণ এক ধরনের অপ্রাকৃতিক নৌ বিপদ। সামুদ্রিক ঝড়, জলোচ্ছ¡াস বা অন্যবিধ কারণে বিপদগ্রস্ত জাহাজকে হালকা করার জন্য সমুদ্রে পণ্য নিক্ষেপ করা হয়। মূলত সামগ্রিক ক্ষতির হাত থেকে জাহাজকে রক্ষার্থে এ ধরনের আংশিক ক্ষতির আশ্রয় নেয়া হয়।
উদ্দীপকে বেঙ্গল শিপিং তাদের ৫টি জাহাজের জন্য একটি ভাসমান নৌ বিমাপত্র গ্রহণ করে। বিমাপত্রের মেয়াদকাল ছয় মাস। উক্ত সময়ের মধ্যে সিঙ্গাপুর সমুদ্র বন্দর থেকে চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরে ফেরার পথে বিমাকৃত একটি জাহাজ সামুদ্রিক ঝড়ের সম্মুখীন হয়। বিপদগ্রস্ত জাহাজটিকে বিপদমুক্ত করার লক্ষ্যে জাহাজের কিছু পণ্য সমুদ্রে নিক্ষেপ করা হয়। ফলশ্র“তিতে জাহাজটি রক্ষা পায়। পরবর্তীতে বেঙ্গল শিপিং বিমাকারী প্রতিষ্ঠানের নিকট সমুদ্রে নিক্ষিপ্ত পণ্যের সম্পূর্ণ ক্ষতিপূরণ দাবি করলে বিমা কোম্পানিটি তা আনুপাতিক হারে প্রদানে সম্মত হয়।
বেঙ্গল শিপিং এর জাহাজটি আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অর্থাৎ সম্পূর্ণ জাহাজকে রক্ষার্থে এর আংশিক ক্ষতির উদ্ভব হয়েছে। এক্ষেত্রে বিমাকারী প্রতিষ্ঠান উক্ত ক্ষতি জাহাজের সকল সম্পত্তির ওপর আনুপাতিক হারে বণ্টন করে ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করবে।

মমমপ্রশ্ন৬ চট্টগ্রাম শিপিং লিমিটেড ২০১৬ সালে শুধু চট্টগ্রাম-লন্ডন রুটে পণ্য পরিবহনকারী তাদের তিনটি জাহাজ ‘পদ্মা’, ‘মেঘনা’ এবং ‘যমুনা’র জন্য ‘সীগাল বিমা’ কোম্পানির সাথে এক বছর মেয়াদি বিমা চুক্তি সম্পাদন করে। ২০১৬ সালের জুন মাসে ঝড়ো হাওয়ার কারণে ‘মেঘনা’ নামের জাহাজটি ডুবে যাওয়ার উপক্রম হলে জাহাজের ক্যাপ্টেন কিছু পণ্য সমুদ্রে নিক্ষেপ করেন। [য. বো. ১৭]
অ ক. নৌ বিমায় অব্যক্ত শর্ত কী? ১
অ খ. সামুদ্রিক ঝড় কোন ধরনের বিপদ? বুঝিয়ে লেখো। ২
অ গ. উদ্দীপকে চট্টগ্রাম শিপিং লিমিটেড কোন ধরনের নৌ বিমাপত্র গ্রহণ করেছেন? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. উদ্দীপকে ‘মেঘনা’ নামক জাহাজের ক্যাপ্টেনের পণ্য সমুদ্রে ফেলে দেয়ার সিদ্ধান্ত কতটুকু যৌক্তিক? তোমার উত্তরের সপক্ষে যুক্তি দাও। ৪
৬ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক নৌ বিমাচুক্তিতে যেসব শর্ত উহ্য থাকে (যেমন: জাহাজের সমুদ্রে চলাচল যোগ্যতা, যাত্রার বৈধতা, বিপথে গমন না করা, বিলম্বে যাত্রা, অপরিবর্তনীয় যাত্রা ইত্যাদি) এবং তা পালন না করলে সাধারণত চুক্তি বাতিল হয় তাকে অব্যক্ত শর্ত বলে।
খ সামুদ্রিক ঝড় প্রাকৃতিক নৌ বিপদ।
সমুদ্রপথে জাহাজ চলাকালে প্রাকৃতিক কারণে সংঘটিত বিপর্যয় বা দুর্ঘটনাসমূহ যেমন- সামুদ্রিক ঝড় ,সমুদ্র গর্ভে নিমজ্জিত পাহাড় বা ভাসমান বরফ খন্ডের সাথে ধাক্কা লাগা ইত্যাদি প্রাকৃতিক বিপদ নামে পরিচিত। এরূপ বিপদ থেকে উদ্ধার পাওয়ার বিষয়ে মানুষ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে কিন্তু প্রতিরোধ করতে পারে না।
গ উদ্দীপকে চট্টগ্রাম শিপিং লিমিটেড নৌ-বিমার যাত্রার বিমাপত্র গ্রহণ করেছে।
যাত্রার বিমাপত্রে মূলত নির্দিষ্ট যাত্রাপথের উলে­খ থাকে। এই নির্দিষ্ট যাত্রাপথে চলার সময় জাহাজ বা জাহাজস্থ পণ্যের ক্ষতি হলে এ বিমাপত্রের আওতায় ক্ষতিপূরণের নিশ্চয়তা দেয়া হয়।
উদ্দীপকে চট্টগ্রাম শিপিং লিমিটেড তাদের তিনটি জাহাজ ‘পদ্মা’, ‘মেঘনা’ এবং ‘যমুনা’র জন্য ‘সীগাল বিমা’কোম্পানি হতে নৌ-বিমাপত্র গ্রহণ করে। এ নৌ বিমাপত্রটি শুধু চট্টগ্রাম লন্ডন রুটে পণ্য পরিবহনের জন্য গৃহীত হয়। অর্থাৎ চট্টগ্রাম লন্ডন যাত্রাপথে কোনো ক্ষতি হলে এ বিমাপত্রের আওতায় ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হবে। তাই বলা যায়, চট্টগ্রাম শিপিং লিমিটেডের গৃহীত বিমাপত্রটি নৌবিমার যাত্রার বিমাপত্র।
ঘ বড় ধরনের ক্ষতি থেকে রক্ষার জন্য ‘মেঘনা’ নামক জাহাজের ক্যাপ্টেন কর্তৃক সমুদ্রে পণ্য ফেলে দেয়ার সিদ্ধান্তটি যৌক্তিক।
মূলত সামুদ্রিক ঝড়, জলোচ্ছ¡াস ইত্যাদি কারণে বিপদগ্রস্ত জাহাজকে হালকা করার জন্য সমুদ্রে কিছু পণ্য ফেলে দেয়া হয়। এরূপ পণ্য নিক্ষেপণকে ত্যাগ স্বীকার হিসেবে বিবেচনা করা হয়।
উদ্দীপকে চট্টগ্রাম শিপিং লিমিটেড তাদের তিনটি জাহাজ ‘পদ্মা’, ‘মেঘনা’ এবং ‘যমুনা’র জন্য একটি যাত্রার নৌ-বিমাপত্র গ্রহণ করে। ২০১৬ সালে জুন মাসে ঝড়ো হাওয়ার কারণে ‘মেঘনা’ নামের জাহাজটি ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়। তখন জাহাজের ক্যাপ্টেন জাহাজটিকে হালকা করার উদ্দেশ্য কিছু পণ্য সমুদ্রে নিক্ষেপ করেন।
মূলত জাহাজ যেন ডুবে না যায় সেজন্যই ক্যাপ্টেন পণ্য নিক্ষেপের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এভাবে কিছু পণ্য সমুদ্রে ফেলে না দিলে জাহাজটি ডুবে যেতে পারতো। এতে ক্ষতির পরিমাণ হতো অত্যাধিক। তবে এভাবে কিছু পণ্য সমুদ্রে ফেলে দেয়ায় ক্ষতির পরিমাণ ছিল সামান্য। সুতরাং এ সকল বিষয় বিবেচনায় বলা যায়, জাহাজের ক্যাপ্টেন কর্তৃক পণ্য নিক্ষেপণের সিদ্ধান্তটি সঠিক এবং যৌক্তিক।
মমমপ্রশ্ন৭ মি. রফিকুল চট্টগ্রাম বন্দর থেকে নিউয়র্কে চাল পাঠানোর জন্য একটি জাহাজ ভাড়া করেন। সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে চালের ক্ষতির ভয়ে তিনি একটি বিমাপত্র গ্রহণ করেন। জাহাজটি ডুবোচরে আটকে গেলে কয়েক বস্তা চাল সমুদ্রে ফেলে দিয়ে জাহাজটি বিপদমুক্ত করা হয়। বিমাকারীর নিকট চালের ক্ষতিপূরণ চেয়ে আবেদন করলে বিমাকারী তা প্রত্যাখ্যান করে। [ব. বো. ১৭]
অ ক. বিমা কী? ১
অ খ. স্বার্থ ছাড়া বিমা চুক্তিসম্পন্ন হয় না কেন? ব্যাখ্যা করো। ২
অ গ. উদ্দীপকে উলি­খিত বিমাপত্রটি কী ধরনের বিমাপত্র? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. মি. রফিকুল কি সমুদ্রে ফেলে দেয়া চালের ক্ষতিপূরণ পাবেন? ব্যাখ্যা করো। ৪
৭ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক বিমা হলো এক ধরনের লিখিত চুক্তি, যেখানে বিমাগ্রহীতা নির্দিষ্ট প্রিমিয়ামের বিনিময়ে তার সম্ভাব্য ঝুঁকি বা বিপদের ভার বিমাকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ওপর অর্পণ করে।
উদাহরণ : জনাব তাহমিদ একটি সুতার কারখানা স্থাপন করেন। তার কারখানার শ্রমিকদের কল্যাণের দায়িত্ব তার। এক্ষেত্রে জনাব তাহমিদ তার কারখানার সম্ভাব্য ঝুঁকি মোকাবিলায় এবং শ্রমিকদের নিরাপত্তা প্রদানে মুনলাইট বিমা কোম্পানি লি.-এর সাথে চুক্তিবদ্ধ হন।
খ সম্পদের ক্ষতিতে এর স্বার্থ সংশ্লিষ্ট পক্ষ কেবল আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ায় বিমা চুক্তি সম্পাদন করে এ ধরনের বিমাযোগ্য স্বার্থই হলো বিমাযোগ্য স্বার্থ।
এরূপ চুক্তিতে বিমাকৃত বিষয়বস্তুর ওপর বিমাগ্রহীতার আর্থিক স্বার্থ থাকা আবশ্যক। এরূপ স্বার্থ না থাকলে বিমা চুক্তি করা যায় না।
গ উদ্দীপকে উলে­খিত বিমাটি হলো নৌ বিমার অন্তর্ভুক্ত পণ্য বিমা।
পণ্য বিমা মূলত সামুদ্রিক বিপদের কারণে জাহাজে বোঝাইকৃত পণ্যের ক্ষতি হলে তার ক্ষতিপূরণের জন্য করা হয়। এ ধরনের বিমা নির্দিষ্ট সমুদ্রযাত্রার ক্ষেত্রে করা হয়ে থাকে।
উদ্দীপকে মি. রফিকুল চট্টগ্রাম বন্দর থেকে নিউইয়র্কে চাল পাঠানোর জন্য একটি জাহাজ ভাড়া করেন। সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে চালের ক্ষতির ভয়ে তিনি একটি বিমাপত্র গ্রহণ করেন। অর্থাৎ সামুদ্রিক বিপদের কারণে জাহাজে বোঝাইকৃত পণ্যের কোনো ক্ষতি হলে এ বিমার আওতায় তিনি ক্ষতিপূরণ পাবেন। এভাবে সমুদ্রযাত্রায় শুধু পণ্যের ক্ষতিতে ক্ষতিপূরণ পাওয়ার উদ্দেশ্যেই মি. রফিকুল পণ্য বিমাপত্র সংগ্রহ করেছেন।
ঘ উদ্দীপকে প্রত্যক্ষ কারণে ক্ষতি না হওয়ায় মি. রফিকুল সমুদ্রে ফেলে দেয়া চালের ক্ষতিপূরণ পাবেন না।
বিমা চুক্তিপত্রে কোন কোন কারণে সৃষ্ট ঝুঁকির ক্ষতিপূরণ করা হবে তার সুস্পষ্ট উলে­খ থাকে। পরবর্তীতে উক্ত কারণ বিচার-বিশ্লেষণ করে বিমাগ্রহীতাকে ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হয়।
উদ্দীপকে মি. রফিকুল চট্টগ্রাম বন্দর থেকে নিউইয়র্কে চাল পাঠানোর জন্য একটি জাহাজ ভাড়া করেন। সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে চালের ক্ষতির কথা ভেবে তিনি পণ্য বিমাপত্র গ্রহণ করেন। যাত্রাপথে জাহাজটি ডুবোচরে আটকে যায়। পরবর্তীতে কয়েক বস্তা চাল সমুদ্রে ফেলে দিয়ে জাহাজকে বিপদমুক্ত করা হয়।
উদ্দীপকে বিমা চুক্তি অনুযায়ী সামুদ্রিক ঝড়ের বিপরীতে তিনি পণ্য বিমা করেন। কিন্তু যাত্রাপথে জাহাজটি ডুবোচরে আটকে যায়। অর্থাৎ বিমা চুক্তির প্রত্যক্ষ কারণে চালের ক্ষতি হয়নি। সুতরাং, উলি­খিত কারণেই বিমা ব্যবসায়ের মূলনীতি নীতি অনুযায়ী মি. রফিকুল ক্ষতিপূরণ পাবেন না।

মমমপ্রশ্ন৮ এম. ভি. সুরমা মংলা হতে ২০,০০০ মেট্রিক টন চাল নিয়ে চীনের উদ্দেশে রওনা হয়। পথিমধ্যে জাহাজ কর্তৃপক্ষ আগাম ঘূর্ণিঝড়ের বার্তা পেয়ে জাহাজটি নিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি বন্দরে আশ্রয় নেয় এবং ঐ বন্দরে চলাচলকৃত জাহাজের ধাক্কায় এম.ভি. সুরমার ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। পরবর্তীতে জাহাজটি বিমা কোম্পানির নিকট ক্ষতিপূরণ দাবি করলে বিমা কোম্পানির ঘূর্ণিঝড়ে অবস্থানকৃত বন্দরটির গতিপথকে কেন্দ্র করে বিমা দাবি অস্বীকার করে। [ঢা. বো. ১৬]
অ ক. নৌ বিমা কী? ১
অ খ. পণ্য নিক্ষেপণ কেন করা হয়? ২
অ গ. উদ্দীপকে এম. ভি. সুরমা কোন ধরনের চুক্তি করেছিল? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. বিমা কোম্পানির বিমা দাবি অস্বীকার কতটুকু যৌক্তিক? বিশ্লেষণপূর্বক উত্তর দাও। ৪
৮ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক নৌ-পথে চালিত জাহাজ, জাহাজস্থ পণ্য বা মাসুলের ঝুঁকি হ্রাসের জন্য যে বিমা করা হয় তাকে নৌ বিমা বলে।
খ জাহাজ বা জাহাজস্থ পণ্যকে বড় বিপদের হাত থেকে রক্ষার জন্য বাহিত পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে নিক্ষেপ করা হলে তাকে পণ্য নিক্ষেপণ বলে।
পণ্য নিক্ষেপণের মুখ্য উদ্দেশ্য হলো পণ্যবাহী জাহাজকে হালকা করে ডুবে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা। এরূপ ক্ষতির ঝুঁকি বিমাযোগ্য। বিমা কোম্পানি গড় হারে এর ক্ষতিপূরণে বাধ্য থাকে।
গ উদ্দীপকে এম.ভি. সুরমা নৌ বিমার অন্তর্ভুক্ত জাহাজ বিমাচুক্তি সম্পাদন করেছে।
সমুদ্রপথে জাহাজ চলাচলকালে জাহাজের আংশিক বা সামগ্রিক ক্ষতি মোকাবিলা করার জন্য যে বিমা করা হয় তাকে জাহাজ বিমা বলে।
উদ্দীপকে এম. ভি. সুরমা মংলা হতে ২০,০০০ মেট্রিক টন চাল নিয়ে চীনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। পথিমধ্যে অন্য জাহাজের ধাক্কায় এম. ভি. সুরমার ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়। সাধারণত জাহাজ বিমার মাধ্যমেই নৌপথে চলাচলকালে জাহাজের আংশিক বা সামগ্রিক ক্ষতিতে ক্ষতিপূরণের নিশ্চয়তা দেয়া হয়। উদ্দীপকে এম. ভি. সুরমা তথা জাহাজের ক্ষতি হয়েছে এবং এম. ভি. সুরমা উলি­খিত ক্ষতিপূরণের জন্য বিমা কোম্পানিকে বিমাদাবি পেশ করেছে। তাই বলা যায়, এম. ভি. সুরমা জাহাজ বিমা চুক্তি করেছিল।
ঘ উদ্দীপকে বিমা কোম্পানির বিমাদাবি অস্বীকার সম্পূর্ণ অযৌক্তিক।
বিমাদাবি বলতে বিমাকৃত অঙ্ককেই বুঝানো হয়। সাধারণত বিমাকৃত বিষয়বস্তু বিমাপত্রে উলি­খিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হলে বিমাদাবি পরিশোধ করা হয়।
উদ্দীপকে এম. ভি. সুরমা ঘূর্ণিঝড়ের আগাম বার্তা শুনে অন্য বন্দরে আশ্রয় নেয়। এতে পথিমধ্যে অন্য জাহাজের ধাক্কায় এম. ভি. সুরমার ক্ষতি হয়। কিন্তু গতিপথ পরিবর্তন করার বিমা কোম্পানি ক্ষতিপূরণ প্রদানে অস্বীকৃতি জানায়।
যাত্রাপথে পরিবর্তন না করা এম. ভি. সুরমার জন্য নৌ বিমাচুক্তির একটি অব্যক্ত শর্ত। এরূপ শর্ত ভঙ্গ হলে বিমা কোম্পানি বিমাদাবি পরিশোধে বাধ্য নয়। কিন্তু প্রতিক‚ল আবহাওয়ায় অর্থাৎ আগাম ঝড়ের বার্তা পেয়ে অন্য বন্দরে আশ্রয় নেয়ার এ চুক্তির অব্যক্ত শর্ত ভঙ্গ হয়েছে বলে গণ্য হবে না। কারণ জাহাজটিকে আরো বড় ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করার উদ্দেশ্যে এরূপ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সুতরাং, বিমা কোম্পানির বিমাদাবি অস্বীকার পুরোপুরি অযৌক্তিক।

মমমপ্রশ্ন৯ একটি জাহাজ ২০ এপ্রিল বন্দর ছেড়ে যাবে বলে নৌ বিমার চুক্তিপত্রে উলে­খ ছিল। কিন্তু জাহাজ যাত্রা শুরু করে ২২ এপ্রিল। জাহাজের ক্যাপ্টেন ইচ্ছামতো যাত্রাপথ পরিবর্তন করে। এক সময় সমুদ্রের গভীরে নিমজ্জিত একটি পাহাড়ে ধাক্কা লেগে জাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরবর্তীতে বিমা কোম্পানির নিকট ক্ষতিপূরণের দাবি পেশ করলে বিমা কোম্পানি তা বাতিল করে দেয়। [রা. বো., সি. বো. ১৬]
অ ক. দায় বিমা কাকে বলে? ১
অ খ. পণ্য নিক্ষেপণ বলতে কী বোঝায়? ২
অ গ. উদ্দীপকের জাহাজটিকে কোন নৌ বিপদ মোকাবিলা করতে হয়েছে? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. উদ্দীপকের আলোকে বিমা কোম্পানি কর্তৃক বিমা দাবি বাতিলের যৌক্তিকতা বিশ্লেষণ করো। ৪
৯ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক যে চুক্তি মোতাবেক নির্ধারিত ঝুঁকিজনিত যেকোনো ধরনের ক্ষতিপূরণ করার জন্য বিমাগ্রহীতার মতো বিমাকারী প্রতিষ্ঠানও সমভাবে দায়বদ্ধ থাকে তাকে দায় বিমা বলে।
খ জাহাজ বা জাহাজস্থ পণ্যকে বড় কোনো বিপদের হাত থেকে রক্ষা করতে পরিবাহিত পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে ফেলে দেয়াকে পণ্য নিক্ষেপণ বলে।
এর মুখ্য উদ্দেশ্য হলো পণ্যবাহী জাহাজকে কিছুটা হালকা করে ডুবে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা। বিমাকারী আনুপাতিক হারে বিমাগ্রহীতাকে এর জন্য ক্ষতিপূরণ প্রদান করে।
গ উদ্দীপকের জাহাজটিকে প্রাকৃতিক নৌ বিপদ মোকাবিলা করতে হয়েছে।
সমুদ্রপথে জাহাজ চলাচলের সময় প্রাকৃতিক উপায়ে সংঘটিত বিপর্যয় বা দুর্ঘটনাসমূহকে প্রাকৃতিক বিপদ বলে। প্রাকৃতিক বিপদ মানুষ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না তবে বিপদ থেকে আÍরক্ষার কৌশল অবলম্বন করতে পারে।
উদ্দীপকে দেখা যায়, বিমাচুক্তির শর্ত ভঙ্গ করে জাহাজটি ২০ এপ্রিল যাত্রা শুরু না করে ২২ এপ্রিল যাত্রা শুরু করে আবার ক্যাপ্টেন ইচ্ছামত যাত্রাপথ পরিবর্তন করে। ফলে এক সময় সমুদ্রে নিমজ্জিত একটি পাহাড়ে ধাক্কা লেগে জাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এখানে জাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হবার কারণ হচ্ছে নিমজ্জিত পাহাড়টি, যাকে আমরা প্রাকৃতিক কারণ বলতে পারি। দুর্ঘটনাটি প্রাকৃতিক এবং মানুষের নিয়ন্ত্রণের বাইরে। সুতরাং বলা যায়, জাহাজটিকে প্রাকৃতিক বিপদ মোকাবিলা করতে হয়েছে।
ঘ নৌ বিমাচুক্তিপত্রের সব শর্ত না মেনে চলাচল করায় বিমা কোম্পানি কর্তৃক বিমাদাবি বাতিলের সিদ্ধান্তটি যৌক্তিক হয়েছে।
চুক্তিপত্র বলতে বোঝায় এমন একটি দলিল যাতে বিভিন্ন শর্তাবলি স্পষ্ট করে লিখা থাকে এবং চুক্তির সকল পক্ষ সেই শর্তসমূহ মেনে চলবে এই মর্মে স্বীকৃতি দেয়। নৌ বিমা যেহেতু চুক্তিপত্রের মাধমেই সৃষ্টি হয় সুতরাং এর যাবতীয় শর্ত মেনে চলা বিমাগ্রহীতা ও বিমাকারীর দায়িত্ব।
উদ্দীপকের জাহাজটি ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং বিমা কোম্পানির নিকট ক্ষতিপূরণের দাবি পেশ করলে কোম্পানি তা বাতিল করে দেয়। যেহেতু বিমাগ্রহীতা চুক্তিপত্রের অব্যক্ত শর্ত ভঙ্গ করেছে সেহেতু জাহাজটি সমুদ্রের নিমজ্জিত পাহাড়ের সাথে ধাক্কা খায় এবং ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
নৌ বিমাচুক্তির ব্যক্ত বা প্রকাশিত শর্তাবলির মধ্যে সমুদ্রের যাত্রার তারিখ ২০ এপ্রিল ছিল। কিন্তু জাহাজটি ২২ এপ্রিল যাত্রা করে। আবার অব্যক্ত শর্তাবলির মধ্যে একটি উলে­খযোগ্য শর্ত হচ্ছে ক্যাপ্টেন নির্দিষ্ট পথে যাত্রা করবে এবং কোনো নির্দিষ্ট কারণ ব্যতীত যাত্রাপথ পরিবর্তন করতে পারবে না। কিন্তু উদ্দীপকে ক্যাপ্টেন যাত্রাপথ পরিবর্তন করেছে। চুক্তিপত্রের একটি শর্ত ভঙ্গ করলে বিমা কোম্পানি বিমাদাবি বাতিলের অধিকার রাখে। উদ্দীপকে জাহাজের ক্যাপ্টেন নৌ বিমার ব্যক্ত ও অব্যক্ত উভয় প্রকার শর্ত ভঙ্গ করেছে বলে বিমা কোম্পানি বিমাদাবি বাতিল করে। সুতরাং, উদ্দীপকে বিমা কোম্পানি কর্তৃক বিমাদাবি বাতিল করা যৌক্তিক।

মমমপ্রশ্ন১০ জনাব আফজাল সমুদ্রে চলাচলকারী তার জাহাজটি সাউথ এশিয়া ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের নিকট ধাক্কাজনিত বিপদের জন্য বিমা করেন। সমুদ্রে চলাচলের সময় একটি ভাসমান বরফ খণ্ডের সাথে ধাক্কা লেগে কিছুটা ক্ষতির সম্মুখীন হয় এবং নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি সমুদ্র পাহাড়ে আটকে যায়। সমুদ্র পাহাড় থেকে নামাতে ক’দিন বিলম্ব হওয়ায় এতে বাহিত পণ্য পচে নষ্ট হয়ে যায়। জনাব আফজাল বিমা দাবি করলে বিমা কোম্পানি দাবি পরিশোধ করে কিন্তু পণ্যের মালিক বিমা দাবি করলে বিমা প্রতিষ্ঠান বিমা দাবি প্রত্যাখ্যান করে। [দি. বো. ১৬]
অ ক. সামুদ্রিক ক্ষতি কী? ১
অ খ. পণ্য নিক্ষেপণ (ঔবঃঃরংড়হ) বলতে কী বোঝায়? ২
অ গ. উদ্দীপকের জনাব আফজালকে বিমা কোম্পানি কী ধরনের ক্ষতি পূরণ করছে? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. উদ্দীপকে পণ্যের মালিকের দাবি বিমা কোম্পানি কর্তৃক প্রত্যাখ্যান করার যৌক্তিক কারণ ব্যাখ্যা করো। ৪
১০ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক প্রাকৃতিক বা অপ্রাকৃতিক বিপদের কারণে সামুদ্রিক জাহাজ বা নৌ-যান সমুদ্রপথে মালামাল নিয়ে চলার সময় যে ক্ষতির সম্মুখীন হয় তাকে সামুদ্রিক ক্ষতি বলে।
খ জাহাজ বা জাহাজস্থ পণ্যকে বড় কোনো বিপদের হাত থেকে রক্ষা করতে পরিবাহিত পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে ফেলে দেয়াকে পণ্য নিক্ষেপণ বলে।
এর মুখ্য উদ্দেশ্য হলো পণ্যবাহী জাহাজকে কিছুটা হালকা করে ডুবে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা। বিমাকারী আনুপাতিক হারে বিমাগ্রহীতাকে এর জন্য ক্ষতিপূরণ প্রদান করে।
গ উদ্দীপকের জনাব আফজালকে বিমা কোম্পানি জাহাজের বিশেষ আংশিক ক্ষতির ক্ষতিপূরণ করেছে।
পণ্যসামগ্রী পরিবহনকারী জাহাজের সম্পূর্ণ অংশের পরিবর্তে বিশেষ কোনো অংশের ক্ষতি হলে তাকে জাহাজের বিশেষ আংশিক ক্ষতি বলা হয়। এরূপ ক্ষতির জন্য ক্ষতির সম্পূর্ণ অংশ ক্ষতিপূরণ করা হয়।
উদ্দীপকে জনাব আফজাল সাউথ এশিয়া ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির নিকট তার সমুদ্রে চলাচলকারী জাহাজটির নৌ বিমা করে। পরবর্তীতে সমুদ্রে চলাচলকালে একটি বরফ খণ্ডের সাথে ধাক্কা লেগে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সমুদ্র পাহাড়ে জাহাজটি আটকা পড়ে। এতে জাহাজটি কিছুটা ক্ষতির সম্মুখীন হয়। এক্ষেত্রে জনাব আফজাল জাহাজটির নৌ বিমা করায় তিনি জাহাজটির ক্ষতিপূরণ দাবি করলে বিমা কোম্পানি তাকে জাহাজের বিশেষ আংশিক ক্ষতির ভিত্তিতে বিমাদাবি প্রদান করে। এক্ষেত্রে জাহাজের আংশিক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। তাই বিমা কোম্পানি ক্ষতির সম্পূর্ণ অংশই ক্ষতিপূরণে বাধ্য হয়েছে। সুতরাং বলা যায়, বিমা কোম্পানি আংশিক ক্ষতির ভিত্তিতে জাহাজের বিশেষ আংশিক ক্ষতি প্রদান করেছে।
ঘ উদ্দীপকে পণ্যের মালিকের দাবি বিমা কোম্পানি কর্তৃক প্রত্যাখ্যান প্রত্যক্ষ কারণ নীতির আলোকে যৌক্তিক হয়েছে।
প্রত্যক্ষ কারণ নীতি অনুযায়ী বিমাকৃত সম্পত্তি প্রত্যক্ষ কারণ দ্বারা সংঘটিত হলেই বিমাকারী বিমাদাবি পূরণ করে, অন্যথায় নয়।
উদ্দীপকে এ মর্মে বিমাচুক্তি সম্পাদিত হয়েছে যে, ধাক্কাজনিত কারণে জাহাজ ও জাহাজস্থ মালামাল ক্ষতিগ্রস্ত হলে ক্ষতিপূরণ করা হবে। পথিমধ্যে ভাসমান বরফ খণ্ডের সাথে ধাক্কা লেগে জাহাজ সমুদ্রে পাহাড়ে আটকে পড়ে। সমুদ্র পাহাড় থেকে নামতে কয়েকদিন সময় লাগার কারণে জাহাজস্থ পণ্য নষ্ট হয়ে যায়। পণ্যের দাবি বিমাগ্রহীতা দ্বারা উত্থাপিত হলে বিমাকারী তা পূরণে অস্বীকৃতি জানায়।
প্রত্যক্ষ কারণ নীতি অনুযায়ী উদ্দীপকের বিমাচুক্তিতে বিমা কোম্পানি শুধু ধাক্কাজনিত কারণে ক্ষতি হলেই ক্ষতিপূরণে বাধ্য। কিন্তু এখানে পণ্য দ্রব্য নষ্ট ধাক্কাজনিত কারণে হয় নি। পণ্যদ্রব্য নষ্টের কারণ হলো জাহাজ সমুদ্র পাহাড়ে আটকে যাওয়া, যা বিমাচুক্তিতে উলে­খ ছিল না। তাই বিমা কোম্পানি ক্ষতিপূরণে অস্বীকৃতি জানায়, যা প্রত্যক্ষ কারণ নীতি অনুযায়ী যৌক্তিক।

মমমপ্রশ্ন১১ জনাব ইকবাল ‘রূপসী বাংলা’সহ আরও পাঁচটি জাহাজের মালিক। তিনি একই বিমাপত্রের অধীনে সবকটি জাহাজের জন্য ০১-০১-২০১৫ থেকে ৩১-১২-২০১৫ তারিখের মধ্যে সংঘটিত যেকোনো নৌ দুর্ঘটনার বিপক্ষে ‘সানরাইজ ইন্সুরেন্স কোম্পানির নিকট থেকে একটি বিমাপত্র গ্রহণ করেন। বিমাকৃত জাহাজের বর্তমান অবস্থান মান ও বাজারমূল্য বিবেচনায় এনে বিমা প্রিমিয়ামের পরিমাণ নির্ধারিত হয়। গত ০১-১০-২০১৫ তারিখে ‘রূপসী বাংলা’ জাহাজটি ঘূর্ণিঝড়ে আক্রান্ত হয়ে ডুবে যায়। জনাব ইকবাল বিমা কোম্পানির নিকট দাবি পেশ করলে কোম্পানি চুক্তি অনুসারে ক্ষতিপূরণ করে। পরবর্তীতে বিমা প্রতিষ্ঠানটি ডুবন্ত জাহাজটি উদ্ধার করে এবং তা শিপ, ব্রেকিং কোম্পানি কাছে ২০ লক্ষ টাকায় বিক্রয় করে। জনাব ইকবাল উদ্ধারকৃত জাহাজটির বিক্রয়মূল্য দাবি করলে বিমা প্রতিষ্ঠানটি তার দাবি নাকচ করে দেয়। [কু. বো. ১৬]
অ ক. নৌ বিপদ কী? ১
অ খ. জেটিসনের ফলে কোন ধরনের সামুদ্রিক ক্ষতির উদ্ভব হয়? বুঝিয়ে লেখো। ২
অ গ. জনাব ইকবাল কোন ধরনের নৌ বিমাপত্র গ্রহণ করেছিলেন? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. বিমা কোম্পানি কর্তৃক জনাব ইকবালের ২য় দাবিটি প্রত্যাখ্যানের যৌক্তিকতা বিশ্লেষণ করো। ৪
১১ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক সমুদ্রপথে যে সকল বিপদের কারণে জাহাজ, জাহাজস্থিত পণ্য ও মাশুলের ক্ষতি হয় তাকে নৌ বিপদ বলে।
খ জাহাজ ও জাহাজস্থিত পণ্যকে বড় ধরনের বিপদ থেকে রক্ষার জন্য পরিবহনকৃত পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে নিক্ষেপ করাকেই পণ্য নিক্ষেপণ বা জেটিসন বলে।
এরূপ পণ্য নিক্ষেপণের উদ্দেশ্য হলো পণ্যবাহী জাহাজকে কিছুটা হালকা করে ডুবে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করা। পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে ফেলায় আংশিক সামগ্রিক ক্ষতির উদ্ভব হয়।
গ উদ্দীপকে জনাব ইকবাল যে ধরনের নৌ বিমাপত্র গ্রহণ করেছিলেন তা ভাসমান বিমাপত্র।
যে বিমাপত্রের অধীনে একটি নির্দিষ্ট সময়ে একই মালিকের একাধিক জাহাজ, পণ্য বা মাশুলের ক্ষতির বিপক্ষে নৌ বিমা করা হয় তাকে ভাসমান বিমাপত্র বলে। যদি এ সময়ের মধ্যে বিমাকৃত বিষয়বস্তুর কোনো ক্ষতি হয় তাহলে বিমাকারী ক্ষতিপূরণ প্রদানে বাধ্য থাকবে।
উদ্দীপকে জনাব ইকবাল তার পাঁচটি জাহাজকে একই বিমাপত্রের অধীনে ০১-০১-২০১৫ থেকে ৩১-১২-২০১৫ইং তারিখ পর্যন্ত বিমা করেন। বিমাকৃত জাহাজের বর্তমান অবস্থা, মাল ও বাজারমূল্য বিবেচনায় এনে প্রিমিয়ামের পরিমাণ নির্ধারিত হয়। উক্ত সময়ের মধ্যে জাহাজের কোনো ক্ষতি হলে বিমাকারী ক্ষতিপূরণে বাধ্য থাকবে। একই বিমাপত্রের আওতায় ৫টি জাহাজ বিমা করায় বলা যায়, জনাব ইকবাল ভাসমান নৌ বিমাপত্র গ্রহণ করেছিলেন।
ঘ স্থলাভিষিক্ততার নীতি অনুযায়ী বিমা কোম্পানি কর্তৃক জনাব ইকবালের ২য় দাবিটি প্রত্যাখ্যান করা যৌক্তিক হয়েছে।
বিমাকৃত জাহাজের বা মালামালের সম্পূর্ণ ক্ষতি হলে বিমাকারী চুক্তি অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ প্রদান করে। সেক্ষেত্রে বিমাকৃত সম্পত্তির যা কিছু অবশিষ্ট থাকে তার মালিক হয় বিমা কোম্পানি। এটিই স্থলাভিষিক্তকরণ নীতি।
উদ্দীপকে জনাব ইকবাল তার পাঁচটি জাহাজের জন্য ভাসমান বিমাপত্র সংগ্রহ করেছেন। সম্প্রতি তার একটি জাহাজ ঘূর্ণিঝড়ে আক্রান্ত হয়ে ডুবে যায়। বিমা কোম্পানির নিকট জনাব ইকবাল ক্ষতিপূরণ দাবি করলে বিমা কোম্পানি ক্ষতিপূরণ করে। পরবর্তীতে বিমা কোম্পানি ডুবে যাওয়া জাহাজটি উদ্ধার করে ২০ লক্ষ টাকায় বিক্রয় করে। জনাব ইকবাল বিক্রয়মূল্য দাবি করলে বিমা কোম্পানি তা প্রত্যাখ্যান করে।
স্থলাভিষিক্ততার নীতি অনুযায়ী উদ্দীপকের ক্ষতিগ্রস্ত জাহাজ থেকে যে পরিমাণ উদ্ধার করা যায়, বিমাকারী তার মালিক হয়। তাই জনাব ইকবালকে বিমাদাবি পরিশোধের পর উদ্ধারকৃত জাহাজের মালিক বিমা কোম্পানি। এজন্য বিক্রয়লব্ধ ২০ লক্ষ টাকার পুরোটারই মালিক বিমা কোম্পানি। সুতরাং বিমা কোম্পানি কর্তৃক জনাব ইকবালের ২য় দাবিটি প্রত্যাখ্যান করা বিমা কোম্পানি কর্তৃক যৌক্তিক হয়েছে।

মমমপ্রশ্ন১২ ক্রিমসন পেইন্টস জার্মান থেকে নদীপথে ৫ কোটি টাকার কেমিক্যাল আমদানির প্রাক্কালে বিমা চুক্তি গ্রহণ করেন এবং এ প্রেক্ষিতে ১,০০,০০০ টাকার প্রিমিয়াম প্রদান করেন। পণ্যবাহী জাহাজটি সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে পড়লে ২ কোটি টাকার কেমিক্যাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
[চ. বো. ১৬]
অ ক. যুগ্ম বিমাপত্র কী? ১
অ খ. কখন সমুদ্রে পণ্য নিক্ষেপ করা হয় এবং কেন? ২
অ গ. উদ্দীপকে ক্রিমসন পেইন্টস কোন ধরনের নৌ বিমাপত্র গ্রহণ করেছিল? ব্যাখ্যা করো। ৩
অ ঘ. বিমা কোম্পানির কাছ থেকে কোম্পানিটি কত টাকা ক্ষতিপূরণ পেতে পারে? যুক্তিসহ বিশ্লেষণ করো। ৪
১২ নং প্রশ্নের উত্তর অ
ক যে বিমা ব্যবস্থায় একই বিমা পলিসির আওতায় একাধিক ব্যক্তির জীবনকে বিমা করা হয় তাকে যুগ্ম বিমা বলে।
খ ঝড়-ঝঞ্ঝা বা অন্য কোনো কারণে বিপদগ্রস্ত জাহাজকে হালকা করতে বাহিত পণ্যের অংশবিশেষ সমুদ্রে নিক্ষেপ করা হয়।
যাত্রাকালে পণ্য বহনকারী জাহাজ ও জাহাজে রক্ষিত পণ্যসমূহকে বিপদ বা ক্ষতির হাত থেকে রক্ষার জন্য পণ্যের অংশ বিশেষ সমুদ্রে নিক্ষেপ করা হলে তাকে পণ্য নিক্ষেপণ বলে। সামুদ্রিক বিপদ বা ক্ষতির হাত থেকে রক্ষার জন্য এটি একটি প্রচেষ্টা।
গ উদ্দীপকে ক্রিমসন পেইন্টস পণ্য বিমাপত্র গ্রহণ করেছিল।
নৌপথে পণ্য পরিবহনকালে জাহাজে রক্ষিত পণ্যের কোনো ক্ষতি হতে পারে। এ ক্ষতির বিপরীতে যে বিমা করা হয় তাকে পণ্য বিমা বলে। পণ্য বিক্রয় শর্ত অনুযায়ী পণ্যের ক্রেতা বা বিক্রেতা এ বিমা গ্রহণ করে।
উদ্দীপকে ক্রিমসন পেইন্টস জার্মান থেকে ৫ কোটি কেমিক্যাল নদীপথে আমদানি করবে। এজন্য একটি বিমাপত্র গ্রহণ করে ও ১,০০,০০০ টাকা প্রিমিয়াম পরিশোধ করে। এখানে কোম্পানিটি জাহাজে বাহিত পণ্যের জন্য পণ্য বিমাপত্র গ্রহণ করে। কেননা, পণ্য বিমায়, বিমাকারী জাহাজে বাহিত পণ্য একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত হলে এর দায় বহন করে। ক্রিমসন পেইটস পণ্য ক্ষতির ঝুঁকি মোকাবিলায় বিমাপত্র গ্রহণ করেছেন বলে এটি পণ্য বিমাপত্র।
ঘ বিমা কোম্পানির কাছ থেকে ক্রিমসন পেইন্টস সম্পূর্ণ ক্ষতিপূরণই পেতে পারে।
আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যে প্রচুর পরিমাণে পণ্য সমুদ্রপথে পরিবাহিত হয়। তাই পরিবাহিত পণ্যের ঝুঁকি নিরসনের জন্য পণ্য বিমা করা হয়। বিমাকৃত পণ্য ক্ষতিগ্রস্ত হলে আমদানিকারক বিমাপত্রটি প্রদর্শনপূর্বক ক্ষতি আদায় করে।
উদ্দীপকে ক্রিমসন পেইন্টস জার্মান থেকে ৫ কোটি টাকার কেমিক্যাল আমদানি করবে। নদীপথে পণ্য পরিবহনের ঝুঁকি এড়াতে ১,০০,০০০ টাকা প্রিমিয়াম প্রদান করে কোম্পানিটি একটি বিমাপত্র গ্রহণ করে। জাহাজটি সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে পড়লে ২ কোটি টাকর কেমিক্যাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
পণ্য বিমার ক্ষেত্রে বাহিত পণ্যের কোনো ক্ষতি হলে বিমাকারী বিমাপত্রটি প্রদর্শন করে বিমা কোম্পানির কাছ থেকে বিমাদাবি আদায় করে। এক্ষেত্রে বিমা কোম্পানি বিমাগ্রহীতা ক্রিমসন পেইন্টসকে তাদের সম্পূর্ণ ক্ষতিরই ক্ষতিপূরণ করবে। কেননা, ক্ষতিপূরণের নীতি ও মূল্যায়িত বিমার শর্ত অনুযায়ী পণ্যের বিমাকৃত মূল্য পর্যন্ত বিমা কোম্পানি ক্ষতিপূরণে বাধ্য থাকে। তাই ৫ কোটি টাকা মূল্যের কেমিক্যাল থেকে ২ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে বিমা কোম্পানি ক্রিমসন পেইন্টসকে ২ কোটি টাকাই ক্ষতিপূরণ করবে।

প্রিয় জনের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply